ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ক্রেডিট সুইসের ‘জীবনমরণ’ নির্ভর করছে আগামী ৪৮ ঘণ্টায়

প্রকাশ: ১১:৩৫ এএম, ১৮ মার্চ, ২০২৩


Thumbnail

পশ্চিমা বিশ্বে দুই দিনের সাপ্তাহিক ছুটি শুরু হচ্ছে আজ থেকে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সংবাদে বলা হয়েছে, এই ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সুইজারল্যান্ডের বৃহৎ ব্যাংক ক্রেডিট সুইসকে বড় কোনো সিদ্ধান্ত নিতে হবে। অর্থাৎ টিকে থাকতে বড় কিছু করতে হবে, তা না হলে ভেঙেও পড়তে পারে তারা।

পশ্চিমা ব্যাংক খাতে অস্থিরতা বাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্রের তিন দিনের ব্যবধানে দুটি ব্যাংক বন্ধ হওয়ার পর গত সপ্তাহে বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ ব্যাংক ক্রেডিট সুইস তারল্য বাড়াতে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছ থেকে ৫ হাজার ৪০০ কোটি ডলার ঋণ নেয়। সেই রেশ কাটতে না কাটতে এবার জানা গেল, সুইজারল্যান্ডের কেন্দ্রীয় ব্যাংক ক্রেডিট সুইসকে ইউবিএস এজির সঙ্গে একীভূত হতে পরামর্শ দিয়েছে।  খবর রয়টার্সের।

এদিকে বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঋণ পাওয়ার খবরে ক্রেডিট সুইসের শেয়ারদর বাড়লেও শুক্রবার আবার কমেছে। সামগ্রিকভাবে ব্যাংকের শেয়ারদর পতন অব্যাহত আছে।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংক ক্রেডিট সুইস ও ইউবিএসকে একীভূত হওয়ার পরামর্শ দিলেও তারা এ ব্যাপারে নিমরাজি। আবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে এমন ক্ষমতা নেই, যাতে তারা ব্যাংক দুটিকে একীভূত হতে বাধ্য করতে পারে। ব্যাংক দুটির পরিচালনা পর্ষদ এ সপ্তাহে পৃথক বৈঠক করবে বলেও জানা গেছে।

ক্রেডিট সুইসের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা দীক্ষিত যোশী এ সপ্তাহে বিভিন্ন অংশীজনের সঙ্গে বৈঠক করে ব্যাংকের কৌশলগত অবস্থান ঠিক করবেন।

রয়টার্স জানিয়েছে, এই পরিপ্রেক্ষিতে পশ্চিমা দেশের অন্তত চারটি ব্যাংক ক্রেডিট সুইসের সঙ্গে লেনদেনের বিষয়ে সীমাবদ্ধতা জারি করেছে, যেমন সোসিয়েত জেনারেল এসএ ও ডয়েচে ব্যাংক।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ডেমোক্রেটিক দলের বেশ কয়েকজন সাংসদ এসভিবির পতনে পেছনে বৃহৎ বিনিয়োগ ব্যাংক গোল্ডম্যান স্যাকসের হাত আছে কি না, তা খতিয়ে দেখতে নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও বিচার বিভাগকে অনুরোধ জানিয়েছেন।

তিন দিনের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালি ব্যাংক ও সিগনেচার ব্যাংক বন্ধের পর যে আশঙ্কা ছড়িয়েছিল, তা আরও ঘনীভূত হয় বুধবার সুইজারল্যান্ডের ব্যাংক ক্রেডিট সুইসের আর্থিক পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার খবরে। বৃহস্পতিবার জানা গেল, আর্থিক সংকটে আছে আমেরিকারই ফার্স্ট রিপাবলিক ব্যাংক। নিয়ন্ত্রক সংস্থার কড়া নজরদারিতে ছিল তারা। তবে সান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক এ ব্যাংকের পতন ঠেকাতে এগিয়ে এসেছে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় কয়েকটি ব্যাংক। জে পি মরগ্যান ও সিটি গ্রুপের নেতৃত্বে ১১টি ব্যাংক ফার্স্ট রিপাবলিককে ৩০ বিলিয়ন বা ৩ হাজার কোটি ডলার আমানত দিচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, উচ্চ নীতি সুদের জমানায় ব্যাংকিং শিল্পের একাংশ আর্থিক অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে, তা স্পষ্ট। ফলে অনেক বিশ্লেষক যা–ই বলুন না কেন, এই পরিস্থিতি ২০০৮ সালের আর্থিক মন্দার স্মৃতি ফিরিয়ে আনছে, যখন বিশ্বজুড়ে একের পর এক ব্যাংক দেউলিয়া হয়েছিল।

