ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

চাপ বাড়ছে সরকারের

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বুধবার, ০৬:৫৯ পিএম
চাপ বাড়ছে সরকারের

ঘরে বাইরে নানা রকম চাপে সরকার। একটি চাপ থেকে উত্তরণের পর, নতুন করে আরেকটি চাপে পড়ছে। এই চাপগুলো বিচ্ছিন্ন না পরিকল্পিত এ নিয়েও ক্ষমতাসীন দলের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু এইসব ঘটনা সরকারের জন্য অস্বস্তিকর বলেই মনে করছেন আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারকরা। সাম্প্রতিক সময়ে ৫টি বিষয়ে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি হয়েছে বলে নীতি নির্ধারকরা মনে করছেন। বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে বলেও সরকারি সূত্রগুলো জানিয়েছে। যে বিষয়গুলো নিয়ে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি হচ্ছে, সেগুলো হলো:

১. শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও আবাসিক হল খোলা : দেশের শিক্ষাঙ্গন ক্রমশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। দীর্ঘ একবছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের ধৈর্যের বাধ ভেঙ্গে গেছে। সরকারের কাছে তথ্য আছে, এই আন্দোলনকে কোনো কোনো মহল উস্কে দেয়ার চেষ্টা করছে। যেকোনো সরকারের জন্য ছাত্র আন্দোলন ঝুঁকিপূর্ণ এবং বিপদজ্জনক। তাই আপাত বিচ্ছিন্ন এই আন্দোলন যে কোনো সময় অন্যদিকে মোড় নিতে পারে, এমন আশঙ্কা অনেকের।

২. আওয়ামী লীগের কোন্দল : আওয়ামী লীগের প্রকাশ্য কোন্দল সরকারের উপর বড় ধরনের চাপ সৃষ্টি করছে। আগে বিরোধীদল আওয়ামী লীগের সমালোচনা করতো, এখন করছে আওয়ামী লীগের নেতারাই। আওয়ামী লীগের নেতাদের লাগামহীন বক্তব্য সরকারকে চাপে ফেলছে।

৩. প্রশাসনে অসন্তোষ : চুক্তি ভিত্তিক নিয়োগ, কোটারী ভুক্ত ব্যক্তিদের পদোন্নতি ইত্যাদি নিয়ে প্রশাসনে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। যারা ক্ষমতাবান থাকছেন, তারাই তাদের পছন্দের ব্যক্তিদের পদোন্নতি দিচ্ছেন। যোগ্যতা যাচাই করা হচ্ছে না, এরকম অভিযোগ নিয়ে সচিবালয়ে প্রকাশ্য আলোচনা হচ্ছে। এর ফলে আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের মিত্র প্রশাসনে অসন্তোষ বাড়ছে।

৪. সরকার বিরোধী লাগাতার প্রচারণা : সরকারের বিরুদ্ধে দেশের বাইরে থেকে বিরামহীন প্রচারণা চলছে। প্রতিদিন একগাদা আপত্তিকর কনটেন্ট ছাড়া হচ্ছে ফেসবুক এবং ইউটিউবে। প্রথমে এটা সরকার উপেক্ষা করলেও এখন এটা এক ধরনের চাপ সৃষ্টি করছে।

৫. দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতিতে জনজীবনে অস্থিরতা : দ্রব্যমূল্যের লাগামাহীন উর্ধ্বগতি জনগণের জন্য একটি বাড়তি চাপ সৃষ্টি করেছে। এর ফলে এখন জনগণের মধ্যে অসন্তোষ বাড়ছে। এটি সরকারের জন্য একটি বড় চাপ হিসেবে সামনে এসেছে।

আর এই চাপ মোকাবেলা করে সরকারকে সামনে এগিয়ে যেতে হবে বলেই মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।