টেক ইনসাইড

টুইটারের নতুন সিইও ভারতীয় পরাগ আগরওয়াল

প্রকাশ: ১০:১৮ এএম, ৩০ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail টুইটারের নতুন সিইও ভারতীয় পরাগ আগরওয়াল

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারের প্রধান নির্বাহীর (সিইও) পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডরসি। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিনিয়োগকারী এবং মার্কিন আইনপ্রণেতা, বিশেষ করে রিপাবলিকানদের তোপের মুখে পড়েন ডরসি। আর এই কারণে নিজ পদ থেকে সরে দাড়াতে পারেন তিনি।

গতকাল সোমবার (২৯ নভেম্বর) ডরসির পদত্যাগের ঘোষণা আসে। তবে গত রোববার কোনো কিছুর উল্লেখ না করেই ডরসি টুইটারে লেখেন, ‘আমি টুইটার ভালোবাসি।’

ডরসির ঘোষণার আগেই মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি জানায়, তিনি পদত্যাগ করতে পারেন। ওই খবরে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর খানিকটা বেড়েছিল।

ডরসির স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন পরাগ আগরওয়াল। তিনি এতদিন টুইটারের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (সিটিও) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। আগরওয়াল টুইটারে যোগ দেন ২০১১ সালে। ২০১৭ সালে তাঁকে সিটিওর দায়িত্ব দেওয়া হয়।

অন্যাদের সঙ্গে ২০০৬ সালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্মটি গড়ে তোলেন এবং বিভিন্ন মেয়াদে সিইও হিসেবে দায়িত্ব পালন করে দুঃসময়ে টুইটারকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। এর আগেও টুইটার-প্রধানের পদ থেকে জ্যাক ডরসিকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ২০০৬ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালনের পর তাঁকে সিইওর পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়, তবে ২০১৫ সালে ফিরে আসেন তিনি। সেই থেকে টুইটারের পাশাপাশি ডিজিটাল পেমেন্ট সেবা স্কয়ারের সিইও হিসেবেও কাজ করছেন।

আর সে কারণেই ডরসির নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলেন টুইটারের কর্মী ও বিনিয়োগকারীরা। তাঁরা মনে করেন টুইটারের চেয়ে স্কয়ার কিংবা অন্যান্য ব্যক্তিগত প্রকল্পে বেশি সময় দেন ডরসি। মনোযোগের এই ঘাটতির কারণেই টুইটারের শেয়ারদরে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি কিংবা প্ল্যাটফর্মটিতে উদ্ভাবনী সুবিধা যুক্ত হচ্ছে না বলে তাঁদের বিশ্বাস। বছর দেড়েক আগেও ডরসিকে টুইটার থেকে সরানোর চেষ্টা করেছিলেন বিনিয়োগকারীরা।

সিএনবিসির খবরে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ৫ অক্টোবর টুইটারের সিইও হিসেবে ডরসির দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে এ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর বেড়েছে ৮৫ শতাংশ। অন্যদিকে ২০১৫ সালের ১৯ নভেম্বর স্কয়ারের আইপিওর পর থেকে এখন পর্যন্ত সেটির শেয়ারদর বেড়েছে ১ হাজার ৫৬৬ শতাংশ।

টুইটার থেকে পদত্যাগের খবর জানিয়ে এক বিবৃতিতে ডরসি বলেন, ‘অবশেষে আমার চলে যাওয়ার সময় এল।’ সঙ্গে যোগ করেন, প্রতিষ্ঠানটির এখন এগিয়ে যাওয়ার সময়। পরাগ আগরওয়ালের নেতৃত্বে অগাধ বিশ্বাস আছেন বলেও জানান তিনি। বলেন, ‘আমি তাঁর দক্ষতা, হৃদয় এবং আত্মার জন্য গভীরভাবে কৃতজ্ঞ। এবার তাঁর নেতৃত্ব দেওয়ার সময়।’