শেয়ারের দরপতন চলছে

এদিকে বৃহস্পতিবার ক্রেডিট সুইসের শেয়ারদর বাড়লেও শুক্রবার আবারও তাদের শেয়ারদর পড়েছে ৮ শতাংশ। ১৩ থেকে ১৫ মার্চ ব্যাংকটি থেকে ৪৫ কোটি ডলার আমানত তুলে নিয়েছেন আমানতকারীরা।

একই সঙ্গে শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের আঞ্চলিক ব্যাংকগুলোর রক্তক্ষরণ অব্যাহত ছিল। সেদিন তাদের এসঅ্যান্ডপি ব্যাংক ইনডেক্সের পতন হয়েছে ৪ দশমিক ৬ শতাংশ। গত দুই সপ্তাহে এই সূচকের পতন হয়েছে ২১ দশমিক ৫ শতাংশ। ২০২০ সালের মার্চ মাসে করোনাভাইরাসজনিত লকডাউনের পর তাদের শেয়ারদর আর কখনো এতটা পড়েনি।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে ১১টি ব্যাংকের কাছ থেকে কলমানি পাওয়া ফার্স্ট রিপাবলিক ব্যাংকের। শুক্রবার তাদের শেয়ারদর কমেছে ৩২ দশমিক ৮ শতাংশ। এতে গত ১০ অধিবেশনে তাদের শেয়ারদর কমেছে ৮০ শতাংশের বেশি।

কেন বন্ধ হলো দুটি ব্যাংক

গত বছরের শুরুতেই ফেডের নীতি সুদহার ছিল শূন্যের কাছাকাছি। কিন্তু রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধজনিত মূল্যস্ফীতির প্রভাব মোকাবিলায় গত এক বছরে ফেড আটবার নীতি সুদহার বাড়িয়েছে। এতে বাণিজ্যিক ঋণ ও বন্ডের সুদহার বেড়েছে। ঋণ ও বন্ডের সুদহার বৃদ্ধির সম্মিলিত ফলাফল হচ্ছে, বিনিয়োগকারীদের ঝুঁকি এড়িয়ে নিরাপদ জায়গায় বিনিয়োগের সুযোগ বৃদ্ধি পাওয়া। অর্থাৎ বিনিয়োগকারীরা ভাবছেন, ঝুঁকিপূর্ণ বাণিজ্যিক প্রকল্পে বিনিয়োগ না করে বরং বন্ডে বিনিয়োগ করাই ভালো, আরামে সুদ খাওয়া যাবে।

সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সিলিকন ভ্যালির স্টার্টআপ কোম্পানিগুলো। স্টার্টআপগুলো সিলিকন ভ্যালি ব্যাংকসহ অন্যান্য ব্যাংকে রাখা আমানত ভাঙতে শুরু করেছে। ফলে সিলিকন ভ্যালি ব্যাংকের আমানতে টান পড়েছে। এ বাস্তবতায় এসভিবি গত বুধবার ২১ বিলিয়ন বা ২ হাজার ১০০ কোটি ডলারের বন্ড বিক্রি করে, যার সিংহভাগই ছিল ট্রেজারি বন্ড। এর সুদহার ছিল ১ দশমিক ৯, অথচ ১০ বছর মেয়াদি ট্রেজারি বন্ডের সুদহার প্রায় ৩ দশমিক ৯। এ কারণে বন্ড বিক্রি মুখ থুবড়ে পড়ে। এতে তাদের ক্ষতি হয় ১৮০ কোটি ডলার।

এরপর সেই ক্ষতি পোষাতে ৯ মার্চ এসভিবি ২২৫ কোটি ডলার সমমূল্যের ইকুইটি বিক্রির ঘোষণা দেয়। বলা যায়, এটা ছিল কফিনে শেষ পেরেক ঠোকার মতো। তখন হুড়মুড়িয়ে আমানত তুলে নিতে শুরু করেন আমানতকারীরা। পতন ঘটে ৪০ বছরের পুরোনো এই ব্যাংকের। তার জেরে তিন দিনের মধ্যে বন্ধ হয়ে যায় সিগনেচার ব্যাংক।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

কোটা আন্দোলনে প্রাণহানি: সুবিচার নিশ্চিতের আহ্বান ভলকার টুর্কের

প্রকাশ: ০৮:৫২ পিএম, ১৭ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

চলমান কোটা সংস্কার আন্দোলনে শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ-হামলা ও প্রাণহানির ঘটনায় তদন্ত করে সুবিচার নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনার ভলকার টুর্ক। 

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকেলে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্ম এক্সে তিনি এ আহ্বান জানান। 

সরকারি চাকরিতে কোটাব্যবস্থা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকে ঘিরে গতকাল মঙ্গলবার ও আগের দিন সোমবার দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে গতকাল ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রংপুরে সংঘর্ষে ছয়জন নিহত হয়। 

এরপর মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) রাতে অনির্দিষ্টকালের জন্য সব ধরনের বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সচিব ড. ফেরদৌস জামানের স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। 


কোটা আন্দোলন   ভলকার টুর্ক   জাতিসংঘ   মানবাধিকার কমিশনার  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

বাংলাদেশে ভেসে আসা ভারতীয় মন্ত্রীর মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

প্রকাশ: ০৮:০৯ পিএম, ১৭ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

নিখোঁজ হওয়ার ১০ দিন পর বাংলাদেশের তিস্তা নদীর চর থেকে সিকিমের সাবেক মন্ত্রী ও বিধানসভার সাবেক ডেপুটি স্পিকার রামচন্দ্র পৌদিয়ালের পচাগলা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মঙ্গলবার এই লাশ শনাক্তকরণের পর বাংলাদেশ পুলিশ পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশ কর্মকর্তা ও মৃতের পরিবারের হাতে হস্তান্তর করেছে।

জানা যায়, সোমবার বাংলাদেশের লালমনিরহাট জেলার গোবরধন গ্রাম সংলগ্ন মহিষখোঁচা এলাকায় তিস্তার চরে একটি লাশ ভেসে থাকতে দেখেন সেখানকার বাসিন্দারা। অজ্ঞাত এই লাশ উদ্ধার করার পর মঙ্গলবার বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। পরে সেই লাশে হাতঘড়ি দেখে সিকিমে পৌদিয়ালের পরিবারের সন্দেহ হয়। এরপর পরিবারের পক্ষ থেকে কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ থানা ও বাংলাদেশ পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে।

জানা গেছে, রামচন্দ পৌদিয়াল সিকিমের শিক্ষা ও বন দপ্তরের মন্ত্রী ছিলেন। এ ছাড়াও তিনি রাইসিং সান দলের নেতা ছিলেন।

বুধবার কোচবিহারের পুলিশ সুপার দ্যুতিমান ভট্টাচার্য বলেন, হাতঘড়ি দেখে লাশটিকে চিহ্নিত করেছিল পরিবার। ময়নাতদন্তের পরে বাংলাদেশের পুলিশ প্রশাসন চ্যাংরাবান্ধা ইমিগ্রেশন দিয়ে লাশটি কোচবিহারের মেখলিগঞ্জ পুলিশ ও মৃতের পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছে।

মৃত সাবেক মন্ত্রীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ৭ জুলাই থেকে নিখোঁজ ছিলেন ৮০ বছর বয়সী রামচন্দ্র পৌদিয়াল। সেদিন সকাল নয়টা নাগাদ সিকিমের তার ছোট সিংতামের বাড়ি থেকে বেড়িয়েছিলেন সাবেক মন্ত্রী। আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছেন বলে পরিবারকে জানিয়েছিলেন তিনি। সিসিটিভি ফুটেজেও প্রবল বৃষ্টির মধ্যে ছাতা মাথায় দিয়ে তাকে বের হতে দেখা যায়। বিকেলের মধ্যে বাড়ি ফিরে আসার কথা থাকলেও না ফেরায় খোঁজ শুরু করেছিল পরিবার। পরে থানায় নিখোঁজের ডায়েরি করেছিল পরিবার।

ময়নাতদন্তের পর মঙ্গলবার রাতেই কোচবিহার জেলার চ্যাংরাবান্ধা ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে সিকিমের সাবেক মন্ত্রীর লাশ বাংলাদেশ প্রশাসনের পক্ষে ভারতীয় প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়া হয়। লাশ তুলে দেওয়ার সময় মেখলিগঞ্জ পুলিশের এসডিপিও আশিস পি সুব্বা, ওসি মিঠুন বিশ্বাস, ওসি আইসিপি সুরজিত বিশ্বাস ছাড়াও বিএসএফ এবং বাংলাদেশ পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারাও হাজির ছিলেন।

সাবেক মন্ত্রীর জামাই বলেন, বাংলাদেশে উদ্ধার হওয়া লাশের হাতঘড়ি দেখেই তারা তার শ্বশুরকে চিহ্নিত করতে পারেন।


বাংলাদেশ   ভারতীয় মন্ত্রী   মরদেহ  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

রানিংমেট হিসেবে কেন জেডিকেই বেছে নিলেন ট্রাম্প?

প্রকাশ: ০৬:৪৩ পিএম, ১৭ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

সম্প্রতি আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ওহাইও রাজ্যের সিনেটর জেডি ভ্যান্সকে রানিং মেট মনোনীত করেছেন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প।

১৫ জুলাই মিলওয়াকিতে রিপাবলিকান পার্টির জাতীয় সম্মেলনে ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে ৩৯ বছর বয়সি ভ্যান্সের নাম ঘোষণা করেন তিনি। তার এই ঘোষণাকে একধরনের চমক বলা চলে। কারণ জেডি ভ্যান্স একসময় ট্রাম্পের কট্টর সমালোচক ছিলেন।

জেডি ভ্যান্স ২০১৬ সালে বিভিন্ন সাক্ষাৎকার ও টুইটারে ট্রাম্পকে নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেছিলেন। সেসময় তিনি বলেছিলেন, 'আমি কখনোই ট্রাম্পের লোক নই। আমি কখনোই তাকে পছন্দ করি না। তাকে নির্বোধ মনে করি।’

এমনকি ট্রাম্পকে আমেরিকার হিটলার উল্লেখ করে ফেসবুকে পোস্টও দিয়েছিলেন তিনি। যদিও, পরে তার মানসিকতায় পরিবর্তন আসে। কিন্তু কেন ট্রাম্প তার সমালোচককেই রানিং মেট হিসেবে মনোনীত করলেন এমন প্রশ্ন অনেকেরই। 

জেডি ভ্যান্সকে ট্রাম্প তার রানিংমেট হিসেবে নির্বাচিত করার অন্যতম কয়েকটি কারন হলো-

১. কট্টর সমালোচনা

জেডি ভ্যান্স ছিলেন ট্রাম্পের একজন কট্টর সমালোচক। তাকে রানিংমেট করার কারণে ডেমোক্র্যাট সমর্থকদের অনেকের মধ্যেই এখন একটা কনফিউশন তৈরি হবে। যাদের মধ্যে অনেকেই বুড়ো বাইডেনকে ছেড়ে ট্রাম্পকে সমর্থন দেয়ার একটা সম্ভাবনা রয়েছে। 

২. জেডির স্ত্রী উষা চিলুকুরির সহযোগিতা

জেডি ভ্যান্সকে রানিংমেট করার আরও একটি অন্যতম কারণ হলো তার স্ত্রী উষা চিলুকুরি। জেডির স্ত্রী উষা চিলুকুরি একজন ভারতীয় বংশোদ্ভূত নারী। যিনি অত্যন্ত বুদ্ধিমতি এবং ক্ষমতাধর একজন ভারতীয় নারী। যিনি খানিকটা ওবামা মিশেলের মতো বলেই মনে করা হচ্ছে। উষা চিলুকুরির মা–বাবা ভারত থেকে অভিবাসী হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের সান দিয়াগোর শহরতলিতে জন্ম ও বেড়ে ওঠা উষা একসময় নিবন্ধিত ডেমোক্র্যাট ভোটার ছিলেন। কর্মজীবনে উষা বিচারপতি ব্রেট কাভানাফের অধীনে কাজ করেছেন। কাভানাফ এখন সুপ্রিম কোর্টের একজন বিচারপতি। এরপর উষা সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি জন রবার্টসের অধীনেও কাজ করেছেন। আর জেডি কে রানিং মেট করার ফলে, যুক্তরাষ্ট্রের ভারতীয় নাগরিকদের একাংশের ভোট পাবেন ট্রাম্প।

৩. তরুণ নেতা

জেডি ৩৯ বছর বয়সী একজন তরুণ। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বয়স নিয়ে অনেক সমালোচনা চলছে। এখন ট্রাম্পের যদি কিছু হয়ে যায় তাহলে তার জায়গায় লড়বেন একজন তরুণ। অর্থাৎ, বুড়ো বাইডেনের বিপরীতে লড়বেন জেডির মত একজন তরুণ প্রার্থী। যিনি ট্রাম্পের অনুপস্থিতিতে রিপাবলিকানদের নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা রাখেন। যেখানে বাইডেনের রানিংমেট কমলা হ্যারিস তুলনামূলক ভাবে জেডির চেয়ে কম জনপ্রিয় এবং এখন পর্যন্ত কমলা হ্যারিস বাইডেনের জন্য তেমন উল্লেখযোগ্য কিছুই করতে পারেনি। জেডিকে বেছে নেওয়া এটাই ইঙ্গিত দেয় যে, ট্রাম্প  নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জিততে যাচ্ছেন বলেই ধরে নিয়েছেন। 

এছাড়াও, জেডি ভ্যান্সের অন্যরকম এক জনপ্রিয়তা রয়েছে। ২০১৬ সালে জেডি ভ্যান্সের একটি স্মৃতিকথামূলক বই প্রকাশিত হয়। নাম হিলবিলি এলিজি। এ বই তাকে দেশজুড়ে খ্যাতি এনে দেয়। বইটি নিইইয়র্ক টাইমসের সর্বোচ্চ বিক্রীত (বেস্ট সেলার) বই। পরবর্তীতে বইটি নিয়ে একটি চলচ্চিত্রও নির্মিত হয়। জেডির করপোরেট সংস্কৃতি এবং কীভাবে এটি তার রাজনীতি এবং বিশ্বদর্শনকে প্রভাবিত করে তা উল্লেখ করা হয়েছিল বইটিতে। 

অন্যদিকে, জেডি হচ্ছেন সেই ধরনের শ্বেতাঙ্গ, যিনি শ্রমিক শ্রেণির ভোটারদের সাথে সংযোগ স্থাপন করতে পারবেন এবং তাদের উৎসাহিত করতে পারবেন। আর জেডির হাত ধরে তাই শিল্পরাজ্যগুলোতে নিজের ভালো অবস্থান তৈরি করতেও সক্ষম হবেন ট্রাম্প।


মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন   জেডি ভ্যান্স   রানিং মেট   ডোনাল্ড ট্রাম্প  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

কারাগারে জায়গা না থাকায় বন্দিদের আগাম মুক্তি দেবে যুক্তরাজ্য

প্রকাশ: ০৫:৩৪ পিএম, ১৭ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

কারাগারগুলো জনাকীর্ণ হয়ে পড়ায় বন্দিদের আগাম মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাজ্য। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।  

নতুন বন্দিদের রাখার জায়গা না হওয়ায় এই সমস্যার সমাধানে সাজা পূরণ হওয়ার আগেই কয়েক হাজার কয়েদিকে মুক্তি দেবে যুক্তরাজ্য। দেশটির নতুন বিচারমন্ত্রী শাবানা মাহমুদ এই ঘোষণা দিয়েছেন।  

তিনি জানিয়েছেন, পুরুষ কয়েদিদের জন্য ব্রিটিশ কারাগারগুলোতে মাত্র ৭০০ জায়গা খালি রয়েছে। ২০২৩ সাল থেকেই কারাগারগুলোর ৯৯ শতাংশ ধারণক্ষমতা পূর্ণ হয়ে যায়। পশ্চিম ইউরোপের মধ্যে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের কারাগারগুলোতে মাথাপিছু বন্দির সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

তবে সমস্যা সমাধানে চার বছরের বেশি সাজাপ্রাপ্ত সহিংস অপরাধী, যৌন অপরাধী, গার্হস্থ্য নির্যাতনের অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদিদের আগাম মুক্তি পাবে না। 

শাবানা মাহমুদ বলেছেন, কারাগারগুলোতে জায়গা ফুরিয়ে গেলে ‘বিপজ্জনক লোকভর্তি’ গাড়িগুলো সারা দেশে ঘুরে বেড়াতে পারে। কারণ তখন সেগুলোর যাওয়ার কোনো জায়গা থাকবে না।


কারাগার   যুক্তরাজ্য  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

পেরুতে পাহাড়ি রাস্তায় বাস খাদে পড়ে মৃত ২৫

প্রকাশ: ০৫:২৫ পিএম, ১৭ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

উত্তর পেরুর পাহাড়ি রাস্তা থেকে একটি বাস খাদে পড়ে গিয়ে কমপক্ষে ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আরো অনেকে আহত হয়েছেন। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ সোমবার এই খবর জানিয়েছে বলে এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

স্থানীয় কর্মকর্তা ওলগা বোবাডিলা আরপিপি রেডিওকে বলেছেন, ঘটনাটি রবিবার গভীর রাতে কাজামার্কার আন্দিয়ান অঞ্চলের একটি পাহাড়ি রাস্তায় ঘটে।

রাস্তাটির বিভিন্ন অংশে গর্ত ছোট-বড় ছিল এবং বাসটি প্রায় ২০০ মিটার (প্রায় ৬৫০ ফুট) গভীরে পড়ে গিয়েছিল। এ দুর্ঘটনায় প্রথমে মৃতের সংখ্যা ২৩ জন বললেও পড়ে তা ২৫ জনে সংশোধন করা হয়।

পৌরসভার কর্মকর্তা জেইম হেরেরা বলেন, ৫০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে বাসটি একটি নদীর ধারে পড়ে যায় এবং যাত্রীদের কয়েকজন পানিতে ভেসে গেছে। উদ্ধারকর্মীরা ও দমকলকর্মীরা দুর্ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। দেশটির সেলেনডিন পৌরসভা ৪৮ ঘণ্টা শোক ঘোষণা করেছে।

দ্রুতগতি, রাস্তার খারাপ অবস্থা, রক্ষণাবেক্ষণের অভাব এবং ট্রাফিক নিয়মের দুর্বল প্রয়োগের কারণে পেরুর রাস্তায় প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটে। গত বছরও দেশটিতে দুর্ঘটনায় তিন হাজার ১০০ জনেরও বেশি মৃত্যু ঘটেছে। বাসটি রাস্তায় চলাচলের উপযোগী ছিল কি না তা খতিয়ে দেখছে কর্তৃপক্ষ।


পেরু   মৃত্যু   সড়ক দুর্ঘটনা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন