ঢাকা, রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

ক্রিকেটের নতুন ‘চোকার্স’ ভারত

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ জুলাই ২০১৯ শুক্রবার, ০৮:০৪ এএম
ক্রিকেটের নতুন ‘চোকার্স’ ভারত

নকআউট পর্বে ব্যর্থতার জন্য কুখ্যাতি রয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। বদনাম রয়েছে, চাপ এলেই ছিটকে পড়ে প্রোটিয়ারা। অবশ্য ইতিহাস সম্মতি দেয় এই নামের। বারবার দুর্দান্ত দল নিয়েও ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার বড় কোন অর্জন নেই এখনো। তবে শেষ পাঁচ বছরের রেকর্ডে ক্রিকেটের নতুন চোকার্স ভারত। ২০১৪ সাল থেকে নকআউট পর্বের ধারাবাহিক ব্যর্থতা অন্তত সেটাই বলে।

২০১১ সালে দ্বিতীয়বারের মতন বিশ্বকাপ জেতে ভারত। এরপর ফেভারিট থেকেও আইসিসির চারটা বড় টুর্নামেন্টের নকআউট পর্ব থেকে বাদ পড়েছে টিম ইন্ডিয়া। সর্বশেষ চলতি বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল। আন্ডারডগ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সবাইকে অবাক করে বাদ পড়লো কোহলির দল।

টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৪

ধোনির ভারত যখন টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে বাংলাদেশ গেল, অনেকই ধরে নিয়েছিলেন ধোনির হাতেই উঠবে ট্রফি। গ্রুপ পর্বে পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়া ও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সেই ইঙ্গিতই দিচ্ছিলেন তাঁরা। দক্ষিণ আফ্রিকাকে দাপটের সঙ্গে হারাল সেমিফাইনালেও।

কিন্তু তারপরেই বিপর্যয়। ফাইনালে মালিঙ্গার শ্রীলঙ্কার হাতে পর্যুদস্ত হতে হল ভারতকে। প্রথমে ব্যাট করে মাত্র ১৩০ রানে আটকে গেল ভারত। সাঙ্গাকারা-জয়বর্ধনের শ্রীলঙ্কা সেই রান টপকে গেল অনায়াসে। ভারতের ব্যাটিং লাইনআপের ফাইনালে এই ব্যর্থতা মানতে পারেননি ক্রিকেট ফ্যানেরা।

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৫

এ বার লড়াই আয়োজক দেশ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে। হার না মানা অস্ট্রেলীয় জেদের কাছে আত্মসমর্পণ সেমিফাইনালে। এ বারেও গ্রুপ পর্বে অপ্রতিরোধ্য ছিল ভারত। জয় এসেছিল সবকটি ম্যাচেই। কিন্তু সেমিফাইনালে স্টিভ স্মিথের শতরানে ভর করে ৩২৮ রানের বড় টার্গেট দিল অস্ট্রেলিয়া। রোহিত-শিখর জুটি ভাল শুরু করলেও ব্যর্থ হন কোহালি। রাহানে-ধোনি চেষ্টা করলেও ম্যাচ শেষ করতে পারেননি। সে বারেও রান আউট হয়ে ফিরতে হয় ধোনিকে। অস্ট্রেলিয়ার সামনে থমকে যায় পর পর দু’বার বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন।

টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০১৬

আয়োজক দেশ ভারত। এশিয়া কাপ জিতে দারুন ফর্মে থাকা ভারতের কাছে আদর্শ পরিস্থিতি বিশ্বজয়ের। কিন্তু শুরুতেই কিউয়িদের বিরুদ্ধে মাত্র ১২৭ রান করতে ব্যর্থ হন কোহালিরা। যদিও তারপর ফিরে আসে দাপটের সঙ্গে। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। সে বারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ভারত হেরে যায় সেমিফাইনালে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত ১৯২ রান তোলে স্কোরবোর্ডে। কিন্তু ক্যারিবিয়ানরা সেই রান টপকে যায় দুই বল বাকি থাকতে। ব্যর্থ হয় ভারতীয় বোলিং।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ২০১৭

ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির হার এখনও বোধহয় দগদগে হয়ে আছে ভারতীয় সমর্থকদের মনে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে করুণ আত্মসমর্পণ। প্রথমে ব্যাট করে ফাখার জামানের শতরানে ভর করে ৩৩৮ রান তোলে পাকিস্তান। 

সে বারের শক্তিশালী ভারতীয় ব্যাটিংয়ের সামনে ওই রানও ছিল খুব সহজ। কিন্তু কোনও ব্যাটসম্যানের কাছেই উত্তর ছিল না আমির, হাসানদের পেস আক্রমণের। মাত্র ১৫৮ রানে গুটিয়ে যায় ভারতের ব্যাটিং।

ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১৯

সর্বশেষ হার। ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে উড়তে থাকা ভারত, সেমিফাইনালে পৌঁছায় টেবিলের শীর্ষে থেকে। তুলনামূলক কম শক্তিশালী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমির লড়াইটায় নিশ্চিন্তে ছিলেন অনেক ভারতীয়রাই। তবে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে হতাশ করে নিউজিল্যান্ড চলে যায় ফাইনালে। দুর্দান্ত খেলতে থাকা ভারতের বিশ্বকাপ স্বপ্ন শেষ হয় সেমিফাইনালে।

বাংলা ইনসাইডার/এসএম