ঢাকা, রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

দলীয় মনোনয়নে আওয়ামী লীগের ইতিবাচক বার্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২১ শনিবার, ০৯:০০ পিএম
দলীয় মনোনয়নে আওয়ামী লীগের ইতিবাচক বার্তা

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জাতীয় সংসদে তিনটি শূন্য পদে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হলো। মৃত্যুজনিত কারণে ঢাকা-১৪, কুমিল্লা-৫ এবং সিলেট-৩ আসনে সংসদ সদস্য পদ শূন্য হয়।

ঢাকা-১৪ আসনে আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য আসলামুল হক, সিলেট-৩ আসনে মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী ও কুমিল্লা-৫ আসনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে আসন তিনটি শূন্য হয়। ২৮ জুলাই এই তিন আসনের নির্বাচন আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

তিনটি সংসদীয় আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ দলীয় নেতাদের প্রার্থী করেছে। কোন নবাগত ব্যক্তি, ব্যবসায়ী কিংবা আমলাকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়নি। অর্থাৎ প্রকৃত দলীয় নেতাদেরকেই আওয়ামী লীগ মনোনয়নের ক্ষেত্রে বেঁচে নিচ্ছে। এই ধারাটি একেবারে নতুন নয়। মূলত ২০০৮ এর নির্বাচন থেকেই আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে এই চর্চা করে আসছে। গত তিনটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুই একটি আসনে নিজস্ব দলীয় প্রার্থী না থাকায় রাজনীতির বাইরের লোককে ঐ আসনগুলোতে  মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল। নব্বইয়ের দশকে বিশেষ কিছু কারণে  রাজনীতিতে আমলা ও ব্যবসায়ীদের গুরুত্ব ছিল। রাজনৈতিক দলগুলোর নানা দুর্বলতার কারণে মূলত এটি হয়েছিল। বর্তমানে সেই অবস্থার অনেকটা পরিবর্তন হয়েছে। বিশেষ করে, আওয়ামী লীগের নীতিতে ব্যাপক ইতিবাচক পরিবর্তন হয়েছে। বর্তমানে আওয়ামী লীগ সাংগঠনিকভাবে অনেক সুশৃঙ্খল ও সুদৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে আছে। নিজস্ব দলীয় নেতাদের বাদ দিয়ে আমলা কিংবা ধনাঢ্য ব্যবসায়ীকে মনোনয়ন দেয়ার সংস্কৃতি থেকে আওয়ামী বেরিয়ে এসেছে। বিএনপি এখনো আগের জায়গায়ই রয়ে গেছে। সর্বশেষ ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্ব লন্ডন থেকে ব্যাপকভাবে মনোনয়ন বাণিজ্যের মাধ্যমে বেশ কিছু ব্যবসায়ীকে মনোনয়ন দেয় বলে অভিযোগ রয়েছে।

আজ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড ঢাকা-১৪ আসনে দলের মনোনয়ন দিয়েছে আগা খান মিন্টুকে। তিনি শাহ আলী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি। কুমিল্লা-৫ আসনে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে বুড়িচং উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসেম খানকে। আর সিলেট-৩ আসনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাবিবুর রহমান। মনোনয়ন পাওয়া তিন নেতাই আওয়ামী লীগের দীর্ঘ দিনের পরীক্ষিত নেতা। তাঁরা তিনজনই ছাত্র রাজনীতি থেকে উঠে আসা রাজনৈতিক সংগঠক। তাদের রয়েছে দীর্ঘ দিনের সাংগঠনিক অভিজ্ঞতা। এই তিন আসনেই মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে বেশ কিছু ধনাঢ্য ব্যক্তি এবং সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তা ছিল। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড এই তিন আসনের উপনির্বাচনে নিজস্ব দলীয় নেতাদেরই বেছে নেন। এটি বাংলাদেশের রাজনীতির জন্য একটি ইতিবাচক ঘটনা এবং এটি একটি ইতিবাচক বার্তা বহন করছে।