ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

‘আগ্রাসী’ উদযাপনের পর সাজঘরে ওয়ার্নার

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯ বুধবার, ০৬:২৪ পিএম
‘আগ্রাসী’ উদযাপনের পর সাজঘরে ওয়ার্নার

নিজের শতক পূর্ণ করার পর বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি মাঠে। শাহিন আফ্রিদির বলেই সাজঘরে ফিরতে হয় ওয়ার্নারকে। ১১১ বলে ১০৭ রানের ইনিংসে ছয় ছিল একটি, চার ১১ টি। তাকে ফিরিয়ে শাহিন আফ্রিদি নিজের দ্বিতীয় উইকেট পুর্ণ করলেন।

স্মিথ ক্রিজে এসে স্থায়ী হতে পারেননি বেশিক্ষণ। হাফিজের বলে মাত্র ২০ রান করে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তারপর ম্যাক্সওয়েল ক্রিজে আসলে তিনিও ব্যর্থ হন ওয়ার্নারকে সঙ্গ দিতে। শাহিনের বলে ক্লিন বোল্ড আউট হন এই অলরাউন্ডার। তবে সতীর্থদের আসা যাওয়ার মিছিলেও এক প্রান্তে অবিচল ডেভিড ওয়ার্নার।

নিজের শতক তুলে নিয়েছেন ১০১ বলে। উদযাপনটাও ছিল আগ্রাসী,কেন করবেন না? এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার জন্য পোড়াতে হয়নি কম কাঠ-খড়। নিজের ক্যারিয়ারের ১৫তম শতক এটি।

এর আগে......

পাকিস্তানের প্রথম সাফল্য

অবশেষে সাফল্যটা আসলো আমিরের হাত ধরে। অজি অধিনায়ক ফিঞ্চকে ফেরালেন সাজঘরে। পাকিস্তান পেল প্রথম ব্রেকথ্রু।

আউট হওয়ার আগে বিপদজনক হয়ে উঠেছিল অ্যারোন ফিঞ্চ। ফিফটি তুলতে সময় নিলেও তারপরেই বেরিয়ে আসছিলেন খোলস থেকে।

চার ম্যাচে তিন

অধিনায়ক ফিঞ্চের পথ অনুসরণ করে অর্ধশতক তুলে নিলেন ওয়ার্নার। ৫১ বলে ৬ চারের মাধ্যমে নিজের অর্ধশতক পূর্ন করেন তিনি। বিশ্বকাপের চার ম্যাচে এটি তার তৃতীয় হাফ সেঞ্চুরি।

নতুন জীবন পেয়ে ফিঞ্চের অর্ধশতক

ইনিংসের ১৩তম ওভারে উইকেট পাওয়ার জন্য যতটুক ভালো ডেলিভারির প্রয়োজন ওয়াহাব রিয়াজ ঠিক ততটুকুই দিয়েছিলেন,স্লিপে দাঁড়ানো আসিফ আলী এমন মিস করলেন যে খোদ রিকি পন্টিং ও কমেন্ট্রি বক্সে বসে আফসোস না করে পারলেন না। এমন ক্যাচও কেউ ছাড়ে? তাও যদি হয় বিপক্ষ দলের অধিনায়ক।  

এমন জীবন পাওয়ার পরে কেউ কি আর ফিরে তাকায়? ধীরগতির ইনিংসে ৬৩ বলে পূর্ণ করেন অর্ধশতক। আজকে ফিঞ্চের বড় ইনিংস হয়তো আফসোসে পোড়াবে আসিফ আলীকে,তবে কি আর করার। আফসোস করে তো পিছনে যাওয়া যায় না। 

ফিঞ্চ-ওয়ার্নারে স্থিতিশীল শুরু অজিদের  

পাওয়ারপ্লের দশ ওভারে পাকিস্তান ব্যবহার করেছে চার পেসার। এর মধ্যে আমির বাদে কেউই তেমন ভোগাতে পারেনি ওয়ার্নার-ফিঞ্চকে। ওয়ার্নার বিশ্বকাপে নিজের ৫০০ রান পূর্ণ করেছে ইনিংসের প্রথম দিকেই। পড়ে দুই অজি ওপেনারই ধীরে-সাবধানে খেলেছে পাক বোলারদের। এর মধ্যে আজকে সুযোগ পাওয়া শাহিন আফ্রিদি ছিলেন ব্যয়বহুল। দুই ওভারে ২৪ রান দেয়ার পড়ে অধিনায়ক সরফরাজ আনেননি আর বল করাতে।

সবুজ উইকেটে বাদ পড়েছে স্পিনাররা 

টনটনের উইকেটে রয়েছে ঘাস। এই পিচে পেসাররা পাবে এক্সট্রা বাউন্স এবং গতি। এই জেনেই দুই দল তাদের লেগস্পিনারদের বসিয়ে দলে নিয়েছে একটা করে বাড়তি পেসার। পাকিস্তানের রিস্ট স্পিনার সাদাব খানকে বসিয়ে তরুণ গতিতারকা শাহিন আফ্রিদি সুযোগ পেয়েছে একাদশে।

অজিদের একমাত্র লেগি এডাম জাম্পাকেও রাখা হয়েছে দলের বাইরে। আগের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে সুবিধা করতে না পারা এবং সবুজ উইকেটে পেসারদের সুবিধার কথা চিন্তা করেই এমন বদল এনেছে অস্ট্রেলিয়া। অজিদের অন্য বদলটা হয়েছে ইনজুরির কারণে। স্টয়নিসের ইনজুরিতে দলে এসেছে শন মার্শ।   

স্কোরবোর্ড

অস্ট্রেলিয়া  ২৫৬/৪ 

ওভার ৪০

 

পাকিস্তান একাদশ

ফখর জামান, ইমাম-উল হক, বাবর আজম, সরফরাজ আহমেদ (অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক), শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজ, শাহিন আফ্রিদি , আসিফ আলী, হাসান আলী, ওয়াহাব রিয়াজ, মোহাম্মদ আমির।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ

অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, উসমান খাজা, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল,শন মার্শ, অ্যালেক্স ক্যারি (উইকেটরক্ষক), প্যাট কামিন্স, মিচেল স্টার্ক, নাথান কোল্টার-নাইল ও কেন রিচার্ডসন।

বাংলা ইনসাইডার/এসএম