ইনসাইড বাংলাদেশ

সড়কে মানুষ হত্যার ‘বন্দোবস্ত’ দ্রুত বন্ধ করার দাবি রবের

প্রকাশ: ০৭:৩৯ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail সড়কে মানুষ হত্যার ‘বন্দোবস্ত’ দ্রুত বন্ধ করার দাবি রবের

অপেশাদার 'চালক' ও 'ফিটনেসবিহীন' গাড়ি  দিয়ে সড়কে মানুষ হত্যার 'বন্দোবস্ত' দ্রুত বন্ধের লক্ষ্যে ছয় দফা দাবি জানিয়েছেন জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব। সোমবার (২৯ নভেম্বর) বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ছয় দফা দাবি জানান তিনি।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, 'শুধুমাত্র লাইসেন্সবিহীন 'অপেশাদার চালক' ও 'ফিটনেসবিহীন গাড়ির' কারণে বছরে কয়েক হাজার মানুষ মৃত্যুমুখে পতিত হয়। রাস্তায় লাইসেন্সবিহীন চালকের যান চলাচল নিষিদ্ধ করতে পারলে হাজার হাজার মানুষের জীবন সুরক্ষা পেত এবং অগণিত ছাত্র ও পবিারের স্বপ্ন নিমিষেই ধুলিস্যাৎ হতো না। অদক্ষ, অপেশাদার ও লাইসেন্সবিহীন চালকের হাত থেকে জীবন সুরক্ষা প্রশ্নে গত ৫০ বছরেও রাষ্ট্র দৃশ্যমান কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেনি।

খোদ রাজধানীতে লাইসেন্সবিহীন চালক সেজে গাড়ি চালাচ্ছে নিরাপত্তা প্রহরী, সুইচ ম্যান, মশক কর্মী ও পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৬৫টি গাড়ির বিপরীতে চালক আছে মাত্র ৬২ জন। এতে প্রমাণ হয় রাষ্ট্রই মানুষ হত্যার বন্দোবস্ত করে রেখেছে। আধুনিক বিশ্বে এরূপ ঘটনা বিরল। 

শুধুমাত্র সদিচ্ছা থাকলেই সরকার প্রযুক্তি, পুলিশ এবং প্রশাসনের সহায়তায় অতি সহজেই লাইসেন্সবিহীন 'চালক' ও 'ফিটনেসবিহীন' পরিবহন বন্ধ করতে পারে। একটি মাত্র দুর্ঘটনায় অনেক পরিবারেরই স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। ভবিষ্যতে যাতে এ ধরনের কোন দুর্ঘটনা না ঘটে সরকারকে কাল বিলম্ব না করে এখনই পদক্ষেপ নিতে হবে। 

এ লক্ষ্যে রবের ছয় দফা হচ্ছে-

(১) লাইসেন্সবিহীন চালকদের গাড়ি চালানো অবিলম্বে নিষিদ্ধ করতে হবে;
(২) ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় নামানো বন্ধ করতে নিয়মিত পুলিশ চেকিং এর ব্যবস্থা করতে হবে। 
(৩) প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দেশে যথেষ্ট সংখ্যক ড্রাইভারের প্রাপ্যতা নিশ্চিত করতে হবে; 
(৪) রাস্তায় গাড়ি চালকদের মধ্যে অনিয়ন্ত্রিত প্রতিযোগিতা চিরতরে বন্ধ করতে হবে;
(৫) যথেষ্ট সংখ্যক ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ করে যত্রতত্র ক্রসিং বন্ধ করতে হবে এবং
(৬) নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থাপনায় সরকারকে উদাসীনতা, নির্বিকারিত্ব ও অমনোযোগিতা পরিহার করতে হবে।

দুর্ঘটনায় মানুষের মৃত্যুর উৎসমুখ বন্ধ না করে প্রশ্রয় দিলে রাষ্ট্রের প্রয়োজনীয়তাই শেষ হয়ে যায়। সড়কে চরম নৈরাজ্য ও মানুষ হত্যা বন্ধে দ্রুত ৬ দফা বাস্তবায়নের দাবি জানান আ স ম রব।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

এবার বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতেও নিষিদ্ধ হচ্ছে মোটর বাইক!

প্রকাশ: ১০:০১ পিএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail

দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে (ঢাকা-মাওয়া-ভাঙা এক্সপ্রেসওয়ে) অন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্য অনুমোদিত সব ধরনের যানবাহনের জন্য টোল নির্ধারণ করেছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়।  পাশাপাশি এই এক্সপ্রেসওয়ে মোটরসাইকেল নিষিদ্ধের কথাও ভাবছে সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ)। ইতোমধ্যে এক্সপ্রেসওয়েতে মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করার প্রস্তাবও পাঠিয়েছে সংস্থাটি।

রাজধানীর সড়ক ভবনে বুধবার (২৯ জুন) সওজের সঙ্গে কোরিয়ান এক্সপ্রেসওয়ে কর্পোরেশনের এক চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানান সওজের প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম মনির হোসেন পাঠান।

তিনি বলেন, আমরা ইতোমধ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাসড়কে মোটরসাইকেল চলাচল নিষিদ্ধ করার প্রস্তাব পাঠিয়েছি। তবে সার্ভিস লেনে মোটরবাইক চলাচল করতে পারবে।

এক্সপ্রেসওয়েতে মোটরসাইকেল নিষিদ্ধ করার বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান সওজের প্রধান প্রকৌশলী।

গত ২৫ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন। পরদিন সবার জন্য পদ্মা সেতু উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। তবে বিপুলসংখ্যক মোটরসাইকেল চলাচলের কারণে সৃষ্ট অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ২৭ জুন ভোর ৬টা থেকে পদ্মা সেতুতে নিষিদ্ধ রয়েছে মোটরসাইকেল চলাচল।

বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়ে  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন ৭৮ উপ-সচিব

প্রকাশ: ০৯:৪৮ পিএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতি পেলেন ৭৮ উপ-সচিব

যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন ৭৮ জন উপ-সচিব। 

বুধবার (২৯ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। পদোন্নতি দিয়ে তাদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (যুগ্ম-সচিব) করা হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, যুগ্ম-সচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা তাদের যোগদানপত্র Email: sa1@mopa.gov.bd এ প্রেরণ করবেন।

যুগ্ম সচিব   পদোন্নতি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

সংসদে রওশনের খবর নিলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৯:৪২ পিএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে রওশনের খবর নিলেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক রওশন এরশাদের শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নিয়েছেন সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২৯ জুন) একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশনে যোগ দেন রওশন এরশাদ। এ সময় সংসদ নেতা শেখ হাসিনা নিজ আসন ছেড়ে বিরোধী দলীয় নেতার আসনে গিয়ে তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নেন।

পরে এক সংশোধনী প্রস্তাব আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন, দীর্ঘদিন পর জাতীয় সংসদের অধিবেশনে যোগ দিয়েছেন বিরোধী দলীয় নেতা। তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ-খবর নিতে সংসদ নেতা নিজেই তার আসনের কাছে চলে গেছেন। এটাই হচ্ছে সংসদীয় গণতন্ত্রের বড় সৌন্দর্য।

উল্লেখ্য, প্রায় আট মাস ব্যাংককে চিকিৎসা শেষে গত সোমবার (২৭ জুন) দেশে ফেরেন রওশন এরশাদ। গত বছরের ৫ নভেম্বর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে উন্নত চিকিৎসার জন্য রওশন এরশাদকে থাইল্যান্ডে নেওয়া হয়। ৭৮ বছর বয়সী প্রবীণ রাজনীতিবিদ রওশন এরশাদ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন। তার বাম পায়ে ইনফেকশন ছিল, তাছাড়া তার ডায়াবেটিসসহ আরও কিছু রোগের চিকিৎসা হয় ব্যাংককে। 

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদ ময়মনসিংহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য। তিনি সংসদে গত দুই মেয়াদে বিরোধী দলীয় নেতার দায়িত্ব পালন করে আসছেন।


প্রধানমন্ত্রী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেডের প্রথম শিপিং ভেসেলের আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু

প্রকাশ: ০৮:৫৬ পিএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেডের প্রথম শিপিং ভেসেলের আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু

নারায়ণগঞ্জ সদর এর লাঙ্গলবন্দে টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেড এর তৈরি প্রথম শিপিং ভেসেল এমভি রানিয়া-৬ গত ২৭ জুন ব্রহ্মপুত্র নদের পানিতে ভাসানো হয়েছে। 

সোমবার (২৭ জুন) বিকেলে ফিতা কেটে জাহাজ ভাসানো পর্বের শুভ উদ্বোধন করেন টি,এস,এল,এল-এর প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা খায়রুল বশীর খান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মির্জা মুজাহিদুল ইসলাম, প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা, বসুন্ধরা মাল্টি ট্রেডিং লিমিটেড।

বসুন্ধরা গ্রুপ সব সময়ই বৃহৎ প্রকল্প নির্মাণে  অসাধারণ কৃতিত্ব প্রদর্শন করে এসেছে। গ্রুপের অভ্যন্তরীণ চলমান নানা প্রকল্পের মধ্যে টি,এস,এল,এল-ও আগামীর বিরাট সম্ভাবনার ডাক দিচ্ছে। উদ্বোধন চলাকালীন এই প্রকল্পের বিস্তারিত তথ্য এবং কার্যক্রম সম্পর্কে জানা গেলো, যেখানে টি,এস,এল,এল-এর মোট ১২টি কোস্টার লাইটার জাহাজ নির্মাণাধীন আছে, যা হতে যাচ্ছে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় অভ্যন্তরীণ মালামাল বহনকারী জলপথের বাহন। 



প্রতিটি ২০০০ মেট্রিক টন ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন এই জাহাজগুলোতে স্বয়ংক্রিয় আনলোডিং কনভেয়ার  বেল্ট সিস্টেম থাকছে। ১২টির মধ্যে ৬টি জাহাজ নির্মিত হচ্ছে লাঙ্গলবন্দে বে-টেক শিপবিল্ডার ইয়ার্ডে এবং বাকি ৬টি নির্মিত হচ্ছে কেরানীগঞ্জে টি,এস,এল,এল-এর নিজস্ব শিপইয়ার্ডে। এই লাইটার জাহাজগুলো কুতুবদিয়া চট্রগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে শুরু করে সারা দেশব্যাপী নৌপথের মাধ্যমে পণ্য পরিবহনে নিয়োজিত থাকবে।  ২০১৬ সালে টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেড (টি,এস,এল,এল) এর যাত্রা শুরু হয়।

এখানে উল্লেখ্য যে, ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে রানিয়া-৬ এর নির্মাণ শুরু হয়। দেশসেরা সুদক্ষ প্রকৌশলী সমন্বিত সম্পূর্ণ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়  এই প্রকল্পের কাঠামো তৈরি ও বাস্তবায়ন হয়েছে। 

প্রথম শিপিং জাহাজ পানিতে ভাসানো প্রসঙ্গে খায়রুল বশীর খান বলেন, শিপিং এবং লজিস্টিকস বর্তমানে দেশের  অন্যতম  গুরুত্বপূর্ণ পরিসেবা শিল্প হিসাবে পরিগণিত হয়েছে। আন্তর্জাতিক এবং অভ্যন্তরীণ বাণিজ্যের ৮০% এরও বেশি সমুদ্রপথে আর নৌপথে পরিবহণ করা হয়। আর তাই সোর্সিং, নিরাপত্তা, পরিবহন, সময়মত ডেলিভারি এবং সমস্ত ধরণের পণ্য এবং কাঁচামাল বিতরণের সুযোগ দেশব্যাপী অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়িয়েছে।  এ দিকটা মাথায় রেখেই টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেড (টি,এস,এল,এল) প্রতিষ্ঠিত হয়। 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও জানানো যায়, শিপিং ভেসেল তৈরির সমস্ত উপাদান দেশ ও বিদেশ থেকে আমদানি করে দক্ষ প্রকৌশলী ও কারিগর দিয়ে বানানো হয়। এই উদ্যোগের প্রধান উদ্দেশ্য হল অভ্যন্তরীণ পরিবহন যোগাযোগ ব্যবস্থাপনাকে আরো দৃঢ় ও মজবুত করে যাতায়াতের সময় এবং খরচ কমিয়ে দেশের অর্থনৈতিক অবকাঠামোকে আরো বলিষ্ঠ করে তোলা।


টগি শিপিং এন্ড লজিস্টিকস লিমিটেড  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

১১৭ কর্মকর্তাকে সিনিয়র সহকারী সচিব পদে পদোন্নতি

প্রকাশ: ০৮:৫৩ পিএম, ২৯ Jun, ২০২২


Thumbnail ১১৭ কর্মকর্তাকে সিনিয়র সহকারী সচিব পদে পদোন্নতি

১১৭ জন কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী সচিব পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। বুধবার (২৯ জুন) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

এরমধ্যে একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পদোন্নতি পেয়েছেন ১১০ জন কর্মকর্তা। 

ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের এসব কর্মকর্তাদের বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস নিয়োগ বিধিমালা, ১৯৮১ এর বিধি ৫(বি) অনুযায়ী সিনিয়র স্কেল পদে (জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫ এর ৬ষ্ঠ গ্রেড: টাকা ৩৫,৫০০- ৬৭,০১০/-) পদোন্নতি দেওয়া হলো। 

এতে বলা হয়, পদোন্নতি পাওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে যারা সিনিয়র স্কেলভুক্ত পদে কর্মরত রয়েছেন, তারা স্ব স্ব পদে একই কর্মস্থলে কর্মরত থাকবেন এবং নিজ নিজ নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ বরাবর যোগদানপত্র দাখিল করবেন। পদোন্নতিপ্রাপ্ত যে সব কর্মকর্তা সিনিয়র স্কেলভুক্ত পদে নেই, তারা বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সিনিয়র সহকারী সচিব) হিসেবে সিনিয়র সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বরাবর যোগদানপত্র পাঠাবেন (Email iapp@mopa.gov.bd) এবং পুনরাদেশ না দেওয়া পর্যন্ত বর্তমান কর্মস্থলে স্ব স্ব পদে কর্মরত থাকবেন।

এদিকে, শিক্ষাজনিত ছুটিতে থাকা ৭ জনের পদোন্নতির জন্য আরেকটি আদেশ জারি করা হয়েছে। 

ওই আদেশে বলা হয়, বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের এসব কর্মকর্তাদের সিনিয়র স্কেল পদে (জাতীয় বেতনস্কেল, ২০১৫ এর ৬ষ্ঠ গ্রেড টাকা ৩৫,৫০০-৬৭,০১০/-) পদোন্নতি দেওয়ার সুপারিশ যথাযথ কর্তৃপক্ষ থেকে অনুমোদিত হয়েছে।

এতে আরও বলা হয়, এসব কর্মকর্তারা শিক্ষাছুটি/লিয়েনে থাকায় তাদের পদোন্নতির আদেশ জারি করা হয়নি। শিক্ষাজনিত শিক্ষাছুটি/লিয়েন থেকে ফিরে এসে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে যোগদান করার পর এ আদেশ জারি করা হবে।

সিনিয়র সহকারী   সচিব  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন