ঢাকা, শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

যুবলীগের কমিটির কি হবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০২০ মঙ্গলবার, ১১:০২ এএম
যুবলীগের কমিটির কি হবে?

আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অধিবেশনের আগে যেসব অঙ্গ সংগঠনের সম্মেলন হয়েছিল তার মধ্যে ৪ টি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গতকাল ঘোষণা করা হয়েছে। সবচেয়ে বেশি আলোচিত সহযোগী সংগঠন হচ্ছে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। কিন্তু সেই সংগঠনের কমিটি এখনও ঘোষিত হয়নি। যুবলীগের কমিটির কি অবস্থা যে বিষয়ে কোনো নেতৃবৃন্দ কিছু জানাতে পারেননি।

আওয়ামী লীগের একজন প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেছেনে যে সাধারণত সম্মেলনের পরে যুবলীগের চেয়ারম্যান এবং সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার জন্য। কিন্তু এবার যুবলীগের কংগ্রেস হয়েছিল ভিন্ন পেক্ষাপটে। ক্যাসিন বাণিজ্য, দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে যুবলীগের একাধিক নেতা বহিষ্কৃত এবং গ্রেফতার হওয়ার পেক্ষাপটে ওই কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয়।

গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয় এবং শুদ্ধি অভিযানের প্রধান টার্গেট ছিলো যুবলীগ। ঢাকা দক্ষিণের যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ, দক্ষিণের নেতা আরমান, দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটসহ একাধিক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জিকে শামীমসহ একাধিক নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। সেসময় যুবলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে কমিটি বানিজ্যসহ একাধিক অভিযোগ ওঠে। সেই পেক্ষিতে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীকে দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। সেসময় একটি সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মাধ্যমে যুবলীগের কংগ্রেস   অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু কংগ্রেস অনুষ্ঠানের এক বছর হতে চললেও এখন পর্যন্ত কোনো পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয়নি। এই কমিটি কবে হবে সে সম্পর্কে কেউ কিছু বলতে পারছেন না।

আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেছেন, যেহেতু যুবলীগ নিয়ে ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে এবং যুবলীগের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রবেশকারীর অভিযোগ তাই যুবলীগের কমিটি অনেক সময় নিয়ে করা হচ্ছে। যুবলীগের নতুন চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ এবং সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল এখন কমিটি গঠনের কাজ করছেন। তবে তারা সতর্কতার সঙ্গে কাজ করছেন যাতে কোনোভাবেই বিতর্কিত ব্যক্তি যুবলীগের কমিটিতে ঢুকতে না পারে। তবে গত কিছুদিন ধরেই লক্ষ করা যাচ্ছে যে আওয়ামী লীগের সবচেয়ে শক্তিশালী সহযোগী সংগঠন হিসেবে পরিচিত যুবলীগের কার্যক্রম স্থির হয়ে যাচ্ছে। আগে যুবলীগের যে সাংগঠনিক প্রভাব ছিলো সেটিও হ্রাস পাচ্ছে। এরকম বাস্তবতায় যুবলীগ সংগঠন হিসেবে কতটা টিকে থাকতে পারবে, না পারবে সেটি নির্ভর করছে নতুন কমিটি কবে এবং কীভাবে হবে তার ওপর।