ইনসাইড গ্রাউন্ড

ভ্যাকসিন না নিয়ে বিপাকে জকোভিচ

প্রকাশ: ০৬:৫০ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail ভ্যাকসিন না নিয়ে বিপাকে জকোভিচ

নতুন বছরের প্রথম মাস জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিতব্য বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নাও খেলতে পারেন বিশ্বের এক নম্বর তারকা নোভাক জকোভিচ। আসরে খেলতে হলে অবশ্যই ভ্যাকসিন দেওয়া থাকতে হবে। অস্ট্রেলিয়া সরকারের এমন বাধ্যবাধকতায় ভ্যাকসিনের ব্যাপারে অনীহা প্রকাশ করা জকোভিচ পড়েছেন মহা বিপাকে।

মেলবোর্নে রেকর্ড ২১তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে কোর্টে নামার কথা রয়েছেন এ সার্বিয়ান তারকার। তবে অস্ট্রেলিয়া ওপেনে জকোভিচের না খেলার বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছেন তার বাবা সারজান জকোভিচ।

জকোভিচের বাবা বলেছেন, ‘অবশ্যই সে মন থেকেই মেলবোর্নে যেতে চায়। কারণ, সে একজন ক্রীড়াবিদ এবং সার্বিয়াসহ তার ভক্তরা অবশ্যই গ্র্যান্ড স্ল্যামে তার অংশগ্রহণ আশা করে। কিন্তু আমি জানি না আদৌ কী হতে যাচ্ছে।’'

তিনি আরও বলেন, ‘এমনও হতে পারে সে না খেলার সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত নিতে পারে। কারণ, এভাবে একজন খেলোয়াড়কে জোড় করে কিছু করানো ঠিক হচ্ছে কি-না আমি বলতে পারবো না।’

বিষয়টি একান্তই জকোভিচের ব্যক্তিগত ব্যাপার বলে মনে করেন সারজান। এ ক্ষেত্রে তিনি কার্যত ছেলের পক্ষ নিয়েই কথা বলেছেন। এমনকি জকোভিচ ভ্যাকসিন নিবেন কি-না এ ব্যপারে সারজান নিজেও কিছুই জানেন না।

এদিকে, টুর্নামেন্ট পরিচালক ক্রেইগ টিলে জানিয়েছেন, ‘জকোভিচকে আমরা সবাই এখানে দেখতে চাই। তবে এখানে খেলতে হলে তাকে অবশ্যই ভ্যাকসিনেটেড হতে হবে।’


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে সংশয়ে আনহেল ডি মারিয়া

প্রকাশ: ১২:৪০ পিএম, ২৭ Jun, ২০২২


Thumbnail

আর্জেন্টিনা দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের আনহেল ডি মারিয়া জানিয়েছেন, কাতার বিশ্বকাপে কেবল লিওনেল মেসি ছাড়া দলের বাকি সবার জায়গা অনিশ্চিত। যেখানে তিনি নিজেও বেশ ভালো ফর্মে থাকার পরেও নিজেই নিজেই জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার কথা জানালেন। 

রবিবার (২৬ জুন) এক সাক্ষাৎকারে ডি মারিয়া তুলে ধরেন ক্লাব পরিবর্তনের সঙ্গে জাতীয় দলে জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার বিষয়টি। 

বয়স ৩৪ হলেও খেলার ধার কমেনি এতটুকু বরং দুর্দান্ত ফর্মে আছেন ডি মারিয়া। সদ্যই পিএসজি থেকে বিদায় নেওয়ার পর তার পরবর্তী গন্তব্য নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা থাকলেও লিওনেল স্কালোনির দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ তিনি। দলটির রেকর্ড ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পথচলায় তার রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে তার গোলেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েছিল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। 

যেভাবে খেলছেন, তাতে বছরের শেষে হতে যাওয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে ডি মারিয়ার না থাকাটাই হবে বিস্ময়কর। 

সাক্ষাৎকারে ডি মারিয়া জানান, দলে জায়গা ধরে রাখতে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে তাকে। তিনি বলেন, কাতার বিশ্বকাপের দলে) একমাত্র লিওনেল মেসির জায়গা নিশ্চিত। এখন থেকে চার মাস পরে কী হবে, কেউ জানে না। আমাকে ক্লাব পরিবর্তন করতে হবে, সেখানে আবার মানিয়ে নিতে হবে, খেলতে হবে এবং ভালো অনুভব করতে হবে - যা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। 

আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার তালিকায় দি মারিয়া আছেন চতুর্থ স্থানে (১২২)। তালিকায় তার আগে রয়েছেন মেসি (১৬২), হাভিয়ের মাসচেরানো (১৪৭) ও হাভিয়ের জানেত্তি (১৪৫)। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩১টি ম্যাচ খেলেছেন দি মারিয়া। ৫টি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৮টি।

২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর এখন ক্লাবহীন তিনি। সূত্রের খবর, এক বছরের চুক্তিতে তাকে দলে টানতে আগ্রহী ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস।

গুঞ্জন রয়েছে, জুভেন্টাসের পাশাপাশি দি মারিয়াকে দলে টানতে চেষ্টা করছে বার্সেলোনাও। বর্তমানে ছুটিতে থাকা সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা অবশ্য এই মুহূর্তে সেসব নিয়ে ভাবছেন না। তিনি বলেন, ইউভেন্তুস ইতালির সবচেয়ে বড় ক্লাব এবং আমার প্রতি আগ্রহী দলগুলোর একটি। এই মুহূর্তে আমি এটা নিয়ে একটু চিন্তা করছি, তবে এখন আমার পূর্ণ মনোযোগ পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটানো। বার্সেলোনা বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি এবং আগে আমাকে সবসময় তাদের বিপক্ষে খেলতে হয়েছে। 

ডি মারিয়া   আর্জেন্টিনা   পিএসজি   ফুটবল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

লিড তুলতেই নেই ৬ উইকেট, এখনও ৪২ রানে পিছিয়ে টাইগাররা!

প্রকাশ: ০৮:১২ এএম, ২৭ Jun, ২০২২


Thumbnail লিড তুলতেই নেই ৬ উইকেট, এখনও ৪২ রানে পিছিয়ে টাইগাররা!

সেন্ট লুসিয়া টেস্টে আবারও বিপর্যস্ত অবস্থায় টিম টাইগারর্স। অবস্থা এতটাই খারাপ যে, ক্যারিবিয়দের প্রথম ইনিংসে দেওয়া ১৭৪ রানের লিড তুলতেই দ্বিতীয় ইনিংসে দিন শেষে পড়ে গেছে ৬ উইকেট। কেই যেনো উইকেটে থিতু হতে পারছেন না। স্কোরবোর্ড দেখলে অবশ্য তাই অনুমান করা যায়।

তামিম ইকবাল ৪ (৮), মাহমুদুল হাসান জয় ১৩ (২১), নাজমুল শান্ত ৪২ (৯১), এনামুল বিজয় ৪ (৭), লিটন দাস ১৯ (৩২), সাকিব আল হাসান ১৬ (৩২), নুরুল হাসান সোহান ১৬(১৪)*, মেহেদী মিরাজ ০(১৩)*। সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে, বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস সামারিটা এমনই।

এখনও ক্যারিবীয়দের থেকে ৪২ রানে পিছিয়ে আছে সাকিব আল হাসানের দল। এখন শেষ ভরসা হয়ে সলতেতে প্রদীপ জ্বেলে আছেন সোহান আর মিরাজ। তারপর আছেন তিন পেসার খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন আর শরীফুল ইসলাম।

কেমার রোচ আর আলজারি জোসেফের তোপে দ্বিতীয় ইনিংসে এখন পর্যন্ত সাকিব আল হাসানের দল তুলতে পেরেছে ১৩২, হারিয়েছে ৬ উইকেট।
এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৪০৮ রানে অলআউট হয়েছে ক্যারিবিয়ানরা, বাংলাদেশের হয়ে খালেদ আহমেদ নিয়েছেন ৫ উইকেট।

অন্যদিকে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সবমিলিয়ে চতুর্থ দিনে কতোটা প্রতিরোধ গড়তে পারবে বাংলাদেশ এখন সেটাই দেখার অপেক্ষা।

টাইগার   ব্যাটিং ব্যর্থতা   সেন্ট লুসিয়া টেস্ট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

৩য় দিনের শুরুতেই জুটি ভাঙলেন মিরাজ

প্রকাশ: ০৮:৩৫ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail

কাইল মায়ার্স একের পর এক জুটি গড়ে যাচ্ছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর পঞ্চম উইকেটে জার্মেই ব্ল্যাকউডকে নিয়ে ১১৬ রানের জুটি গড়েছিলেন এই সেঞ্চুরিয়ান।

ওই জুটি ভাঙার পর দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে জসুয়া ডি সিলভাকে নিয়ে ফের প্রতিরোধ মায়ার্সের। ষষ্ঠ উইকেটেও জুটিটা শতরানের কাছাকাছি চলে এসেছিল।

তবে তৃতীয় দিনের সকালেই ৯৬ রানের জুটি ভেঙে দিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ১১৫ বল খেলে ২৯ রান করা জসুয়াকে অবশেষে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেছেন টাইগার অফস্পিনার।

মিরাজের ঘূর্ণি বল সুইপ করতে চেয়েছিলেন ক্যারিবীয় উইকেটরক্ষক। তবে সেটা পুরোপুরি মিস করে ফেলেন। আম্পায়ার আঙুল তুলে দিলে আর জায়গায় এক সেকেন্ডও দাঁড়াননি জসুয়া।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১১০ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩৫৯ রান। মায়ার্স ১৩৬ আর আলজেরি জোসেফ ২ রানে অপরাজিত আছেন। এখন পর্যন্ত লিড ১২৫ রানের।

এর আগে কাইল মায়ার্সের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেটে ৩৪০ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম দিন শেষে লিড ছিল ১০৬ রানের।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ড্র করে সিরিজ জিতলো বাংলাদেশের মেয়েরা

প্রকাশ: ০৮:১১ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail

এক ম্যাচ জয় ও আরেক ম্যাচে ড্র করে দুই ম্যাচের সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। আজ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে মালয়েশিয়ার বিপক্ষে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ম্যাচ গোলশুন্য ড্র হয়েছে। বাংলাদেশের মাটিতে নারীদের প্রথম আন্তর্জাতিক প্রীতি সিরিজ জয়ের বিশেষ রেকর্ড হলো। 

আগের ম্যাচে বাংলাদেশ মালয়েশিয়াকে ৬-০ গোলে হারিয়েছিল। আজ দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ দুই অর্ধে অনেক আক্রমণ করলেও গোল আদায় করতে পারেনি।

মালয়েশিয়া এই ম্যাচে দারুণভাবে ঘুরে দাড়িয়েছে। মালয়েশিয়ান কোচ প্রথম ম্যাচের পর রক্ষণ নিয়ে কাজ করার কথা বলেছিলেন। এর প্রতিফলন মাঠে দেখা গেছে। মালয়েশিয়া আজ রক্ষণাত্নক কৌশল অবলম্বন করেছে। তাদের জমাট বাঁধন অনেক সময় ভাঙতে সক্ষম হয়নি বাংলাদেশ। 

ম্যাচের শেষের দিকে বাংলাদেশের এক ফুটবলারের ট্যাকেলে মালয়েশিয়ান ফুটবলার ব্যথা পান। এতে দুই দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে খানিকটা তর্কাতর্কি হয়। যোগ করা সময় ছিল ৬ মিনিট। চতুর্থ মিনিটে কর্নার থেকে জটলার মধ্যে গোলের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিল। বাংলাদেশ ফিনিশিং দুর্বলতায় পারেনি। এই ম্যাচে ১৮ কর্নার পেয়েও সাবিনারা গোল করতে পারেননি।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ভারতীয় শিবিরে ফের করোনার হানা

প্রকাশ: ১২:৩৫ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail ভারতীয় শিবিরে ফের করোনার হানা

গতবছর করোনার জন্য অসম্পূর্ণভাবে শেষ হয়েছিল ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ। সেই অসম্পূর্ণ সিরিজ সম্পূর্ণ করতে গিয়ে ফের সমস্যায় পড়েছে ভারতীয় দল। ভারতীয় শিবিরে ফের হানা দিয়েছে করোনা। আক্রান্ত হয়েছেন ভারতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক রোহিত শর্মা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টের প্রস্তুতি হিসেবে লেস্টারশায়ারের বিপক্ষে খেলছে ভারত। অনুশীলন ম্যাচ চলাকালীন ভারতীয় দলের র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করালে রোহিতের করোনা ধরা পড়ে। আপাতত তিনি আইসোলেশনে আছেন। অবশ্য দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করেননি রোহিত। প্রথম ইনিংসে ২৫ রানে আউট হন।  

বিসিসিআই এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারতীয় অধিনায়ক বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন। রোববার (২৬ জুন) বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য আরটি পিসিআর টেস্ট করানো হবে তার। 

ভারত ছাড়ার আগেই করোনায় আক্রান্ত হন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ইংল্যান্ডে গিয়ে জানা যায়, করোনায় আক্রান্ত ছিলেন বিরাট কোহলিও। এবার আক্রান্ত হওয়ার খবর এসেছে রোহিত শর্মার।

ভারতের ইংল্যান্ড সফরের একমাত্র টেস্টটি মাঠে গড়াবে ১ জুলাই। যে কারণে রোহিতের করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় ওপেনিং নিয়ে দারুণ দুর্ভাবনায় পড়েছে ভারত।

এর আগে গত বছর সেপ্টেম্বরে ইংল্যান্ড সফরে গিয়েই করোনায় আক্রান্ত হয়েছিল ভারতীয় ক্রিকেট দলের কয়েকজন। সেই সিরিজে চারটি টেস্ট হওয়ার পরে পঞ্চম টেস্ট বাতিল হয়ে যায়। 

ভারত   করোনা   ভারত-ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন