ঢাকা, রোববার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

প্রচারণা শেষ: রাত পেরোলেই নির্বাচন

মাহমুদুল তুহিন
প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২১ মঙ্গলবার, ০৮:০০ এএম
প্রচারণা শেষ: রাত পেরোলেই নির্বাচন

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনের শেষ প্রচারণা ছিল গতকাল (২৫ জানুয়ারি)। নিজ নিজ নির্বাচনী প্রচারণা ইতিমধ্যেই সেরে নিয়েছে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মেয়র প্রার্থীরা। নির্বাচনী প্রচারণায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা: শাহাদাত হোসেন থেকে অনেকটাই এগিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম। কারণ, বিএনপির সাংগঠনিক দূর্বলতা এবং নেতৃত্বের সর্বোচ্চ পর্যায়ের দ্বন্দ্বের ফলে চসিক নির্বাচনে বিএনপির চট্টগ্রামের হেভিওয়েট নেতারা নীরব ভূমিকা পালন করে। এর ফলে নির্বাচনী প্রচারণায় পিছিয়ে যাওয়া বিএনপি কেন্দ্রীয় ভাড়াটে নেতাদের এনে প্রচারণা চালায়। এতে বিড়ম্বনার শিকার হয় বিএনপি। কারণ, চট্টগ্রামের রাজনৈতিক ঐতিহ্যে বহিরাগত নেতাদের গ্রহণযোগ্যতা নেই ভোটারদের কাছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক ঐক্যবদ্ধতার কারণে স্থানীয় নেতাদের প্রচার প্রচারণায় বেশ সরব ছিল নৌকা প্রার্থী।

এই দিক থেকে আওয়ামী লীগ এগিয়ে থাকলেও বিদ্রোহী প্রার্থীদের কোন্দলের কারণে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে। তবে গত কয়েকদিন ধরেই বিদ্রোহীদের সাবধান করে হুশিয়ারি বার্তা দেয়া হয় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতারা। এমনকি প্রধানমন্ত্রী নিজেও বিদ্রোহীদের বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের সিধান্ত দেন। এর ফলে পৌরসভা নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মাথাচাড়া দিয়ে উঠার যে প্রবণতা দেখা গিয়েছিল তার ঠিক উল্টা চিত্র দেখা যাচ্ছে চসিক নির্বাচনে। এর ফলে নির্বাচনে নৌকা সুবিধাজনক অবস্থানে আছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

অন্যদিকে, স্থানীয় নেতৃত্বের অভাবে বিড়ম্বনার শিকার হওয়ার পর বিএনপি গত দুইদিন ধরে নির্বাচনী প্রচারণায় স্থানীয় নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ছাড়া আর কাউকে দেখা যায়নি। সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান, সাবেক মেয়র মীর মোহাম্মদ নাসিরুদ্দিন সহ আরোও অনেকই এখনো নীরব। তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নির্বাচনকে ঘিরে বেশ সরব এবং বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা: শাহাদাত হোসেনের স্থানীয় জনপ্রিয়তায় ধানের শীষও সুবিধাজনক অবস্থানে আছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

নানান বিচার বিশ্লেষণ, সংঘর্ষ-সংঘাত এবং অন্তর্দ্বন্দের পরও ভোট দিতে উৎসুক ভোটাররা। রাত পেরোলেই অনুষ্ঠিত চসিক নির্বাচনে কে হতে যাচ্ছে নতুন মেয়র তা নির্ধারণ হবে জনগণের ভোটে।