এডিটর’স মাইন্ড

প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদে যোগ্যদের পদায়ন: নতুন মেরুকরণের ইঙ্গিত?


প্রকাশ: 13/06/2024


Thumbnail

গত মঙ্গলবার প্রশাসনে বড় ধরনের রদবদল হয়েছে। ৬টি সচিব পদে দপ্তর পরিবর্তন হয়েছে। একজন পদোন্নতি পেয়েছেন। একজন সিনিয়র সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। গুরুত্বপূর্ণ এই রদবদল নিয়ে সচিবালয়ে এখন ব্যাপক আলাপ আলোচনা চলছে। এবারের রদ বদলের তাৎপর্যপূর্ণ দিক হলো বেশ কয়েকজন যোগ্য ব্যক্তিকে গুরুত্বপূর্ণ পদে পদায়ন করা হয়েছে। এর ফলে সচিবালয়ের পেশাদার কর্মকর্তারা অত্যন্ত উল্লসিত এবং আশাবাদী হয়ে উঠেছেন। 

গত কিছুদিন ধরেই প্রশাসনের মধ্যে ব্যাপক ধরনের রাজনীতিকরণের প্রবণতা লক্ষ্য করা গিয়েছিলো। যোগ্যদের বদলে যারা বেশি চাটুকার, নব্য আওয়ামী লীগার এবং বিশেষ করে যারা সরকারের বা প্রশাসনের একটি গ্রুপের সঙ্গে গোষ্ঠীবদ্ধ তারাই গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো পাচ্ছিলেন। ফলে যোগ্যরা কোণঠাসা হয়ে পড়ছিলেন। এই রদবদলে সরকার সেই প্রবণতা থেকে বেরিয়ে এসেছে। এটিকে ইতিবাচক বলছেন প্রশাসনের বেশিরভাগ কর্মকর্তারা।

এবার রদবদলে যে তাৎপর্যপূর্ণ দিকগুলো রয়েছে তার মধ্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব আবু হেনা মোরশেদ জামানকে স্থানীয় সরকার বিভাগে বদলি করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব মোঃ ইব্রাহিমকে ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে বদলি করা হয়েছে। আবু হেনা মোরশেদ জামান একজন সৎ, দক্ষ, মেধাবী কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত। বিভিন্ন সময়ে যে দায়িত্ব তিনি পালন করেছেন সেখানে তিনি তার মেধা, মনন এবং যোগ্যতার পরিচয় দিয়েছেন। বিশেষ করে কোভিডকালীন সময়ে তাকে সিএমএইচডির পরিচালকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল এবং সেখানে তিনি  দুর্নীতির বিরুদ্ধে একটি কঠিন সংগ্রামে বিজয়ী হয়েছিলেন। কিন্তু তার মতো মেধাবীকে ডাক ও টেলিযোগাযোগের মতো অপেক্ষাকৃত অগুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে রাখা হয়েছিল দীর্ঘদিন। এবার তাকে স্থানীয় সরকার বিভাগের মতো গুরুত্বপূর্ণ এবং স্পর্শকাতর মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়েছে। 

এছাড়াও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মশিউর রহমানকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগে বদলি করা হয়েছে। এটিও একটি ইতিবাচক দিক হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। মশিউর রহমান একজন মেধাবী এবং পেশাদার আমলা হিসেবে সুপরিচিত। কিন্তু পার্বত্য চট্টগ্রামের মত একটি অগুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে তিনি বেশ কিছুদিন ছিলেন। 

এছাড়াও যে রদবলগুলো হয়েছে তাতে একটি জিনিস অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। আর তা হলো মেধাবী কর্মকর্তারা ভালো জায়গাগুলো পাচ্ছেন। সচিবালয়ের প্রবল রাজনীতিকরণ প্রক্রিয়া, যেখানে পেশাদারদেরকে উপেক্ষিত মন্ত্রণালয়গুলোতে রাখা হয় এবং রাজনীতিতে যারা ব্যস্ত, তাদের যোগ্যতা থাকুক না থাকুক তাদেরকে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে দেয়া হয় সেই প্রবণতা থেকে বেরিয়ে আসার একটি সুস্পষ্ট প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

দীর্ঘদিন ধরেই প্রশাসনে যারা দক্ষ, যোগ্য, মেধাবী তাদের এটি আকাঙ্খা ছিলো। রাজনৈতিক বিবেচনায় সচিব করা হোক কিন্তু তাদেরকে যেন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় গুলো না দেয়া হয় এটি ছিলো সরকারি কর্মকর্তাদের এক ধরনের আকাঙ্খা। অনেক দেরিতে হলেও সরকার সেই আকাঙ্খার জায়গাটিতে মনোযোগ দিয়েছেন। এর ফলে সরকারের মধ্যেও একটি মেরুকরণের প্রবণতা লক্ষ্য করা যায় বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। তারা মনে করেন সরকার এখন দেশের অর্থনৈতিক সংকট সহ অন্যান্য সংকট গুলো মোকাবেলা করতে চায়, প্রশাসনে স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে চায়। সবচেয়ে বড় কথা হলো একটি দক্ষ, কর্মক্ষম প্রশাসনকে ঢেলে সাজাতে চায়। তারই বার্তা দেয়া হয়েছে এই রদবদলের মধ্যে। 


প্রধান সম্পাদকঃ সৈয়দ বোরহান কবীর
ক্রিয়েটিভ মিডিয়া লিমিটেডের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

বার্তা এবং বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ২/৩ , ব্লক - ডি , লালমাটিয়া , ঢাকা -১২০৭
নিবন্ধিত ঠিকানাঃ বাড়ি# ৪৩ (লেভেল-৫) , রোড#১৬ নতুন (পুরাতন ২৭) , ধানমন্ডি , ঢাকা- ১২০৯
ফোনঃ +৮৮-০২৯১২৩৬৭৭