ইনসাইড গ্রাউন্ড

রেকর্ড সপ্তমবারের মত ব্যালন ডি'অর জয় মেসির (ভিডিও)

প্রকাশ: ০৮:৩৬ এএম, ৩০ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail রেকর্ড সপ্তমবারের মত বেলন ডি'অর জয় মেসির (ভিডিও)

ফ্রান্সে এক বর্ণিল সন্ধ্যায় ২০২১ সালের বিশ্বের সবচেয়ে সেরা ফুটবলারের নাম ঘোষণা করে ফরাসি ম্যাগাজিন ‘ফ্রান্স ফুটবল’। আর এবারে রেকর্ড সপ্তমবারের মত বেলন ডি’অর হাতে উঠল আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুঘর মেসির হাতেই।

সোমবার (২৯ নভেম্বর) রাতে ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ এ পুরস্কারে বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়।

২০২১ সালটা মেসির জন্য ঘটনাবহুল, স্মৃতিময়। উচ্ছ্বাস আর চাপা কষ্টের কান্না দুটোই রয়েছে এই বছরে। ধুঁকতে থাকা বার্সেলোনাকেও জিতিয়েছিলেন কোপা দেলরে শিরোপা, লা লিগায় করেছিলেন তৃতীয়ও।

এরপর দেশকে ২৮ বছরের শিরোপার খরা ঘোচান। এনে দেন কাঙিক্ষত কোপা আমেরিকা শিরোপা। ওই টুর্নামেন্টে ৪ গোল ও ৫ অ্যাসিস্ট করে হয়েছিলেন টুর্নামেন্টসেরাও। এরপর আসে তার কান্নার দিন। ২১ বছরের সম্পর্ক শেষ করে বার্সেলোনা ছেড়ে কাঁদতে কাঁদতে পাড়ি জমান প্যারিসে। গায়ে চড়ান পিএসজির জার্সি। 

মেসি আগের ছয়বার এই পুরস্কার জিতেছেন-২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৯

ভোটাভুটিতে বায়ার্ন মিউনিখের গোলমেশিন জার্মানি তারকা রবের্ত লেওয়ানডস্কি হারিয়ে নিজের সর্বোচ্চসংখ্যক ব্যালন ডি’অর জয়ের রেকর্ডকে আরও এক ধাপ উঁচুতে নিয়ে গেলেন ৩৪ বছর বয়সী এই আর্জেন্টাইন ফুটবল সুপারস্টার।

২০২১ সালের গ্রহের সেরা খেলোয়াড় হিসাবে স্বীকৃতি পেয়ে, মেসি এখন চির প্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পাঁচবারের বিজয়ী রিশ্চিয়ানো রোনালদোর থেকে দুই ধাপের ব্যবধানে এগিয়ে রইলেন।

এদিকে, বছরের সেরা ক্লাবের পুরস্কার পেয়েছে চেলসি। ব্যালনের তালিকায় ছয় নম্বরে এসেছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর নাম। রবার্ট লেভান্ডোস্কি বর্ষসেরা স্ট্রাইকারের পুরস্কার জিতেছেন।

উল্লেখ্য, ১৯৫৬ সালে প্রথমবার চালু হয় ব্যালন ডি অর। তখন কেবল ইউরোপের সেরা খেলোয়াড়কে দেওয়া হতো এই পুরস্কার। ১৯৯৫ সাল থেকে ইউরোপে খেলা বিশ্বের যেকোনো খেলোয়াড়ের জন্য পুরস্কারটি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০০৭ সাল থেকে সেটি দেওয়া হচ্ছে বিশ্বের যেকোনো জায়গায় খেলা ফুটবলারদের।




মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বাংলাদেশ, পাকিস্তান এবং নিউজিল্যান্ড সিরিজের সময়সূচি ঘোষণা

প্রকাশ: ০৪:৪১ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail

অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় বসবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। তার আগে বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য একটি টি-টোয়েন্টি ত্রিদেশীয় সিরিজ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ক্রিকেট নিউজিল্যান্ড। সেই সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিল দেশটি।

বাংলাদেশ আগেই সিরিজ খেলতে নিজেদের সম্মতি দিয়েছিল, তবে পাকিস্তান সেপ্টেম্বরে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড সিরিজের সূচি নিশ্চিত হওয়ার অপেক্ষায় ছিল। সেটা হয়ে যাওয়ার পরই গত ২৬ জুন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) প্রধান রমিজ রাজা ত্রিদেশীয় সিরিজে দেশটির অংশগ্রহণ নিশ্চিত করেন।

ত্রিদেশীয় সিরিজের সব পক্ষের সম্মতি পাওয়ার পর এবার সিরিজের সূচি ঘোষণা করেছে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। সিরিজের ফরম্যাট হবে ডাবল হেডার, তথা প্রথম পর্বে তিন দেশই একে অন্যের বিপক্ষে দুইবার করে খেলবে। এরপর সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দুই দল মুখোমুখি হবে ফাইনালে।

৮ অক্টোবর বাংলাদেশ সময় সকাল ৯ টায় পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে ত্রিদেশীয় সিরিজ। ১০ অক্টোবর স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে টাইগাররা। এরপর ১৩ ও ১৪ অক্টোবর যথাক্রমে নিউজিল্যান্ড এবং পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম পর্বের বাকি দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ফাইনাল হবে ১৫ অক্টোবর। সিরিজের সবগুলো ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে।

ত্রিদেশীয় সিরিজের পূর্ণাঙ্গ সূচি

বাংলাদেশ - পাকিস্তান (৮ অক্টোবর, সকাল ৯টা)

নিউজিল্যান্ড - পাকিস্তান (৯ অক্টোবর, দুপুর ১টা)

নিউজিল্যান্ড - বাংলাদেশ (১০ অক্টোবর, দুপুর ১টা)

নিউজিল্যান্ড - পাকিস্তান (১২ অক্টোবর, সকাল ৯টা)

নিউজিল্যান্ড - বাংলাদেশ (১৩ অক্টোবর, সকাল ৯টা)

বাংলাদেশ - পাকিস্তান (১৪ অক্টোবর, সকাল ৯টা)

ফাইনাল (১৫ অক্টোবর, সকাল ৯টা)

* বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

হোয়াটওয়াশ হয়েই টেস্ট সিরিজ শেষ করলো বাংলাদেশ

প্রকাশ: ০৮:৩৫ এএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail হোয়াটওয়াশ হয়েই টেস্ট সিরিজ শেষ করলো বাংলাদেশ

বাংলাদেশ দলকে সাদা বলের ক্রিকেটে আবারো হোয়াটওয়াশ করে এই ফরম্যাটে নিজেদের আধিপত্য বজার রাখলো ক্যারিবিয়রা। দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনে বাংলাদেশ দল ইনিংস হারের লজ্জা এড়িয়ে ক্যারিবিয়ানদের সামনে মাত্র ১২ রানের লক্ষ্য দাঁড় করায়। লক্ষ্য তাড়ায় ব্যাট করতে নেমে মাত্র ১৭ বল খেলে গোটা ১০ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে উইন্ডিজ। 

হারটা একপ্রকার নিশ্চিতই ছিল। তবে এদিন নুরুল হাসান সোহানের দারুণ এক ইনিংসে কোন রকমে ইনিংস হার এড়ায় বাংলাদেশ দল। ২০০০ সালে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর ২২ বছরে ১৩৪টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ দল। এই ম্যাচের মধ্য দিয়ে সাদা পোশাকে হারের সেঞ্চুরি পূর্ণ করল তারা। যেখানে ১০০ হারের বিপরীতে টাইগারদের জয় ১৬টি ও ড্র আছে ১৮টি। 

সেই সাথে ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েটের দলের বিপক্ষে শেষ ৪ দেখায় টানা ৪ পরাজয় বাংলাদেশের, সব মিলিয়ে ২০ টেস্টে এটি ১৪তম পরাজয়। 

ক্যারিবিয়দের বিপক্ষে এ হার টেস্টে বাংলাদেশ দলের শততম। মাত্র ১৩৪ ম্যাচেই পরাজয়ের সেঞ্চুরির স্বাদ পেল বাংলাদেশ দল। 

সাকিব বাহিনী অ্যান্টিগায় তিনদিনেই পরাজিত হয়েছিল। সেন্ট লুসিয়ায় সিরিজ বাঁচানোর ম্যাচেও একই চিত্রনাট্য। ব্যাটারদের ভরাডুবিতে তিন দিনেই আবারো হারের শঙ্কা চেপেছিল। যদিও বৃষ্টি ভাগ্যে শেষমেশ তা হয়নি। খেলা গড়ায় চতুর্থ দিনে।

বৃষ্টির কারণে চতুর্থ দিনের দুটি সেশন মাঠেই গড়ায়নি। তৃতীয় সেশনে স্থানীয় সময় বিকেলে খেলা শুরু হতেই আবারো সেই বিপর্যয়। আগের দিনে বাকি থাকা চার উইকেট টিকল মাত্র ৫৪ বল। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮৬ রানেই গুঁড়িয়ে গেছে বাংলাদেশের ইনিংস।

