ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

উপনির্বাচন: স্থানীয়দের ওপর কি ভরসা রাখবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি?

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯ জুন ২০২১ বুধবার, ০৯:০০ পিএম
উপনির্বাচন: স্থানীয়দের ওপর কি ভরসা রাখবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি?

তিনটি উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়েছে। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। আগামীকাল এই মনোয়নয়ন ফরম বিক্রি এবং জমাদানের শেষ দিন। এরই মধ্যে বিপুল সংখ্যক ফরম বিক্রি হয়েছে। বিশেষ করে অতি গুরুত্বপূর্ণ আসন ঢাকা-১৪ আসনে মনোনয়ন ফরম বিক্রির দিক থেকে এগিয়ে আছে। গতকাল পর্যন্ত ৭৬ জন তিনটি আসনের উপনির্বাচনের জন্য দলীয় ফরম ক্রয় করেছেন। এর মধ্যে ঢাকা-১৪ আসনে এখন পর্যন্ত ২৬ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ফরম সংগ্রহ করাদের মাঝে দেখা গেছে স্থানীয়দের প্রাধান্যই সব থেকে বেশি। এ কারণে অনেক নেতার মনেই প্রশ্ন উঠেছে এই তিন আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা কি স্থানীয়দের ওপরই ভরসা রাখবেন?

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-১৪, কুমিল্লা-৫ এবং সিলেট-৩ আসনে স্থানীয়রাই প্রচার প্রচারণার দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন। ব্যানারে ব্যানারে ছেয়ে গেছে নির্বাচনী এলাকাগুলো। এলাকার দলীয় কর্মীরা বলছেন, আওয়ামী লীগ সভাপাতি যাকে মনোনয়ন দেবেন, তার হয়েই আমরা কাজ করবাে। বিভিন্ন নেতারা বলছেন, আর কিছুদিন পরেই জাতীয় নির্বাচন। জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের ভারসম্য রক্ষা এবং দলকে সুসংগঠিত করতে আওয়ামী লীগ সভাপতি স্থানীয়দের ওপরই ভরসা রাখতে পারেন। কারণ স্থানীয়রাই তৃণমূলের নেতার্মীদের চাঙ্গা রাখতে পারবে এবং জাতীয় নির্বাচনে এটি অনেক বেশি দরকার।

বর্তমানে করোনার কারণে দলীয় কার্যক্রম নেই বললেই চলে। শুধুমাত্র দিবসভিত্তিক কিছু কর্মসূচি ছাড়া আর কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি নেই। ফলে দলে কর্মীরা একধরনের ঝিমিয়ে পড়েছে। ফলে এই নির্বাচন কিছুটা হলেও দলীয় নেতাকর্মীদের একটু রাজনৈতিক কার্যক্রম করার সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছে। যদিও আওয়ামী লীগের কাছে এই উপনির্বাচন এক অর্থে অর্থহীন কারণ এই উপনির্বাচনের মাধ্যমে কোনো সরকার পরিবর্তন হবে না। এই উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ যদি সবগুলো আসনেও পরাজিত হয় তাহলেও আওয়ামী লীগের কোনো লাভ ক্ষতি নেই। কিন্তু তারপরও এই উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের আগ্রহের কমতি নেই। যদিও বিএনপি অংশগ্রহণ না করার ফলে এই নির্বাচন একটি স্রেফ আনুষ্ঠানিকতায় পরিণত হয়েছে। অর্থাৎ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন যিনি পাবেন তিনি নির্বাচনে বিজয়ী হবেন। ফলে আওয়ামী লীগের মধ্যে এই নির্বাচন নিয়ে এক ধরনের উত্তেজনা তৈরি হয়েছে।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, অনেক দিন দলীয় কর্মসূচি না থাকায় নেতাকর্মীরা ঝিমিয়ে পড়েছিল। এই উপনির্বাচন আবার তাদের চাঙ্গা করেছে। এখন আওয়ামী লীগ সভাপতি যদি স্থানীয়দের ওপর ভারসা রাখেন তাহলে নির্বাচন আরও জাকজমক পূর্ণ হবে। কারণ স্থানীয়দের প্রতি স্থানীয় এলাকাবাসীর একটি ভালোবাসার জায়গা রয়েছে। আর সেই অবস্থাটা সম্পর্কে সব থেকে ভালো ওয়াকিবহাল আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। এখন দেখাই যাক আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা স্থানীয়দের ওপরই ভরসা রাখেন কি না?