ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৯ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ক্রোয়েশিয়ার মিডফিল্ড ভোগাবে ইংলিশদের

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০১৮ বুধবার, ০৭:০৪ পিএম
ক্রোয়েশিয়ার মিডফিল্ড ভোগাবে ইংলিশদের

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড একই ফরমেশনে খেলে আসছে। শুরুর একাদশেও তেমন পরিবর্তন চোখে পড়েনি ইংলিশদের। সেই হিসেবে আজকে দল অপরিবর্তিত থাকবে এটাই স্বাভাবিক।

এদিকে, আজ ক্রোয়েশিয়া দুটি ছকে দলের পরিকল্পনা সাজাতে পারেন। ইভান রাকিটিচ ও লুকা মদ্রিচকে হোল্ডিং মিডে রেখে ক্রামারিচকে দিয়ে আক্রমণে ধার বাড়াতে পারেন কোচ জালাতকো দালিচ। রাশিয়ার বিপক্ষেও এইভাবেই শুরুটা করেছিলেন দালিচ। পরে ব্রোজোভিচকে এনে মদ্রিচকে ওপরের দিকে খেলানো হয়। এতে দলের ভারসাম্য অনেকটাই বেড়ে যায়। ইংলিশদের আজকের ম্যাচে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়াতে পারে মদ্রিচের ওপরের দিকে উঠে আসাটা।

অন্যদিকে, ইংল্যান্ডের দুই উইং ওপরে ওঠে খেলতে পছন্দ করে। মিড ফিল্ড থেকে ওপরে এসে হ্যারি কেইন ও রাহিম স্টারলিংয়ের লাইনে এসে খেলতে পছন্দ করেন অ্যাশলে ইয়ং ও ট্রিপিয়ার। এতে আক্রমণে বেশ সুবিধা পায় ইংল্যান্ড। কারণ আক্রমনভাগে তখন পাঁচ জন খেলোয়াড় থাকে। আর সেন্টার মিড থেকে জসে লিনগার্ড ও ডেলে আলির একজন যোগ হন।

তাছাড়া এই ম্যাচে মিডফিল্ডের হিসাব অন্যান্য ম্যাচ থেকে একটু আলাদাই হবে। তাছাড়া এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে শক্তিশালী মিডফিল্ড হচ্ছে ক্রোয়েটদের। পিছিয়ে আছে ইংল্যান্ডের মিডফিল্ড। আর মিড দুর্বল হওয়া মানে ডিফেন্সেও সেই প্রভাবটা চলে আসা। ইংল্যান্ডের ডেলে আলি ও লিনগার্ড ডিফেন্সে ততটা পারদর্শী নয়। সেই হিসেবে ক্রোয়েটদের মিড থেকে বল আটকানোটা বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে ইংল্যান্ডের জন্য।

ইংল্যান্ডের সবচেয়ে বড় অস্ত্র তাদের শক্তিশালী সেটপিস। দুর্দান্ত সব সেটপিসের কারিকুরি দেখিয়ে ম্যাচ বের করে এনেছে ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়রা। এছাড়া সেটপিসের সঙ্গে কম্বিনেশনের বৈচিত্র্য বেশ ভুগিয়েছে বিপক্ষ দলগুলোকে। তাছাড়া আক্রমণভাগে বেশ এগিয়ে থাকবে ইংল্যান্ড। তবে ক্রোয়েটদের শক্তিশালী মিড ফিল্ডকে ইংলিশ খেলোয়াড়রা কিভাবে চ্যালেঞ্জ জানায় সেটাই দেখার বিষয়।

বাংলা ইনসাইডার/এসএকে/ডিআর