ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর ২০১৭ , ৫ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মেসি’র আর্জেন্টিনা যেন এক ফিনিক্স পাখি

স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৭ বুধবার, ০৪:৫৫ পিএম
মেসি’র আর্জেন্টিনা যেন এক ফিনিক্স পাখি

মেসি মানেই ইতিহাস পরিবর্তন, মেসি মানেই আশা-ভরসার শেষ নাম। জাদুকর তাঁর রহস্যময় হ্যাট থেকে আসল বিস্ময়টা বের করে আনলেন একেবারে প্রদর্শনীর শেষে। পুরো পাহাড় বোঝা একা বয়ে নিলেন কাঁধে। লিওনেল মেসি, আর্জেন্টিনার গায়ে তাঁর সম্ভাব্য শেষ ম্যাচ খেলতে নেমে গড়লেন নতুন ইতিহাস। যেন ছাইভস্ম থেকে জেগে ওঠা ফিনিক্স পাখি। মেসির দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে ইকুয়েডরকে ৩-১ গোলে হারিয়ে সরাসরি বিশ্বকাপ নিশ্চত করল আর্জেন্টিনা।

একটা সময় মনে করা হত মেসির জন্মই হয়েছে শুধু বার্সেলোনার হয়ে খেলার জন্য। কিন্তু দেশের মানুষের ভালোবাসারও যে প্রতিদান দেয়া যায় সেটা মনে হয় ভক্ত-সমর্থকরা ভুলে যেতেই বসেছিলেন। কিন্তু নিজের ঘাড়ে দায়িত্ব তুলে নিয়ে দেশের মানুষের চোখে যে আনন্দ অশ্রু এনে দেয়া যায় সেটা বোধ হয় মেসির চেয়ে ভালো কেউ পারেন না। আর মঞ্চও তার জন্য তৈরিই ছিল।

আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপে খেলতে পারবে কিনা সেটা নিয়ে রীতিমত শঙ্কায় পড়ে গিয়েছিল সারা পৃথিবীর কোটি আর্জেন্টিনার ও মেসি ভক্তরা। কিন্তু সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে গতরাতে হ্যাট্রিক করে একাই ইকুয়েডরকে তাদের মাটিতে হারিয়ে সেরাদের মত করেই নিজের দেশ আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপের মূলপর্বে নিয়ে গেলেন ছোট জাদুকর লিওনেল মেসি।

২০০৪ সালের ১৬ অক্টোবর বার্সেলোনার হয়ে এসপানিওলের বিপক্ষে বদলি খেলোয়াড় মাঠে নামার মধ্য দিয়ে শুরু হয় মেসির পেশাদার ক্যারিয়ারের। সেইদিন থেকে শুরু করে আজ অবধি তিনি শুধু বার্সেলোনাকেই দিচ্ছেন তা নয়, তিনি জাতীয় দলে অভিষেকের পর থেকে টানা ভালো খেলে যাচ্ছেন। এমনকি ২০১৪ সালে আর্জেন্টিনাকে একক নৈপুণ্যে বিশ্বকাপের ফাইনালে নিয়ে গিয়েছিলেন মেসি।

কোপা আমেরিকার ফাইনালেও আর্জেন্টিনাকে পরপর দুইবার নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। যদিও শিরোপা অধরা রয়ে গেছে, তবুও মেসি যেভাবে দলকে নিজের সেরাটা দিয়ে যাচ্ছেন সেটা অবাক করার মত।

ইকুয়েডরের সঙ্গে খেলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরো ম্যাচে দাপিয়ে বেড়িয়েছেন এই ক্ষুদে জাদুকর। একাই কাঁপিয়ে দিয়েছেন ইকুয়েডরের রক্ষণভাগ। এমন এক মাঠে তিনি হ্যাটট্রিক করলেন যেটা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৯ হাজার ১২৭ ফুট উপরে। অন্তিম সময়ে এমন নৈপুণ্য সত্যি প্রশংসার দাবিদার।

বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে জ্বলে উঠতে পারছিলেন না মেসি। গোলখরা তাকে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে অনেকদিন ধরেই ভোগাচ্ছিল। তার উপর দলও একদমই যাচ্ছেতাই ভাবে খেলছিলো বাছাইপর্বের ম্যাচগুলো। কিন্তু দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার পর এমন হিংস্র ভাবেও ফিরে আসা যায় সেট দেখালেন মেসি। পাঁচবারের ব্যালন ডি অর জেতা খেলোয়াড় তিনি। এত সহজে হাল ছেড়ে দেবার পাত্র তিনি নন, আর সেটা তিনি আবারও প্রমাণ করলেন।

বার্সেলোনার হয়ে মেসির প্রমাণের কিছু নেই। কিন্তু জার্সি গায়ে আর্জেন্টিনার হয়ে শিরোপা অধরা থাকায় তাকে আগেই অনেক সমালোচনা মুখে পড়তে হয়েছে। কিন্তু এবার বিশ্বকাপে খেলতে না পারলে হয়তোবা আরও বড় কিছুই মেসির জন্য অপেক্ষা করছিলো। কিন্তু সমালোচকদের মুখে ভালোভাবেই কুলুপ এটে দিয়ে সবকিছুর জবাবই দিয়েছেন মেসি। 


বাংলা ইনসাইডার/এনআই/ডিআর