ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

চীনের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় বিপাকে ভিয়েতনামের পোশাক ও জুতাশিল্প

প্রকাশ: ১১:৪০ এএম, ২৫ মে, ২০২৩


Thumbnail

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উৎপাদিত পণ্য, বিশেষ করে তুলা আমদানিতে যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার প্রভাব পড়েছে ভিয়েতনামে। দেশটির তৈরি পোশাক ও জুতাশিল্পে যুক্তরাষ্ট্রের ক্রয়াদেশ কমে গেছে। যে কারণে গত অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত ৯০ হাজার শ্রমিক কাজ হারিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছে, জিনজিয়াং প্রদেশে শ্রমিকদের দিয়ে জোরপূর্বক কাজ করানো হয়। প্রদেশটি মূলত উইঘুর সম্প্রদায়ের মুসলমান–অধ্যুষিত। অভিযোগের ধারাবাহিকতায় জোরপূর্বক শ্রম প্রতিরোধ আইন (ইউএফএলপিএ) পাস করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই আইন কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করে দেশটি। এতে বিপাকে পড়েছে ভিয়েতনাম। এদিকে চীন অবশ্য বরাবরই দাবি করেছে যে তারা উইঘুর মুসলমানদের জিনজিয়াং প্রদেশে জোর করে আটকে রাখেনি।

ইউএফএলপিএ অনুযায়ী যেসব কোম্পানি চীনের ওই অঞ্চল থেকে পণ্য আমদানি করবে, তাদের এই মর্মে প্রত্যয়ন করতে হবে যে এসব পণ্য জোরপূর্বক শ্রমে তৈরি হয়নি। মার্কিন শুল্ক বিভাগ ইতিমধ্যে সেই দেশে আমদানি হওয়া পণ্যের চালানও পরীক্ষা করতে শুরু করেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমদানি হওয়া পণ্যের মধ্যে চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে জোরপূর্বক শ্রমে উৎপাদিত পণ্য রয়েছে কি না, তা নিশ্চিত হতে যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক বিভাগ এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৬০০টি চালান পরীক্ষা করেছে। এসব চালানে যেসব পণ্যের নাম রয়েছে, সেগুলোর আর্থিক মূল্য ১০০ কোটি মার্কিন ডলার। ৩ এপ্রিল পর্যন্ত পরীক্ষার জন্য ১ কোটি ৫০ লাখ ডলারের তৈরি পোশাক ও জুতার চালান ইউএস কাস্টমসে অপেক্ষমাণ ছিল। এর মধ্যে ৮০ শতাংশ পণ্যই ভিয়েতনাম থেকে আনা। ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা পণ্যের মাত্র ১৩ শতাংশ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ছাড়পত্র পেয়েছে।

ইউএফএলপি আইনের কারণে মার্কিন শুল্ক বিভাগ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ছাড়পত্র দেয়নি, ভিয়েতনামের রপ্তানি করা এমন পণ্যের মূল্য ২০ লাখ ডলার ছাড়িয়েছে। সংখ্যাটি চীনের প্রায় তিন গুণ। ইউএফএলপি আইনের কারণে চলতি বছরের প্রথম মাস থেকে ছাড়পত্র না দেওয়ার হার বেড়েই চলেছে।

আইনটি বাস্তবায়নে কড়াকড়ির কারণে বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড গ্যাপ, নাইকি ও অ্যাডিডাস দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশে ক্রয়াদেশ কমিয়েছে। নাইকি ও অ্যাডিডাসের প্রতি তিন জোড়া জুতার এক জোড়া ভিয়েতনামে তৈরি হয়। এ ছাড়া নাইকি তাদের পোশাকের ২৬ শতাংশ এবং অ্যাডিডাস প্রায় ১৭ শতাংশ পোশাক দেশটি থেকে নেয়। তবে এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক আমদানিকারকই এখন পর্যন্ত নির্বিকার।

ভিয়েতনামে কৃষির পরই সবচেয়ে বেশি কর্মসংস্থান শিল্প খাতে। কিন্তু ইউএফএলপিএর প্রভাবে গত অক্টোবর থেকে ৩৪ লাখ শ্রমিকের মধ্যে ৩ শতাংশ চাকরি হারিয়েছেন। রপ্তানি কমেছে ১১ দশমিক ৯ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ২ দশমিক ৩ শতাংশ রপ্তানি কমেছে।

ইউনিভার্সিটি অব ডেলওয়্যারের ফ্যাশন অ্যান্ড অ্যাপারেল স্টাডিজ বিভাগের পরিচালক শেং লু রয়টার্সকে বলেন, ভিয়েতনামের তৈরি পোশাক ও বস্ত্র খাত চীনা তুলা আমদানির ওপর অতি মাত্রায় নির্ভরশীল। আর চীনের ৯০ শতাংশ তুলাই হয় জিনজিয়াং প্রদেশে। তিনি আরও বলেন, ভিয়েতনামের পক্ষে চীনের তুলার ওপর নির্ভরশীলতা কমানো খুবই কঠিন। কারণ, ভিয়েতনামে বিনিয়োগকারীদের একটি বড় অংশ চীনা।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভিয়েতনাম গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ২ হাজার ৭০০ কোটি ডলারের তৈরি পোশাক ও জুতা রপ্তানি করেছে। দ্রুত বিকল্প উৎস থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করতে না পারলে দেশটির সংকট আরও খারাপের দিকে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইসরায়েলে হামলা: ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ১৫ এলাকায় আগুন

প্রকাশ: ০৮:৫০ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ইসরায়েলি হামলায় লেবাননের প্রতিরোধ যোদ্ধাদল হিজবুল্লাহর সিনিয়র ফিল্ড কমান্ডার নিহত হওয়ার জবাবে দেশটিতে দ্বিতীয় দিনের মতো হামলা অব্যাহত রয়েছে। লেবানন থেকে উত্তর ইসরায়েলে ১৫০টি রকেট ছোড়ার পর অধিকৃত গোলান মালভূমি ও আপার গ্যালিলের ১৫টি এলাকায় আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। 

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) ইসরায়েলের দৈনিক মারিভের বরাতে এসব তথ্য জানিয়েছে আলজাজিরা।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার উত্তর ইসরায়েলের শহরজুড়ে বিমান হামলার সাইরেন বাজানো হয়েছে। বিকেলের দিকে লেবানন থেকে প্রায় ৪০টি রকেট ছোড়া হয়। লেবানন সীমান্ত থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার দূরে সাফেদসহ ইসরায়েলি শহরের উপরে অসংখ্য রকেট প্রতিহতের ফুটেজ সম্প্রচার করেছে ইসরায়েলি রাষ্ট্রীয় সম্প্রচারমাধ্যম কান।

ইসরায়েলের জাতীয় অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা বলেছে, ক্ষেপণাস্ত্রের শার্পনেলের আঘাতে দুজন আহত হয়েছেন। এ ছাড়া খোলা জায়গায় রকেট আঘাত হানলে বেশ কয়েকটি এলাকায় দাবানল ছড়িয়ে পড়ে।

গাজা যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই লেবানন সীমান্তে ইসরায়েলি সেনা ও হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা নিয়মিত পাল্টাপাল্টি হামলা করে আসছে। তবে ইসরায়েলি হামলায় হিজবুল্লাহর শীর্ষ কমান্ডার তালিব সামি আবদুল্লাহ নিহত হলে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা আরও বাড়ে।


ইসরায়েল   হামলা   আগুন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইরাকে তেল শোধনাগারে ভয়াবহ আগুন

প্রকাশ: ০৮:৩৩ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ইরাকের ইরবিল প্রদেশের একটি তেল শোধনাগারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। তবে এই ঘটনায় কোনো প্রাণহানি হয়নি। গতকাল বুধবার (১২ জুন) রাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর গালফ নিউজের।

নিরাপত্তা সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আগুনের ধোঁয়া কয়েকশ মিটার উপরে উঠে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি টিম মোতায়েন করা হয়। এ ছাড়া আগুন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য ওই এলাকা ঘেরাও করে রাখেন দমকলকর্মীরা।

ভিডিওতে দেখা যায়, বিশাল আকারের ধোঁয়া উপরের দিকে উঠছে। আগুন পুরো ভবন গ্রাস করে নিচ্ছে। প্রায় এক ডজন দমকলকর্মী ঘটনাস্থলে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন।

তবে এই ঘটনায় কোনো প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি। যদিও স্থানীয় গণমাধ্যমে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে বলে খবর দেয়া হয়েছে।

এর আগে বুধবার (১২ জুন) ভোরে মধ্যপ্রাচ্যের আরেক দেশ কুয়েতের দক্ষিণ আহমেদি গভর্নরেটের মানগাফ এলাকার একটি বহুতল ভবনে আগুন লাগে। আগুনে মোট ৪৯ জন নিহত হন। তাদের মধ্যে ৪০ জনই ভারতীয় নাগরিক ছিলেন। ভোরে আগুন লাগায় সবাই ঘুমিয়ে ছিলেন। ফলে ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে তারা মারা যান।


ইরাক   তেল শোধনাগার   আগুন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

লোহিত সাগরে বাণিজ্যিক জাহাজে হুথিদের হামলা

প্রকাশ: ০৭:৩৫ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ইরান-সমর্থিত ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথিরা দাবি করছেন ইয়েমন উপকূলে লোহিত সাগরে একটি বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা করেছে তারা। গাজায় ইসরায়েলি যুদ্ধের প্রতিবাদে ফিলিস্তিনিদের সমর্থনে বুধবার লোহিত সাগরে ওই হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে গোষ্ঠীটি।   

২০১৪ সালে ইয়েমেন সরকারকে উৎখাত করার পর থেকে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে আসছে হুথি বিদ্রোহীরা। গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধ শুরুর পর গত নভেম্বর থেকে লোহিত সাগর ও এডেন উপকূলে ইসরায়েলি মালিকানাধীন জাহাজকে লক্ষ্যবস্তু করছে এই গোষ্ঠীটি। গাজা উপত্যকায় ইসরায়েল-হামাসের চলমান যুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের সমর্থনে গুরুত্বপূর্ণ এই বাণিজ্যিক পথে প্রায় প্রত্যেকদিনই হামলা করছে হুথিরা। 

বুধবার এক বিবৃতিতে হুথি গোষ্ঠী বলেছে, তারা নৌ ড্রোন, আকাশ থেকে ছোড়া ড্রোন এবং ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে লোহিত সাগরে একটি জাহাজকে লক্ষ্যবস্তু বানিয়ে সামরিক অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত ইয়েমেনের বন্দর শহর হুদাইদা থেকে প্রায় ৬৮ নটিক্যাল মাইল (১২৬ কিলোমিটার) দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করা জাহাজটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ সমুদ্র নিরাপত্তাবিষয়ক সংস্থা অ্যামব্রে।

বৃহস্পতিবার ব্রিটেনের সমুদ্র নিরাপত্তাবিষয়ক সংস্থা মেরিটাইম ট্রেড অপারেশন এজেন্সি (ইউকেএমটিও) বলেছে, হুদাইদা থেকে প্রায় ৬৬ নটিক্যাল মাইল দক্ষিণ-পশ্চিমে ছোট একটি নৌযান থেকে ওই জাহাজে হামলা করা হয়েছে। হামলার পরপরই ক্রুদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় জাহাজটি। 

পরে বিমান থেকে ছোড়া অজ্ঞাত একটি প্রোজেক্টাইল ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো হামলা করা হয় জাহাজটিতে। সামরিক কর্তৃপক্ষ ওই জাহাজটিকে সহায়তা করেছে। মার্কিন সামরিক বাহিনীর সেন্ট্রাল কমান্ড (সেন্টকম) এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মনুষ্যবিহীন একটি যান ব্যবহার করে টুটর জাহাজে হামলা চালিয়েছে হুথি বিদ্রোহীরা। এতে জাহাজের ইঞ্জিন কক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং পানি ঢুকে যায়।


লোহিত সাগর   বাণিজ্যিক জাহাজ   হুথি   হামলা  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

মেক্সিকোতে খরায় হ্রদ শুকিয়ে হাজার হাজার মাছের মৃত্যু

প্রকাশ: ০৬:৪৮ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

খরার কারণে উত্তর আমেরিকার দেশ মেক্সিকোর একটি হ্রদ আংশিকভাবে শুকিয়ে গেছে। আর এতে করে মারা গেছে হাজার হাজার মাছ। ঘটনাটিকে বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের বিপজ্জনক প্রভাব বলে মনে করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তাসংস্থা সিনহুয়া।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বুধবার জানিয়েছে, বুস্টিলোস হ্রদটির পানি তার স্বাভাবিক স্তরের ৫০ শতাংশ কমে গেছে। যার অর্থ দূষণকারীরা হ্রদটির পানিতে বসবাসকারী প্রজাতির জন্য পরিস্থিতি বিপজ্জনক করে তুলেছে।

মূলত এক সপ্তাহ আগে লেকের নিচে ফাটলে সৃষ্ট কাদায় মরা মাছ স্তুপ হতে শুরু করে। আর বুধবার নাগাদ গোটা এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে রোগ ছড়ানোর আশঙ্কায় শ্রমিকরা হ্রদটির পচনশীল অবশিষ্টাংশ পরিষ্কার করে। সামগ্রিকভাবে মেক্সিকোর রাজধানীসহ বেশ কয়েকটি শহরে উচ্চ তাপমাত্রা দেখা যাচ্ছে। দেশটিতে তাপমাত্রা সর্বকালের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

উত্তর আমেরিকার এই দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ বলছে, মার্চের মাঝামাঝি থেকে শুরু হওয়া চলতি উষ্ণ মৌসুমে ১২৫ জন লোকের মৃত্যু হয়েছে।


মেক্সিকো   খরা   হ্রদ   মাছের মৃত্যু  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ছেলে অভিযুক্ত: কতটা প্রভাব ফেলবে বাইডেনের প্রচারণায়?

প্রকাশ: ০৬:১২ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম বারের মত ক্ষমতাসীন কোনো প্রেসিডেন্টের সন্তান অভিযুক্ত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ২০১৮ সালে আগ্নেয়াস্ত্র কেনার সময় মিথ্যা তথ্য দেয়ার অভিযোগে জো বাইডেনের ছেলে হান্টার বাইডেন অভিযুক্ত হয়েছেন। 

মঙ্গলবার(১১ জুন) ১২ সদস্যের জুরি হান্টার বাইডেনকে অভিযুক্ত করে।

৩৮ ক্যালিবার রিভলভার কেনার সময় হান্টার বাইডেনকে যে ফরম পূরণ করতে হয়েছিল সেখানে তিনি লিখেছিলেন, তিনি মাদকাসক্ত নন। ‌এমনকি, তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগও আনা হয়েছিল।

৫৪ বছর বয়সী হান্টার বাইডেন নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেছেন। আগ্নেয়াস্ত্র কেনার ওই সময়টায় তিনি মাদকাসক্তি থেকে বের হয়ে আসার পথে ছিলেন বলে দাবি করেছেন। তবে ১২ সদস্যের জুরি মঙ্গলবার হান্টার বাইডেনকে অভিযুক্ত করে।

এতে তার সর্বোচ্চ ২৫ বছরের শাস্তি হতে পারে। যদিও প্রথমবার অভিযুক্ত হওয়ায় ২৫ বছর শাস্তি হবার সম্ভাবনা কম। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে শাস্তির বিষয়ে রায় দেওয়া হবে।

ছেলে অভিযুক্ত হওয়ার পর তার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। এক বিবৃতিতে তিনি ছেলের প্রতি ‘ভালোবাসা ও সমর্থন’ জানিয়ে বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্ট, কিন্তু আমি একজন বাবাও।’

হান্টার বাইডেনের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এবং চীন ও ইউক্রেনের সঙ্গে তার ব্যবসায়িক চুক্তি বিষয়ে বিতর্ক তৈরি করে রিপাবলিকানরা অনেকদিন ধরেই জো বাইডেনকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করেছিল।

মঙ্গলবার হান্টার বাইডেনের বিরুদ্ধে রায়ের পরও ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণা দল বাইডেন পরিবারকে নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে। ট্রাম্প নিজেও ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে বিতর্কের সময় হান্টার বাইডেনকে নিয়ে বক্তব্য দিয়ে ভোটারদের আকর্ষণ করার চেষ্টা করেছিলেন।

কিন্তু এতে উল্টো জো বাইডেনের লাভ হয়েছিল। কারণ তিনি ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে বলেছিলেন, এমন একজন ছেলের বাবা হয়ে তিনি গর্বিত যে আসক্তি থেকে বের হয়ে আসতে পেরেছে।

প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জুলিয়ান জেলিজার মনে করছেন, মঙ্গলবারের রায়টি হান্টার বাইডেনকে নিয়ে হলেও ট্রাম্প এর সঙ্গে প্রেসিডেন্ট বাইডেনকে জড়ানোর চেষ্টা করবেন। তিনি বলেন, নিজের বিরুদ্ধে রায়ের পর ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের বিচারব্যবস্থায় রাজনীতিকরণের অভিযোগ এনেছিলেন। কিন্তু হান্টার বাইডেনের মামলা প্রমাণ করছে, মার্কিন বিচারব্যবস্থা পুরোপুরি কার্যকর আছে।

অন্যদিকে, ব্যবসার নথিপত্র গোপন করার দায়ে দুই সপ্তাহ আগে অভিযুক্ত হয়েছেন আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জো বাইডেনের প্রতিপক্ষ সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।


যুক্তরাষ্ট্র   জো বাইডেন   হান্টার বাইডেন  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন