ঢাকা, শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মমতাকে শেখ হাসিনার উপহার: বিচলিত মোদী?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০২০ সোমবার, ০৯:০০ পিএম
মমতাকে শেখ হাসিনার উপহার: বিচলিত মোদী?
আসন্ন দুর্গা পুজা উপলক্ষ্যে পশ্চিম বাংলার মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীকে উপহার পাঠিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতি বছর পুজাতেই ‘নবান্ন’তে পৌছে যায় শেখ হাসিনার উপহার। তিস্তার পানি দিতে যতোই আপত্তি করুন না কেন মমতা, শেখ হাসিনার ব্যাপারে তিনি সব সময়ই উচ্ছসিত। ‘দিদি’ বলতে অজ্ঞান। একাধিক বক্তৃতা এবং সাক্ষাৎকারে মমতা বলেছেন, ‘দিদি’ (শেখ হাসিনা) থেকে আমি অনেক প্রেরণা পাই।’ দুই দেশের স্বার্থের বেড়াজালে আটকে যায়নি, দুই নারী নেত্রীর ঘনিষ্ঠতা।
 
তবে, এবারের উপহারের বিষটি একটু ভিন্ন। একে তো করোনা কালে বিমান চলাচল বন্ধ। তার উপর মোদী বিরোধী রাজনৈতিক মোর্চায় মমতার নাম সবচেয়ে আলোচনায়। বিমান বন্ধ তাতে কি? বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মমতা ব্যানাজীর জন্য উপহার পাঠালেন সড়ক পথে। বেনাপোল দিয়ে এই উপহার পৌছে দেয়া হলো মমতার বাড়ি নবান্নতে।
 
এবার আসা যাক, রাজনৈতিক প্রসঙ্গে। ভারতে মোদীর বিরুদ্ধে একট্টা হয়েছে ভারতের রাজনৈতিক দল গুলো। বিহার নির্বাচন নিয়ে মোদীর ঘুম হারাম। অনেকেই মনে করেন, বিহার নির্বাচনের জন্যই হয়তো মোদী সরকার বাংলাদেশে পিয়াজ রপ্তানী বন্ধ করেছে। আর এই নির্বাচনে মোদীর বিজেপিকে হারাতে যারা আদাজল খেয়ে লেগেছে তাদের মধ্যে মমতা অন্যতম। এ ব্যাপারে মমতার হিসেব খুব পরিস্কার। বিহারে মোদীর বিজেপিকে পরাজিত করা হলে, তারা পশ্চিমবঙ্গে আঁচড় দিতে পারবে না।
 
গত নির্বাচনের পরই মমতাকে বিজেপি এই বলে শাসিয়েছে যে, আগামীতে পশ্চিম বাংলায় তৃণমূলের নাম নিশানা মুছে দেয়া হবে। ফলে, ভারতের রাজনীতিতে স্বাভাবিক রাজনৈতিক সৌজন্যতা ক্রমশ ম্লান হয়ে যাচ্ছে। রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতা এখন ক্রমশ চরম আকার ধারণ করছে। এ রকম বাস্তবতায়, উগ্র জাতীয়তাবাদী রূপ গ্রহণ করেছে মোদী সরকার।
 
তাই, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে যখন আবেগে জড়িয়ে ধরেন প্রিয়াংকা গান্ধী। তখন মোদী সরকার অভিমান করে। এখন মমতা কে উপহার পাঠালেন শেখ হাসিনা। এতে কি মন খারাপ করলেন মোদী? কারণ এ মুহূর্তে মোদীর শত্রুর তালিকার প্রথম দিকেই মমতার নাম থাকবে। সেই শত্রুর সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর এই সখ্যতায় কি বিচলিত নরেন্দ্র মোদী? অবশ্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এর মাধ্যমে ভারতের আগ্রাসী রাজনীতির জন্য একটি বার্তাও দিয়েছেন।
 
মমতা তিস্তার পানি আটকে রেখেছেন, তাতে কি? উপহার দেয়ার সৌজন্যতা কেন নষ্ট হবে। ব্যক্তিগত সম্পর্ক কেন স্বার্থের দ্বন্ধে ফিকে হয়ে যাবে। এমন বার্তা শেখ হাসিনা ক’দিন আগেও দিয়েছিলেন। ভারত যেদিন পিয়াজ বন্ধ করলো, সেদিন তিনি ইলিশ পাঠিয়ে ভারতকে উদারতা শেখালেন। কিন্তু বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর এই বার্তা কি বোঝে ভারত?