ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

অপ্রতিরোধ্য ইংল্যান্ডকে থামাতে পারবে অস্ট্রেলিয়া?

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ বুধবার, ১১:২৩ এএম
অপ্রতিরোধ্য ইংল্যান্ডকে থামাতে পারবে অস্ট্রেলিয়া?

আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লিগের অংশ হিসেবে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে আজ মুখোমুখি হবে বিশ্ব ক্রিকেটের দুই পরাশক্তি ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া। তিন ম্যাচের এই ওয়ানডে সিরিজ এখন পর্যন্ত ১-১ এ সমতায় আছে। আজ যারা জিতবে তারাই সিরিজ জয়ের রেকর্ড করবে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে ঘরের মাঠে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠা ইংলিশদের বিপক্ষে জয় পাওয়াটা এত সহজ হবে না। আর যদি পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া ইংলিশদের থামাতে পারে, তাহলে পাঁচ বছরের রেকর্ডের সমাপ্তি ঘটতে পারে আজই। ম্যানচেস্টারে ম্যাচটি শুরু হবে বুধবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬ টায়।

আইসিসির নতুন টুর্নামেন্ট বিশ্বকাপ সুপার লিগের দ্বিতীয় সিরিজ হলো ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার এই সিরিজ। যেখানে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১৯ রানের জয়ে সিরিজে দারুন যাত্রা করে অস্ট্রেলিয়া। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে নিজেদের দোষে হেরে বসে। মাথার ইনজুরিতে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে খেলতে পারেননি দলের সেরা ব্যাটসম্যান স্টিভেন স্মিথ। শেষ ম্যাচে তাকে পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী টিম ম্যানেজমেন্ট।

অবশ্য স্মিথ ফিরলেও কতটুকু লাভ হবে অজিদের তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে। ২০১৫ সালে সর্বশেষ ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া, পাঁচ ম্যাচের সিরিজ জিতেছিল ৩-২ ব্যবধানে। এরপর দুই বার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেললেও অজিরা জয়ের মুখ দেখেনি। শুধু কি অস্ট্রেলিয়া? ইংল্যান্ডের মাটিতে এরপর গত পাঁচ বছরে সিরিজ জিততে পারেনি কোন দল। এর মধ্যে ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ইংল্যান্ডের মাটিতে হোয়াইটওয়াশ হয় অস্ট্রেলিয়া।

যদিও মুখোমুখি লড়াইয়ের পরিসংখ্যানে এগিয়ে অজিরা। এখন পর্যন্ত ১৫১ ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লড়াই করে ৮৩টিতে জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। ইংল্যান্ডের জয় ৬৩টি। আর গত বিশ্বকাপের মঞ্চে দুইবারের দেখায় একবার জয় পায় অজিরা, অন্যবার ইংল্যান্ড। আর চলতি বছরে এখন পর্যন্ত ঘরের মাঠে পাঁচটি সিরিজ আয়োজন করে পাঁচটিতেই অপরাজিত বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

উল্লেখ্য, গত জুলাইয়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ আয়োজন করে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। এটিই ছিল আইসিসি বিশ্বকাপ সুপার লিগের প্রথম সিরিজ। আইরিশদের বিপক্ষে ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে ইংলিশরা। করোনার কারণে দীর্ঘদিন ক্রিকেট বন্ধ থাকার পর এই সিরিজ দিয়ে ওয়ানডে ক্রিকেটের পথচলা পুনরায় শুরুও হয়।

বাংলা ইনসাইডার/এসএম