ঢাকা, সোমবার, ২৩ জুলাই ২০১৮ , ৮ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

টেস্ট ক্রিকেটে আশার আলো

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার, ০৪:০৮ পিএম
টেস্ট ক্রিকেটে আশার আলো

রঙিন পোশাকের অর্জনের তুলনায় সাদা পোশাকে কিছুটা অনুজ্জ্বল টাইগাররা। নিয়মিত টেস্ট ক্রিকেট খেলতে না পারা এর অন্যতম কারণ বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তবে দীর্ঘ পরিসরের ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলোয়াড়দের ধারাবাহিক পারফরম্যন্সে আশার আলো উঁকি দিচ্ছে এলিট ক্রিকেটে।

বর্তমানে জাতীয় দলে জায়গা করে নিতে তুমুল প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হতে হয় খেলোয়াড়দের। আর এই প্রতিযোগিতার সুফল পেতে শুরু করেছে দেশের ক্রিকেট। ঘরোয়া ক্রিকেটে ব্যাট হাতে একের পর এক সেঞ্চুরি উপহার দিয়ে চলেছেন ব্যাটসম্যানরা। এর মধ্যে একটা বড় অংশ জাতীয় দলের বাইরে থাকা খেলোয়াড়রা।

চলমান বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) এরই মধ্যে দেখা গেছে একাধিক সেঞ্চুরি। সদ্য ঘোষিত ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে জায়গা না পাওয়া মমিনুল হকের ব্যাট থেকে আসে ডাবল সেঞ্চুরি। মমিনুলের সতীর্থ জাকির হাসানও ১০১ রানে অপরাজিত ছিলেন। দুই বাঁহাতির অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ইস্ট জোনের দলীয় সংগ্রহ দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ৪৩০ রান।



জবাবে বাংলাদেশ দলে সুযোগ না পাওয়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও তুষার ইমরানের সেঞ্চুরি খেলা জমিয়ে তুলে। এই এক ম্যাচে মমিনুলের আড়াই শতাধিক ইনিংস সহ সেঞ্চুরি এসেছে চারটি!

অন্য ম্যাচে সিলেট আন্তর্জাতিক মাঠে বিসিবি নর্থ জোনের হয়ে ওয়ালটন সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে জহুরুল ইসলামও খেলেছেন দেড় শতাধিক রানের ইনিংস। আর জহুরুলের সঙ্গি ধীমান ঘোষ সাত রানের জন্য শতক বঞ্চিত হয়ে ফিরেছেন ৯৩ রানে। সেন্ট্রাল জোনের হয়ে আরেক ব্যাটসম্যান রকিবুল হাসানও পেয়েছেন শতকের দেখা।

এর আগে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত হওয়া জাতীয় ক্রিকেট লিগে (এনসিএল) তো ডাবল সেঞ্চুরির প্রতিযোগিতা দেখেছে দর্শকরা। বিজয়ের পথ ধরে নাসির হোসেনও তুলে নেন ডাবল সেঞ্চুরি। ট্রিপল সেঞ্চুরির দোরগোড়ায় গিয়ে থামেন নাসির। মেহেদী হাসান ব্যক্তিগত ১৭৭ রানে কাটা পরায় দ্বিশতকের দেখা পাননি। একই লিগের অন্য ম্যাচে নাজমুল হাসান শান্ত ও মিজানুর রহমান তুলে নেন সেঞ্চুরি। ৫ রানের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন শান্ত। মিজানুর থামেন ১৭৫ রানে।

বলা যায় গত জাতীয় ক্রিকেট লিগে নাসির, এনামুল, নাজমুল, ইয়াসির, আরিফুল, মিজানররা রীতিমতো রান উৎসব করেছে। একই সঙ্গে ওই লিগে যেন সেঞ্চুরি আর ডাবল সেঞ্চুরির মেলা বসেছিল।

দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানদের লম্বা ইনিংস খেলার সমর্থ আশার আলো দেখাচ্ছে দেশের ক্রিকেটকে। ব্যাট হাতে তরুণ ক্রিকেটারদের প্রতিযোগিতামূলক মনোভাবে এগিয়ে যাবে দেশের সাদা পোশাকের ক্রিকেট। এমনটাই আশা ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের।


বাংলা ইনসাইডার/আরকে/টিবি