যদিও নুরুল হাসান সোহানের ব্যাটে ভর করে কোনো রকমে ইনিংস হারের লজ্জা এড়ায় বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা উইকেটকিপার এ ব্যাটার ৫০ বলে ৬০ রানের ক্যামিওতে দলকে লিড এনে দেন। তবে যোগ্য সঙ্গ না পাওয়ায় মাত্র ১২ রানের লিড পায় বাংলাদেশ।

সহজ লক্ষ্য পেরোতে ক্যারিবীয়দের খরচ করতে হয়েছে কেবল ১৭ বল। কোনো উইকেট না হারিয়েই জয়ের বন্দরে পৌঁছে গেছে ক্রেইগ ব্রাথওয়েটের দল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ   বাংলাদেশ   ক্রিকেট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বিশ্বকাপ খেলা নিয়ে সংশয়ে আনহেল ডি মারিয়া

প্রকাশ: ১২:৪০ পিএম, ২৭ Jun, ২০২২


Thumbnail

আর্জেন্টিনা দলের গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের আনহেল ডি মারিয়া জানিয়েছেন, কাতার বিশ্বকাপে কেবল লিওনেল মেসি ছাড়া দলের বাকি সবার জায়গা অনিশ্চিত। যেখানে তিনি নিজেও বেশ ভালো ফর্মে থাকার পরেও নিজেই নিজেই জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার কথা জানালেন। 

রবিবার (২৬ জুন) এক সাক্ষাৎকারে ডি মারিয়া তুলে ধরেন ক্লাব পরিবর্তনের সঙ্গে জাতীয় দলে জায়গা নিয়ে অনিশ্চয়তার বিষয়টি। 

বয়স ৩৪ হলেও খেলার ধার কমেনি এতটুকু বরং দুর্দান্ত ফর্মে আছেন ডি মারিয়া। সদ্যই পিএসজি থেকে বিদায় নেওয়ার পর তার পরবর্তী গন্তব্য নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা থাকলেও লিওনেল স্কালোনির দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ তিনি। দলটির রেকর্ড ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পথচলায় তার রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান। গত বছর কোপা আমেরিকার ফাইনালে তার গোলেই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে ২৮ বছরের শিরোপা খরা কাটিয়েছিল দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। 

যেভাবে খেলছেন, তাতে বছরের শেষে হতে যাওয়া বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা দলে ডি মারিয়ার না থাকাটাই হবে বিস্ময়কর। 

সাক্ষাৎকারে ডি মারিয়া জানান, দলে জায়গা ধরে রাখতে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে তাকে। তিনি বলেন, কাতার বিশ্বকাপের দলে) একমাত্র লিওনেল মেসির জায়গা নিশ্চিত। এখন থেকে চার মাস পরে কী হবে, কেউ জানে না। আমাকে ক্লাব পরিবর্তন করতে হবে, সেখানে আবার মানিয়ে নিতে হবে, খেলতে হবে এবং ভালো অনুভব করতে হবে - যা পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। 

আর্জেন্টিনার হয়ে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার তালিকায় দি মারিয়া আছেন চতুর্থ স্থানে (১২২)। তালিকায় তার আগে রয়েছেন মেসি (১৬২), হাভিয়ের মাসচেরানো (১৪৭) ও হাভিয়ের জানেত্তি (১৪৫)। ২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৩১টি ম্যাচ খেলেছেন দি মারিয়া। ৫টি গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন ৮টি।

২০২১-২২ মৌসুমে পিএসজির সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর এখন ক্লাবহীন তিনি। সূত্রের খবর, এক বছরের চুক্তিতে তাকে দলে টানতে আগ্রহী ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাস।

গুঞ্জন রয়েছে, জুভেন্টাসের পাশাপাশি দি মারিয়াকে দলে টানতে চেষ্টা করছে বার্সেলোনাও। বর্তমানে ছুটিতে থাকা সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা অবশ্য এই মুহূর্তে সেসব নিয়ে ভাবছেন না। তিনি বলেন, ইউভেন্তুস ইতালির সবচেয়ে বড় ক্লাব এবং আমার প্রতি আগ্রহী দলগুলোর একটি। এই মুহূর্তে আমি এটা নিয়ে একটু চিন্তা করছি, তবে এখন আমার পূর্ণ মনোযোগ পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটানো। বার্সেলোনা বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি এবং আগে আমাকে সবসময় তাদের বিপক্ষে খেলতে হয়েছে। 

ডি মারিয়া   আর্জেন্টিনা   পিএসজি   ফুটবল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

লিড তুলতেই নেই ৬ উইকেট, এখনও ৪২ রানে পিছিয়ে টাইগাররা!

প্রকাশ: ০৮:১২ এএম, ২৭ Jun, ২০২২


Thumbnail লিড তুলতেই নেই ৬ উইকেট, এখনও ৪২ রানে পিছিয়ে টাইগাররা!

সেন্ট লুসিয়া টেস্টে আবারও বিপর্যস্ত অবস্থায় টিম টাইগারর্স। অবস্থা এতটাই খারাপ যে, ক্যারিবিয়দের প্রথম ইনিংসে দেওয়া ১৭৪ রানের লিড তুলতেই দ্বিতীয় ইনিংসে দিন শেষে পড়ে গেছে ৬ উইকেট। কেই যেনো উইকেটে থিতু হতে পারছেন না। স্কোরবোর্ড দেখলে অবশ্য তাই অনুমান করা যায়।

তামিম ইকবাল ৪ (৮), মাহমুদুল হাসান জয় ১৩ (২১), নাজমুল শান্ত ৪২ (৯১), এনামুল বিজয় ৪ (৭), লিটন দাস ১৯ (৩২), সাকিব আল হাসান ১৬ (৩২), নুরুল হাসান সোহান ১৬(১৪)*, মেহেদী মিরাজ ০(১৩)*। সেন্ট লুসিয়া টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে, বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস সামারিটা এমনই।

এখনও ক্যারিবীয়দের থেকে ৪২ রানে পিছিয়ে আছে সাকিব আল হাসানের দল। এখন শেষ ভরসা হয়ে সলতেতে প্রদীপ জ্বেলে আছেন সোহান আর মিরাজ। তারপর আছেন তিন পেসার খালেদ আহমেদ, এবাদত হোসেন আর শরীফুল ইসলাম।

কেমার রোচ আর আলজারি জোসেফের তোপে দ্বিতীয় ইনিংসে এখন পর্যন্ত সাকিব আল হাসানের দল তুলতে পেরেছে ১৩২, হারিয়েছে ৬ উইকেট।
এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৪০৮ রানে অলআউট হয়েছে ক্যারিবিয়ানরা, বাংলাদেশের হয়ে খালেদ আহমেদ নিয়েছেন ৫ উইকেট।

অন্যদিকে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সবমিলিয়ে চতুর্থ দিনে কতোটা প্রতিরোধ গড়তে পারবে বাংলাদেশ এখন সেটাই দেখার অপেক্ষা।

টাইগার   ব্যাটিং ব্যর্থতা   সেন্ট লুসিয়া টেস্ট  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

৩য় দিনের শুরুতেই জুটি ভাঙলেন মিরাজ

প্রকাশ: ০৮:৩৫ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail

কাইল মায়ার্স একের পর এক জুটি গড়ে যাচ্ছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলার পর পঞ্চম উইকেটে জার্মেই ব্ল্যাকউডকে নিয়ে ১১৬ রানের জুটি গড়েছিলেন এই সেঞ্চুরিয়ান।

ওই জুটি ভাঙার পর দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে জসুয়া ডি সিলভাকে নিয়ে ফের প্রতিরোধ মায়ার্সের। ষষ্ঠ উইকেটেও জুটিটা শতরানের কাছাকাছি চলে এসেছিল।

তবে তৃতীয় দিনের সকালেই ৯৬ রানের জুটি ভেঙে দিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ১১৫ বল খেলে ২৯ রান করা জসুয়াকে অবশেষে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেছেন টাইগার অফস্পিনার।

মিরাজের ঘূর্ণি বল সুইপ করতে চেয়েছিলেন ক্যারিবীয় উইকেটরক্ষক। তবে সেটা পুরোপুরি মিস করে ফেলেন। আম্পায়ার আঙুল তুলে দিলে আর জায়গায় এক সেকেন্ডও দাঁড়াননি জসুয়া।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১১০ ওভার শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৩৫৯ রান। মায়ার্স ১৩৬ আর আলজেরি জোসেফ ২ রানে অপরাজিত আছেন। এখন পর্যন্ত লিড ১২৫ রানের।

এর আগে কাইল মায়ার্সের অপরাজিত সেঞ্চুরিতে ভর করে ৫ উইকেটে ৩৪০ রান নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম দিন শেষে লিড ছিল ১০৬ রানের।


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন