ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

অমিত শাহের অস্ত্রে বিজেপি বধে উদ্যোগী অখিলেশ যাদব

প্রকাশ: ০৯:৫৫ এএম, ১৫ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

উত্তর প্রদেশে ভোটের আগে এক মহা সংকটে প্রদেশটির শাসক দল বিজেপি। ভোটের আগে তিনদিনে মোট ১১ জন মন্ত্রী ও বিধায়ক বিজেপি-জোট ছাড়লেন। দুইজন যোগ দিলেন রাষ্ট্রীয় লোকদলে, বাকিরা সমাজবাদী পার্টিতে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) বিজেপি ছেড়ে আসা অধিকাংশ মন্ত্রী ও বিধায়ক শুক্রবার সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দিয়েছেন। 

তিনদিনে বিজেপি ও তার শরিক আপনা দল থেকে তিন মন্ত্রী সহ ১১ জন বিধায়ক পদত্যাগ করলেন। সকলেই অনগ্রসর শ্রেণির নেতা। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন একগুচ্ছ পূর্ব বিধায়ক ও জেলা নেতারা। তারা অধিকাংশই অনগ্রসর শ্রেণির নেতা। বিজেপি ছাড়াও বহুজন সমাজ পার্টি ও কংগ্রেস থেকেও নেতারা সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দিয়েছেন।

যে তিনজন মন্ত্রী দল ছেড়েছেন, তাদের নিজেদের গোষ্ঠীতে রীতিমতো ভালো প্রভাব আছে। দৈনিক ভাস্কর জানাচ্ছে, যে ১১ বিধায়ক বিজেপি ও আপনা দল ছেড়েছেন তাদের মোট ১৩৫ আসনে যথেষ্ট প্রভাব আছে। পশ্চিম ও পূর্ব উত্তরপ্রদেশজুড়ে নিজেদের গোষ্ঠীতে তাদের প্রভাব রয়েছে।

এই নেতাদের মধ্যে সব চেয়ে প্রভাবশালী হলেন স্বামীপ্রসাদ মৌর্য। মৌর্যদের মধ্যে তিনি বড় নেতা। আগ্রা, জৌনপুর, কুশীনগর, বলিয়া, মউ, গোরক্ষপুর, মহারাজগঞ্জ, গাজিপুরের মতো জায়গায় তিনি যথেষ্ট প্রভাবশালী। উত্তরপ্রদেশের ভোটদাতাদের মধ্যে সাত থেকে আট শতাংশ মৌর্য।

আরেক পদত্যাগী মন্ত্রী ধরম সিং সাইনিরও ছয়-সাতটি জেলায় প্রভাব রয়েছে। চৌহানদের মধ্যে দারা সিং চৌহান রীতিমতো প্রভাবশালী। দারা সিং সদলবলে আগামী রোববার সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দেবেন বলে সূত্র জানাচ্ছে। 

অমিত শাহের অস্ত্রে

বছর পাঁচেক আগে অমিত শাহ যে কৌশল নিয়েছিলেন, এবার অখিলেশ সেই অস্ত্রই হাতে তুলে নিয়েছেন। প্রবীণ সাংবাদিক শরদ গুপ্ত গণমাধ্যমকে বলেছেন, ''অমিত শাহ সেসময় কৌশল নিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশে যাদব বাদে বাকি অনগ্রসরদের ভোট পাওয়ার জন্য ঝাঁপাবে বিজেপি। যাদব ভোট অখিলেশের সঙ্গে থাকবে ধরে নিয়েই এই প্রয়াস। তখন প্রজাপতি, মৌর্য, সাইনি, রাজভর, বিন্দ, সাগর, নিষাদ সহ অনগ্রসর গোষ্ঠীর নেতাদের বিজেপি-তে নিয়ে আসেন অমিত শাহ।'

উত্তরপ্রদেশে জনসংখ্যার প্রায় ৪০ শতাংশর মতো অনগ্রসর শ্রেণির মানুষ। তার মধ্যে যাদব হলেন ১০-১১ শতাংশ। এছাড়া মৌর্য, প্রজাপতি, সাইনি সহ বিভিন্ন গোষ্ঠী রয়েছে। অমিত শাহ তাদের নেতাদের বিজেপিতে নিয়ে এসেছিলেন। তার ফলও হয়েছিল মারাত্মক। বিজেপি যে ৩০৩টি আসনে জিততে পেরেছিল, তার মধ্যে একশর মতো আসন এসেছিল এই সব অনগ্রসর নেতাদের প্রভাবের সঙ্গে বিজেপি-র শক্তি যুক্ত হওয়ার ফলে।

শরদের মতে, ''এইবার অখিলেশও কৌশল বদল করেছেন। কারণ, শুধু মুসলিম-যাদব ভোটব্যাংক তাকে ক্ষমতায় আনতে পারবে না বুঝে তিনি যাদব বাদে অন্য অনগ্রসর নেতাদের দলে আনার উদ্যোগ নেন। ভোটের আগে দেখা যাচ্ছে, তার কৌশল সফল হয়েছে। যে নেতাদের সঙ্গে নিয়ে অমিত শাহ দুর্দান্ত ফল করেছিলেন, তার মধ্যে অনেকে শুক্রবার অখিলেশের সঙ্গে হাত মিলিয়ে নিয়েছেন।''

সূত্র জানাচ্ছে, আগামী রোববার আরো কিছু নেতা সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দিতে পারেন। তার মধ্যে এক বা দুইজন মন্ত্রী এবং আরো কয়েকজন বিধায়ক বিজেপি ছেড়ে সমাজবাদী পার্টিতে চলে যেতে পারেন।

প্রবীণ সাংবাদিক জয়ন্ত ভট্টাচার্য গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ভোটের ফল কী হবে, সেটা পরের কথা, আপাতত অখিলেশ একটা জিনিস বুঝিয়ে দিয়েছেন, তিনি ভালোভাবেই লড়াইয়ের ময়দানে আছেন। এতজন বিজেপি মন্ত্রী ও বিধায়কের ইস্তফা ও তাদের সমাজবাদী পার্টিতে যোগদান এটা বুঝিয়ে দিচ্ছে যে, বিজেপি-র শক্ত জমি কিছুটা হলেও নড়বড়ে দেখাচ্ছে।

দলিত নেতা চন্দ্রশেখরও এদিন অখিলেশের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। আর অখিলেশও জানিয়ে দিয়েছেন, তার দলে সকলেই স্বাগত, সবাইকেই তিনি প্রাপ্য সম্মান দেবেন। শুধু এখন নয়, পরেও। সুত্র: ডয়েচে ভেলে

উত্তরপ্রদেশ   বিজেপি   অমিত শাহ  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

পদত্যাগ করবেন না বরিস জনসন

প্রকাশ: ১০:২০ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

পদত্যাগ না করা কথা ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। করোনাভাইরাসের মাঝে ব্রিটেন জুড়ে চলা কঠোর লকডাউনে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে মদ্যপানের পার্টি আয়োজন করে এখন ব্যাপক সমালোচনার মুখে রয়েছেন বরিস। তবে এ ইস্যুতে পদত্যাগ করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন বরিস জনসন।

লকডাউনে বরিস জনসনের মদ্যপানের পার্টি আয়োজন নিয়ে ব্রিটিশ ক্যাবিনেট অফিস ও পুলিশ পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করেছে। তদন্ত প্রতিবেদন কবে নাগাদ সামনে আসবে তা এখনো জানা যায়নি। 

পার্লামেন্টে বিরোধীদের তোপের মুখে পড়ে ‘নিয়মভঙ্গকারীদের পদ ছাড়া উচিত’ স্বীকার করলেও নিজে আপাতত এ কাজ করবেন না বলে জানালেন তিনি।  

বুধবার পার্লামেন্টে বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা কেয়ার স্টারমার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করেন, কোনো মন্ত্রী জেনেশুনে পার্লামেন্টকে বিভ্রান্ত করলে পদত্যাগ করতে হবে, এই নিয়ম তার জন্যও প্রযোজ্য কি না? জবাবে বরিস জনসন বলেন, অবশ্যই।

স্টারমার বলেন, কেউ পার্লামেন্টকে বিভ্রান্ত করলে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে। তাহলে আপনি কি পদত্যাগ করবেন? এক্ষেত্রে জনসনের উত্তর, না।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, পার্টি নিয়ে তদন্তের বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারবেন না। তার সরকার যুক্তরাজ্যের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও ইউক্রেন ইস্যুতে পশ্চিমাদের প্রতিক্রিয়া নিয়ে ব্যস্ত।

লকডাউনে পার্টির বিষয়ে একেকবার একেক ধরনের ব্যাখ্যা দিয়েছেন বরিস জনসন। প্রথমে তিনি বলেছিলেন, কোনো নিয়মভঙ্গ হয়নি। পরে এ ধরনের জনসমাগমে উপস্থিত থাকার কথা স্বীকার করে জনগণের কাছে ক্ষমা চান তিনি।

বরিস জনসন   ব্রিটেন   লকডাউন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

করোনায় ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ছাড়ালো ১০ হাজার

প্রকাশ: ০৮:৪০ এএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

করোনার টিকা কর্মসূচি কার্যক্রম জোর কদমে চললেও ভাইরাসটিতে মৃত্যু ও সংক্রমণের হারে যেনো কিছুতেই লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না। ভাইরাসটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১০ হাজার ২২১ জন। যা আগের দিনের তুলনায় প্রায় আট শতাধিক বেশি। আর এতে মোট মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬ লাখ ৪৪ হাজার ৭৩৮ জনে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে বৈশ্বিক পর্যায়ে করোনাভাইরাসের নিয়মিত আপডেট দেওয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

একই সময়ে নতুন করে ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়েছেন আরও ৩৪ লাখ ৯৯ হাজার ৭৮ জন। আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় ৩ লাখ। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৬ কোটি ২৯ লাখ ৬ হাজার ৬১১ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে রাশিয়া। তালিকায় এরপরই রয়েছে ব্রাজিল, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, ইতালি, আর্জেন্টিনা ও কাজাখিস্তানের মতো দেশগুলো।

করোনা   মৃত্যু   শনাক্ত   বিশ্ব  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইউক্রেনে হামলা করলে মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন পুতিন

প্রকাশ: ০৯:০৮ এএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

রাশিয়ার হস্তক্ষেপ থেকে ইউক্রেনকে রক্ষা করতে যুক্তরাষ্ট্রসহ এককাট্টা হয়েছে পশ্চিমা বিশ্ব। মস্কোর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দিচ্ছে তারা। ইতোমধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বলেছেন, ইউক্রেনে হামলা চালালে রাশিয়ার ওপর নানা মার্কিন নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে দেওয়া হবে। বিবেচনায় আসবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ওপর ব্যক্তিগত নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয়টিও। এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

ইউক্রেন ইস্যু নিয়ে উত্তপ্ত আন্তর্জাতিক অঙ্গন। রাশিয়ার হস্তক্ষেপ থেকে ইউক্রেনকে রক্ষা করতে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্ব মস্কোর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের হুঁশিয়ারি দিচ্ছে। অন্যদিকে, রাশিয়া বলছে, ইউক্রেনে হামলার কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই, বরং যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশই উত্তেজনা বাড়াচ্ছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরে ইউক্রেন সীমান্তে লাখো সেনা মোতায়েন করেছে রাশিয়া। দেশটি সম্প্রতি এ এলাকায় সামরিক মহড়াও শুরু করেছে। এ ছাড়া সীমান্ত এলাকায় যুদ্ধজাহাজ, যুদ্ধবিমান এবং উড়োজাহাজ প্রতিরোধী ব্যবস্থা মোতায়েন করা হয়েছে। পশ্চিমা দেশগুলোর সামরিক জোট ন্যাটোও পাল্টা ব্যবস্থা নিয়েছে। সব মিলিয়ে যুদ্ধের আশঙ্কা বাড়ছে বলে বিশ্লেষকেরা মনে করছেন।

মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পুতিনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি উল্লেখ করেন বাইডেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউক্রেনে হামলা হলে বিশ্বজুড়ে এর ‘পরিণতি হবে ব্যাপক’, যা হতে পারে ‘দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবচেয়ে বড় আক্রমণের ঘটনা।’

এ ছাড়া জো বাইডেন বলেন, ইউক্রেনে সেনা পাঠানোর কোনো পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের নেই। তবে, মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন জানিয়েছে, চলমান উত্তেজনার বিষয়টি মাথায় রেখে সাড়ে আট হাজার সেনাকে সতর্কতায় রাখা হয়েছে। এ ছাড়া গত সপ্তাহে ইউক্রেনে প্রায় ৯০ টন অস্ত্র-গোলাবারুদ পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নিরাপত্তা কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকা বলেছে, যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার অর্থনীতিকে পঙ্গু করে দেওয়ার জন্য ‘অভিনব রপ্তানি নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতেও প্রস্তুত।’

ওই কর্মকর্তা বলেছেন, ‘আপনি এ রপ্তানি নিয়ন্ত্রণগুলোকে যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তর জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে বাণিজ্য বিধিনিষেধ হিসেবে ভাবতে পারেন।’

অবশ্য রাশিয়া ক্রিমিয়া দখলের পর যুক্তরাষ্ট্র এবং তার মিত্ররা মস্কোর বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল, কিন্তু তা শেষ পর্যন্ত অকার্যকর প্রমাণিত হয়েছিল, এবং উপদ্বীপটি রাশিয়ার নিয়ন্ত্রণেই থেকে যায়।

বাইডেন   ইউক্রেন   রাশিয়া   যুক্তরাষ্ট্র   পুতিন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

বিশ্বে করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত বাড়লো

প্রকাশ: ০৮:২৭ এএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বিশ্বে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা আরও বেড়েছে। একইসঙ্গে আগের দিনের তুলনায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেড়েছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রায় সাড়ে ৯ হাজার মানুষ। একই সময়ে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় সোয়া ৩২ লাখে।

আজ বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সকালে ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯ হাজার ৪০২ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে সাড়ে ৩ হাজারের বেশি। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৫৬ লাখ ৩৩ হাজার ১৫৮ জনে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে ফ্রান্সে। অন্যদিকে দৈনিক প্রাণহানির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। প্রাণহানির তালিকায় এরপরই রয়েছে রাশিয়া, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, ইতালি, আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল ও স্পেন। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৫ কোটি ৮৯ লাখের ঘর। অন্যদিকে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫৬ লাখ ৩৩ হাজার।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩২ লাখ ১৭ হাজার ৭৫৭ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ১২ লাখের বেশি। এতে মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার ৫৫৮ জনে।

করোনা   মৃত্যু   শনাক্ত   বিশ্ব  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

প্রজাতন্ত্র দিবস: দিল্লির রাজপথে চমক

প্রকাশ: ০৮:০০ এএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবসের মতোই ২৬ জানুয়ারিও প্রত্যেক ভারতবাসীর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও গর্বের দিন। ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ভারত ইংরেজ শাসনের থেকে স্বাধীনতা পায়। কিন্তু সে সময় ভারতের নিজস্ব কোনও স্থায়ী সংবিধান না থাকায় ব্রিটিশ সরকারের ১৯৩৫ সালের সংবিধান অনুযায়ী শাসিত হত স্বাধীন ভারত। ২৯ আগস্ট ভারতে স্থায়ী সংবিধান প্রণয়নের উদ্দেশ্যে একটি খসড়া কমিটি গড়ে তোলা হয়। এরপর ৪ নভেম্বর ভারত খসড়া কমিটি সংবিধান সভায় তাদের সংবিধান জমা দেয়। ঐ বছরের ২৬ নভেম্বর ভারতীয় সংবিধান সভায় গৃহীত হয়। ২৪ জানুয়ারি সংবিধান সভার ৩০৮ জন সদস্য সংবিধানের হস্তলিখিত কপিগুলিতে সই করেন। এর মাত্র দু’দিন পর ২৬ জানুয়ারি ভারতীয় সংবিধান কার্যকর হয় আর সার্বভৌম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মপ্রকাশ করে ভারত। এই দিনটিই ভারতের রিপাবলিক ডে বা প্রজাতন্ত্র দিবস হিসাবে পালিত হয়।

বিভিন্ন কার্যক্রমে এ দিনটি সাজিয়ে তোলে ভারতীয়রা। দিনের শুরুতেই রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ রাজপথে দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। তারপর দিল্লিতে অনুষ্ঠিত হয় জমকালো কুচকাওয়াজ। কুচকাওয়াজ শুরু হয় দিল্লির রাজপথ থেকে। আট কিলোমিটারের এ কুচকাওয়াজ শেষ হয় ইন্ডিয়া গেটে এসে। প্যারেডে অংশগ্রহণ করে ভারতীয় সেনা, নৌ ও বায়ুসেনা। এটি একটি বড় আকর্ষণ দেশের মানুষের কাছে। দিবসটি উপলক্ষে কাজাখিস্তান, কিরগিস্তান, তাজিকিস্তান, তুর্কমেনিস্তান ও উজবেকিস্তান থেকে বিশিষ্টজনেরা আসবেন এবং প্রজাতন্ত্র দিবসের কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। তবে করোনা সংক্রমণের কারণে ২৪ হাজারের বদলে রাজপথে মাত্র আট হাজার মানুষকে জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, ১৫ বছরের নীচে কোনও শিশু এবং ভ্যাকসিন নেননি এমন মানুষ কুচকাওয়াজে অংশ নিতে পারবেন না।

প্রজাতন্ত্র দিবসের প্যারেডে প্রতি বছর বিভিন্ন রাজ্যের ট্যাবলো অংশগ্রহণ করে। ট্যাবলোগুলি দেশের ভিন্ন সংস্কৃতির পরিচয় বহন করে। ভিন্ন ধরনের সংস্কৃতির সঙ্গে দেশবাসীকে পরিচয় করায়। এদিন সেনাবাহিনীতে বীরত্বের জন্য পরম বীর চক্র, অশোক চক্র এবং বীর চক্র দেওয়া হয়। আর রাষ্ট্রপতি প্রদান করেন বিখ্যাত পদ্মশ্রী পুরস্কার।

উল্লেখ্য, এই বছর প্রজাতন্ত্র দিবসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং বিশিষ্ট অতিথিদের ওপর হামলার ছক কষেছে আতঙ্কবাদীরা, এমনই তথ্য পেয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। সম্প্রতি গোয়েন্দা সংস্থার তরফে একটি নয় পাতার রিপোর্ট তৈরি করা হয়। ফলে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ভারত   প্রজাতন্ত্র দিবস  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন