ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

কোথায় যাচ্ছে ভারত কানাডার কূটনৈতিক সম্পর্ক?

প্রকাশ: ০২:৫১ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২৩


Thumbnail

ভারত এবং কানাডার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক। শিক্ষা, সংস্কৃতি, বাণিজ্য সবক্ষেত্রেই ভারতের সঙ্গে কানাডার গভীর সম্পর্ক। প্রচুর সংখ্যক ভারতীয় বসবাস করেন কানাডায়। সম্প্রতি খালিস্তান আন্দোলনকে কেন্দ্র করে শিখ নেতা নিজ্জার হত্যাকাণ্ডে ভারতের সম্পৃক্ততার কথা উল্লেখ করে করে মন্তব্য করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এর পর থেকেই দুই দেশের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে। চরম অবনতি হয়েছে তাদের কুটনৈতিক সম্পর্কের।

কানাডার মোট জনসংখ্যা ৩ কোটি ৭০ লাখ। তার মধ্যে অন্তত ১৪ লাখ ভারতীয়। উচ্চশিক্ষা কিংবা চাকরির সূত্রে ভারত থেকে তারা কানাডায় গেছেন। কানাডায় প্রবাসী ভারতীয়ের সংখ্যা মোট জনসংখ্যার ৩ দশমিক ৭ শতাংশ।

আর এই কানাডায় প্রবাসী ভারতীয়দের মধ্যে অনেকেই শিখ ধর্মাবলম্বী। সেখানে ৭ লাখ ৭০ হাজার শিখ রয়েছেন। যা দেশটির মোট জনসংখ্যার ২ শতাংশ। ভারতে শিখদের অনুপাত কানাডার চেয়ে কম। ভারতের মোট জনসংখ্যার বিচারে শিখদের সংখ্যা মাত্র ১ দশমিক ৭ শতাংশ।

কানাডায় ট্রুডোর সরকার গঠনে শিখদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। কানাডার হাউজ অব কমন্‌সে ১৮ জন শিখ সংসদ সদস্য রয়েছেন। শিখরা কানাডার রাজনীতিতেও যথেষ্ট সক্রিয়। তাই ট্রুডো বা কানাডার কোনো রাজনৈতিক দলই শিখদের চটাতে চান না।

বাণিজ্যের বিচারেও ভারত-কানাডা সম্পর্ক যথেষ্ট মজবুত। পণ্য আমদানি ও রপ্তানির মাধ্যমে এই দুই দেশ একে অপরের ওপর নির্ভরশীল। ২০২২ সালে কানাডা-ভারতের মধ্যে বাণিজ্যিক আদান-প্রদানের পরিমাণ ছিল সবচেয়ে বেশি।

কানাডা থেকে মূলত সার, কয়লা, কোক, ব্রিকেটের মতো উপাদান আমদানি করে ভারত। ভারত থেকে কানাডায় যায় ভোগ্যপণ্য, যানবাহন, বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি ও পোশাক।

কানাডা সরকারের পরিসংখ্যান বলছে, ২০২২ সালে ভারত ও কানাডার মধ্যে প্রায় ৯০০ কোটি ডলার (আমেরিকান) মূল্যের বাণিজ্যিক আদান-প্রদান হয়, যা আগের বছরের তুলনায় ৫৭ শতাংশ বেশি।

কানাডা থেকে ভারতে বিনিয়োগও কম হয় না। ভারতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের তালিকায় ১৭ নম্বরে আছে জাস্টিন ট্রুডোর দেশ। ২০০০ সাল থেকে ভারতের বাজারে ৩৬০ কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগ কানাডা থেকে আসে।

শিক্ষাখাতেও কানাডার সঙ্গে ভারতের যোগাযোগ নিবিড়। ভারতের অনেক ছাত্রছাত্রী উচ্চশিক্ষার জন্য কানাডায় যান। মেধাবী ভারতীয় ছাত্রছাত্রীদের কদর আছে কানাডায়।

কানাডায় পড়তে যাওয়া বিদেশি শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভারতীয়দের সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। ২০১৮ সাল থেকে ভারত কানাডায় বিদেশি শিক্ষার্থী সরবরাহের সবচেয়ে বড় উৎসে পরিণত হয়েছে।

কানাডিয়ান ব্যুরো অব ইন্টারন্যাশানাল এডুকেশনের, ২০২২ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, কানাডায় ভারতীয় ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ৩ লাখ ২০ হাজার, যা কানাডার মোট বিদেশি শিক্ষাথীর ৪০ শতাংশ।

তবে তাৎপর্যপূর্ণ হলো গত ২০ বছরের পরিসংখ্যান ঘাঁটলে দেখা যাচ্ছে, ভারত থেকে প্রচুর সংখ্যাক শিখ ধর্মাবলম্বী মানুষ কানাডায় গেছেন ও সেখানেই থিতু হয়েছেন। মূলত উচ্চশিক্ষা ও কর্মসংস্থানই তাদের উদ্দেশ্য।

কানাডার সঙ্গে ভারত সরকারের সম্পর্ক দুই দেশের বাণিজ্যিক স্বার্থেই ছিল মজবুত। কিন্তু হঠাৎ গত কয়েক দিনে সেই সম্পর্কে কালোমেঘের ঘনঘটা দেখা দিয়েছে। কানাডার সঙ্গে ভারতের সম্পর্কের অনেক অবনতি হয়েছে।

কানাডার মাটিতে খালিস্তানপন্থি শিখ আন্দোলনকারী হরদীপ সিংহ নিজ্জারকে হত্যা করা হয় গত জুন মাসে। তিনি ছিলেন খালিস্তানপন্থি সংগঠন ‘খালিস্তান টাইগার ফোর্স’ বা কেটিএফের প্রধান।

দুই অজ্ঞাতপরিচয় আততায়ী ৪৬ বছরের নিজ্জরকে গুরুদ্বার চত্বরে গুলি করে হত্যা করেন। কানাডা সরকারের দাবি, এই হত্যাকাণ্ডে ভারতের ‘হাত রয়েছে। পার্লামেন্টের জরুরি অধিবেশনে তেমনই দাবি করেছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী ট্রু়ডো।

এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ভারতীয় এক কূটনীতিককে বহিষ্কার করে ট্রুডো সরকার। কানাডার প্রধানমন্ত্রীর দাবি, নিজ্জর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে ভারতীয় এজেন্টদের যোগ থাকার বিশ্বাসযোগ্য প্রমাণ রয়েছে তার কাছে। এ বিষয়ে জি-২০ সম্মেলনে তার সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথা হয়েছে বলেও জানান ট্রুডো।

ভারতের পক্ষ থেকে কানাডার অভিযোগকে ‘অযৌক্তিক ও ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে বর্ণনা করা হয়েছে। কূটনীতিককে বহিষ্কারের বিষয়েও কড়া সমালোচনা করেছে নয়াদিল্লি।

কানাডার ঢিলের বদলে পাটকেল ছুড়তেও দেরি করেনি ভারত। ভারতে নিযুক্ত কানাডার এক সিনিয়র কূটনীতিককে বহিষ্কার করে পাঁচ দিনের মধ্যে ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়।

গত কয়েক বছর ধরেই কানাডা ও ভারতের সম্পর্কের অবনতির ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল। ২০২০ সালে ভারতে কৃষক আন্দোলন চলাকালীন সরকারবিরোধী সেই আন্দোলনকে সমর্থন করে বার্তা দিয়েছিলেন ট্রুডো। কৃষি আইনের বিরুদ্ধে চলা আন্দোলন নিয়ে কানাডায় ভারতীয়দের কাছে উদ্বেগও প্রকাশ করেছিলেন তিনি, যা দিল্লি ভালো চোখে দেখেনি।

কানাডা খালিস্তানপন্থিদের সমর্থন করে তাদের আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ ভারতের। এনআইএ-র পক্ষ থেকে বুধবার বিচ্ছিন্নতাবাদী ও দুষ্কৃতী নেটওয়ার্কে জড়িত ৪৩ জনের তালিকা কানাডা সরকারকে পাঠানো হয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে ভারতে ‘মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা অনেকেই কানাডায় গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন। কানাডায় খালিস্তানপন্থি বিক্ষোভকারীদের নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে গত মার্চ মাসে ভারত সরকার কানাডার হাইকমিশনারকে তলবও করেছিল।

মূলত, খালিস্তান সমস্যাই ভারত-কানাডা সম্পর্কের অবনতির আসল কারণ। বর্তমান পরিস্থিতিতে দুই দেশের সম্পর্ক কোন দিকে মোড় নেয়, সেটাই এখন দেখার বিষয়।


ভারত   কানাডা   সম্পর্ক   ব্যবসা   ছাত্রছাত্রী   খালিস্তান   নিজ্জার হত্যাকাণ্ড  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

বাংলাদেশে বিচার বিভাগকে ব্যবহার করে সাংবাদিকদের হয়রানির খবরে জাতিসংঘের উদ্বেগ

প্রকাশ: ০৮:৩৯ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

বাংলাদেশের বিচার বিভাগকে ব্যবহার করে অধিকারকর্মী, সাংবাদিক ও নাগরিকদের হয়রানির খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার ফলকার টুর্ক। 

সোমবার (৪ মার্চ) সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের ৫৫তম অধিবেশনে এমন প্রতিক্রিয়া জানান তিনি।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের মানবাধিকারবিষয়ক হাইকমিশনার বলেন, ‘বাংলাদেশে বিচারব্যবস্থাকে ব্যবহার করে অধিকারকর্মী, সাংবাদিক ও নাগরিক সমাজের নেতাদের ওপর হয়রানির অভিযোগের খবরে আমি উদ্বিগ্ন। গুম ও বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের অভিযোগগুলো আন্তর্জাতিক নীতি অনুসরণ করে তদন্তের আহ্বান জানাচ্ছি।’

ফলকার টুর্ক বলেন, ‘বাংলাদেশে হাজার হাজার বিরোধীদলীয় নেতা-কর্মীকে কারাগারে আটক করে রাখা হয়েছে। গত বছরের অক্টোবর থেকে আটক অবস্থায় কয়েকজনের মৃত্যুর খবরও পাওয়া গেছে। বিষয়গুলো নিয়ে আমি উদ্বিগ্ন। যেকোনো ধরনের রাজনৈতিক সহিংসতার নিন্দা জানানোর পাশাপাশি ওই নেতা-কর্মীদের মুক্তি এবং রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে সংলাপ ও সমঝোতার লক্ষ্যে তাঁদের বিরুদ্ধে করা মামলাগুলো দ্রুত পর্যালোচনার আহ্বান জানাচ্ছি।’

বাংলাদেশে বিচার বিভাগ   সাংবাদিক হয়রানি   জাতিসংঘ  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

রাশিয়ার ফাঁস করা রেকর্ডিং নিয়ে জার্মানিতে আলোড়ন

প্রকাশ: ০৭:৩৪ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

ইউক্রেনকে শক্তিশালী টাউরুস ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহের বিষয়ে জার্মান বিমানবাহিনীর কর্মকর্তাদের গোপন আলোচনার রেকর্ডিং ফাঁস করে জার্মানিতে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে রাশিয়া ৷ এই ঘটনার পরিণতি নিয়ে বেশ বিতর্ক চলছে। 

রাশিয়ার সংবাদমাধ্যমে শুক্রবার সেই গোপন কথোপকথন ফাঁস হয়ে যাওয়ায় জার্মানিতে প্রবল তর্ক-বিতর্ক চলছে। জার্মানির স্থিতিশীলতা বিঘ্নের অভিযোগও উঠছে।

জোট সরকারের নিরাপত্তা বিষয়ক বিশেষজ্ঞরা স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে যোগাযোগের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা আরো বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছেন। এভাবে আরো জোরালোভাবে গুপ্তচরবৃত্তি মোকাবিলার ডাক দিচ্ছেন সরকার ও বিরোধী পক্ষের নেতারা। 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জার্মানির জেনারেল গেরহার্টজ ভিডিও কলে বলেছেন, ‘ব্রিটিশ সেনারা (ইউক্রেনের) রণভূমিতে ছিল’। রাশিয়া অনেক দিন থেকেই এই অভিযোগ করে আসছে যে, ইউক্রেনে ব্রিটিশ সেনারাও লড়ছে কিয়েভের পক্ষ হয়ে। বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে ন্যাটো মিত্র দেশগুলো মধ্যে বিভাজন ও অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকট হয়েছে। সম্প্রতি রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় একটি সম্প্রচার মাধ্যমে এই কলের একটি রেকর্ডিং প্রচারিত হয়। 

এই ঘটনা প্রকাশিত হওয়ার পর জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী বরিস পিস্টোরিয়াস গতকাল রোববার বলেছেন, ভ্লাদিমির পুতিন এই রেকর্ডিং ব্যবহার করে জার্মানিকে ‘অস্থিতিশীল’ করার অপচেষ্টা করছেন এবং ‘তথ্য যুদ্ধ’ দিয়ে পশ্চিমাদের মধ্যে বিভাজনের বীজ বোপনের ফন্দি করছেন। 

এদিকে, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস এই রেকর্ডিং ফাঁস হওয়ার ঘটনাকে ‘খুবই গুরুতর’ বলে আখ্যা দিয়েছেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।


রাশিয়া   জার্মানি   ইউক্রেন   জার্মান বিমানবাহিনী  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইসরায়েলের প্রতি কড়া বার্তা কমলা হ্যারিসের

প্রকাশ: ০৭:১০ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় প্রস্তাবিত ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি চুক্তি গ্রহণের জন্য ইসরায়েলের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। 

তিনি বলেছেন, ইসরায়েল গাজায় মানবিক বিপর্যয় রোধে যথেষ্ট উদ্যোগ নিচ্ছে না। একই সঙ্গে তিনি হামাসকেও যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে। 

রোববার যুক্তরাষ্ট্রের আলাবামা অঙ্গরাজ্যে দেওয়া এক বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। গাজায় চরম দুর্ভোগের পরিপ্রেক্ষিতে উপত্যকায় অন্তত ছয় সপ্তাহের যুদ্ধবিরতি অবিলম্বে দরকার- বলে উল্লেখ করেন তিনি। খবর এএফপির। 

কমলা হ্যারিস তার বক্তব্যে গাজায় অপর্যাপ্ত ত্রাণসহায়তা নিয়ে ইসরাইলের সমালোচনা করেছেন। গাজায় ত্রাণ সরবরাহ বাড়াতে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু সরকারের প্রতি কড়া ভাষায় আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। বলেছেন, ‘ত্রাণসহায়তার প্রবাহ উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়াতে ইসরাইল সরকারকে অবশ্যই আরও কিছু করতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো অজুহাত চলবে না। '

ইসরাইলকে নিয়ে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের কোনো কর্মকর্তার সবচেয়ে কড়া মন্তব্য এটি। 


ইসরায়েল   গাজা উপত্যকা   যুদ্ধবিরতি   কমলা হ্যারিস  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

১,০০০ প্রবাসী কর্মী নেবে সৌদি আরব

প্রকাশ: ০৫:৩২ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

মধ্যপ্রাচ্যের ধনী দেশ সৌদি আরবে ধারাবাহিকভাবে প্রবাসী কর্মী নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছে। স্বাস্থ্যসেবা খাতে ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে বিদেশ থেকে নার্স নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটি। ধাপে ধাপে বিভিন্ন দেশ থেকে নার্স নেয়া হবে। তবে এবার প্রথমধাপে এক হাজার কর্মী নেবে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা থেকে। খবর গালফ নিউজ।  

শ্রীলঙ্কার শ্রম মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগামী ১২ মাসে সৌদি আরবে কর্মসংস্থানের সুযোগ পাবেন এক হাজার নার্স। এরই মধ্যে গত সপ্তাহে কলম্বোয় প্রথম দফার নিয়োগ সম্পন্ন হয়েছে।

দেশটির শ্রম ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মিডিয়া সেক্রেটারি সঞ্জয় নাল্লাপেরুমা জানিয়েছেন, চিকিৎসা খাতে ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে শ্রীলঙ্কাসহ অন্যান্য দেশ থেকে মেডিকেল ও প্যারামেডিকেল কর্মী নিয়োগ করতে চাইছে রিয়াদ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রাথমিকভাবে বিদেশ থেকে এক হাজার নার্স নিয়োগের লক্ষ্য নিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। প্রথম পর্যায়ে শ্রীলঙ্কায় ৪০০ জন আবেদনকারীর মধ্য থেকে বিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রিধারী ৯৫ জন নার্সকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

এসব নার্স সৌদি আরবের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে দেশটির বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে কাজ করবেন। নিয়োগের পরবর্তী ধাপ শুরু হবে আগামী আগস্ট মাসে।


মধ্যপ্রাচ্য   শ্রীলঙ্কা   সৌদি আরব   প্রবাসী কর্মী  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

নির্বাচনের আগে মন্ত্রিসভার সদস্যদের উদ্দেশ্যে নরেন্দ্র মোদির বার্তা

প্রকাশ: ০৫:১৮ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

ভারতে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে মন্ত্রিসভার সদস্যদের উদ্দেশ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, আপনারা নির্বাচনী প্রচারণায় বেরিয়ে পড়ুন, মানুষের সাথে দেখা করুন, তাদেরকে সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের কথা জানান। তবে কোন বিতর্কিত মন্তব্য করবেন না। জিতে আসুন, জয়ের পর খুব শিগগিরই আপনাদের সঙ্গে দেখা হবে।

রবিবার দিল্লিতে মন্ত্রী পরিষদের শেষ বৈঠকে নিজের সহকর্মীদের উদ্দেশ্যে এসব বার্তা  দেন মোদি। 

 বৈঠকের বিষয়বস্তু ছিল 'উন্নত ভারত ২০৪৭' সম্পর্কিত বিষয় নিয়ে আলোচনা করা। ভারতের প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে টানা প্রায় ১০ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলে ওই বৈঠক।

বৈঠকে লোকসভার নির্বাচনে প্রার্থী হওয়া মন্ত্রীদের উদ্দেশ্যে তার পরামর্শ জনসমক্ষে কথা বলার সময় তারা যেন সংযমী হন এবং অতি সাবধানতার সাথে শব্দ চয়ন করেন।

এছাড়াও, তিনি পরামর্শ দেন যে, মানুষের সাথে আলাপচারিতাকালে টিকিট পাওয়া মন্ত্রীরা যেন সরকারের নীতিগুলি অর্থাৎ উন্নয়নকে তরান্বিত করতে এবং সমাজের সকল শ্রেণির মানুষের কল্যাণ নিশ্চিত করতে সরকারের নেওয়া একাধিক পদক্ষেপ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন এবং কোন রকম বিতর্কিত মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকেন। 

ভোটের সময় জনগণের সমর্থন পেতে মন্ত্রীদের অলআউট ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়ে নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'আপনারা যান, জিতে আসুন, জয়ের পরে আবার দেখা হবে'। 


ভারত   বৈঠক   লোকসভা   নরেন্দ্র মোদি   নির্বাচন  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন