ইনসাইড এডুকেশন

১ জানুয়ারি বন্ধ হচ্ছে নিবন্ধনহীন বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

প্রকাশ: ০৭:১৮ পিএম, ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০২৩


Thumbnail ১ জানুয়ারি বন্ধ হচ্ছে নিবন্ধনহীন বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে নিবন্ধন ও পাঠদান স্বীকৃতি ছাড়া কোনো বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা করতে দেওয়া হবে না। ইতিমধ্যে এসব বিদ্যালয়কে আইনের আওতায় আনতে নীতিমালা তৈরি করা হয়েছে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব ফরিদ আহাম্মদ বলেন, দেশে প্রায় ৪৭ হাজার বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় আছে। যার মধ্যে ৯০ শতাংশ বিদ্যালয় নিবন্ধন ও পাঠদান স্বীকৃতি ছাড়া পরিচালিত হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে নীতিমালা প্রকাশ করা হবে। নীতিমালা প্রকাশের তিন মাসের মধ্যে নিবন্ধন ও পাঠদান স্বীকৃতির আবেদন না করা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টম্বর) বেলা ১১টায় মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান সচিব ফরিদ আহাম্মদ। এ সময় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

সচিব ফরিদ আহাম্মদ বলেন, ইতোমধ্যে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়েছে। নীতিমালাটি আইন মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন হয়ে এসেছে, আগামী সপ্তাহে তা জারি করা হবে। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সংযুক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকেও এই নীতিমালার আওতায় আসতে হবে। আইন মন্ত্রণালয় থেকে বিষয়টি স্বচ্ছ করা হয়েছে।

তবে, শুধু ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলগুলো এই নীতিমালার বাইরে থাকবে।

তিনি বলেন, জেলা পর্যায় থেকে এসব অনুমোদন পাওয়া যাবে। গ্রহণযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৩০ দিনের মধ্যে অ্যাকাডেমিক স্বীকৃতি ও ৬০ দিনের মধ্যে নিবন্ধন দিতে হবে।

প্রতিটি বিদ্যালয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের বিনামূল্যের বই বাধ্যতামূলক পাঠ্যে অন্তর্ভুক্ত করতে হব জানিয়ে ফরিদ আহাম্মদ বলেন, এর বাইরে অন্য যে কোনো বই পড়ানোর জন্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন নিতে হবে। এ ছাড়া বিদ্যালয়ের বেতন নির্ধারণের জন্যও আবেদন করতে হবে। মন্ত্রণালয় তা যাচাই বাছাই করে অনুমোদন দেবে।


১ জানুয়ারি   বন্ধ   নিবন্ধনহীন   বেসরকারি   প্রাথমিক বিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজকে পিছনে ফেলল ঢাবি

প্রকাশ: ১২:২৬ পিএম, ১২ জুন, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা গবেষণা-প্রতিষ্ঠান কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস (কিউএস) ‘কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ্যাঙ্কিংপ্রকাশ করেছে চলতি মাসে। এই ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৫৫৪তম অবস্থানে রয়েছে। গত বছর প্রকাশিত ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ৬৯১ থেকে ৭০০-এর মধ্যে। এক বছরের ব্যবধানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে গেছে প্রায় ১৪০ ধাপ।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ‘এমপ্লয়মেন্ট আউটকামক্যাটাগরিতে ভূতুড়ে স্কোরের কারণে ্যাঙ্কিংয়ে উল্লম্ফন ঘটেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। কারণ, গত বছরের  প্রকাশিত ্যাঙ্কিংয়ে এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর ছিল ৩০ দশমিক ৩। অথচ চলতি বছরে ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর হয়েছে ৯৩ দশমিক শতাংশ। এক বছরের ব্যবধানে অস্বাভাবিক এমন স্কোর বৃদ্ধির কারণেই এগিয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ্যাঙ্কিংও।

তথ্যমতে, কয়েকটি সূচকের ভিত্তিতে ্যাঙ্কিং করে থাকে কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস। এই সূচকগুলো হলো- একাডেমিক খ্যাতি (একাডেমিক রেপুটেশন), চাকরির বাজারে সুনাম (এমপ্লয়ার রেপুটেশন), শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাত (ফ্যাকাল্টি-স্টুডেন্ট রেশিও), শিক্ষকপ্রতি গবেষণা-উদ্ধৃতি (সাইটেশনস পার ফ্যাকাল্টি), আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাত (ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাকাল্টি রেশিও), আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাত (ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট রেশিও), আন্তর্জাতিক গবেষণা নেটওয়ার্ক (ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ নেটওয়ার্ক), কর্মসংস্থান (এমপ্লয়মেন্ট আউটকামস), স্থায়িত্ব (সাসটেইনেবিলিটি)

্যাঙ্কিং তথ্যমতে, চলতি বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গড় স্কোর ২২ দশমিক ৪। বিশ্ববিদ্যালয়টির একাডেমিক রেপুটেশনে স্কোর ২৩, এমপ্লয়ার রেপুটেশনে ৪৫ দশমিক , শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাতে ১১ দশমিক , শিক্ষকপ্রতি গবেষণা-উদ্ধৃতিতে দশমিক , আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাতে দশমিক , আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাতে , আন্তর্জাতিক গবেষণা নেটওয়ার্কে ৫২, স্থায়িত্বে স্কোর ১১ দশমিক ৮। আর কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে পেয়েছে ৯৩ দশমিক স্কোর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৩ দশমিক শতাংশ এমপ্লয়মেন্ট আউটকামস স্কোরকে অস্বাভাবিক অবিশ্বাস্য বলে মনে করেন শিক্ষাবিদরা। কারণ, গত বছর প্রকাশিত কিউএস ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে পেয়েছিল মাত্র ৩০ দশমিক স্কোর। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে এই ক্যাটাগরিতে ৬৩ স্কোরের বেশি এগিয়ে যাওয়াকে অসম্ভব বলে মনে করছেন শিক্ষা-সংশ্লিষ্টরা। কারণ চলতি বছরের র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাটাগরিতে পেয়েছে মাত্র ২২ দশমিক স্কোর।

ছাড়া চলতি বছরের কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ্যাঙ্কিংয়ে দেখা গেছে, দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে পেয়েছে ৯৩ দশমিক স্কোর, নবম স্থানে থাকা যুক্তরাজ্যের ইউসিএল ইউনিভার্সিটি ক্যাটাগরিতে পেয়েছে ৭০ দশমিক স্কোর। অর্থাৎ, এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে শীর্ষে থাকা এসব বিশ্ববিদ্যালয়কেও ছাড়িয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 

কিউএস ্যাঙ্কিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন উল্লম্ফন সম্পর্কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক . এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, কিউএস ্যাঙ্কিং তৈরির ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনো তথ্য চাওয়া হয় না। তারা নিজেরাই বিভিন্ন সোর্স থেকে তথ্য সংগ্রহ করে প্রতিবেদন তৈরি করে থাকে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে উল্লেখ করা ৯৩ দশমিক স্কোরের সত্যতা রয়েছে বলে দাবি করেন উপাচার্য।

তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ছিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে এক বছরে ৬৩ স্কোর বৃদ্ধি পাওয়ার কথা নয়। এটি অস্বাভাবিক অবিশ্বাস্য বলে মনে হয়। এখানে তথ্যগত গরমিল থাকতে পারে।


লন্ডন   ইম্পেরিয়াল   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

১৭ দিনের ছুটিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

প্রকাশ: ০৭:০৪ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি উপলক্ষ্যে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) থেকে এ ছুটি শুরু হবে, যা শেষ হবে আগামী ২৯ জুন। 

রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইতোমধ্যে ছুটির নোটিশ টানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালীন ছুটি ও পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে আগামী ১৩ জুন থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত ১৭ দিন ছুটি থাকবে। ৩০ জুন অর্ধদিবস ক্লাস হবে। ১ জুলাই থেকে পূর্ণদিবস ক্লাস শুরু হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি সাধারণত জুন মাসে হয়ে থাকে। এবার ঈদুল আজহার ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে দেওয়া হয়েছে। এ বছর শীত ও গরমের কারণে স্কুল অনেক দিন বন্ধ থাকায় গ্রীষ্মকালীন ছুটি কিছুটা কমিয়ে আনা হয়েছে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ চাইলে ঈদের ছুটি এবং গ্রীষ্মকালীন ছুটি আলাদা করে দিতে পারেন।

রাজধানীর আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ এমান হোসাইন বলেন, শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী ঈদ ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি দেওয়া হয়েছে। তবে সরকারিভাবে যদি ছুটির কোনো পরিবর্তন হয় সেটি সংশোধন করা হবে।

ছুটি   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান   ঈদুল আজহা   গ্রীষ্মকালীন ছুটি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

১৩ থেকে ২৯ জুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি

প্রকাশ: ০৫:১০ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

আসন্ন ঈদুল আজহা গ্রীষ্মকালীন ছুটি উপলক্ষ্যে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) থেকে ছুটি শুরু হয়ে শেষ হবে ২৯ জুন। রাজধানী বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইতোমধ্যে ছুটির নোটিশ টানানো হয়েছে।

 এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালীন ছুটি পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে আগামী ১৩ জুন থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত ১৭ দিন ক্লাস ছুটি থাকবে। ৩০ জুন থেকে যথারীতি অর্ধদিবস ক্লাস চলবে। তবে জুলাই থেকে পূর্ণ দিবস ক্লাস চলবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানরা বলছেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি সাধারণত জুন মাসে হয়ে থাকে। যেহেতু ঈদুল আজহার ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে দেওয়া হয়েছে। এই ছুটি এক মাস হওয়া কথা থাকলেও চলতি বছর শীত তীব্র গরমের কারণে বেশ কিছুদিন স্কুল বন্ধ ছিল। তাই গ্রীষ্মকালীন ছুটি কিছুটা কমিয়ে আনা হয়েছে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ চাইলে ঈদের ছুটি এবং গ্রীষ্মকালীন ছুটি আলাদা করেও দিতে পারেন।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (মাধ্যমিক) প্রফেসর সৈয়দ জাফর আলী গণমাধ্যমকে বলেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি নিয়ে আমাদের ভিন্ন ভাবনা রয়েছে। তবে যেহেতু ঈদের ছুটি আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে যাবে তাই আপাতত ঈদের ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে কোনো প্রতিষ্ঠান গ্রীষ্মকালীন ছুটি দিতে পারে।  গ্রীষ্মকালীন ছুটি নিয়ে কোনো পরিবর্তন হলে তা পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।


স্কুল   ছুটি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

বেসরকারি ডেন্টালে ভর্তির আবেদন শুরু

প্রকাশ: ০৩:৪১ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীরা আজ থেকে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আগ্রহী প্রার্থীদের আগামী জুলাইয়ের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. মো. মহিউদ্দিন মাতুব্বর স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ বা মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটগুলোর শূন্য আসনে ভর্তিচ্ছু দেশি শিক্ষার্থী হতে টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের মাধ্যমে অনলাইনে দরখাস্ত আহ্বান করা হচ্ছে। ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীরা অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।


বেসরকারি   ডেন্টাল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি চালুর সিদ্ধান্ত

প্রকাশ: ০৭:২৮ পিএম, ০৮ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি দেওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সে লক্ষ্যে সংক্রান্ত একটি নীতিমালা করতে ছয় সদস্যের একটি কমিটি করেছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কমিটিকে দ্রুত সময়ের মধ্যে সংক্রান্ত নীতিমালা জমা দিতে বলা হয়েছে। সম্প্রতি বেসরকারি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালুর প্রস্তাবনায় অনুমোদন দিয়েছে কমিশনের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার ( জুন) ছয় সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করে কমিশন। ইউজিসির কমিটি, দেশের বেসরকারি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত উচ্চশিক্ষালয়গুলোতে পিএইচডি ডিগ্রি চালু করতে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে-কমিশনের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইউজিসির সদস্য . অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দকে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে কমিশনের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক মো. শরিফুল ইসলামকে। এছাড়াও কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন- ইউজিসির পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ম্যানেজমেন্ট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য অধ্যাপক . হাসিনা খান, উত্তরা ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . গৌর গোবিন্দ গোস্বামী, গ্রিন ইউনিভার্সিটির কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক . মো. শহীদুল্লাহ এবং ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পরিচালক মো. ওমর ফারুখ।

কমিটির কার্যপরিধিতে বলা হয়েছে, কমিটি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালু করতে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করবে; কমিটি প্রয়োজনে এক বা একাধিক সদস্য কো-অপ্ট করতে পারবে এবং কমিটি প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠনের মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাকাডেমিক ডিসিপ্লিন ক্লাস্টারের উপযোগী পিএইচডি কোর্সওয়ার্ক বা রিসার্চ মেথডোলজি-সংক্রান্ত কারিকুলাম বা মডিউলগুলো প্রণয়ন করতে পারবে।


পিএইচডি   বেসরকারি   বিশ্ববিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন