ইনসাইড গ্রাউন্ড

পা ফসকাল রিয়ালের, শিরোপার আরও কাছে বার্সালোনা

প্রকাশ: ০৮:৪৪ এএম, ০৩ মে, ২০২৩


Thumbnail

নিজেদের কাজ আগেই সেরে রেখেছিল বার্সেলোনা। ব্যবধান কমিয়ে শিরোপা ধরে রাখার ক্ষীণ সম্ভাবনাটুকু বাঁচিয়ে রাখতে জয়ের বিকল্প ছিল না রিয়াল মাদ্রিদের। কিন্তু ভিনিসিউস জুনিয়র, করিম বেনজেমাদের ছাড়া খেলতে নেমে হেরেই গেল স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। শিরোপা পুনরুদ্ধারের পথে দুয়ারে পৌঁছে গেল বার্সেলোনা।

প্রতিপক্ষের মাঠে মঙ্গলবার (২ মে) রাতে লা লিগার ম্যাচে ২-০ গোলে হারে রিয়াল। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর সোসিয়েদকে এগিয়ে নেন তাকেফুসা কুবে। শেষ দিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আন্দ্রে বারেনেটিয়া। এদিনই আগের ম্যাচে ওসাসুনাকে ১-০ গোলে হারিয়ে শিরোপার আরও কাছে পৌঁছে গেছে বার্সেলোনা। ৩৩ ম্যাচে কাতালান ক্লাবটির পয়েন্ট ৮২।

তিন ম্যাচের মধ্যে দ্বিতীয় হারে তৃতীয় স্থানে নেমে যাওয়ার শঙ্কা রিয়ালের সামনে। ৩৩ ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ৬৮। এক ম্যাচ কম খেলা আতলেতিকো মাদ্রিদ ৬৬ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিনে। বুধবার কাদিসের বিপক্ষে জিতলেই দুই নম্বরে উঠে যাবে তারা। ৩৩ ম্যাচে ৬১ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বরে রয়েছে সোসিয়েদাদ। এই মুহূর্তে দ্বিতীয় স্থানের দলের চেয়ে ১৪ পয়েন্টে এগিয়ে বার্সেলোনা। অন্য সব ম্যাচের ফল যাই হোক, শেষ ৫ ম্যাচের একটিতে জিতলেই শিরোপা ঘরে তুলবে কাতালান ক্লাবটি।

বেনজেমা স্কোয়াডেই নেই, শুরুর একাদশে ছিলেন না ভিনিসিউস। আক্রমণে শক্তি হারানো রিয়ালই অবশ্য পায় প্রথম সুযোগ। কিন্তু অহেলিয়া চুয়ামেনির দূরপাল্লার শট সহজেই সামলান সোসিয়েদাদ গোলরক্ষক আলেক্স রেমিরো। তিন মিনিট পর দারুণ দক্ষতায় তিনি ব্যর্থ করে দেন এদের মিলিতাওয়ের হেড। রিয়ালের আক্রমণের ঝাপটা সামলে দ্রুত নিজেদের গুছিয়ে নেয় সোসিয়েদাদ। গতিময় ফুটবলে তৈরি করতে থাকে একের পর এক সুযোগ। দ্বাদশ মিনিটে আলেকজান্দার সারলথের শট মিলিতাওয়র গায়ে লেগে যায় ক্রসবারের উপর দিয়ে। পরের মিনিটেই এগিয়ে যেতে পারতো স্বাগতিকরা। খুব কাছ থেকে শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি আইহেন মুনোস। চতুর্দশ মিনিটে দাভিদ সিলভার শট কোনোমতে ঠেকিয়ে রিয়ালের ত্রাতা থিবো কোর্তোয়া। পরের মিনিটে বড় বাঁচা বেঁচে যায় সফরকারীরা। সারলথের ফ্লিকে বল পেয়ে খুব কাছ থেকেও জালের দেখা যাননি মার্তিন সুবিমেন্দি। তার শট ব্যর্থ হয় ক্রসবারে লেগে। ১৯তম মিনিটে ভালো সুযোগ পেয়েছিলেন দাভিদ সিলভা। কিন্তু দারুণ দক্ষতায় তার শট ঠেকিয়ে দেন কোর্তোয়া। পাঁচ মিনিট পর টনি ক্রুসের দারুণ ফ্রি কিকে মিলিতাওয়ের হেড বেরিয়ে যায় দূরের পোস্ট ঘেঁষে। শুরুর গতি পরে ধরে রাখতে পারেনি কোনো দলই। প্রথমার্ধের বাকি সময়ে আর তেমন একটা পরীক্ষায় পড়তে হয়নি দুই গোলরক্ষকের।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই এগিয়ে যায় সোসিয়েদাদ। সারলথের চ্যালেঞ্জের মুখে তালগোল পাকিয়ে ব্যকপাস দেওয়ার চেষ্টা করেন মিলিতাও। তবে শটে জোর ছিল বেশি, কোর্তোয়ার থেকে বেশ দূরেও ছিল। ছুটে গিয়েও নাগালে পাননি রিয়াল গোলরক্ষক। অনায়াসে বল জালে পাঠান তাকেফুসা কুবো। সাবেক দলের বিপক্ষে গোল করে শুরুতে উদযাাপন করেননি জাপানের এই উইঙ্গার। পরে অবশ্য তুমুল উদযাপনই করেন তিনি। ৬১তম মিনিটে বড় এক ধাক্কা খায় রিয়াল। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন দানি কারভাহাল। প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়কে হলুদ কার্ড দেখাতে ৫৪তম মিনিটে প্রথম হলুদ কার্ড দেখেছিলেন তিনি। পরেরটি দেখেন বিপজ্জনক এক চ্যালেঞ্জের জন্য। ৮১তম মিনিটে একটুর জন্য দ্বিগুণ হয়নি ব্যবধান। ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে আন্দ্রে বারেনেটিয়ার ফ্রি কিক কোনোমতে ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন কোর্তোয়া। চার মিনিট পর আর পারেননি তিনি। এবার ডি-বক্সের ভেতর থেকে কাছের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড বারেনেটিয়া।

আসন্ন কোপা দেল রে ফাইনাল ও ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগের কথা ভেবেই হয়তো প্রথম পছন্দের একাদশ খেলাতে পারেননি আনচেলত্তি। ভিনিসিউস-বেনজেমা-মদ্রিচদের অনুপস্থিতিতে রিয়ালের ফুটবল ছিল বিবর্ণ। দ্বিতীয়ার্ধে জয়ের তেমন অভিপ্রায় দেখাতে পারেনি তারা।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

প্রথমার্ধে গোলশূন্য আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া

প্রকাশ: ০৮:১৫ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

নানা চড়াই উতরায় পাড়ি দিয়ে অবশেষে মাঠে গড়িয়েছে কোপা আমেরিকার ফাইনাল। যেখানে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হয়েছে ২৩ বছর পর ফাইনালে ওঠা কলম্বিয়া।

হাইভোল্টেজ এই ফাইনালের প্রথমার্ধে গোল পায়নি কোনো দলই। সমতায় থেকেই বিরতিতে গেছে মেসি ও রদ্রিগেজরা।

এদিন ম্যাচের প্রথমার্ধে বল দখল ও নিয়ন্ত্রণে এগিয়ে ছিল কলম্বিয়া। আর্জেন্টিনা শিবিরে ভয় ধরানোর বেলাতেও এগিয়ে ছিল দলটি। কিন্তু সাফল্যের দেখা পায়নি। অন্যদিকে ব্যাকফুটে থেকে অগোছালো ফুটবল খেলেছে আর্জেন্টিনা।

ম্যাচের প্রথম মিনিটেই আক্রমণে ওঠে আর্জেন্টিনা। গঞ্জালো মন্টিয়েলের ক্রস থেকে কলম্বিয়ার জালে বল পাঠাতে ব্যর্থ হন জুলিয়ান আলভারেজ।

পঞ্চম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে ওঠে কলম্বিয়া। আর্জেন্টিনার জালে বল পাঠানোর চেষ্টা করেন লুইস দিয়াস। তবে তার সেই প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক মার্টিনেজ।

১৩তম মিনিটে আবারো আর্জেন্টিনার ডেরায় ভয় ধরায় কলম্বিয়ানরা। বক্সের মধ্যে থেকে লক্ষ্যে শট নেয় কার্লোস কোয়েস্তা। কিন্তু তার বলটি তালুবন্দী করেন মার্টিনেজ।

২০তম মিনিটে দুর্দান্ত সুযোগ তৈরি করে আর্জেন্টিনা। কিন্তু তাতে সফল হয়নি তারা। বক্সের মধ্যে থেকে নেয়া মেসির বাঁ-পায়ের শটটি সহজেই তালুবন্দী করেন কলম্বিয়ার গোলরক্ষক।

ম্যাচের ৩৩তম মিনিটে দূর পাল্লার শট নেন জেফারসন লেরমা। তার বলটি তালুবন্দী করেন মার্টিনেজ। ৪০তম মিনিটে আবারো আক্রমণে ওঠে তারা। কিন্তু লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন জন আরিয়াস।

পরের মিনিটেই আর্জেন্টিনার বক্সে ঢুকে যায় কলম্বিয়া। এবারও তাদের লক্ষ্য ব্যর্থ করে দেয় মার্টিনেজ। ম্যাচের ৪৪তম মিনিটে আক্রমণে ওঠে আর্জেন্টিনা। ফ্রি কিক থেকে মেসির নেয়া শটটি জালে জড়াতে ব্যর্থ হন নিকোলাস। ম্যাচের প্রথমার্ধে গোলশূন্য ড্র-য়ে বিরতিতে গেছে দুই দল।


আর্জেন্টিনা   কোপা আমেরিকা   কানাডা   লিও মেসি   আলভারেজ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

অবশেষে মাঠে গড়ালো আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার শিরোাপার লড়াই

প্রকাশ: ০৭:৩৫ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

মঞ্চটা প্রস্তুতই ছিল। বাকি ছিল শুধু আনুষ্ঠানিকতা। তবে সেই উৎসবে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল সমর্থকেরা। কারণ, জমজমাট ফাইনালের মঞ্চে সাক্ষী হতে বিনা টিকিটে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করে তারা। তাতেই তিন দফা পিছিয়ে যায় ফাইনালের সময়। অবশেষে সেসব নাটকীয়তা শেষে মাঠে গড়াল আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার বহুল প্রতিক্ষিত ফাইনাল ম্যাচটি।

মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। ম্যাচটি নির্ধারিত সময়ের সোয়া ১ ঘণ্টা পর শুরু হয়েছে।

এর আগে স্টেডিয়ামে খেলোয়াড়দের প্রবেশের সময় উচ্ছৃঙ্খল কলম্বিয়ান ভক্তদের তোপের মুখে পড়ে হার্ড রক স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা। কলম্বিয়ান অধ্যুষিত সেই অঞ্চলের অনেকেই ফাইনালের ভেন্যুতে প্রবেশের চেষ্টা চালান। ফলে তৈরি হয় এক বিশৃঙ্খল পরিবেশের।

স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা বাধ্য হন টিকিটবিহীন কলম্বিয়ান ভক্তদের ওপর চড়াও হতে। প্রটোকল অবশ্য পুরোপুরি মানতে পারেননি হার্ড রক স্টেডিয়ামের নিরাপত্তায় থাকা পুলিশেরা। কলম্বিয়ান ভক্তদের অনেকেই ঢুকে পড়েছেন বিনা টিকিটে। পুরো বিষয়টি নিয়েই সেখানে তৈরি হয় জটিল পরিস্থিতির। ফাইনালকে কেন্দ্র করে বাড়তি ব্যবস্থা নিয়েও বিতর্ক এড়াতে পারেনি কনমেবল।

চরম বিপাকের মাঝে পড়ে আয়োজকরা তাৎক্ষণিকভাবে স্টেডিয়ামের গেট বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর তিন দফায় সময় পেছায় আয়োজকরা।

আর্জেন্টিনা একাদশ: ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ (গোলরক্ষক), গঞ্জালো মন্টিয়েল, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ, নিকোলাস ট্যাগলিয়াফিকো, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, রদ্রিগো ডি পল, এঞ্জো ফার্নান্দেজ, ম্যাক অ্যালিস্টার, লিওনেল মেসি ও জুলিয়ান আলভারেজ।

কলম্বিয়া একাদশ: ক্যামিলো ভার্গাস (গোলরক্ষক), সান্তিয়াগো আরিয়াস, সান্তিয়াগো আরিয়াস, ডেভিনসন স্যানচেজ, জোহান মোজিকা, রিচার্ড রিওস, জেফারসন লের্মা, জন আরিয়াস, জেমস রদ্রিগেজ, লুইস দিয়াজ ও জন করদোবা।


আর্জেন্টিনা   কোপা আমেরিকা   কানাডা   লিও মেসি   আলভারেজ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়ার ফাইনাল ম্যাচের সময় পেছালো

প্রকাশ: ০৬:৪৪ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

অবশেষে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের শিরোপার লড়াই। যেখানে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে ২৩ বছর পর ফাইনালে ওঠা কলম্বিয়া। ম্যাচটিতে যে জমজমাট লড়াই হবে, তা অনুমেয়।

ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ সময় ভোর ৬টায়। কিন্তু হাই-ভোল্টেজ ফাইনালটি আধাঘণ্টার জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, স্টেডিয়ামে খেলোয়াড়দের প্রবেশের সময় উচ্ছৃঙ্খল কলম্বিয়ান ভক্তদের তোপের মুখে পড়ে মায়ামির হার্ডরক স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা। কলম্বিয়ান অধ্যুষিত সেই অঞ্চলের অনেকেই ফাইনালের ভেন্যুতে প্রবেশের চেষ্টা চালান। ফলে তৈরি হয় এক বিশৃঙ্খল পরিবেশের।

স্টেডিয়ামের নিরাপত্তাকর্মীরা বাধ্য হন টিকিটবিহীন কলম্বিয়ান ভক্তদের ওপর চড়াও হতে। প্রটোকল অবশ্য পুরোপুরি মানতে পারেননি হার্ড রক স্টেডিয়ামের নিরাপত্তায় থাকা পুলিশেরা। কলম্বিয়ান ভক্তদের অনেকেই ঢুকে পড়েছেন বিনা টিকিটে। পুরো বিষয়টি নিয়েই সেখানে তৈরি হয় জটিল পরিস্থিতির। ফাইনালকে কেন্দ্র করে বাড়তি ব্যবস্থা নিয়েও বিতর্ক এড়াতে পারেনি কনমেবল।

চরম বিপাকের মাঝে পড়ে আয়োজকরা তাৎক্ষণিকভাবে স্টেডিয়ামের গেট বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার পর হার্ড রক স্টেডিয়ামে ফাইনাল পিছিয়ে দেওয়া হয় আধঘন্টার জন্য।

আর্জেন্টিনা একাদশ: ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ (গোলরক্ষক), গঞ্জালো মন্টিয়েল, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ, নিকোলাস ট্যাগলিয়াফিকো, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, রদ্রিগো ডি পল, এঞ্জো ফার্নান্দেজ, ম্যাক অ্যালিস্টার, লিওনেল মেসি ও জুলিয়ান আলভারেজ।

কলম্বিয়া একাদশ: ক্যামিলো ভার্গাস (গোলরক্ষক), সান্তিয়াগো আরিয়াস, সান্তিয়াগো আরিয়াস, ডেভিনসন স্যানচেজ, জোহান মোজিকা, রিচার্ড রিওস, জেফারসন লের্মা, জন আরিয়াস, জেমস রদ্রিগেজ, লুইস দিয়াজ ও জন করদোবা।


কোপা আমেরিকা   ফাইনাল   আর্জেন্টিনা   কলম্বিয়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

‘দ্য ফাইনাল ম্যান’কে রেখেই শিরোপার লড়াইয়ে আর্জেন্টিনা

প্রকাশ: ০৬:০৮ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

অবশেষে দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর শুরু হচ্ছে কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসরের শিরোপার লড়াই। যেখানে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার মুখোমুখি হবে ২৩ বছর পর ফাইনালে ওঠা কলম্বিয়া। ম্যাচটিতে যে জমজমাট লড়াই হবে, তা অনুমেয়।

সোমবার মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হচ্ছে দুদল। ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৬টায়। আর খেলা দেখাবে টি-স্পোর্টস।

শিরোপার মঞ্চে আর্জেন্টিনার হয়ে আজই শেষ ম্যাচ খেলবেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। তাকে নিয়ে একাদশ সাজিয়েছেন আর্জেন্টাইন কোচ স্কালোনি। ম্যাচটিতে ৪-৪-২ ফরম্যাশনে মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা।

অন্যদিকে জেমস রদ্রিগেজ ও করদেবাদের নিয়ে সেরা একাদশ নিয়ে মাঠে নামছে কলম্বিয়া। তারা খেলছে ৪-২-৩-১ ফরম্যাশনে।

আর্জেন্টিনা একাদশ: ইমিলিয়ানো মার্টিনেজ (গোলরক্ষক), গঞ্জালো মন্টিয়েল, ক্রিস্টিয়ান রোমেরো, লিসান্দ্রো মার্টিনেজ, নিকোলাস ট্যাগলিয়াফিকো, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, রদ্রিগো ডি পল, এঞ্জো ফার্নান্দেজ, ম্যাক অ্যালিস্টার, লিওনেল মেসি ও জুলিয়ান আলভারেজ।

কলম্বিয়া একাদশ: ক্যামিলো ভার্গাস (গোলরক্ষক), সান্তিয়াগো আরিয়াস, সান্তিয়াগো আরিয়াস, ডেভিনসন স্যানচেজ, জোহান মোজিকা, রিচার্ড রিওস, জেফারসন লের্মা, ঝন আরিয়াস, জেমস রদ্রিগেজ, লুইস দিয়াজ ও জন করদোবা।


আর্জেন্টিনা   কোপা আমেরিকা   কানাডা   লিও মেসি   আলভারেজ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ফের স্বপ্নভঙ্গ ইংল্যান্ডের, এক যুগ পর ইউরো চ্যাম্পিয়ন স্পেন

প্রকাশ: ০৩:০০ এএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

দীর্ঘদিন শিরোপা বুভুক্ষ ইংল্যান্ড টানা দ্বিতীয়বার ফাইনালে উঠেও শিরোপা খরা ঘুচাতে পারলো না। ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের মেগা ফাইনালের মঞ্চে শেষ পর্যন্ত লড়াই করেও স্পেনের কাছে ২-১ গোলে হেরেছে সাউথগেটের শিষ্যরা। আর এতে করে রেকর্ড চতুর্থ ইউরো শিরোপা জিতলো স্পেন।

এদিন শুরু থেকে দুই দলই খেলছিলো ঢিলেঢালা ফুটবল। যেন ফাইনালের উত্তাপটা একটু গায়ে মেখে নিতে চাইছিল তারা। এতে করে প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি কেউই।

তবে বিরতি থেকে ফিরে শুরুতেই এগিয়ে যায় স্পেন। তাতে আক্রমণে ধাচও বাড়ে দলটির। এরপর ৭৩ মিনিটে ইংল্যান্ড সেটা শোধও করে দেয়। তবে নির্ধারিত সময়ের একদম শেষ দিকের গোলে জয় পায় স্পেন। এই জয়ে এক যুগ পর ইউরোতে শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলো লুইস ফুয়েন্তের শিষ্যরা।
 
বার্লিনে আজ ইউরোর ফাইনালে ইংল্যান্ডকে ২-১ গোলে হারিয়েছে স্পেন। নিকো উইলিয়ামস স্পেনকে এগিয়ে দেওয়ার পর কোল পালমারের গোলে সমতায় ফেরে ইংলিশরা। এরপর মিকেল ওয়ারজাবালের গোলে আবার লিড নেয় স্প্যানিশরা।

যে গোলের লিড ধরে রেখে শিরোপা জয়ের আনন্দে মাতে স্পেন। আর টানা দুইবার ফাইনালে উঠেও ইউরোর শিরোপা জেতা হলো না ইংলিশদের।


স্পেন   ইংল্যান্ড   ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন