ইনসাইড পলিটিক্স

হেফাজত মহাসচিব নুরুল ইসলাম মারা গেছেন

প্রকাশ: ১২:৩৬ পিএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail হেফাজত মহাসচিব নুরুল ইসলাম মারা গেছেন

হেফাজতে ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নুরুল ইসলাম জিহাদী মারা গেছেন। আজ (সোমবার) দুপুর সোয়া ১২টার দিকে রাজধানীর ল্যাব এইডে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর মোহাম্মদ ইদ্রিস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শনিবার থেকে ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন নুরুল ইসলাম জিহাদী। তার ছেলে মোর্শেদ বিন নূর গতকাল জানিয়েছিলেন শনিবার রাত ৯টার দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তার বাবাকে ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর অবস্থার অবনতি হলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

শনিবার অনুষ্ঠিত ওলামা মাশায়েখ সম্মেলন বাস্তবায়নে নিয়ে কর্মব্যস্ত ছিলেন নুরুল ইসলাম। সম্মেলন শেষে মাদরাসায় ফেরার পথে গাড়ির মধ্যেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

ড. ইউনূস-হিলারির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি নিক্সনের

প্রকাশ: ০৯:৪০ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail ড. ইউনূস-হিলারির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি নিক্সনের

পদ্মা সেতু নিয়ে দেশি–বিদেশি ষড়যন্ত্রকারীদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়ে জাতীয় সংসদে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মুজিবর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন বলেছেন, ‘পদ্মা সেতু যাতে বাস্তবায়িত না হয়, এ জন্য দেশি-বিদেশি যারা এই ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত, তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। দাবি জানাই, ড. ইউনূস, হিলারি ক্লিনটন, টনি ব্লেয়ারের স্ত্রীর ওপর স্যাংশন দেওয়া হোক। যাতে ভবিষ্যতে বাংলাদেশে এসে নতুন করে কোনো ষড়যন্ত্র না করতে পারে।’

মঙ্গলবার (২৮ জুন) জাতীয় সংসদে ২০২২–২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে এ দাবি জানান আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মুজিবর রহমান।

দেশের বিরোধিতাকারীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা দায়েরের দাবি জানিয়ে স্বতন্ত্র এ এমপি বলেন, তাদের মধ্যে অন্যতম হলেন ড. ইউনূস, এমিতের টাকা আত্মসাৎকারী খালেদা জিয়া ও তার বড় ছেলে তারেক জিয়া।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচার করে ইতিমধ্যে প্রমাণ করেছেন তার সরকারের আমলে কেউ অপরাধ করে রেহাই পাবে না। আমি বিশ্বাস করি, যারা গরিবের হাজার কোটি টাকা দুর্নীতি করে বিদেশের ব্যাংকে রেখেছেন যাদের নাম পানামা পেপারস এবং পেরাডাইস পেপারসে এসেছে দুদকের মাধ্যমে তদন্ত করে তাদের বিচারের আওতায় আনা হবে।

নিক্সন বলেন, আমাদের দেশের অর্থনীতিতে প্রবাসী ভাইয়েরা বড় ভূমিকা পালন করেন। তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের মাধ্যমে অর্থনীতির চাকা সচল থাকে। প্রবাসী ভাইয়েরা বিমানবন্দরে বিভিন্নভাবে হয়রানির শিকার হন। বিমানবন্দরে নেমে এই রেমিট্যান্স যোদ্ধারা যেন হয়রানির শিকার না হন সে জন্য থার্ড টার্মিনালে ট্যাক্স, কাস্টমস সেল স্থাপনের জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

পদ্মা সেতু উদ্বোধনে বিএনপির রাজনীতি পদ্মা নদীর মাঝখানে ডুবে গেছে: তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৮:৪২ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail পদ্মা সেতু উদ্বোধনে বিএনপির রাজনীতি পদ্মা নদীর মাঝখানে ডুবে গেছে: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর বিএনপির রাজনীতি পদ্মা নদীর মাঝখানে ডুবে গেছে। তাই প্রথমে তারা আবোল-তাবোল বলেছিলো এখন বাকরুদ্ধ হয়ে গেছে, কি বলবে বুঝতে পারছে না। আমি আশা করবো, তারা তাদের রাজনীতি পদ্মা নদীর মাঝখান থেকে উদ্ধার করতে পারবে এবং অতীতের অপকর্মের জন্য ক্ষমা চেয়ে জনগণের কাছে যাবে।’

মঙ্গলবার (২৮ জুন) বিকেলে রাজধানীর নন্দীপাড়া মাদ্রাসা মাঠে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সবুজবাগ থানার ৭৪ নং ওয়ার্ডের ইউনিটসমূহের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান বলেন, ‘আর দেড় বছর পরে নির্বাচন। এখন বিএনপিকে দেখা যায় না, মাঝেমধ্যে গর্ত থেকে উঁকি দিয়ে চায় আর চোরাগোপ্তা মিছিল করে। আইনগতভাবেই বেগম জিয়া এবং তারেক রহমানের নির্বাচন করার কোনো সুযোগ নেই সেজন্য তারা নির্বাচনে যাবে কি না, সে নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে থাকে। তবে যতো কথাই বলুক, আগামী নির্বাচনে তারা অংশ নেবে এবং নির্বাচনের আগে গর্তের ভেতর থেকে বেরিয়ে নানা ধরণের বিভ্রান্তি ছড়াবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সারাদেশ ঘুরে আমাদের নেতাকর্মীদের মধ্যে যে উচ্ছ্বাস-উদ্দীপনা দেখেছি, আগামী নির্বাচনেও ইনশাআল্লাহ আমাদের ধস নামানো বিজয়ের মধ্যদিয়ে তারা ভেসে যাবে’ উল্লেখ করে সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, ‘সেই বিজয় নিশ্চিত করতে দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে হবে। ২১ বছর ধরে যারা বুকে পাথর বেঁধে দল করেছে, সমস্ত রক্তচক্ষু, ষড়যন্ত্রের মধ্যেও দলকে এগিয়ে নিয়ে গেছে, তাদেরকেই নেতৃত্বে দরকার। যারা গত সাড়ে ১৩ বছরে নতুন আওয়ামী লীগ হয়েছে তারা বিরোধী দল দেখে নাই, শুধু ক্ষমতা দেখেছে, সুতরাং তাদেরকে নেতৃত্বে আনার কোনো প্রয়োজন নেই। এবং ক্ষমতায় থাকলে বিনয়ী হতে হবে। কোনো নেতাকর্মীর উদ্ধত আচরণের জন্য আমরা দলের মর্যাদা বিসর্জন দিতে পারি না। আর মাদক, দখল-চাঁদাবাজির সাথে যুক্তদেরকে বর্জন করুন। আমাদের দলে তাদের দরকার নেই।’ 

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সংসদে বিএনপি নেতারা বলেছেন, শক্তিশালী বিরোধী দল দরকার। আমরাও চাই আপনারা শক্তিশালী হোন। কিন্তু তারা একে একে যেসব আত্মহননের সিদ্ধান্ত নেয়, সে কারণে তারা শক্তিশালী হতে পারে না। আশা করবো তারা আত্মহননের সিদ্ধান্ত পরিহার করে নিজেরা শক্তিশালী হবে, দেশের গণতন্ত্রকেও শক্তিশালী করবে।’

সম্মেলনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবু আহমদ মন্নফী উদ্বোধক ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: হুমায়ুন কবীর প্রধান বক্তা হিসেবে এবং সহ-সভাপতি শদীদ সেরনিয়াবাত,  সাংগঠনিক সম্পাদক আকতার হোসেন বক্তব্য রাখেন। আরো বক্তব্য রাখেন সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি আশরাফুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক চিত্তরঞ্জন দাস প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী   ড. হাছান মাহমুদ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

‌‘আমার সৌভাগ্য হয়েছিল মিসেস তারেক জিয়ার গলার কাঁটা বের করার’

প্রকাশ: ০৮:২৬ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail

দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক জিয়ার স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের চিকিৎসার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে কুমিল্লা-৭ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বলেছেন, আমার সৌভাগ্য হয়েছিল মিসেস তারেক জিয়ার গলা থেকে কাঁটা বের করার।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশনে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রাণ গোপাল দত্ত বলেন, বিএনপি নেতারা এখানে আছেন কি না আমি জানি না। আপনাদের এখন একটা মোহ হয়ে গেছে কী করে ক্ষমতায় যাবেন। আসলে মানুষের চিন্তা করতে করতে তার প্রতি আসক্তি জমে। আসক্তি হতে কামনা জমে। আর সেই কামনা লাভে কোনো রকম বাধা হলে ক্রোধ জমে। আর ক্রোধ হতে মোহ স্মৃতিভ্রংশ এবং স্মৃতিভ্রংশ থেকে বুদ্ধি নাশ এবং বুদ্ধি নাশ থেকে বিনাশ ঘটে। আমি আপনাদের বলব, আপনারা শুধু বুদ্ধি নাশ না নিজেদের বিনাশ ডাকার জন্য এভাবে যত্রতত্র যেমন খুশি তেমন বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমার পেশাগত জীবনের একটা ঘটনা এখানে আমি বর্ণনা করতে চাই। সেই ঘটনাটা হলো, আমার সৌভাগ্য হয়েছিল মিসেস তারেক জিয়ার গলা থেকে কাঁটা বের করার। যে কাঁটা উনি গলায় নিয়ে সাত দিন ঘুরেছিলেন। ওনার গলা থেকে যখন আমি কাঁটাটা বের করি তখন উনি বললেন, স্যার, স্যার কাঁটাটা আমার হাতে দেন। আমি বললাম, কেন? বলেন, স্যার আমার হাজব্যান্ড বলেছেন, আমি নাকি সাইকো হয়ে গেছি, এক কাঁটা নিয়ে আমি সাত দিন ঘুরছি... প্রফেসররা দেখে কাঁটা পাননি।

প্রাণ গোপাল বলেন, আমার চেম্বারে মাঝে মাঝে ত্রিপুরা থেকে কিছু রোগী আসেন। ১০ বছরের একটা ছেলের গলায় একটা কয়েন আটকে যায়। তাদের কলকাতা যাওয়ার সামর্থ্য নেই। তাই তারা ঢাকায় চলে আসে। আমি যখন তাকে এনেসথেসিয়া দিয়ে কয়েনটা বের করি। বের করার সাথে সাথে ঘুম থেকে উঠে সে আমাকে বলে, স্যার আমার টাকাটা দেন। এখন আপনাদের অবস্থা হয়ে গেছে এমন, যে ক্ষমতাটা দেন।

তিনি বলেন, ক্ষমতা দিতে হলে জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত হতে হবে। জনগণের সঙ্গে কাজ করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি, জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ততা না রেখে কোনো দিন ক্ষমতায় আসা যায় না। আপনারা শিক্ষা নেন বঙ্গবন্ধুর জীবনী থেকে, আপনারা শিক্ষা নেন মহাত্মা গান্ধীর জীবনী থেকে, আপনারা শিক্ষা নেন নেলসন মেন্ডেলার জীবনী থেকে। ক্ষমতায় যেতে হলে মাঠে যেতে হবে। এখানে বসে ক্ষমতা যাওয়া যাবে না।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

বাংলাদেশের পিলার একটাই, সেটা হলো শেখ হাসিনা: শামীম ওসমান

প্রকাশ: ০৭:৪০ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail বাংলাদেশের পিলার একটাই, সেটা হলো শেখ হাসিনা: শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান বলেছেন, এই কিছুদিন আগে পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করা হয়েছে। আমি যদি ভুল না করে থাকি, সম্ভবত পদ্মা সেতুতে মোট পিলার রয়েছে ৪১টি। তবে বাংলাদেশের পিলার একটাই, সেটা হলো শেখ হাসিনা। তাকে টার্গেট করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার (২৮ জুন) বিকেল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রাজজ আদালতের আইনজীবী সমিতির নিজস্ব ভবনে নারায়ণগঞ্জ বার কাউন্সিল আয়োজিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক 'আইনজীবী প্রণোদনা তহবিল' এর চেক হস্তান্তর ও বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদ্য নির্বাচিত সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এখানে আমি যখন ঢুকছিলাম সাংবাদিকরা আমাকে ধরেছিলেন। এখানে বিভিন্ন মামলা হয়। আপনারা বলেছেন, আইন সব সময় পারফেক্ট হয় না। আইনকে আমি যেভাবে বুঝি, একজন লোক বিচার না পাক তবে কোনো নিরপরাধ ব্যক্তি যেন শাস্তি না পায়। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে। তারা বার বার আদালতে হাজিরা দিচ্ছে। আমাদের মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহাকেও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা দেওয়া হয়েছে।

এটর্নী জেনারেলের প্রতি অনুরোধ রেখে তিনি বলেন, আমি মনে করি সাংবাদিকরা জাতির ২য় পার্লামেন্ট। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাদের হয়রানি করা হচ্ছে। সাহসী সাংবাদিকরা যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে খেয়াল রাখা উচিত।

এসময় বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদ্য নির্বাচিত কমিটির সদস্যদের মধ্যে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান এ্যাড. সৈয়দ রেজাউর রহমান, লিগ্যাল এডুকেশন কমিটির চেয়ারম্যান এ্যাড. কাজী মো. নাজিবুল্লাহ হিরু, হিউম্যান রাইটস ও লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. মোখলেছুর রহমান বাদল, সদস্য অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ সাঈদ আহমেদ রাজা ও আব্দুল বাতেনেক নারায়ণগঞ্জ বার কাউন্সিল সংবর্ধনা প্রদান করে।

জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েলের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, এটর্নী জেনারেল এ এম আমিনউদ্দীন, আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. গোলাম সারোয়ার।

অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী মো. মশিউর রহমান, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালতের জেলা জজ নাজমুল হক শ্যামল, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারহানা ফেরদৌস ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের সকল কমিটি বিলুপ্ত

প্রকাশ: ০৬:২১ পিএম, ২৮ Jun, ২০২২


Thumbnail

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের অন্তর্গত সব থানা ও ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‌‘আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের অন্তর্গত সব থানা ও ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু ও সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু মঙ্গলবার এই নির্দেশনা দিয়েছেন।

প্রতিটি ওয়ার্ডের সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরো বেগবান ও গতিশীল করতে মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা অচিরেই কমিটি গঠনে উদ্যোগ নেবেন।’

আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন