ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

হোয়াইটওয়াশ হবার অপেক্ষায় বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২০ শনিবার, ০৬:১৭ পিএম
হোয়াইটওয়াশ হবার অপেক্ষায় বাংলাদেশ

লাহোরে পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বের হওয়া হলো না টাইগারদের। বিপিএলে তারকা তকমা পাওয়া ক্রিকেটারদের আসল রূপ দেখা গেল জাতীয় দলের জার্সিতে। টানা দুই ম্যাচ হেরে সিরিজ হার নিশ্চিত হলো টাইগারদের। প্রথম ম্যাচে লড়াই করলেও এই ম্যাচে পাত্তাই পায়নি মাহমুদউল্লাহরা। ২০ বল ও ৯ উইকেট হাতে রেখে জয় নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা।

শুরুতে এহসান আলির উইকেটের পর বাংলাদেশ আর উল্লাসের কোনও সুযোগ পায়নি, সে সুযোগ দেননি বাবর আজম ও মোহাম্মদ হাফিজ। দুজনের অবিচ্ছিন্ন ১৩১ রানের জুটিতে সিরিজ নিশ্চিত হয়ে গেছে পাকিস্তানের, ১ ম্যাচ বাকি রেখেই।

মাঝারি লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানের। তারা দলীয় ৬ রানেই হারায় ওপেনার আহসান আলীর উইকেট। নিজের প্রথম ওভারের চতুর্থ বলে রানের খাতা খোলার আগেই পাকিস্তানি এই ওপেনারকে মাহমুদউল্লার ক্যাচ বানিয়ে আউট করেন শফিউল ইসলাম।

এরপর দ্বিতীয় উইকেটে দারুণ এক জুটি গড়েন বাবর আজম এবং মোহাম্মদ হাফিজ। ৪৯ বলে ৬৭ রানে অপরাজিত ছিলেন হাফিজ, বাবর করেছেন ৪৪ বলে ৬৬ রান। ৪ সিরিজ আর টানা আট ম্যাচে পরাজয়ের পর আবারও সিরিজ এবং ম্যাচ জয়ের দেখা পেল পাকিস্তান।

এর আগে, লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে ইনিংসের সূচনা ভালো করেনি বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ওভারে বিদায় নেন তরুণ ওপেনার নাঈম শেখ। শাহিন আফ্রিদির বলে উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ানকে ক্যাচ দিয়ে শূন্য রানে ফিরে যান তিনি।

তিনে নেমে ব্যর্থ হন মেহেদী হাসান। বিপিএলে চমক জাগানো এই অলরাউন্ডার ১২ বলে নয় রান করে মোহাম্মদ হাসনাইনের বলে বিদায় নেন। ব্যর্থতার মিছিলে যোগ দেন লিটন দাসও। ১৪ বলে আট রান করে শাদাব খানের বলে লেগ বিফোর উইকেট হয়ে ফিরে যান তিনি। এরপর ২০ বলে ২১ রান করে ফিরেছেন আফিফ হোসেন। হাসনাইনের বলে হারিস রউফকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি।

ইনিংসের ১৬ ওভারে হাফ সেঞ্চুরির দেখা পান মন্থর গতিতে খেলা তামিম। শেষপর্যন্ত তিনি ফিরে যান ৫৩ বলে ৬৫ রান করে। ইনিংসে ছিল সাতটি চার ও একটি ছয়ের মার। শেষদিকে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১২ বলে ১২, সৌম্য সরকার ৫ বলে ৫* ও আমিনুল ইসলাম ৪ বলে ৮* রান করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

বাংলাদেশঃ ১৩৬/৬ (২০ ওভার) (তামিম ৬৫, আফিফ ২১; হাসনাইন ২/২০)

পাকিস্তানঃ ১৩৭/১ (১৬.৪ ওভার) (বাবর ৬৬*, হাফিজ ৬৭*)

বাংলা ইনসাইডার/এসএম