ঢাকা, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পর্যবেক্ষণ: বাংলাদেশের ষড়যন্ত্র তত্ত্ব

সৈয়দ বোরহান কবীর
প্রকাশিত: ২২ অক্টোবর ২০১৯ মঙ্গলবার, ১০:০০ পিএম
পর্যবেক্ষণ: বাংলাদেশের ষড়যন্ত্র তত্ত্ব

গতকাল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন এবং তারা সব ধরণের ক্রিকেট থেকে নিজেদেরকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। তার ঠিক ২৪ ঘণ্টা পর আজ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন এক সংবাদ সম্মেলন করেছেন এবং সেখানে তিনি ক্রিকেটারদের রীতিমত তুলোধুনা করেছেন এবং তিনি বলেছেন, ক্রিকেটকে ধ্বংস করার এটি একটি ষড়যন্ত্র।

না আজকে এই পাপনকে নিয়ে আলোচনা করতে চাই না। আজকে এই ‘ষড়যন্ত্র’ শব্দটি নিয়ে আলোচনা করব। বাংলাদেশের রাজনীতিতে এবং বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সবচেয়ে আলোচিত চরিত্রের নাম হলো ‘ষড়যন্ত্র’। বাংলাদেশে যে কোনে বিষয়ে দায় এড়ানো এবং যে কোনো বিষয়ের গভীরে না যাওয়ার যে প্রচেষ্টা তার একটি ভালো অজুহাত ‘ষড়যন্ত্র’। বাংলাদেশে যত ষড়যন্ত্র তত্ত্ব আলোচিত হয়েছে তত ষড়যন্ত্র তত্ত্ব পৃথিবীর কোথাও আছে কিনা আমার জানা নেই।

কিছুদিনের কথাই ধরি আমরা, যখন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা শুদ্ধি অভিযানের ঘোষণা দিলেন এবং শুদ্ধি অভিযান শুরু করলেন তখন আওয়ামী লীগের অনেক নেতা বললেন ষড়যন্ত্র। শুদ্ধি অভিযান শুরু হলো, কিছু কিছু নেতাকর্মী গ্রেপ্তার হলো তখন বলা হলো এই শুদ্ধি অভিযান নষ্ট করার একটা ষড়যন্ত্র চলছে।

বেগম খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার আছে, তার অনুসারীরা বলছেন খালেদা জিয়াকে মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র চলছে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য এমপিরা চেষ্টা করলেন, কিন্তু বিএনপির অন্য পক্ষরা বলল সরকারের সঙ্গে আতাতের ষড়যন্ত্র চলছে।

প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে গেলেন, ভারত সফরে গিয়ে তিনি কিছু চুক্তি করলেন তিনি ফিরে আসতে না আসতেই বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হলো দেশ বিক্রির ষড়যন্ত্র চলছে। এই ষড়যন্ত্রের চাপে আমরা সাধারণ নাগরিকরা পিষ্ট হয়ে গেছি।

ষড়যন্ত্র তত্ত্বটা কি কেনো এবং কিভাবে আরোপ করা হয় সেটি নিয়ে আজকের ‘পর্যবেক্ষণ’- এ আপনাদের সঙ্গে দু একটি কথা আমি ভাগ-বাটোয়ারা করতে চাই।

বিস্তারিত আলোচনা দেখুন ভিডিওতে…

ভিডিওটির ইউটিউব লিংকে ঢুকতে ক্লিক করুন..পর্যবেক্ষণ: বাংলাদেশের ষড়যন্ত্র তত্ত্ব




বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