ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

কাল থেকে ‘বহিষ্কার’ পর্ব শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৬ জানুয়ারি ২০২১ মঙ্গলবার, ০৭:৫৭ পিএম
কাল থেকে ‘বহিষ্কার’ পর্ব শুরু হচ্ছে আওয়ামী লীগে

পৌরসভা নির্বাচনকে বিদ্রোহী প্রার্থী মুক্ত করতে আগামীকাল থেকে বহিষ্কার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আজ ছিলো চতুর্থ ধাপে ৫৭টি পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এর মধ্যে একটি পৌরসভায় একক প্রার্থী থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। বাকী ৫৬টি পৌরসভায় আওয়ামী লীগের ৩৮ জন বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন। ঐ সব বিদ্রোহী প্রার্থীকে স্ব স্ব বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকরা টেলিফোনে তাদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেন। তাদের এটাও জানিয়ে দেয়া হয় যে, দলীয় নির্দেশ অমান্য করে আজকের মধ্যে প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করা হলে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, আগামীকাল বুধবার বিকেলের মধ্যে জানা যাবে, দলীয় নির্দেশ অমান্য করে কারা বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মাঠে থাকলেন। আগামীকাল প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে। যারা আজ মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করেননি, কাল তালিকা প্রকাশ করে তাদের বহিষ্কারাদেশের ঘোষণা দিতে পারে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের একজন সাংগঠনিক সম্পাদক বলেছেন ‘এব্যাপারে আর কোন ছাড় দেয়া হবে না।’ চতুর্থ দফার ভোট হবে ১৪ ফেব্রুয়ারি। নির্বাচন কমিশন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে ৫৭ পৌরসভায় মেয়র পদে বৈধ প্রার্থী ২৫৮ জন। এর মধ্যে ফেনীর পরশুরাম পৌরসভার মেয়র পদে একজন প্রার্থী থাকায় তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। অন্য যে সব পৌরসভায় ১৪ ফেব্রুয়ারি ভোট হয়েছ, সেগুলো হলো; ঠাকুরগাঁও সদর এবং রানী সংকৈল, রাজশাহীর নওহাটা, তানোর গোদাগাড়ী ও তাহেরপুর, লালমনিরহাট সদর ও পাটগ্রাম, নরসিংদী সদর ও মাধবদী, রাজবাড়ী সদর ও গোয়ালন্দ, বরিশালের মুলাদী ও বানাড়ীপাড়া, শেরপুর সদর ও শ্রীবরদী, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ, নাটোরের বড়াই গ্রাম, খাগড়াছড়ির মাটি রাঙা, বান্দরবন সদর, বাগের হাট সদর, সাতক্ষীরা সদর, হবিগঞ্জের চুনারুঘাট, কুমিল্লার হোমনা ও দাউদ কান্দি, চট্টগ্রামের সাতকানিয়া, চন্দনাইশ ও পটিয়া, কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর, হোসেনপুর ও করিমগঞ্জ, টাঙ্গাইলের গোপালপুর ও কালিহাতি, পটুয়াখালীর কলাপাড়া, চুয়াডাঙ্গার জীবন নগর ও আলমডাঙ্গা, ফেনীর পরশুরাম, চাঁদপুরের কচুয়া ও ফরিদগঞ্জ, মাদারীপুরের কালকিনি, নেত্রকোনা সদর, যশোরের চৌগাছা ও বাঘারপাড়া রাঙামাটি সদর, মুন্সীগঞ্জের মীর কাদিম, শরীয়তপুরের ডামুড্যা, জামালপুরের মেলান্দহ, ময়মনসিংহের ফুলপুর, জয়পুর হাটের আক্কেলপুর ও কালাই, নোয়াখালীর চাটখিল, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া, লক্ষ্মীপুরের রামগতি, ফরিদপুরের নগরকান্দা ও সিলেটের কানাইঘাট।

এখানে যে ৩৮টি পৌরসভার বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন, তাদের বহিষ্কারাদেশ তৈরী করা হচ্ছে। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, প্রথম তিন ধাপের নির্বাচনে যারা বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন তাদেরও বহিষ্কার করা হবে।