ঢাকা, সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আজিমপুর কবরস্থানে প্রেম, ঘনিষ্ঠতা

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম
প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০১৯ বুধবার, ০৭:৫৯ পিএম
আজিমপুর কবরস্থানে প্রেম, ঘনিষ্ঠতা

আজিমপুর কবরস্থান। নগরের অধিবাসীদের চিরনিদ্রালয়। মুসলমানদের পবিত্র স্থান। আর এই পবিত্রস্থানে তরুণ-তরুণীদের অবাধ বিচরণে বিব্রত নগরবাসী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কয়েকটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে কয়েকজন তরুণ-তরুণী কবরস্থানে প্রবেশ করেছেন।

ছড়িয়ে পড়া ছবিতে তরুণী-তরুণী `আপত্তিকর` অবস্থায় দেখা যায়। ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপে এইসব ছবি পোস্ট করে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।

একজন সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী বলছেন, কবরস্থানে নিশ্চই নিরাপত্তার জন্য লোক নিযুক্ত রয়েছে। তাহলে এরা ঢুকলো কীভাবে? আর ঢুকলেও নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা লোকজন কী করছে।

আরেকজন বলছেন, ছেলে মেয়েরা ক্রমে বোধ বুদ্ধি হারিয়ে ফেলছে। কবরস্থানের মতো একটি জায়গায় ওরা এসব করে কীভাবে?

আজিমপুর গোরস্থানে ছেলে-মেয়েদের অবাধ যাতায়াত ও ‘অপ্রীতিকর’ ছবিগুলো সামনে আসার পর সরব হয়েছেন সাধারণ মুসল্লীরা। ছবিগুলো তোলা হয়েছে কবরস্থানের পাশের কোনো ভবন থেকে। তবে কে তুলেছেন তা জানা যায়নি।

আজিমপুর গোরস্থান ঢাকা শহরে আজিমপুরে অবস্থিত একটি মুসলমান সমাধিস্থল। একে আজিমপুর কবরস্থান হিসেবেও প্রায়শ উল্লেখ করা হয়। সপ্তদশ শতাব্দীতে ঢাকা শহরের পত্তনের সমসময়ে এই গোরস্থানের সূচনা হয়েছিল বলে অনুমান করা হয়।

২৭ একর জমির ওপর গড়ে উঠেছে আজিমপুর গোরস্থান। এই গোরস্থানের দুটি অংশ রয়েছে যথা নতুন গোরস্থান ও আরেকটি পুরাতন গোরস্থান। পুরাতন গোরস্থানটি নতুন গোরস্থানের তুলনায় বেশ ছোট।

এখানে কতটি লাশ দাফর করা হয়েছে তার কোনো হিসাব নেই। ২০১৩ খ্রিষ্টাব্দে এই গণনায় দেখা যায় যে যায়, এখানে প্রতিদিন গড়ে ৩০-৩৫টি লাশ দাফন করা হয়। সপ্তাহে প্রায় ২০০-২৫০টি লাশ দাফন করা হচ্ছে। এখানে ব্রিটিশ আমল ও পাকিস্তান আমলের বেশ কিছু কবর সংরক্ষিত আছে।