ইনসাইড হেলথ

জানুয়ারির মধ্যে ১৫ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ০৯:২৪ পিএম, ২০ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ইতেমধ্যে ৯ কোটি ডোজ করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। আগামী জানুয়ারির মধ্যে আশা করা যায় আরও ৬ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হবে। মোট ১৫ কোটি ডোজ টিকা দেওয়া হলে দেশের সাড়ে ৭ কোটি মানুষ করোনার দুই ডোজ করে টিকা পেয়ে যাবে।

শনিবার (২০ নভেম্বর) বিকেলে মানিকগঞ্জ শহীদ মিরাজ তপন স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রিমিয়ার ডিভিশন জেলা ফুটবল লিগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, দেশে মোট ১৩ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। এর মধ্যে এক কোটি মানুষ দেশের বাইরে রয়েছে। ১২ কোটি মানুষ টিকার আওতায় নিয়ে আসা হবে। জানুয়ারি মাসের মধ্যে সাড়ে ৭ কোটি মানুষকে দুই ডোজ করে টিকা দেওয়া হবে। বাকি সাড়ে ৩ কোটি মানুষকে পর্যায়ক্রমে টিকা দেওয়া হবে। 

জাহিদ মালেক বলেন, বাংলাদেশে করোনা এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। মৃত্যুর সংখ্যা এখন সিঙ্গেল ডিজিটে নেমে এসেছে। সংক্রমণের হারও কমে এসেছে। প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার গাইড লাইনে আমাদের চেষ্টায় দেশের অবস্থা ভালো আছে। যাদের ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ছিল তাদের অনেকেই ভ্যাকসিন পেয়ে গেছেন। আমরা ৯ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দিয়ে ফেলেছি। আগামী জানুয়ারির মধ্যে আশা করা যায় আরও ৬ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। মোট ১৫ কোটি ভ্যাকসিন দেওয়া হলে দেশের সাড়ে ৭ কোটি মানুষ দুই ডোজ করে ভ্যাকসিন পেয়ে যাবেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ভ্যাকসিন দেওয়ার কারণে করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে বলেই দেশের অর্থনীতির চাকা সচল রয়েছে। যার ফলে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়েছে, খেলাধুলা সচল হয়েছে। দেশে-বিদেশে যাওয়া আসা শুরু হয়েছে। টিকা দেওয়ার কারণে মানুষ আর করোনা নিয়ে আগের মতো ভয় পান না। তবে করোনাকে অবহেলা করা যাবে না। করোনা এখনো চলে যায়নি। সব ক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সুদেব সাহা প্রমুখ। ফুটবল লিগে মোট ৮টি দল অংশ নিচ্ছে। উদ্বোধনী খেলায় পল্লী মঙ্গল সমিতি ৩-০ গোলে হরিরামপুর সাকুচিয়া ক্লাবকে পরাজিত করে।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড হেলথ

চিকিৎসকদের নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর অভিযোগ

প্রকাশ: ০৯:০৫ এএম, ২৯ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

রোগীদের পর্যাপ্ত সময় না দেওয়া নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি অভিযোগ করে বলেন, আমি নিজেও যদি কখনো চিকিৎসক দেখাতে যাই, আমাকেও খসখস করে একটা প্রেসক্রিপশন লিখে দিয়ে দেন। ভালো করে একটু সময়ও দেন না। প্রেসক্রিপশনের বাইরে কোনো পরামর্শও দেন না।

গতকাল শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) রাতে দেশে প্রথম জাতীয় অসংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ সম্মেলনের সমাপনী পর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দীপু মনি বলেন, অসুস্থতার একটি বিরাট অনুষঙ্গ হলো আমরা কেমন জীবনযাপন করি বা আমাদের লাইফস্টাইল। যারা সঠিকভাবে জীবনযাপন করেন না, তাদেরই অনেকটা ওষুধের উপর নির্ভরশীল হয়ে যেতে হয়। কিন্তু সঠিক লাইফস্টাইলটাই তো আমাদের অনেকাংশে সুস্থ করে দিতে পারে। জীবনযাপন পদ্ধতিটাকে বদলে ফেলে একদম ভালো হয়ে যাওয়া সম্ভব, ওষুধের উপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে ফেলা সম্ভব।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এই জায়গাটিতে চিকিৎসকদের বিশাল একটি ভূমিকা রয়েছে। আমরা শুধু খসখস করে একটা প্রেসক্রিপশন লিখে দিলাম, সঠিক জীবনযাপন নিয়ে রোগীকে কিছু বললাম না, সেটা তো হলো না। যদিও আমাদের চিকিৎসকদের আসলে এতটা সময় থাকে না, তাদেরকে অল্প সময়ে অনেক রোগী দেখতে হয়। কিন্তু সেক্ষেত্রে অন্য কোনো উপায়ে রোগীদের আলাদা জীবনাচরণ নিয়ে কিছু পরামর্শ দিয়ে দেওয়া যায় কি না, সেটি নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে।

তিনি বলেন, একজন চিকিৎসক যদি প্রেসক্রিপশনের পাশাপাশি রোগীকে বলে দেন যে, এই ওষুধগুলো লাগবে না যদি আপনি এই কাজগুলো করতে পারেন, তাহলে আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা অনেকটাই পাল্টে যাবে। আমাদেরকে এই বিষয়গুলো নিয়ে অনেক বেশি কাজ করতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, সুস্থ থাকতে হলে জীবনযাপন পদ্ধতিতে পরিবর্তন খুবই জরুরি বিষয়। তাই আমাদের নতুন কারিকুলামে স্বাস্থ্য সুরক্ষা একটা বিষয় যোগ করতে যাচ্ছি। সেখানে যা থাকবে তা থেকে শিক্ষার্থীরা জানবে, শিখবে এবং সেইভাবে তারা চলতে পারবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয় কারিকুলামে যুক্ত করা হলে আমাদের নতুন প্রজন্ম অনেক বেশি সচেতন হবে। সচেতন হলে তারা বেশি সুস্থ থাকবে।

দেশে স্বাস্থ্য সেবায় মাত্রাতিরিক্ত ব্যয় নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। একইসঙ্গে ব্যয় যৌক্তিক পর্যায়ে রাখারও পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, সদ্য স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে যুক্ত হওয়ার পর অর্থের জোগান একটা বড় বিষয়। সেজন্য স্বাস্থ্য খাতে এমন সব ব্যবস্থা নেওয়া উচিত যাতে স্বাস্থ্য সেবার খচর যৌক্তিক পর্যায়ে রাখতে পারি।

সম্মেলনে সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, আইসিডিডিআরবি-র নির্বাহী পরিচালক ডা. তাহমিদ আহমেদ, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্স ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম এ মালেক, স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সাইফুল হাসান বাদল, বাংলাদেশে মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ইউনিসেফ বাংলাদেশ-এর স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপক ডা. জিয়াউল মতিন, আইসিডিডিআরবি-র সিনিয়র ডিরেক্টর শামস এল আরেফিন, আইসিডিডিআরবি-র অসংক্রামক রোগ বিভাগের প্রধান ও অর্গানাইজিং কমিটির সায়েন্টিফিক সেক্রেটারি ডা. আলিয়া নাহিদ, অ্যামিনেন্সে ইন্টার ন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক ও অর্গানাইজিং কমিটির মেম্বার সেক্রেটারি ডা. শামীম হায়দার তালুকদার উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনায় ছিলেন ইএএসডির উপদেষ্টা আব্দুন নূর তুষার।

প্রসঙ্গত, ঢাকার প্যান প্যাসেফিক সোনারগাঁও হোটেলে ২৬ জানুয়ারি শুরু হওয়া এই সম্মেলন ২৮ জানুয়ারি (শুক্রবার) শেষ হয়। বাংলাদেশ হেলথ রিপোর্টার্স ফোরামসহ ৩০টি দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

শিক্ষামন্ত্রী   চিকিৎসক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড হেলথ

করোনায় রেকর্ড শনাক্তের হার

প্রকাশ: ০৬:৩৪ পিএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

সারাদেশে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। করোনায় রেকর্ড শনাক্তের হার ৩৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১৫ হাজার ৪৪০ জন। এ নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৭ লাখ ৬২ হাজার ৭১১ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ২৮ হাজার ৩০৮ জন।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১২ জুলাই ৮ হাজার ৬৮টি নমুনা পরীক্ষায় সংক্রমণ শনাক্ত হয় ২ হাজার ৬৬৬ জনের শরীরে। নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ছিল ৩৩ দশমিক ০৪ শতাংশ। দেড় বছর পর এসে সেই রেকর্ড ভাঙল।

করোনাভাইরাস  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড হেলথ

করোনায় ২০ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৪৪০

প্রকাশ: ০৬:০৮ পিএম, ২৮ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

সারাদেশে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ২৮ হাজার ৩০৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১৫ হাজার ৪৪০ জন। এ নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৭ লাখ ৬২ হাজার ৭১১ জনে।

শুক্রবার (২৮ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

করোনাভাইরাস  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড হেলথ

করোনায় শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৯৮ শতাংশ

প্রকাশ: ০৫:১৩ পিএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

সারাদেশে বেড়েই চলেছে করোনার সংক্রমণ। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ২৮ হাজার ২৮৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন আরও ১৫ হাজার ৮০৭ জন। শনাক্তের হার ৩১ দশমিক ৯৮ শতাংশ। এ নিয়ে দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৭ লাখ ৪৭ হাজার ৩৩১ জনে।

আজ বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

করোনাভাইরাস   ওমিক্রন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড হেলথ

আবারো করোনায় আক্রান্ত হলেন পরিবেশমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৪:৫৩ পিএম, ২৭ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

ফের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) তার করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য অফিসার দীপংকর বর।

করোনা উপসর্গ থাকায় বুধবার রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) নমুনা দেন মন্ত্রী। তিনি এখন সরকারি বাসায় আইসোলেশনে রয়েছেন। করোনা মুক্তির জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

এর আগে প্রথম দফায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২০২০ সালের ১২ আগস্ট থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন।

পরিবেশমন্ত্রী   ওমিক্রন   করোনাভাইরাস  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন