ইনসাইড বাংলাদেশ

জাতীয় আয়কর দিবস আজ

প্রকাশ: ০৮:২০ এএম, ৩০ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail জাতীয় আয়কর দিবস আজ

আজ (৩০ নভেম্বর) জাতীয় আয়কর দিবস। ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, সবাই মিলে দেব কর’ স্লোগানকে সামনে রেখে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) এবার সারাদেশে দিবসটি উদযাপন করছে। দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘কর আহরণে করদাতাদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে মুজিববর্ষের অঙ্গীকার বাস্তবায়ন’।

২০০৮ সাল থেকে দেশে আয়কর দিবস উদযাপিত হচ্ছে। আগে প্রতি বছর ১৫ সেপ্টেম্বর দিবসটি উদযাপিত হতো। তবে ২০১৬ সাল থেকে ৩০ নভেম্বর আয়কর দিবস পালন করছে এনবিআর। এদিন ব্যক্তি শ্রেণির আয়কর বিবরণী বা রিটার্ন জমা দেওয়ারও শেষ দিন।
 
নির্ধারিত সময়ের পর দুই শতাংশ হারে বিলম্ব সুদ গুনতে হবে করদাতাদের। তবে বিলম্ব সুদ পরিশোধ করে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে করদাতারা ইচ্ছে করলে রিটার্ন জমা দেওয়ার সময় বাড়িয়ে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে যথাযথ নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপ কর কমিশনার বরাবর আবেদন করা হলে তিনি করদাতাকে দুই মাস পর্যন্ত সময় বাড়িয়ে দিতে পারেন।

চলমান বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে জনসমাগমের ঝুঁকি বিবেচনায় ১৪তম আয়কর দিবসে র‍্যালি করছে না এনবিআর। তবে দিবসটি উপলক্ষে সব আয়কর অফিস সজ্জিত করা ও সেমিনার আয়োজন করা হয়েছে।

৩০ নভেম্বর বেলা ১১টায় এনবিআরের সম্মেলন কক্ষে ‘রূপকল্প বাস্তবায়ন ও আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে আয়করের ভুমিকা’ শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। সেমিনারে আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আনিসুল হক প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। জাতীয় আয়কর দিবসে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশের ব্যবস্থা করেছে। টেলিভিশন চ্যানেলগুলোও বিশেষ আয়োজন রেখেছে।
 
বর্তমানে দেশের প্রায় ৬৮ লাখের বেশি টিআইএনধারী রয়েছেন। এর মধ্যে ২৫ লাখের মতো টিআইএনধারী নিয়মিত আয়কর রিটার্ন দেন বলে জানা গেছে। করদাতাদের প্রত্যাশা পূরণে এবার এক ছাদের নিচে আয়কর মেলা অনুষ্ঠিত হয়নি। তবে দেশের ৩১টি কর অফিসে গত ১ নভেম্বর থেকে মেলার পরিবেশে করদাতাদের সেবা দেওয়া হচ্ছে।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

রাস্তায় সমাবেশের অনুমতি পাবে না বিএনপি: ডিএমপি কমিশনার

প্রকাশ: ০৫:৩৩ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছেন, রাস্তায় সমাবেশ করার অনুমতি পাবে না বিএনপি। তবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বাদে অন্য কোনো স্থানের নাম এখনো প্রস্তাব করেনি বিএনপি।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নাকি নয়াপল্টন, বিএনপিকে কোথায় সমাবেশ করতে দেওয়া হবে- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সোমবার (৫ ডিসেম্বর)  ডিএমপি কমিশনার এসব কথা বলেন। 

এর আগে গতকাল রোববার বিকেলে সমাবেশের ভেন্যুর বিষয়ে আলোচনা করতে বিএনপির একটি প্রতিনিধিদল ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে বৈঠক করে।

ওই বৈঠক শেষে ডিএমপির সদরদপ্তরের প্রধান ফটকের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান বলেছিলেন, আমরা প্রথম থেকেই বলে আসছি নয়াপল্টনে সমাবেশ করবো। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে আমাদের একাধিকবার আলোচনা হয়েছে।

এর মধ্যে পুলিশ আমাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়ে চিঠি দিয়েছে। আমরা এ বিষয়ে আজ (রোববার) আলোচনা করতে এসেছিলাম। বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তাকে আলোচনা করে এ বিষয়ে ঠিক করতে বলা হয়েছে। ভেন্যুর বিষয়ে আলোচনা তারা করবেন। আগামীকাল (সোমবার) থেকেও এ আলোচনা চলতে পারে। এরপরই ভেন্যু চূড়ান্ত হবে।

তবে ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ নয়াপল্টনেই করার দলীয় সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর শাহজাহানপুরে নিজ বাসায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে আব্বাস বলেন, খালেদা জিয়ার বাড়ির সামনে পুলিশের তল্লাশি চৌকি, নেতাকর্মীদের গ্রেফতার-হয়রানি, আমার বাসা ঘেরাও সবই একইসূত্রে গাঁথা। বাসা ঘেরাও করে ১০ ডিসেম্বরের গণসমাবেশ দমানো যাবে না। সমাবেশ বানচাল করতে ভয় পেয়ে সরকার এসব করছে।

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. ফারুক হোসেন বলেন, নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ের সামনে ১০ ডিসেম্বরের ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশের অনুমতি না পেয়ে বিএনপি এখন সমাবেশের জন্য নতুন ভেন্যু খুঁজছে।

তিনি বলেন, ডিএমপির পক্ষ থেকে বিএনপিকে নতুন ভেন্যুর প্রস্তাব দেয়নি। আমরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দিয়েছি। তারাই নতুন ভেন্যুর কথা বলছে। তবে আমরা আশা করি, বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই তাদের সমাবেশটি করবে।

তিনি আরও বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কারণ, আমাদের দৃষ্টিকোণ থেকে উদ্যানটি নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে বেশি নিরাপদ। আমরা বিএনপিকে অনুরোধ করেছি, ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশটি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে করার জন্য। ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশকে কেন্দ্র করে যত ধরনের নিরাপত্তা সহযোগিতা করার দরকার সব পদক্ষেপ আমরা নেবো।

নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে গত ১৫ নভেম্বর পুলিশ কমিশনারকে চিঠি দেয় বিএনপি। তবে যানজট ও নাগরিক দুর্ভোগ সৃষ্টির কারণ দেখিয়ে গত ২৯ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দেয় ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি)। বিএনপিকে দেওয়া অনুমতিপত্রে সমাবেশের জন্য ২৬টি শর্ত জুড়ে দেয় ডিএমপি। তবে বিএনপির নয়াপল্টনেই সমাবেশ করবে বলে নিজেদের অবস্থানে অনড় থাকে।

গতকাল রোববার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ছাড়া ঢাকার ভেতরে সমাবেশের জন্য বিকল্প ভেন্যুর প্রস্তাব পেলে তা বিবেচনা করা হবে।

বিএনপি   ১০ ডিসেম্বর   ডিএমপি কমিশনার  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

শেরপুরে বিদেশি মদসহ আটক-১

প্রকাশ: ০৫:১৫ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

শেরপুরের নালিতাবাড়ীর দুর্গম পাহাড়ী অঞ্চল থেকে এক'শ বোতল বিদেশী মদসহ এক মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‍্যাব-১৪। রোববার (৪ ডিসেম্বর) রাত আটটার দিকে উপজেলার পূর্ব সমচূড়া থেকে তাকে আটক করা হয়। রাত সাড়ে এগারোটার দিকে র‍্যাব প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানান।

জানা গেছে, মাদক কারবারি নবী হোসেন (৩০), তিনি নকলা উপজেলার টালকী পশ্চিমপাড়া এলাকার আবু মিয়ার ছেলে।

র‍্যাব প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন, জামালপুর র‍্যাবের কোম্পানী কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামানের নেতৃত্বে এবং সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার এম. এম. সবুজ রানার উপস্থিতিতে র‍্যাবের একটি অভিযানিক দল নালিতাবাড়ীর দূর্গম পাহাড়ী অঞ্চল পূর্ব সমচূড়া এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় প্রথমে নবী হোসেনকে আটক করা হয়। পরে তার দেয়া তথ্য মতে আমদানি নিষিদ্ধ এক'শ বোতল বিদেশী মদ উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত আমদানি নিষিদ্ধ বিদেশী মদের আনুমানিক অবৈধ বাজার মূল্য অর্ধ লক্ষাধিক টাকা।

র‍্যাব-১৪, সিপিসি-১, জামালপুর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান বলেন, আটককৃত নবী হোসেন দীর্ঘদিন যাবৎ শেরপুর জেলার বিভিন্ন স্থানে মাদক ক্রয়-বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে নালিতাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মাদকের মতো সামাজিক ব্যাধির বিরুদ্ধে র‍্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিদেশি মদ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

ভুট্টা চাষে বাম্পার ফলনের স্বপ্ন বুনছেন কৃষকরা


Thumbnail

আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এ বছর ভুট্টার বাম্পার ফলনের স্বপ্ন বুনছেন কুড়িগ্রামের কৃষকরা। তবে তেল, সার ও কীটনাশকের দাম বাড়ায় উৎপাদন খরচ বাড়ার দাবি তাদের।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এ বছর জেলায় ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় ৬০ হেক্টরের বেশি।

সরেজমিনে দেখা যায়, ভুট্টার সবুজ পাতায় ছেয়ে গেছে চরাঞ্চল। বিঘার পর বিঘা জমিতে অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি ভুট্টা চাষে ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা। অন্যান্য ফসলের চেয়ে ভুট্টায় খরচ কম বলে চাষে ঝুঁকছেন তারা।

সদর উপজেলার কদমতলা গ্রামের কৃষক জুয়েল আহমেদ বলেন, এ বছর পাঁচ বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করেছি। প্রতি বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষে ৭-৮ হাজার টাকা খরচ হয়। ফলন ভালো হলে বিঘা প্রতি ৩০-৩২ মণ ভুট্টা পাওয়া যায়। মনপ্রতি ১০-১২ হাজার টাকা লাভ হবে বলে জানান তিনি।

অন্যান্য কৃষকরা বলেন, প্রতি বছর চরের জমিগুলেতে বিভিন্ন ধরনের রবিশস্য, মসুর, বাদাম ও আলু চাষ করি। এ বছরই প্রথম ভুট্টা চাষ করলাম। গাছের ধরণ দেখে মনে হচ্ছে এবারে ভুট্টা থেকে ভালো ফলন পাওয়া যাবে। ইরি-বোরোসহ অন্যান্য আবাদের চেয়ে ভুট্টা চাষে সার-কীটনাশক কম লাগে। ফসল তোলা পর্যন্ত কোনো বাড়তি ঝামেলা নেই। উৎপাদন খরচ কম হওয়ায় এ চাষে দ্বিগুণ লাভ হয়।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিপ্লব কুমার মোহন্ত বলেন, জেলায় সাড়ে ৪ হাজার চাষিদের প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে। তাদের সার-বীজ দেওয়া হবে। এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ৬০০ হেক্টর জমিতে ভুট্টা রোপণ করা হয়েছে। আশাকরি ভুট্টা চাষে গত বছরের তুলনায় বেশি লাভবান হবেন কৃষকরা।

বাম্পার ফলন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

লক্ষ্মীপুরে সামাজিক বনায়নে চুক্তি


Thumbnail

লক্ষ্মীপুরে ১৪৯ জন উপকারভোগীদের মাঝে চুক্তিনামা দলিল হস্তান্তর করা হয়েছে। সোমবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে সামাজিক বনায়নে নিয়োজিত এসব উপকারভোগীদের মাঝে এ দলিল হস্তান্তর করেন বন বিভাগ। এসময় উপকার ভোগীদের নিয়ে বৃক্ষরোপণে সচেতনতামূলক আলোচনা করেন বন বিভাগ কর্মকর্তারা।

সদর উপজেলার ডাঃ আবদুল হক আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, নোয়াখালী বন বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক কাজী তারিকুর রহমান।

জেলা সহকারী বন সংরক্ষক মোঃ ফিরোজ আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, নোয়াখালী বন্যপ্রাণী ও জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কর্মকর্তা ইব্রাহিম খলিল, চররমনীমোহন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ ছৈয়াল, জেলা বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম ও দালালবাজার রেঞ্জ কর্মকর্তা (এসএফএনটিসি) চন্দন চন্দ্র ভৌমিক।

এর আগে গেলো বছর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার তিনটি ইউনিয়নে রোপন করা হয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ৭০ হাজার গাছের চারা। পরিবেশ, বন ও জলোবায়ু রক্ষায় সদরের চররমনী মোহন, শাকচর ও চররুহিতা ইউনিয়নের ১৫ কিলোমিটার সড়কে এ চারা রোপন করা হয়।

বনায়ন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড বাংলাদেশ

মেহেরপুরে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালন করা হয়

প্রকাশ: ০৪:৫৮ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২২


Thumbnail

'মাটি খাদ্যের সূচনা যেখানে'  প্রতিপাদ্যে মেহেরপুরে পালিত হয়েছে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস।  এ উপলক্ষে সোমবার ৫ ডিসেম্বর বেলা ১০ টায় মেহেরপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়  ভবনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের  পরিচালক মৃধা মুজাহিদুল ইসলাম।  

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক শংকর কুমার মজুমদার ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক সাইদুর রহমান। মৃত্তিকা সম্পদ বিভাগের কুষ্টিয়ার অঞ্চলের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা আহাদ মন্ডল আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। সভায় মাটির বিভিন্ন গুনাগত মান  সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন বক্তারা।

মৃত্তিকা দিবস  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন