ইনসাইড ইকোনমি

ভারত থেকে ডিম আসতে লাগবে এক সপ্তাহ, দাম কত পড়বে

প্রকাশ: ০৯:০০ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২৩


Thumbnail

ডিমের দাম স্থিতিশীল রাখতে চার কোটি ডিম আমদানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্র বলছে, চারটি প্রতিষ্ঠানকে এক কোটি করে চার কোটি ডিম আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যে চারটি কোম্পানিকে ডিম আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে, তারা হলো মীম এন্টারপ্রাইজ, প্রাইম এনার্জি ইমপোর্টার্স অ্যান্ড সাপ্লায়ার্স, টাইগার ট্রেডিং ও অর্ণব ট্রেডিং লিমিটেড। আমদানির অনুমতির পাশাপাশি খুচরা দোকানে একটি ডিমের সর্বোচ্চ দর ১২ টাকা বেঁধে দেওয়া হয়।

আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানগুলো বলছে, দেশের বাজারে প্রতিটি ডিম তারা ১০ টাকার কমে বিক্রি করতে পারবে। আর ভারত থেকে ডিম আসতে সময় লাগতে পারে এক সপ্তাহের মতো।

ডিম আমদানির অনুমতি পাওয়া টাইগার ট্রেডিংয়ের মালিক সাইফুর রহমান সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ভারত ছাড়া অন্য কোনো দেশ থেকে ডিম আমদানি করাকে তারা লাভজনক মনে করছেন না।

ভারত থেকে আমদানি করে দেশে বিক্রি করতে ডিমের দাম কত পড়তে পারে জানতে চাইলে টাইগার ট্রেডিংয়ের মালিক সাইফুর রহমান জানান, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, হরিয়ানা, হায়দরাবাদে ও অন্ধ্রপ্রদেশে ডিমের হালিপ্রতি দর ১৮ রুপি থেকে ২২ রুপি (২৪ থেকে ২৯ টাকা)। এর সঙ্গে পরিবহন ও অন্যান্য খরচ যোগ হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি ৩৬ থেকে ৪০ টাকা হালির মধ্যে ক্রেতাদের হাতে ডিম তুলে দিতে পারব।’

সাইফুর রহমান আরও বলেন, ঋণপত্র খোলা দ্রুত সম্ভব হলে এবং অন্যান্য প্রক্রিয়া শেষ করা গেলে এক সপ্তাহে ভারত থেকে ডিম আমদানি সম্ভব।


ডিম আমদানি   বাণিজ্য মন্ত্রণালয়   সরকার  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

দুর্বল ব্যাংকগুলোকে একীভূত হওয়ার আল্টিমেটাম কেন্দ্রীয় ব্যাংকের

প্রকাশ: ০৮:৩০ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

দুর্বল হয়ে পড়া ব্যাংকগুলোকে সবল ব্যাংকের সঙ্গে একীভূত হওয়ার আল্টিমেটাম দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি জানিয়ে যে, চলতি বছরের মধ্যে নিজেদের ইচ্ছায় একীভূত না হলে আগামী বছর থেকে চাপ দিয়ে ব্যাংক একীভূত করা হবে। 

সোমবার (৪ মার্চ) দুপুরে ব্যাংক উদ্যোক্তাদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) প্রতিনিধিদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক আলোচনায় এমন মতামত দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার ও জেষ্ঠ কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৩১ জানুয়ারি সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত ব্যাংকার্স সভাতেও একই মতামত দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক। তখন ব্যাংকার্স সভায় গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার বলেছিলেন, দেশের ৬১টি ব্যাংকের মধ্যে ৪০টির মতো ব্যাংক ভালো অবস্থায় আছে। বাকিগুলোর মধ্যে ৮ থেকে ১০টি ব্যাংক একীভূত হতে পারে। একীভূত হওয়ার লক্ষ্যে ভালো ও দুর্বল ব্যাংকের এমডিদেরকে নিজেদের মধ্যে আলোচনা শুরুর পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি।

দুর্বল ব্যাংককে ভালো ব্যাংকের সঙ্গে একীভূত করা হবে, এমন আলোচনার মধ্যে আজ বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে যান বিএবি প্রতিনিধিদল। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে ব্যাংক একীভূত করার প্রেক্ষাপট, প্রক্রিয়া ও সময়সীমা জানানো হয় প্রতিনিধিদলটিকে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মেজবাউল হক সাংবাদিকদের বলেন, ব্যাংক খাতের জন্য পথনকশা দেওয়া হয়েছে। সেখানে ব্যাংক একীভূত হওয়ার কথা বলা হয়েছে। ব্যাংক অধিগ্রহণ ও একীভূত হওয়া সারা পৃথিবীর একটি চর্চা। আমরা এ নিয়ে একটি নীতিমালা প্রণয়ন করব। এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। দুর্বল ব্যাংক শক্তিশালী করতে এই উদ্যোগ। এটা ব্যাংক চেয়ারম্যানদের জানানো হয়েছে।

দুর্বল ব্যাংক   আল্টিমেটাম   কেন্দ্রীয় ব্যাংক  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি ভারতের

প্রকাশ: ০৬:১১ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন এবং বাকি ১৪ হাজার ৪০০ টন পেঁয়াজ সংযুক্ত আরব আমিরাতে রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

সোমবার ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মহাপরিচালকের দপ্তরের (ডিজিএফটি) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকার। দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ন্যাশনাল কো-অপারেটিভ এক্সপোর্ট লিমিটেডের (এনসিইএল) মাধ্যমে এই পেঁয়াজ বাংলাদেশে বাংলাদেশে ৫০ হাজার টন পেঁয়াজ রপ্তানি করা হবে। 

সোমবার ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্যবিষয়ক মহাপরিচালকের দপ্তরের (ডিজিএফটি) (ডিজিএফটি) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতেও ১৪ হাজার ৪০০ টন পেঁয়াজ রপ্তানি করবে নয়াদিল্লি।


বাংলাদেশ   ভারত   পেঁয়াজ   ডিজিএফটি   বাংলাদেশ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

৮ মাসে সর্বোচ্চ প্রবাসী আয় ফেব্রুয়ারিতে

প্রকাশ: ০৮:১৫ পিএম, ০৩ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

সদ্য সমাপ্ত ফেব্রুয়ারিতে প্রবাসী আয়ে চমক দেখা গেছে। আলোচ্য মাসে দেশে রেমিট্যান্স এসেছে প্রায় ২ দশমিক ১৭ বিলিয়ন বা ২১৭ কোটি ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ অন্তত ২৩ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। এর আগে গত জুনে রেমিট্যান্স এসেছিল ২২০ কোটি ডলার। সেই হিসাবে গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ফেব্রুয়ারি মাসে প্রবাসী আয় বেড়েছে ৩৮ দশমিক ৭৭ শতাংশ।

রোববার (৩ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের সাপ্তাহিক হালনাগাদ প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। 

এতে উল্লেখ করা হয়, চলতি বছরের জানুয়ারিতে ২১০ কোটি ডলার পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। ২০২৩ সালের শেষ মাস ডিসেম্বরে তারা পাঠান ১৯৯ কোটি ডলার। আগের মাস নভেম্বরে আসে ১৯৩ কোটি ডলার। অক্টোবরে পৌঁছে ১৯৭ কোটি ডলার। আর সেপ্টেম্বরে এসেছিল ১৩৩ কোটি ডলার।   

এছাড়া গত বছরের জানুয়ারিতে ১৯৫ কোটি ৮৮ লাখ ডলার, ফেব্রুয়ারিতে ১৫৬ কোটি ডলার, মার্চে ২০২ কোটি ডলার, এপ্রিলে ১৬৮ কোটি ডলার, মে’তে ১৬৯ কোটি ডলার, জুনে  ২২০ কোটি ডলার, জুলাইয়ে ১৯৭ কোটি ডলার, আগস্টে ১৫৯ কোটি ৯৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আসে।

গত ২০২২-২৩ অর্থবছরে মোট রেমিট্যান্স আসে ২ হাজার ১৬১ কোটি ৭ লাখ ডলার। আগের অর্থবছরে এসেছিল ২ হাজার ১০৩ কোটি ১৭ লাখ ডলার। তাছাড়া ২০২০-২১ অর্থবছরে পৌঁছে ২ হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ ডলার। দেশের ইতিহাসে যা ছিল সর্বোচ্চ।

প্রবাসী আয়   বাংলাদেশ ব্যাংক   রেমিট্যান্স  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন পরিচালক মাহবুবুল আলম

প্রকাশ: ০৭:১২ পিএম, ০৩ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক (সাবেক মহাব্যবস্থাপক) হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন বৈদেশিক মুদ্রা পরিদর্শন বিভাগের অতিরিক্ত পরিচালক মাহবুবুল আলম। গত শুক্রবার পদোন্নতি দিয়ে তাকে প্রধান কার্যালয়ের মানবসম্পদ বিভাগে সংযুক্ত করা হয়েছে।

মাহবুবুল আলম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শেষে ১৯৯৯ সালে সহকারী পরিচালক হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদান করেন। 

কর্মজীবনে তিনি এফআইসিএসডি, বিএফআইইউ, বৈদেশিক মুদ্রা পরিদর্শন বিভাগে কাজ করেছেন। ট্রেড বেজড মানিলন্ডারিং ও হুন্ডি সংক্রান্ত অপরাধসহ আর্থিক খাতের জাল-জালিয়াতি বিষয়ক তদারকিতে দক্ষ কর্মকর্তা হিসেবে তার পরিচিতি রয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরের শিবচরে।

বাংলাদেশ ব্যাংক   মাহবুবুল আলম  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড ইকোনমি

ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন খুরশীদ আলম ও ড. হাবিব

প্রকাশ: ০৫:১৭ পিএম, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪


Thumbnail

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর হচ্ছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. খুরশীদ আলম ও প্রধান অর্থনীতিবিদ ড. মো. হাবিবুর রহমান। এ কে এম সাজিদুর রহমান ও আবু ফরাহ মোহাম্মদ নাসের এর স্থলাভিষিক্ত হবেন তারা।

এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিয়োগসংক্রান্ত নথিতে সই করে আদেশ জারির জন্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠিয়েছেন বলে জানা গেছে।

খুরশীদ আলম বর্তমানে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক-১ হিসেবে কর্মরত আছেন। ড. হাবিবুর রহমান বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীবিদ। এখন দুজনকেই নিয়মিত চাকরি থেকে স্বেচ্ছা অবসর নিয়ে ডেপুটি গভর্নরের চুক্তিভিত্তিক পদে যোগদান করতে হবে।

চলতি মাসের ২ ফেব্রুয়ারি এ কে এম সাজেদুর রহমান খান এবং গত ২৩ ফেব্রুয়ারি আবু ফরাহ মো. নাছেরের ডেপুটি গভর্নর হিসেবে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়। এরপর এ দুটি পদ খালি হয়। আবু ফরাহ মো. নাছের পলিসি অ্যাডভাইজার হিসেবে আগামী এক বছরের জন্য নিয়োগ পাচ্ছেন।

ডেপুটি গভর্নর   মো. খুরশীদ আলম   প্রধান অর্থনীতিবিদ   ড. মো. হাবিবুর রহমান   বাংলাদেশ ব্যাংক  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন