ইনসাইড গ্রাউন্ড

মেসি-ডি মারিয়ার জন্য স্কালোনির আবেগঘন বার্তা


প্রকাশ: 10/07/2024


Thumbnail

টানা ২৮ বছর পর গেলবার কোপা আমেরিকার শিরোপা জেতার মধ্য দিয়ে যেন আর্জেন্টিনার আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক টুর্নামেন্ট, যার প্রতিটিতেই জয়। ফিনালিসিমা তো আছেই, সাথে টানা ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপটাও উঠেছে সেই মেসি বাহিনীর হাতেই।

বছর ঘুরে আবারও এক কোপা আমেরিকার আসর। যেখানে শক্ত অবস্থানে থেকেই সেমিফাইনালে উঠেছিল আর্জেন্টিনা। টানা দ্বিতীয়বার কোপার ফাইনালে যেতে বাঁধা ছিল একমাত্র কানাডা। আজ সেই কানাডা বধের লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিল আলভারেজ-ডি পলরা। যেখানে ২-০ গোলের ব্যবধানে জয়টা আলবিসেলেস্তেদের খুব সহজেই নিয়ে গেছে এবারের কোপা আমেরিকার ফাইনালে।

তবে এবারের যাত্রাটা ‘খুবই কঠিন’ ছিল বলে মন্তব্য করেছেন আলবিসেলেস্তে বস লিওনেল স্কালোনি। একইসঙ্গে বিদায়ের সুর বাজতে থাকা আনহেল ডি মারিয়া ও লিওনেল মেসির জন্য দিলেন আবেগঘন বার্তা।

আগামী সোমবার ভোরে (বাংলাদেশ সময়) কোপার ফাইনালে নামবে আর্জেন্টিনা। সেই ম্যাচটিই হতে যাচ্ছে আলবিসেলেস্তেদের জার্সিতে ডি মারিয়ার শেষ ম্যাচ। মানতে কষ্ট হলেও সেটাই যে তার শেষ ম্যাচ হবে সেটাই আজ স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন আবারও। কান্না চাপিয়ে এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার বলছেন, ‘জাতীয় দলের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলতে আমি প্রস্তুত নই, কিন্তু সময় হয়ে গেছে। আমি এভাবেই বিদায় নিতে চেয়েছিলাম এবং সেভাবেই ঘটেছে সব, আরেকটি ফাইনালে পৌঁছে গেছি আমরা। আমার সতীর্থরা সবাই জানে আমার আর ফেরার পথ নেই, সিদ্ধান্ত হয়ে গেছে। আমার সিদ্ধান্তকে তারাও সমর্থন দিয়েছে। যদিও তারা কিছুটা বিরক্ত করেছে এবং তা সত্ত্বেও সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। আর মাত্র একটি ম্যাচ বাকি, স্বপ্নের মতো শেষটা পাচ্ছি এবং এটাই আমি চেয়েছিলাম।’

পরে ডি মারিয়ার অবসর প্রসঙ্গে জানতে চাওয়া হয় আর্জেন্টাইন মাস্টারমাইন্ড স্কালোনির কাছে। তিনি কথা বললেন অনেকটা ধীরস্থির মনোভাবে, ‘আমি অপেক্ষা করতে চাই এবং তাকে (ডি মারিয়া) খেলা চালিয়ে যেতে দেওয়ার পক্ষপাতী। জাতীয় দলের জার্সিতে তাকে বিদায় জানাতে চাই না। অন্যথায়, অশ্রু ঝরতে শুরু করবে, সে–তার পরিবার ও ভক্তদের মাঝে এক বিষাদময় পরিস্থিতি তৈরি হবে। আমরা তাকে খেলতে দিতে চাই এবং আমরা চেষ্টা করে দেখব তাকে (আরও কিছু সময় খেলা চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে) রাজি করানো যায় কি না। সবকিছুর উর্ধ্বে চাই সে এই মুহূর্তটা উপভোগ করুক।’

অন্যদিকে, ফের অবসরের ইঙ্গিত দিয়েছেন আলবিসেলেস্তে অধিনায়ক মেসিও। তার করা ‘এগুলো আমাদের শেষ লড়াই’ উক্তি ভয় ধরিয়ে দিয়েছে আলবিসেলেস্তে ভক্তদের মনে। যা নিয়ে প্রশ্ন গিয়েছিল কোচ স্কালোনির কাছেও। জবাবে তিনি আগের মতো করেই বলছেন, ‘আমরা তাকে (মেসি) একা থাকতে দিই, সে জানে সেই একমাত্র নয় যে দরজা বন্ধ করতে হবে, আমাদের পক্ষ থেকে সেই পথ সবসময় খোলা। যে যতটা সময় চায়, আমাদের সঙ্গে থাকতে পারবে, এমনকি যদি সে অবসরও নিয়ে নেয়। আমরা যদি সেখানে থাকি, আমার যেখানে ইচ্ছা সেখানে নিয়ে যাব। সে কী চায়, তাকে সেই সিদ্ধান্ত নিতে দিন।’

আর্জেন্টিনা নিজেদের চ্যাম্পিয়নশিপ ধরে রাখার লক্ষ্য নিয়েই এবারের কোপায় খেলতে নেমেছিল। তবে এই যাত্রায় তাদের কঠিন পরীক্ষাই দিতে হয়েছে। আজকের ম্যাচও সহজ ছিল না বলে জানিয়েছেন স্কালোনি, ‘আরেকটি ফাইনালে ওঠা খুবই কঠিন। আমরা জানি এখানে পৌঁছানো কতটা কঠিন ছিল। মানদণ্ড অনেক উঁচুতে উঠে গেছে। সবাই ভেবেছিল, এটি হয়তো পুষ্পশয্যার মতো হবে। কিন্তু একদমই এমন ছিল না। খুবই কঠিন প্রতিপক্ষ হয়ে কানাডাও আজ এটি প্রমাণ করল। তবে আমি গর্বিত, পুরো কৃতিত্ব খেলোয়াড়দের।’

কোপার ফাইনালে ওঠার লক্ষ্যে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে আগামীকাল মুখোমুখি হবে উরুগুয়ে-কলম্বিয়া। বিজয়ী দল ফাইনাল খেলবে আর্জেন্টিনার সঙ্গে। তাই সেই লড়াইও যে কঠিন হবে, সেটা স্মরণ করিয়ে দিয়ে স্কালোনি বলেন, ‘(ফাইনালের) সম্ভাব্য দুটি প্রতিপক্ষই শীর্ষস্থানীয় জাতীয় দল। তাই (ফাইনালের প্রতিপক্ষ হিসেবে) যেকোনো একটি দলের কথা বলা কঠিন হবে। তাদের মধ্যে একটি দল (উরুগুয়ে) এরই মধ্যে আমাদের হারিয়েছে। খুবই কঠিন ম্যাচ ছিল। এই কোচ (নেস্তর লরেন্সো) আসার পর আমরা কলম্বিয়ার সঙ্গে খেলিনি। তবে আমরা জানি, তারাও খুব কঠিন হতে পারে।’



প্রধান সম্পাদকঃ সৈয়দ বোরহান কবীর
ক্রিয়েটিভ মিডিয়া লিমিটেডের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান

বার্তা এবং বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ২/৩ , ব্লক - ডি , লালমাটিয়া , ঢাকা -১২০৭
নিবন্ধিত ঠিকানাঃ বাড়ি# ৪৩ (লেভেল-৫) , রোড#১৬ নতুন (পুরাতন ২৭) , ধানমন্ডি , ঢাকা- ১২০৯
ফোনঃ +৮৮-০২৯১২৩৬৭৭