পদত্যাগের ঘোষণা দিয়ে কর্মীদের কাছে পাঠানো ই-মেইলে ডরসি লেখেন, টুইটারকে তিনি প্রতিষ্ঠাতা-নেতৃত্বাধীন প্রতিষ্ঠান করতে চান না যা সময়ের সঙ্গে অন্যতম দুর্বলতায় পরিণত হতে পারে।

টুইটারের পরিচালনা পর্ষদেও পরিবর্তন আসছে। বর্তমান চেয়ারম্যান প্যাট্রিক পিশেটের জায়গায় আসবেন সেলসফোর্সের প্রেসিডেন্ট ব্রেট টেইলর। প্যাট্রিক অবশ্য অডিট কমিটির প্রধান হিসেবে পর্ষদে থাকছেন। সদস্য হিসেবে ডরসিও থাকবেন, তবে ২০২২ সালে মেয়াদ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত।


টুইটার  


মন্তব্য করুন


টেক ইনসাইড

দুর্দান্ত ক্যামেরা ও ব্যাটারিসহ বাজারে আসছে রিয়েলমি সি৩৫

প্রকাশ: ০১:৫০ পিএম, ১৫ মে, ২০২২


Thumbnail দুর্দান্ত ক্যামেরা ও ব্যাটারিসহ বাজারে আসছে রিয়েলমি সি৩৫

বাংলাদেশের বাজারে রিয়েলমি নিয়ে আসতে চলেছে তাদের সি সিরিজের আরেকটি মোবাইল সেট। নতুন এই ফোনটির নাম রিয়েলমি সি৩৫ । রিয়েলমি সি৩৫ ফোনে আছে ইউনিসক চিপসেট, ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি রিয়ার ক্যামেরা ও ফুল এইচডি+ ওয়াটার-ড্রপ নচ ডিসপ্লে।

রিয়েলমি সি৩৫ ফোনের সামনে আছে ৬.৬ ইঞ্চির ফুল এইচডি+ (১,০৮০ x ২,৪০০ পিক্সেল) আইপিএস এলসিডি ওয়াটার-ড্রপ নচ ডিসপ্লে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ইউনিসক টি৬১৬ প্রসেসর।

রিয়েলমি সি৩৫ ফোনটি ৪ জিবি এলপিডিডিআর৪এক্স র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি পর্যন্ত ইউএফএস ২.২ ইন্টারনাল স্টোরেজ সহ পাওয়া যেতে পারে।

পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য রিয়েলমি সি৩৫ ফোনটিতে ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট সহ ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হবে। রিয়েলমি সি৩৫ অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক রিয়েলমি ইউআই কাস্টম স্কিনে রান করবে।

রিয়েলমি সি৩৫ ফোনে বর্তমান ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সিস্টেম। এই ক্যামেরাগুলি হল ৫০ মেগাপিক্সেলের প্রাথমিক সেন্সর , ২ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো সেন্সর এবং ২ মেগাপিক্সেলের ব্ল্যাক এন্ড হোয়াইট লেন্স৷

এছাড়া রিয়েলমি সি৩৫ ফোনের সামনে সেলফি ভিডিও কলিংয়ের জন্য ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা উপস্থিত।

রিয়েলমি সি৩৫  


মন্তব্য করুন


টেক ইনসাইড

১৫ লাখ অ্যাপ সরিয়ে ফেলছে অ্যাপল-গুগল

প্রকাশ: ০১:৩৪ পিএম, ১৫ মে, ২০২২


Thumbnail ১৫ লাখ অ্যাপ সরিয়ে ফেলছে অ্যাপল-গুগল

মার্কিন ২ প্রযুক্তি টেক জায়ান্ট প্রতিষ্ঠান গুগল ও অ্যাপল নিজেদের স্টোর থেকে ১৫ লাখ অ্যাপ সরিয়ে নিয়েছে। চলতি বছরের শুরুতেই প্রতিষ্ঠান দুইটি তাদের ডেভেলপারদের এ নির্দেশনা দিয়েছিলো।

নতুন খবর হলো, অ্যাপল তার ডেভেলপারদের কাছে চূড়ান্ত নোটিশ পাঠিয়েছে অ্যাপগুলো তুলে নেওয়ার জন্য। অ্যানালিটিক্স ফার্ম -এর  রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে, অ্যাপ স্টোর এবং প্লে স্টোরের প্রায় ৩০ শতাংশ অ্যাপই তুলে নেওয়া হবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোরের ১.৫ মিলিয়ন অ্যাপ ‘পরিত্যক্ত’ অবস্থায় রয়েছে। এগুলো প্রায় দুই বছর বেশি সময় ধরে আপডেট করা হয়নি। যদিও তালিকায় কোন কোন অ্যাপ রয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি। তবে রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, অ্যাপ ক্যাটেগরির মধ্যে রয়েছে এডুকেশন, রেফারেন্স এবং গেমস-সহ একাধিক অ্যাপ, যেগুলি মূলত শিশুদের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয়।

পিক্সালেট এর আরেকটি প্রতিবেদনের বলা হয়েছে, প্রায় ৩১৪,০০০টি ‘সুপার অ্যাবানডনড’ অ্যাপ রয়েছে। যেগুলো পাঁচ বছর ধরে কোনো আপডেট করা হয়নি। এদের মধ্যে ৫৮শতাংশ অ্যাপল অ্যাপ স্টোরের এবং ৪২ শতাংশ গুগল প্লে স্টোরের।

এদিকে অ্যাপল ডেভেলপারদের সতর্ক করে বলেছেন, যে অ্যাপগুলো আগামী ৩০ দিনের মধ্যে আপডেট হবে না, সেগুলো সরিয়ে দেওয়া হবে। অন্যদিকে গুগল বলছে, প্লে স্টোরে এমনই কিছু অ্যাপ রয়েছে, যারা গত দু’বছর ধরে লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড ভার্সনের অ্যাপিআই লেভেল টার্গেট করেনি। যেগুলো চলতি বছরের ১ নভেম্বর থেকে আর নতুন করে ইনস্টল করা যাবে না।

অ্যাপল   গুগল   অ্যাপ  


মন্তব্য করুন


টেক ইনসাইড

বন্ধ হচ্ছে ফেইসবুকের জনপ্রিয় ফিচার

প্রকাশ: ০২:৩৯ পিএম, ১৪ মে, ২০২২


Thumbnail বন্ধ হচ্ছে ফেইসবুকের জনপ্রিয় ফিচার

সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ফেসবুক। এছাড়াও মেটামালিকাধীন  ব্যবহারকারীদের জন্য একের পর এক নতুন ফিচার যুক্ত করছেন। আবার অনেক ফিচার বন্ধও করে দিচ্ছেন। যার মধ্যে এবার যুক্ত হলো সেভারেল লোকেশন ট্র্যাকিং ফিচার।

ফেসবুক বলছে, জনপ্রিয় হলেও বর্তমানে খুব কমই ব্যবহৃত হচ্ছে এই ফিচারটি। যে কারণেই বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে ফিচারটি। এই সার্ভিস ছাড়াও ফেসবুক অন্য আরও কয়েকটি ফিচার বন্ধ হতে চলেছে কম ব্যবহারের জন্য। এর মধ্যে রয়েছে নিয়ারবাই ফ্রেন্ডস, ওয়েদার অ্যালার্ট, লোকেশন হিস্ট্রি এবং ব্যাকগ্রাউন্ড লোকেশন।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে ব্যবহারকারীদের কাছে এ বিষয়ে নোটিফিকেশন যাওয়া শুরু হয়েছে এরই মধ্যে। এসব ফিচারের জন্য আর কোনো ধরনের ডেটা ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হবে না। গত ৩ মে থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছে ডেটা সংগ্রহের কাজ।

তবে ফেসবুকের ব্যবহাকারীরা যে কোনো লোকেশন ডেটা দেখতে, ডাউনলোড করতে এবং ডিলিট করতে পারবেন। ফেসবুকের সেটিং এবং প্রাইভেসি মেনুর মাধ্যমে ব্যবহাকারীরা এই কাজ করতে পারবে। ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ব্যবহাকারীদের এই কাজ নিজে থেকেই করতে হবে। কারণ ১ আগস্ট থেকে সমস্ত সার্ভিস বন্ধ করে দেওয়া হবে।

তবে এসব ফিচার বন্ধ করা হলেও ব্যবহারকারীদের কোনো সমস্যা হবে না। কারণ খুবই কম ব্যবহারকারী ফেসবুকের এই ফিচারগুলো ব্যবহার করতেন।

ফেইসবুক   ফিচার   বন্ধ  


মন্তব্য করুন


টেক ইনসাইড

টুইটার কেনা স্থগিত করলেন ইলন মাস্ক

প্রকাশ: ১২:৩৮ পিএম, ১৪ মে, ২০২২


Thumbnail টুইটার কেনা স্থগিত করলেন ইলন মাস্ক

জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার কেনার চুক্তি আপাতত স্থগিত করেছেন ইলন মাস্ক। এমন সিদ্ধান্তে টুইটারের শেয়ারের দাম ২০ শতাংশ কমে গেছে।

শুক্রবার এক টুইটে টেসলার প্রতিষ্ঠাতা ইলন মাস্ক লিখেছেন, ‘টুইটার চুক্তি সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে’। স্প্যাম এবং জাল অ্যাকাউন্টের জন্য এই ব্যবস্থা নিয়েছেন তিনি। স্প্যাম এবং ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে সর্বশেষ তথ্যের নির্ভরযোগ্যতা যাচাইয়ের জন্য অপেক্ষা করার কথা বলেছেন ইলন মাস্ক।

মে মাসের শুরুতেই টুইটার জানিয়েছিল, এ বছরের প্রথম তিন মাসে তাদের প্ল্যাটফর্মে আর্থিক মূল্যায়নের উপযোগী প্রতিদিনকার নিয়মিত ব্যবহারকারীদের মধ্যে স্প্যাম বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট পাঁচ শতাংশেরও কম।

ভুয়া অ্যাকাউন্ট নিয়ে প্রথম থেকেই ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়ে আসছেন মাস্ক। টুইটার কেনার প্রস্তাব দেওয়ার শুরু থেকেই ‘স্প্যাম বট’ মুছে দিয়ে প্ল্যাটফর্মের সেবা আরও উন্নত করার কথা বলে আসছেন তিনি।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ভার্জ জানিয়েছে, টুইটারের সর্বশেষ প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন থেকেই জটিলতার সূত্রপাত। কয়েক সপ্তাহ আগে প্রকাশিত আর্থিক প্রতিবেদনে কোম্পানিটি বলেছিল, টানা তিন বছর ধরে প্রতিদিনের নিয়মিত ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়িয়ে হিসাব করেছে তারা।

টুইটার বলছে, কারিগরি জটিলতার কারণে একই ব্যবহারকারীর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একাধিক অ্যাকাউন্টকে আলাদা ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট হিসেবে গণনা করেছে তারা। এর ফলে, প্রতি প্রান্তিকে ব্যবহারকারীর সংখ্যা অন্তত ১৯ লাখ বাড়িয়ে হিসেব করা হয়েছে।

গত তিন মাসে ১ কোটি ৩০ লাখ নতুন টুইটার ব্যবহারকারী বেড়েছে। যা মহামারী করোনার পর সর্বোচ্চ বলে জানাচ্ছে একটি আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম।

তার মধ্যে মাস্কের কেনার আগে পর্যন্ত টুইটার বেশ কয়েকটি ঝুঁকির সম্মুখীন হয়। যেমন, মাস্ক টুইটার কেনার পর বিজ্ঞাপনদাতারা আর টুইটারে ব্যয় করবেন কি না তা নিয়ে সন্দেহ দেখা দেয়।

