ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

বিশ্বকাপে স্পটলাইট

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ এপ্রিল ২০১৯ সোমবার, ০৯:০০ এএম
বিশ্বকাপে স্পটলাইট

আগামী ৩০ মে থেকে ইংল্যান্ডের শুরু হবে ক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদাকর আসর বিশ্বকাপ। রণকৌশল ঠিক করার সঙ্গে সঙ্গে নিজেদের শক্তিমত্তা পরখ করে নিচ্ছে অংশগ্রহণকারী দশটি দল। একই সঙ্গে চলছে দেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ইনসাইডার-এর বিশেষ আয়োজন, বিশ্বকাপে, বিশ্ব কাঁপে…। কাউন্ট ডাউন স্টোরিতে এবার থাকছে বিশ্বকাপের বিশাল মঞ্চে কোন কোন তারকা ক্রিকেটার থাকবেন স্পটলাইটে। এবার থাকছে বিশ্ব ক্রিকেটের পরাশক্তি দক্ষিণ আফ্রিকা। আজ থাকছেন দুই প্রোটিয়া ক্রিকেটার জেপি ডুমেনি ও কুইন্টন ডি কক।

শেষটা রাঙাতে চান জেপি ডুমিনি: পুরো না জিয়ান পল ডুমিনি কিন্তু ক্রিকেট বিশ্বে জেপি ডুমিনি নামে পরিচিত প্রোটিয়া এই অলরাউন্ডার। তিনি বাঁহাতি ব্যাটসম্যান হলেও ডানহাতি অফস্পিনার। বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্ল্যাসিকেল ব্যাটসম্যান হিসেবে বেশ সফল ডুমিনি। এছাড়া দক্ষ ফিল্ডার এবং দলের প্রয়োজনে কার্যকর বোলারও তিনি।

২০০৪ সালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয় তাঁর। এরপর বছর পর অভিষেক হয় টেস্ট ক্রিকেটে। প্রথম ম্যাচে অর্ধ-শতক করে অপরাজিত থাকলেও দ্বিতীয় ম্যাচে কাঙ্খিত শতকের দেখা পান তিনি। তাঁর অনবদ্য পারফরম্যান্সে, প্রায় ১৬ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সিরিজ জেতে দক্ষিণ আফ্রিকা।

গত বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার সেরা পারফরমার ছিলেন তিনি। প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ডেভিড মিলারকে সঙ্গে নিয়ে পঞ্চম উইকেট জুটিতে সর্বোচ্চ ২৫৬* রানের নতুন রেকর্ড গড়েন ডুমিনি। এছাড়া বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকান প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে হ্যাটট্রিক করেছিলেন তিনি। শ্রীলংকার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, নুয়ান কুলাসেকারা ও থারিন্ডু কৌশলকে আউট করে দক্ষিণ আফ্রিকার জয় সহজ করেছিলেন ডুমিনি।

২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানান তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ৪৬ টেস্টে ৩২.৮৫ গড়ে ২ হাজান ১০৩ রান করেন প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান। বিশ্বকাপের পর ওয়ানডেকেও বিদায় জানাবেন বলে আগে ভাগে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। ১৯৪ ওয়ানডেতে রান করেছেন ৫ হাজার ০৪৭। ৪টি সেঞ্চুরি ছাড়াও ২৭টি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের। এছাড়া বল হাতে শিকার করেছেন ৬৮ উইকেট।

এর আগে বেশ কয়েকবার সেমিফাইনাল খেলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শিরোপা জেতা তো দুরের কথা ফাইনাল পর্যন্ত খেলতে পারেনি তারা। তাই শেষ বিশ্বকাপটা রাঙাতে চান জেপি ডুমিনি।

মহাতারকা হওয়ার অপেক্ষায় কুইন্টন ডি কক: ক্রিকেটের প্রতিটি প্রজন্মে এমন একটি প্রতিভার আর্ভিবার হয়, যার খেলায় মুগ্ধ হয় সকলে। দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি কক তাদের মধ্যে একজন। তাকে বলা হয় বর্তমান সময়ের খেলা ক্রিকেটার। ব্যাট ও গ্লাভস, যেভাবেই হোক দলের জন্য অসাধারণ কিছু এনে দেন তিনি।

২০১২ সালে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিয় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখেন তিনি। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান স্কোরার ছিলেন। এর দুই মাস পর এবি ডি ভিলিয়ার্স বিশ্রাম চাইলে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে ডাক পান তিনি। এক বছর পর ভারতের বিপক্ষে টানা তিন ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করে অনন্য এক রেকর্ড গড়েন ডি কক। ইনজুরিকে পেছনে ২০১৫ বিশ্বকাপে অংশ নেন তিনি।

টেস্টেও ক্রিকেটেও তাঁর পারফরম্যান্স ছিলো চোখে পড়ার মতো। তাই অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান অ্যাডাম গিলক্রিস্টের সঙ্গে তুলনা করা হয় তাকে। সেঞ্চুরিয়ানে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১১৩ বলে ১৭৮ রানে দুর্দান্ত এক ইনিংস রয়েছে তাঁর।

১০৬ ওয়ানডেতে ১৪ সেঞ্চুরি ও ২১ হাফসেঞ্চুরিতে ৪ হাজার ৬০২ রান করেছেন তিনি। এরই মধ্যে তারকা খ্যাতি পেয়েছেন তিনি। কিন্তু বিশ্বকাপের মঞ্চে জ্বলে উঠে মহাতারকার খেতাব পেতে চান কুইন্টন ডি কক।

বাংলা ইনসাইডার/আরইউ