ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

এগিয়ে দেশি বোলাররা, ব্যাটসম্যানরা ফ্লপ

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার, ০৪:০০ পিএম
এগিয়ে দেশি বোলাররা, ব্যাটসম্যানরা ফ্লপ

বিপিএলে দেশি বোলাররা এগিয়ে আছে। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের উল্লেখযোগ্য অবস্থান নেই।

বিপিএলের গত পাঁচ আসরের পরিসংখ্যানে দেখা যায় দেশি ক্রিকেটারদের থেকে এগিয়ে থাকে বিদেশি ক্রিকেটাররা। বল-ব্যাট দুই বিভাগেই বিদেশিদের দাপট লক্ষণীয়। ব্যয়বহুল এসব ক্রিকেটারদের খেলিয়ে হয়তো টাকা উসুল করা যায় কিন্তু তাতে দেশি ক্রিকেটের লাভ কোথায়?

তবে ভুলটা শুধু ফাঞ্চাইজিদেরই না; বাজে পারমফরম্যান্সের জন্য দেশি ক্রিকেটাররাও সামনে আসতে পারে না। সেরা একাদশে সর্বোচ্চ ৪ জন বিদেশি ক্রিকেটার থাকতে পারে। এর বিপরীতে দেশি ক্রিকেটার থাকে ৭ জন- যেখানে আবার দেশি তারকা ক্রিকেটারদের সংখ্যাই প্রাধান্য পায়।

কিন্তু তাতেও লাভ নেই। আসর শেষে বিদেশি ক্রিকেটারদের আধিপত্যই বেশি দেখা যায়। তবে এই আসরে ঢাকা পর্ব শেষে বোলারদের তালিকাটা নজর কাড়ার মতো। এই তালিকায় সেরা পাঁচে আছেন চার জন দেশি বোলার। এক নম্বরে আছেন মাশরাফি।

সেরা পাঁচে যারা আছেন:

মাশরাফি বিন মর্তুজা (রংপুর রাইডার্স): ম্যাচ ৫, উইকেট ১০

রবি ফ্রাইলিংক (চিটাগং ভাইকিংস): ম্যাচ ৪, উইকেট ৯

শফিউল ইসলাম (রংপুর রাইডার্স): ম্যাচ ৫, উইকেট ৯

তাসকিন আহমেদ (সিলেট সিক্সার্স): ম্যাচ ৩, উইকেট ৭

সাকিব আল হাসান (ঢাকা ডায়নামাইটস): ম্যাচ ৪, উইকেট ৭

কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে পরিসংখ্যানটা ভিন্ন। এখানে কদাচিৎ ভালো করছেন দেশি ব্যাটসম্যানরা। জুনায়েদ সিদ্দিকী ও রনি তালুকদার শুরু থেকেই তুলনামূলকভাবে ভাল পারফরম্যান্স ধরে রেখেছেন। তারকা ক্রিকেটারদের মধ্যে এগিয়ে আছেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু বাকিদের পারফরম্যান্স আশাব্যঞ্জক নয়।

তামিম ইকবাল, লিটন দাস, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাকিব আল হাসান, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ, মুমিনুল হক – এক কথায় ফ্লপ!  

জ্বলে উঠতে পারেনি নিষেধাজ্ঞা থেকে ফেরা সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, নাসির হোসেন বা মোহাম্মদ আশরাফুল।

অন্যদিকে, বিদেশিদের মধ্যে এখন পর্যন্ত এগিয়ে আছেন রংপুর রাইডার্সের রাইলি রুশো, সিলেট সিক্সার্সের নিকোলাস পুরান, ঢাকা ডায়নামাইটসের হজরতউল্লাহ জাজাই। সেরা পাঁচের তালিকায় আছেন,

রাইলি রুশো (রংপুর রাইডার্স): ম্যাচ ৫, মোট রান ২৩০, স্ট্রাইকরেট ১৩১.৪২

নিকোলাস পুরান (সিলেট সিক্সার্স): ম্যাচ ৩, মোট রান ১৬৫, স্ট্রাইকরেট ১৫৭.১৪

হযরতউল্লাহ জাজাই (ঢাকা ডায়নামাইটস): ম্যাচ ৪, মোট রান ১৪০, স্ট্রাইকরেট ১৬৬.৬৬

মুশফিকুর রহিম (চট্টগ্রাম ভাইকিংস): ম্যাচ ৪, মোট রান ১৩৯, স্ট্রাইকরেট ১৩৩.৬৫

জুনায়েদ সিদ্দিকী (খুলনা টাইটান্স): ম্যাচ ৫, মোট রান ১০৭, স্ট্রাইকরেট ১৩৫.৪৪

 

এই তালিকায় অন্যান্যের মধ্যে আছে,

রনি তালুকদার (ম্যাচ ৪, রান ১০৪)

মোহাম্মদ মিঠুন (ম্যাচ ৫, রান ৯৮ রান)

পল স্টার্লিং (ম্যাচ ৪, রান ৯৬)

কাইরন পোলার্ড (ম্যাচ ৪, রান ৯৫)

সুনিল নারিন (ম্যাচ ৪, রান ৯০)

সেরা দশে নেই সাকিব, তামিম, মাহমুদউল্লাহ, সৌম্য, ইমরুল, সাব্বির, মুমিনুলদের নাম। তবে ১৪ নম্বরে আছেন মেহেদি হাসান মিরাজ।

আগামীকাল থেকে সিলেটে শুরু হবে ২য় পর্বের খেলা। টি-২০ তে সিলেটে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা শেষ কয়েক আসরে ভালো করতে পারেনি। এই আসরে তার ব্যতিক্রম হবে সেরকম আশা করাও কষ্টসাধ্য। তবুও সিলেটের দিকেই তাকিয়ে থাকবে লক্ষ কোটি ক্রিকেটপ্রেমী।

 

বাংলা ইনসাইডার/ডিএম/এমআর