গত ২৫ এপ্রিল টুইটারের মালিকানা পান ইলন মাস্ক। প্রায় ৪,৪০০ কোটি ডলারে এই সংস্থাটি কেনেন তিনি। টুইটার কেনার জন্য ব্যাঙ্ক থেকে বিপুল অঙ্কের অর্থ ঋণ নিয়েছেন মাস্ক। তা শোধ করার জন্য শেষ পর্যন্ত তাঁকে কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে হাঁটতে হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন এই মার্কিন ধনকুবের। পাশাপাশি, খরচ কমানোর উদ্দেশ্যে সংস্থার কিছু উচ্চপদস্থ কর্মীর বেতনও কমানো হতে পারে বলে ঋণদাতা সংস্থাগুলিকে জানিয়েছিলেন তিনি।

টুইটার   স্থগিত   ইলন মাস্ক  


মন্তব্য করুন


টেক ইনসাইড

ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়া হবে: ইলন মাস্ক

প্রকাশ: ১২:৩৫ পিএম, ১২ মে, ২০২২


Thumbnail ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়া হবে: ইলন মাস্ক

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের খ্যাতনামা প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ও বিশ্বের শীর্ষ ধনী ই‌লন মাস্ক। তবে চলতি বছরের শেষ দিকে টুইটারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 

মঙ্গলবার (১০ মে) ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মাস্ক বলেন, ট্রাম্পের টুইটার ব্যবহারে যে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে, আমি তা উঠিয়ে নেব।

তিনি বলেন, টুইটার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা থাকা উচিত নয়। ট্রাম্পের টুইটার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞাকে ‘নৈতিকভাবে বাজে সিদ্ধান্ত এবং প্রচণ্ড রকমের বোকামি’ বলে অভিহিত করেন মাস্ক।

মাস্ক বলেন, আমি মনে করি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ করা সঠিক ছিল না। এটি একটি ভুল সিদ্ধান্ত। কারণ এটি দেশের একটি বৃহৎ অংশকে বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছিল।

গত বছরের জানুয়ারি মাসে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গায় উসকানিমূলক পোস্ট দেওয়ার কারণে টুইটার, ফেসবুকসহ অন্যান্য প্ল্যাফর্মগুটলো ট্রাম্পকে পোস্ট করতে বাধা দেয়। টুইটার সে সময় বলেছিল, ট্রাম্প নীতি লঙ্ঘন করেছেন এবং তার সমর্থকদের মধ্যেহিং সসতা উসকে দিচ্ছেন। একই কারণে ফেসবুকও ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ করে।

তিনি বলেন, টুইটারে পৃথক পোস্টগুলো লুকানো যায়, কেউ এখনও অস্থায়ীভাবে স্থগিত হতে পারেন ‘যদি তারা এমন কিছু করেন যা, বেআইনি বা এমন নোকো অন্যায় করেন, যা বিশ্বের জন্য বিপজ্জনক’।

ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি কীভাবে পরিচালনা করবেন, তা এড়িয়ে গেছেন মাস্ক। কিন্তু তিনি বারবার প্ল্যাটফর্মে বাকস্বাধীনতা প্রসারিত করার জন্য তার অভিপ্রায়ের কথা বলেছেন। পাশাপাশি পরামর্শ দিয়েছেন, টুইটার গণতান্ত্রিক রাজনীতির দিকে ঝুঁকছে।

সম্প্রতি সব ধরনের জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিশ্বের সেরা ধনকুবের ইলন মাস্ক ৪৪ বিলিয়ন ডলারের (৩৪ দশমিক ৫ বিলিয়ন ইউরো) বিনিময়ে কিনেছেন টুইটার। এর ফলে প্রতিষ্ঠানটি পুরোদস্তুর ব্যক্তিমালিকানায় চলে গেল। আগামী তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে মাস্ক টুইটারের নিয়ন্ত্রণ বুঝে নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

টুইটার অ্যাকাউন্ট   ডোনাল্ড ট্রাম্প   ইলন মাস্ক  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন