ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

খালেদার অসুস্থতা: প্রধানমন্ত্রী কি ভাবছেন?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫ মে ২০২১ বুধবার, ০৭:৫৯ পিএম
খালেদার অসুস্থতা: প্রধানমন্ত্রী কি ভাবছেন?

বেগম খালেদা জিয়া এখন অসুস্থ হয়ে সিসিইউতে আছেন। তার শারীরিক অবস্থার সম্বন্ধে এক ধরনের অস্পষ্টতা এবং লুকোচুরি খেলা চলছে। কোনো চিকিৎসকই সঠিকভাবে বলছেন না তার প্রকৃত অবস্থা কি। তবে এভারকেয়ার হাসপাতালের বিভিন্ন চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা গেছে যে, বেগম খালেদা জিয়া এখনও অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন। তবে সিসিইউতে যাওয়ার পরে তারা অবস্থার কোনো অবনতি হয়নি। এটি ভালো লক্ষণ। বেগম খালেদা জিয়ার এই শারীরিক অবস্থার প্রেক্ষিতে তার বিদেশ যাওয়া নিয়ে গুঞ্জন উঠেছে। বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা এবং বিএনপি`র পক্ষ থেকে কেউ কেউ মনে করছেন তার উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নিয়ে যাওয়া উচিৎ। তবে বিএনপিপন্থী চিকিৎসকদের মধ্যেও এ নিয়ে মতবিরোধ রয়েছে। বিএনপিপন্থী চিকিৎসকদের অনেকেই মনে করছেন, বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা দেশেই হওয়া উচিত। এখন তাকে বিদেশে নেওয়ার ঝুঁকি নেয়াটি ঠিক হবে না।

গতকাল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন যে, বেগম খালেদা জিয়াকে দেশেই চিকিৎসা দেয়া উচিত। এখন বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার দেওয়াটা হবে বোকামি। শেষ পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়া বিদেশে চিকিৎসা করতে যাবেন কিনা সেটি একটি প্রশ্ন। গতকাল বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে আওয়ামী লীগের অন্তত দুইজন নেতা কথা বলেছেন এবং তাদের দুজনেরই কথা অত্যন্ত দায়িত্বশীল এবং রুচিশীল। এদের মধ্যে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, করোনাকে জয় করে বেগম খালেদা জিয়ার ফিরে আসুক। আর আওয়ামী লীগ আরেক নেতা মাহবুবুল আলম হানিফ এক অনুষ্ঠানে বলেছেন যে, বেগম খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে উঠুন এটা আমরা চাই এবং আমরা তার আরোগ্য কামনা করি। আওয়ামী লীগের আরেক নেতা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন যে, বেগম খালেদা জিয়া তার ইচ্ছায় এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এখানে সরকারের করনীয় এখন পর্যন্ত কিছু নেই। তিনি এটাও জানান যে, সরকারের কাছে এখন পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়ার বিদেশ যাওয়া নিয়ে কোনো আবেদন আসেনি। 

তবে বেগম খালেদা জিয়া প্রধান রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ এবং দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহযাত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বেগম খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে কি ভাবছেন সেটি নিয়ে জনমনে নানা রকম উৎসাহ এবং কৌতুহল রয়েছে। শেখ হাসিনা এবং বেগম খালেদা জিয়া দুইজনই নেত্রী হিসেবে পরিচিতি পান স্বৈরাচারী এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের মধ্য দিয়ে। এই আন্দোলনে বিজয়ের পেছনে দুই নেত্রীর অবদানকে গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ মনে করা হয়। এরশাদের পতনের পর বেগম খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী হন এবং শেখ হাসিনা বিরোধী দলের নেতা হন। আশির দশক থেকে ২০১৪ এর নির্বাচনের আগ পর্যন্ত শেখ হাসিনা এবং খালেদা জিয়া দুই নেত্রী ছিলো একটি বহুল উচ্চারিত রাজনীতির নাম। একজন আরেকজনের চরম প্রতিপক্ষ ছিলো এবং একজন আরেকজনের সমালোচনায় মুখর থাকতেন। 

কিন্তু তারপরও তাদের এই দুই নারী নেতৃত্বের হাত ধরেই বাংলাদেশ গণতন্ত্র এনেছে এবং গণতন্ত্রকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে তারা ভূমিকা রেখেছেন। যদিও বিএনপি`র জন্ম ক্যান্টনমেন্টের সামরিক বেষ্ঠনীতে এবং খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে দুর্নীতি, লুটপাট, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলাসহ নানারকম অপকর্মের দায়ে অভিযুক্ত হয়েছেন। রাজনীতিকে কলুষিত করার যে দায় সে দায় বেগম খালেদা জিয়ার ওপর অনেকখানি পৌঁছায়। তারপর দুই নেত্রী যখন ২০০৭ এ কারাবরণ করেছিলেন সেই সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খালেদা জিয়ার জন্য যে সহানুভূতি দেখেছিলেন, তার জন্য খাবার পাঠিয়েছিলেন, সেই প্রেক্ষাপট থেকেই সাধারণ মানুষের মধ্যে কৌতূহল, খালেদার অসুস্থতায় প্রধানমন্ত্রী কি ভাবছেন। তবে এখন পর্যন্ত খালেদা জিয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কোনো আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।