ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ওরা এগারো জন: তামিম ইকবাল

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪ আগস্ট ২০১৮ শনিবার, ০৯:১৯ এএম
ওরা এগারো জন: তামিম ইকবাল

সামনে এশিয়া কাপ। এই টুর্নামেন্টই হবে টাইগারদের জন্য বিশ্বকাপে নিজেদের তৈরি করার সেরা মঞ্চ। যাচাই করে নিতে হবে কোন পজিশনে কে হবে সেরা খেলোয়াড়। বেশি ভাগ পজিশনেই ভরসা সিনিয়ররা। অন্য পজিশনে সেরাটা খুজে পাচ্ছে না টিম টাইগার্স। এর কারণ কি? সঠিক পজিশনে সঠিক খেলোয়াড়কে না খেলানো নাকি খেলোয়াড়দের দায়িত্বজ্ঞানহীন পারফরম্যান্স।

এসব নিয়েই আমাদের ধারাবাহিক এই প্রতিবেদনে। যেখানে আলোচনা হবে সেরা ১১ টাইগারদের খুঁটিনাটি দুর্বলতা ও কোন জায়গায় উন্নতি করতে হবে তাঁদের তা নিয়ে। আজ প্রথম পর্বে থাকছে দেশ সেরা ওপেনার তামিম ইকবালের খুঁটিনাটি ও উত্থান পতনের গল্প।

তামিম ইকবাল খান। বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ওপেনার। ২০০৭ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওডিয়াই ফরম্যাটে অভিষেক। অভিষেকের পর থেকেই সব ফরম্যাটে নিজের জাত চিনিয়েছেন। সব ফরম্যাটে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রানের মালিক তিনি।

এই উচ্চতায় একদিনে আসেননি তামিম। অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে আজ এখানে তিনি। তার ১২ বছরের ক্যারিয়ারে রয়েছে অনেক উত্থান পতনের গল্প। কখনো ‘ধুমধাড়াক্কা’ ব্যাটিং করে নাস্তানাবুদ করেছেন প্রতিপক্ষের বাঘা বাঘা বোলারদের। আবার কখনো নিজেকে হারিয়ে খুজছেন। নিন্দুকের সমালোচনার বাণে জর্জরিত হয়েছেন। কিন্তু থেমে থাকেননি, ব্যাট হাতে দিয়ে জবাব দিয়েছেন বারবার। বর্তমানে রয়েছেন নিজের ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে। তাই বলার অপেক্ষা রাখে না বিশ্বকাপে তিনিই হবে ব্যাটিংয়ের মূল ভরসা।

যে জায়গায় উন্নতি প্রয়োজন তামিমের

প্রথমেই বলতে হয় ডট বলের কথা। ডট বলের সংখ্যা কমাতে হবে তামিমকে। সৌম্যের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং এর জন্য ডটগুলো সমস্যায় পরতে দিত না দলকে। তামিমের ওপেনিং পার্টনার খারাপ করায় ডটগুলো বিপদে ফেলছে। এই ডট গুলোকে সিংগেলে রুপান্তর করতে হবে। একই সঙ্গে পাওয়ারপ্লে তে বাউন্ডারি বের করতে হবে। এছাড়াও ১০-৩৫ ওভার উইকেটে থেকে সিংগেল নিয়ে রানের চাকা সচল রাখার চেস্টা করতে হবে তামিমকে। এভাবে খেলতে পারলে অনেক নিজের জন্যও রান আসবে, একই সঙ্গে দলও বিপদে পরবে না।

তাই টাইগার ভক্ত-সমর্থকদের আশা, বিশ্বকাপের আগেই সব দুর্বলতা কাটিয়ে উঠবেন বাংলাদেশের এই ড্যাশিং ওপেনার।


বাংল ইনসাইডার/ডিআর