ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ

প্রকাশ: ০৬:১৮ পিএম, ০৪ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে এসেছে শ্রীলংকা। এর মধ্যে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজের মধ্য দিয়ে আজ পর্দা উঠেছে বাংলাদেশ-শ্রীলংকার লড়াইয়ের।

সিরিজের প্রথম টি-২০ তে আজ সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলংকার বিপক্ষে খেলতে নেমে শুরুতেই টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত। যেখানে প্রথম ইনিংস শুরুর দ্বিতীয় বলেই উইকেটের দেখা পেয়েছে স্বাগতিক দল।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৩ ওভারে এক উইকেটে ২১ রান সংগ্রহ করেছে শ্রীলংকা।

সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে জয় দিয়ে শুরু করতে চায় টাইগাররা। এ দিন শ্রীলংকার হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন আভিষ্কা ফার্নান্দো ও কুশল মেন্ডিস। শরিফুল ইসলামের করা প্রথম বলেই চার হাঁকান আভিষ্কা। তবে পরের বলেই উইকেটের পিছে ধরা পড়েন তিনি।

প্রথম টি-২০তে বাংলাদেশের একাদশ: লিটন দাস, নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), সৌম্য সরকার, তাওহীদ হৃদয়, জাকের আলী, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, শেখ মাহেদী, তাসকিন আহমেদ, মুস্তাফিজুর রহমান, রিশাদ হোসেন ও শরিফুল ইসলাম।


বাংলাদেশ   শ্রীলংকা   ক্রিকেট   টি-২০  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

টি-২০ বিশ্বকাপ: বিধ্বংসী ব্যাটিং আর গতির ঝড়ে শিরোপা ধরে রাখতে চায় ইংল্যান্ড

প্রকাশ: ০৯:০০ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

হাতেগোনা আর মাত্র কয়েকদিন। এরপরই মাঠে গড়াতে যাচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের লড়াই। যেখানে চার-ছক্কার জোর যার বেশি, মাঠের লড়াইয়ে দাপটটাও তাদেরই বেশি। আর এজন্যই অংশগ্রহণকারী প্রায় প্রতিটি দলই নিজেদের সেরা সৈন্যদের নিয়েই সাজিয়েছে দল।

আগামী ২ জুন থেকে শুরু হতে যাওয়া আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের নবম আসরে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে যৌথভাবে আয়োজক দেশ দুইবারের চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইডিন্জও। আর এই দুই দেশের ৯ ভেন্যুতে চলবে বৈশ্বিক ক্রিকেটের এই মেগা ইভেন্ট।

অন্যান্যবার কুড়ি ওভারের এই বিশ্বযজ্ঞে ১০টি দল অংশগ্রহণ করলেও এবারের আসরে অংশ নিচ্ছে ২০ দল। যেখানে সেরা আট দল বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছিল আগেই। এর সঙ্গে অটোমেটিক চয়েজে বিশ্বকাপের টিকিট পায় সেরা র‌্যাংকিংয়ে অবস্থান করা দুদল এবং আয়োজকরা। বাকি ৮ দলকে বিশ্বকাপের টিকিট পেতে আঞ্চলিক পর্যায়ে লড়াই করতে হয়েছে। সেই ধারাবাহিকতায় আফ্রিকা, ইউরোপা, এশিয়া থেকে দুটি করে দল সুযোগ পেয়েছে। সেইসঙ্গে আমেরিকা এবং ইস্ট-এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চল থেকে একটি করে দল বিশ্বকাপে খেলবে।

আর দল বেশি হওয়ায় এবারের সমীকরণটাও কিছুটা ভিন্ন। নতুন আদলের এবারের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দলগুলোকে ভাগ করা হবে চার গ্রুপে। যার মধ্যে প্রতিটি গ্রুপে থাকবে ৫টি করে দল।

রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে প্রতি গ্রুপের প্রতিটি দল একে অপরের মোকাবিলা করবে। সেখান থেকে প্রতি গ্রুপের সেরা দুটি দল নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে সুপার এইট। সেখান থেকে সেমিফাইনাল এবং ফাইনালসহ টুর্নামেন্টে মাঠে গড়াবে মোট ৫৫টি ম্যাচ। বৈশ্বিক এই আসরকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই স্কোয়াড ঘোষণা করেছে ১৯টি দল। ব্যাতিক্রম শুধুমাত্র পাকিস্তান। তবে জানা গেছে, তারাও শীঘ্রই দল ঘোষণা করবে।

তবে এবার প্রতিটি টি-২০ বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ২০টি দলের মধ্যে বিশেষ নজর থাকছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের উপর। কারণ এবারও শিরোপা ধরে রাখার লক্ষ্যে বিশেষ স্কোয়াড ঘোষণা করেছে ব্রিটিশরা। ব্যাটিং-বোলিং-অলরাউন্ডার; তিন কম্বিনেশনে এবারের স্কোয়াড সাজানোই অনেক ক্রিকেট বোদ্ধাদেরই ধারণা ইংল্যান্ডের এবারের স্কোয়াড পুরোপুরি ব্যালেন্সড। আর তাই এবারও শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে ফেভারিটের তালিকায় থাকছেন তারাও।

বিশেষ কয়েকটি কারণে এবারের শিরোপাও উঠতে পারে ক্রিকেটের জন্মস্থান ইংল্যান্ডের হাতেই। তার মধ্যে রয়েছে-

১. শক্তিশালী স্কোয়াড

টি-২০ বিশ্বকাপের নবম আসরকে কেন্দ্র করে ইংল্যান্ড যে স্কোয়াড ঘোষণা করেছে তাদের প্রত্যেকের মধ্যে রয়েছে প্রতিভা। যাদের মধ্যে এক একজন একাই যেকোন ম্যাচের দৃশ্যপট বদলে দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। ওপেনিং থেকে মিডল অর্ডার, ফিনিশিং থেকে বোলিং- সবখানেই যেন বিশ্ব মঞ্চে আধিপত্য ধরে রেখেছে ব্রিটিশরা। 

ইংল্যান্ডের এবারের স্কোয়াডে অধিনায়ক হিসেবে রয়েছেন উইকেট কিপার ব্যাটার জস বাটলার। সম্প্রতি আইপিএলে দারুণ ছন্দে ছিলেন তিনি। ব্যাট চালিয়েছেন ১৬০ এর উপর স্ট্রাইক রেটে। শুধু তাই নয়, ফিল সল্ট, জনি বেয়ারস্টো, মঈন আলী, জোফরা আর্চারদের মতো অভিজ্ঞরা রয়েছেন ব্রিটিশ দলে। আর এমন স্কোয়াড দেখে নিশ্চিতভাবেই বলা যায়, ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা যেকোন শক্তিশালী দলকেই চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুত তারা।

২. বিধ্বংসী ব্যাটিং ইউনিট

বিশ্ব ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত আসর টি-২০-কে সাধারণত চার-ছক্কার খেলা বলা হয়ে থাকে। আর এই চার-ছক্কার আধিপত্যের পারদর্শী ব্যাটারদের মধ্যে একটি বড় অংশই রয়েছে ব্রিটিশ স্কোয়াডে। বিশ্বকাপের পূর্বে ধরার আগে আইপিএল মাতিয়েছেন জস বাটলার, ফিল সল্ট, উইল জ্যাকস, জনি বেয়ারস্টোরা। এদের প্রত্যেকেই ব্যাট হাতে উড়ন্ত ফর্মে আছেন। যা ইংলিশদের ডেরায় আলাদা স্বস্তি জোগাবে। শুধু তাই নয়, দলের অন্যতম ভরসা হতে পারেন হ্যারি ব্রুক ও বেন ডাকেটও।

৩. সেরা বোলিং আক্রমণ

বারবার চোটের আঘাত আর কয়েক দফার অস্ত্রোপচারে গত কয়েক বছরে খুব বেশি সময় ক্রিকেট মাঠে দেখা যায়নি ব্রিটিশদের গতির মূল অস্ত্র জফ্রা আর্চারকে। তবে দীর্ঘদিন বাইরে থাকার পর আসন্ন বিশ্বকাপের মধ্য দিয়েই আরও একবার জাতীয় দলের জার্সিতে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইনআপ নড়বড়ে করতে প্রস্তুত এই তারকা পেসার।

এছাড়া আর্চারের সঙ্গে একাদশে থেকে মাঠ মাতাতে প্রস্তুত মার্ক উড, ক্রিস জর্ডান ও রিস টপলিরা। সেই সাথে মঈন আলী স্যাম কারান, আদিল রশিদদের মতো তারকারা তো রয়েছেনই স্পিন বিভাগ সামলানোর জন্য।

৪. বিশ্বস্ত অলরাউন্ড ইউনিট

ইংল্যান্ড দলকে একসময় সবচেয়ে বেশি ব্যালেন্সড টিম বলা হত। কারণ ব্রিটিশদের দল বরাবরই একটি অলরাউন্ডিং দল। এই দলের খেলোয়াড়রা যেমন ব্যাট হাতে তাণ্ডব চালাতে সক্ষম, ঠিক তেমনই বল হাতে প্রতিপক্ষ ব্যাটারদের ভড়কে দিতেও পারদর্শী। আর এ কারণেই এবারও ইংল্যান্ড দলের বড় একটি ভরসার জায়গা অলরাউন্ড ইউনিট।

ইংল্যান্ড দলে অলরাউন্ডারদের মধ্যে রয়েছেন- মঈন আলী, স্যাম কারান, লিয়াম লিভিংস্টোন, উইল জ্যাকসদের মতো তারকা। আর এদের মধ্যে ফর্ম বিবেচনায় একাদশে লিভিংস্টোনের চেয়ে সেরা পছন্দ হতে পারেন উইল জ্যাকস। কারণ, চলতি আইপিএলে ব্যাট হাতে উড়ন্ত ফর্মে ছিলেন এই তারকা।

৫. আইপিএল অভিজ্ঞতা

টি-২০ ক্রিকেটের ঘরোয়ার আসরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এবং বৃহৎ টুর্নামেন্ট বলা হয়ে থাকে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ বা আইপিএলকে। আর এবার টি-২০ বিশ্বকাপের আসর শুরু হওয়ার কিছুদিন পূর্বেই শেষ হল এই ঘরোয়া ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টের আসর। 

এবারের আইপিএলে অন্যান্য বিভিন্ন খেলোয়াড়দের পাশাপাশি ইংলিশ ক্রিকেটাররা আলাদা করে নজর কেড়েছেন। যে তালিকায় আছেন- জস বাটলার, ফিল সল্ট, উইল জ্যাকস, জনি বেয়ারস্টো ও স্যাম কারানরা। এদের প্রত্যেকেই নিজেদের দিনে সেরা পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন। এই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে বিশ্বমঞ্চ রাঙাতে মুখিয়ে এই তারকারা।

সবমিলিয়ে টি-২০ বিশ্বকাপের শিরোপা ধরে রাখতে মুখিয়ে রয়েছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। আগামী ২ জুন থেকে বৈশ্বিক এই আসরের মহাযজ্ঞ শুরু হলেও আগামী ৪ জুন ইংল্যান্ড বার্বাডোজের কেনসিংটন ওভালে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের মোকাবিলা করবে। এবারের আসরে ‘বি’ গ্রুপে আছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, ওমান, নামিবিয়া ও  স্কটল্যান্ড। 

ইংল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ স্কোয়াড

জস বাটলার (অধিনায়ক), ফিল সল্ট, উইল জ্যাকস, জনি বেয়ারস্টো, বেন ডাকেট, হ্যারি ব্রুক, লিয়াম লিভিংস্টোন, মঈন আলি (সহ-অধিনায়ক), স্যাম কারান, ক্রিস জর্ডান, টম হার্টলি, আদিল রশিদ, জোফরা আর্চার, মার্ক উড, রিচ টপলি।


টি-২০   বিশ্বকাপ   ইংল্যান্ড   দল   শক্তিশালী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

ইয়ামাল-লোপেজ-কুর্বাসিকে নিয়ে স্পেনের ইউরো দল ঘোষণা

প্রকাশ: ০৭:৩২ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

চলতি বছরের ১৫ জুন থেকে মাঠে গড়াবে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের লড়াই। ইউরোপের এই শ্রেষ্ঠত্বের আসরকে সামনে রেখে ইতোমধ্যেই ব্যস্ত সময় পার করছে ইংল্যান্ড, ইতালি, ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডসের মতো পরাশক্তিরা। নিজেদের স্কোয়াডও ইতোমধ্যেই ঘোষণা করেছে তারা।

এবার ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ উপলক্ষ্যে প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে স্পেন। ২৯ সদস্যের এই দলে আছেন বার্সার তিন তরুণ তারকা লামিন ইয়ামাল, পাউ কুর্বাসি ও ফের্মিন লোপেজ। তবে ইনজুরির কারণে নেই গাভি। লিগামেন্টের ইনজুরিতে মাঠের বাইরে ছিটকে গেছেন এ তরুণ।

প্রাথমিক দলে জায়গা পেয়েছেন প্রিমিয়ার লিগে দ্যুতি ছড়ানো রদ্রি, ডেভিড রায়া ও মার্ক কুকুরেয়ার মতো তারকারা। তবে সুযোগ পাননি টটেনহ্যাম হটস্পারের ডিফেন্ডার পেদ্রো পোরো ও পিএসজির মার্কো আসেনসিও।

দল ঘোষণা করে সংবাদ সম্মেলনে স্পেনের কোচ লুইস দে লা ফুয়েন্তে বলেন, ‘সব খেলোয়াড়েরই ইউরো ২০২৪ এ জায়গা করে নেয়ার সমান সুযোগ আছে। ঝুঁকি এড়াতে ও অনাকাঙিক্ষত ঘটনা এড়াতে এত বড় দল দেয়া হয়েছে। এখন সংখ্যাটা বেশি। কিন্তু ইউরোতে যাওয়ার আগেই ২৬ জনকে চূড়ান্ত করা হবে। সম্ভাব্য সেরা দল বাছাই করার দিকেই নজর দিচ্ছি।’
 
ইউরো যাত্রা শুরুর আগে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে স্পেন। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ নর্দান আয়ার‌ল্যান্ড ও আন্দোরা। ম্যাচ দুটি অনুষ্ঠিত হবে যথাক্রমে ৫ ও ৮ জুন।

এই দুই ম্যাচের পরই ২৬ জনের দল চূড়ান্ত করবে স্পেন। ইউরোর জন্য দল চূড়ান্ত করার শেষ দিন ৮ জুন।
 
ইউরোর জন্য স্পেনের ২৯ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াড-
 
গোলরক্ষক: উনাই সিমন, অ্যালেক্স রেমিরো ও ডেভিড রায়া।

ডিফেন্ডার: জেসাস নাভাস, দানি কারভাহাল, রোবিন লা নরম্যান্ড, আয়মেরি লাপোর্তে, নাচো ফের্নান্দেজ, দানি ভিভিয়ান, পাউ কুবার্সি, আলেহান্দ্রো গ্রিমালদো ও মার্ক কুকুরেয়া।
 
মিডফিল্ডার: মার্টিন জুবিমেন্দি, রদ্রি হের্নান্দেজ, মিকেল মেরিনো, ফাবিয়ান রুইজ, পেদ্রি, মার্কোস লোরেন্তে, ফের্মিন লোপেজ, অ্যালেইক্স গার্সিয়া ও অ্যালেক্স বায়েনা।

ফরোয়ার্ড: লামিন ইয়ামাল, ফেরান তোরেস, দানি ওলমো, নিকো ইউলিয়ামস, আয়োজে পেরেজ, আলভারো মোরাতা, হোসেলু মাতো ও মিকেল ওয়ার্জাবাল।


স্পেন ফুটবল   ফিফা   ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

নামিবিয়ার বিপক্ষে বড় ধরনের শঙ্কায় ক্রিকেটের পরাশক্তিরা

প্রকাশ: ০৬:৪৬ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

আর মাত্র কয়েকদিন। এরপরই যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে গড়াবে টি-২০ বিশ্বকাপের নবম আসর। আগামী ১ জুন থেকে শুরু হবে খেলা। যার জন্য ইতোমধ্যেই নিজেদের প্রস্তুতি সেরেছে অংশগ্রহণকারী প্রায় প্রতিটি দলই। ঘোষণা করেছে নিজেদের স্কোয়াডও।

আসন্ন এই টি-২০ বিশ্বকাপের আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে অস্ট্রেলিয়া। এর মধ্যে একটি ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ নামিবিয়া। এই ম্যাচের আগে বড় ধরনের সমস্যায় পড়েছে অজিরা। কারণ, ঘোষিত স্কোয়াডের প্রায় ৬ জন খেলোয়াড়কে না পাওয়ার শঙ্কা করছে ক্রিকেটের পরাশক্তিরা।

রোববার আইপিএলের ফাইনাল ম্যাচ খেলেছেন মিচেল স্ট্রার্ক, ট্রাভিস হেড ও প্যাট কামিন্স। এরপর এখনো দেশে ফেরেননি তারা। এছাড়া রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুতে খেলেছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও ক্যামেরন গ্রিন। এই দুইজনও আছেন অস্ট্রেলিয়াতেই। দলের সঙ্গে এখনো যোগ দেননি।

অন্যদিকে এখনো ইনজুরি থেকে সেরে উঠতে পারেননি অস্ট্রেলিয়া দলপতি মিচেল মার্শ। তিনি বল করার জন্য প্রস্তুত নন। অর্থাৎ বিশ্বকাপ স্কোয়াডের ৬ ক্রিকেটার এখন দলের বাইরে।

আগামী বুধবার নামিবিয়ার বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে তাদেরকে কাউকে দলে পাওয়ার সম্ভাবনা নেই টিম অস্ট্রেলিয়ার। সেই হিসেবে স্কোয়াডে বাকি থাকে ৯ ক্রিকেটার। তার মানে হলো, ৯ ক্রিকেটার দিয়েই বিশ্বকাপের প্রস্তুতি শুরু করবে অস্ট্রেলিয়া।

একাদশ তো সাজাতে হবে। তাহলে বাকি ২ ক্রিকেটার কোথায় পাবে অস্ট্রেলিয়া? সমাধান হলো- দলের সঙ্গে যাওয়া টিম স্টাফরা। অর্থাৎ স্টাফদের মধ্য থেকেই দুইজনকে মাঠে নামাবে অস্ট্রেলিয়া।

বর্তমান হেড কোচ এন্ড্রু ম্যাকডোনাল্ড, নির্বাচক জর্জ বেইলি, সহকারী কোচ আন্দ্রে বরোভিক ও স্টাফ ব্রাড হজ সবাই অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার। এদের মধ্যে থেকেই ২ জনকে ফিল্ডিং নামাবে অজিরা!


নামিবিয়া   অস্ট্রেলিয়া   যুক্তরাষ্ট্র   ওয়েস্ট ইন্ডিজ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সুনীল নারাইনের আইপিএলে অনন্য কীর্তি

প্রকাশ: ০৬:৩৮ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

গতকাল রাতেই সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে হারিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ১৭তম শিরোপা নিজেদের ঘরে তুলেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। যেখানে অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে দারুণ ভূমিকা রেখেছেন সুনীল নারাইন। যার ফলও হাতেনাতে পেয়েছেন এই ক্রিকেটার।

এবারের আইপিএলে মোস্ট ভ্যালুয়েবল ক্রিকেটারের পুরস্কার জিতেছেন নারাইন। এর মধ্য দিয়ে রেকর্ড তৃতীয়বারের মতো এই পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। আর তাতেই ইতিহাস গড়েছেন এই ক্যারিবীয় ক্রিকেটার।

আইপিএলের ১৭ বছরের ইতিহাসে নারাইন ছাড়া এই কীর্তি গড়তে পারেননি। দুইবার এই পুরস্কার জেতে তার পেছনে আছেন আন্দ্রে রাসেল।

২০১২ সালে আইপিএলে অভিষেক হয় নারাইনের। অভিষেক মৌসুমে বল হাতে ২৪ উইকেট নিয়ে এমভিপি হন। এরপর ২০১৮ সালে ব্যাট হাতে ৩৫৭ ও বল হাতে ১৭ উইকেট নিয়ে আরো একবার হন এমভিপি।

এবার বল ও ব্যাট হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে আইপিএলের তৃতীয় শিরোপা জেতান তিনি। নিজে জিতেন তৃতীয়বারের মতো টুর্নামেন্টের সবচেয়ে মূল্যবান খেলোয়াড়ের পুরস্কার।


সুনীল নারাইন   আইপিএল   কলকাতা নাইট রাইডার্স  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

আবারও জ্বলে উঠলেন ব্রাজিলিয়ান তারকারা

প্রকাশ: ০৪:০৮ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

ব্রাজিলিয়ান ফুটবলের মহাতারকা রোনালদিনহো-কাফু। নিজেদের সময়ে সেরাদের কাতারে শীর্ষে ছিলেন তারা। তবে দীর্ঘদিন হয়ে গেছে তারা অবসরে গেছেন। মাঠের খেলা থেকেও দূরে। কিন্তু তারপরেও নিজেদের কারিশমা যেন ভুলেননি কেউই। লম্বা সময় পর আবারও মাঠে নেমেই জ্বলে উঠলেন তারা।

বিধ্বংসী বন্যায় দক্ষিণ ব্রাজিলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রাকৃতিক দুযোর্গে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে তহবিল সংগ্রহের জন্য একটি দাতব্য ম্যাচের আয়োজন করা হয়। যেখানে পারফর্ম করেছেন রোনালদিনহো, কাফু ও বেবেতোর মতো তারকারা। স্বাভাবিকভাবেই তাদের ম্যাচটি দেখতে হাজির হয়েছিলেন হাজার হাজার দর্শক।

রোববার রিও ডি জেনিরোর মারাকানা স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছিল এস্পেরাঞ্জা ও ইউনিয়ন। ম্যাচটিতে গোলের দেখা পেয়েছেন রোনালদিনহো। হতাশ করেননি বিশ্বকাপজয়ী তারকা কাফুও। তার পা থেকেও গোল এসেছে।

দাতব্য ম্যাচের আয়োজকরা জানিয়েছে, ম্যাচটির জন্য ৪২,০০০ টিকিট বিক্রি করেছে, যার আয় ব্রাজিলিয়ান ফুটবল কনফেডারেশন (সিবিএফ) দ্বারা কেনা আরো ১০,০০০ টিকিট থেকে প্রাপ্ত অর্থ একটি বেসরকারি সংস্থাকে সরবরাহ করা হয়েছে। যা প্রায় ২.৩ মিলিয়ন বন্যা দুর্গতদের সাহায্যার্থে ব্যবহার করা হবে।

শুধু বিশ্ব ফুটবলের সাবেক তারকারাই না, দেশটির সংস্কৃতি অঙ্গনের তারকারাও এসেছিলেন এদিন। সঙ্গীত শিল্পী লুডমিলাও খেলতে নেমেছিলেন। শুধু নামেনইনি, কাফুর সহায়তায় একটি গোলও করেছিলেন। সাবেক গোলরক্ষক বারবারাকে পরাস্ত করেছিলেন তিনি। সাবেক ফুটবলার ও শিল্পীদের মধ্যকার ম্যাচটি ৫-৫ গোলে ড্র হয়।

রোনালদিনহো বলেন, ‘এত লোক সাহায্য করছে দেখে আমি রোমাঞ্চিত। আমি এই কাজের জন্য খুব খুশি এবং আমি রিও গ্র্যান্ডে দো সুলের পক্ষ থেকে এটির প্রশংসা করি। এটা খুবই বিশেষ দিন।’

রোনালদিনহোর নেতৃত্বাধীন ইউনিয়ন দলের হয়ে গোল করেন লুডমিলা, আদ্রিয়ানো ও দিয়েগো। আর এস্পেরাঞ্জার হয়ে গো করেছেন অধিনায়ক কাফু, আর্জেন্টিনার ডি’আলেসান্দ্রো, নেনে, গায়ক এমসি পোজ এবং প্রাক্তন মিডফিল্ডার আমারাল। কাফুর গোলটি সবচেয়ে আকর্ষণীয় ছিল।

দেশটির সিভিল ডিফেন্সের মতে, দক্ষিণ ব্রাজিলে আঘাত হানা বন্যায় ১৭০ জন নিহত, ৮০৬ জন আহত এবং ৫৬ জন নিখোঁজ রয়েছেন। পাশাপাশি ৪৬৯ টি পৌরসভায় ২.৩ মিলিয়ন লোক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।


রোনালদিনহো   কাফু   ব্রাজিল ফুটবল  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন