ইনসাইড টক

‘সার্চ কমিটির প্রস্তাবিত নাম পাবলিক করলে আস্থার জায়গা শক্ত হতো’


প্রকাশ: 27/01/2022


Thumbnail

মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, ৫০ বছর পরে এসে এটাকে যদি বলা হয় নির্বাচন কমিশন আইন তাহলে এটা হাস্যতুল্য হয়ে যায় না? যেটা সবসময় বলা হয়েছে যে, আইনটা পড়লে মনে হয় রাষ্ট্রপতিকে সাহায্য করার জন্য, একটা সার্চ কমিটি গঠন করার জন্য এটি করা হয়েছে। ঠিক যেভাবে আগের সার্চ কমিটিগুলো গঠন করা হয়েছিল, ঠিক একইভাবে কিন্তু এটি করা হয়েছে।

জাতীয় সংসদে ‘প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল ২০২২’ পাস হওয়া প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বাংলা ইনসাইডার এর সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান এসব কথা বলেছেন। পাঠকদের জন্য অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান এর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন বাংলা ইনসাইডার এর নিজস্ব প্রতিবেদক মাহমুদুল হাসান তুহিন।

অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান বলেন, সিভিল সোসাইটি যদি মনে করে এরকম একটা অপূর্ণাঙ্গ আইনকে যদি মেনেও নিতে হয় তাহলে সিভিল সোসাইটির পক্ষ থেকে যে প্রস্তাবটি ছিলো যে, সার্চ কমিটি যাদের নাম প্রস্তাব করবে রাষ্ট্রপতির কাছে সেগুলো পাবলিক করা হোক। তাহলেই তো জনগণের আস্থার জায়গা অনেক বেশি শক্ত হতে পারতো। জনগণ জানতো যে আমরা ক, খ নামগুলো দিয়েছি। এখন ক এবং খ কে, এটা জনগণ জানে। এটা বিচার-বিশ্লেষণ করবে এবং এটা বুঝবে, এই যে সার্চ কমিটি করেছে আইনের মাধ্যমে সেখানে প্রকৃত যথার্থ ব্যক্তিকে তারা বের করেছে সার্চের মাধ্যমে নাকি তারা শুধুমাত্র একপেশে নাম দিয়ে দিয়েছে। সেখানেই বুঝা যাবে নির্বাচন কেমন হবে।

তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রপতির কাছে যে নামগুলো দেওয়া হচ্ছে সেগুলো প্রকাশে আপত্তি কোথায়? যাদের মধ্য থেকে বেঁছে নিবেন সেই নামগুলো সকলে জানুক, তাদের মধ্য থেকে বেঁছে নিক। কোন অসুবিধা নাই। বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন উপাচার্যের প্যানেল করা হয় তিন জনের নাম তো পাঠানো হয় এবং সেই তিন জনের নাম সবাই জানে। সেখানে রাষ্ট্রপতি চাইলে ১ নম্বর জনকে না দিয়ে ৩ নম্বর জনকে উপাচার্য করতে পারেন। কিন্তু জনগণ তো দেখলো যে কে লিস্টের ১ নম্বরে ছিলেন। তখন মানুষের মনে একটা জবাবদিহিতার জায়গা সৃষ্টি হয়। সেই জায়গাটি তো গোপন করে রাখার মত কিছু নয়। সরকার যদি মনে করে জনগণের সরকার, জনগণের রাষ্ট্র, জনগণ কেন্দ্রিক প্রশাসন হবে। তাহলে লুকিয়ে রেখে তো কোনদিন সুশাসন হতে পারে না।


প্রধান সম্পাদকঃ সৈয়দ বোরহান কবীর
ক্রিয়েটিভ মিডিয়া লিমিটেডের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

বার্তা এবং বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ২/৩ , ব্লক - ডি , লালমাটিয়া , ঢাকা -১২০৭
নিবন্ধিত ঠিকানাঃ বাড়ি# ৪৩ (লেভেল-৫) , রোড#১৬ নতুন (পুরাতন ২৭) , ধানমন্ডি , ঢাকা- ১২০৯
ফোনঃ +৮৮-০২৯১২৩৬৭৭