ইনসাইড এডুকেশন

বুয়েটে কার্যক্রম চালাচ্ছে শিবির ও হিযবুত তাহরীর

প্রকাশ: ১০:৪৩ পিএম, ৩০ মার্চ, ২০২৪


Thumbnail

ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ থাকা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ক্যাম্পাসে গত বুধবার মধ্যরাতে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের প্রবেশের প্রতিক্রিয়ায় চলমান আন্দোলনে একটি ‘অন্ধকার সংগঠনের’ ইন্ধন দেখছেন প্রতিষ্ঠানটির পাঁচ ছাত্র। এই ছাত্ররা বলছেন, শিক্ষার্থীদের আবেগকে ব্যবহার করে একটি অন্ধকার সংগঠনের ইন্ধনে বুয়েটে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্টা করা হচ্ছে। বুয়েটে কার্যক্রম চালাচ্ছে ইসলামী ছাত্রশিবির ও নিষিদ্ধ সংগঠন হিযবুত তাহরীর। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির হয়ে যিনিই কথা বলছেন, তাঁকেই ‘ছাত্রলীগ’ ট্যাগ দিয়ে বারবার অত্যাচার করা হচ্ছে৷

শনিবার (৩০ মার্চ) বেলা তিনটার পর বুয়েট শহীদ মিনারে সংবাদ সম্মেলন করে এসব কথা বলা হয়। এতে অংশ নেওয়া পাঁচ বুয়েট ছাত্র নিজেদের ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ছেলে’ হিসেবে দাবি করেছেন।

মধ্যরাতে বুয়েটে ছাত্রলীগের প্রবেশের ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা ইমতিয়াজ হোসেন বুয়েট থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও ছাত্রকল্যাণ পরিদপ্তরের পরিচালকের (ডিএসডব্লিউ) পদত্যাগসহ পাঁচ দফা দাবিতে টার্ম ফাইনাল পরীক্ষা বর্জন করে আজ দ্বিতীয় দিনের মতো ক্যাম্পাসে সকাল ৭টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত বিক্ষোভ করেন কয়েক শ শিক্ষার্থী৷

এমন প্রেক্ষাপটে বেলা তিনটার পর ওই পাঁচ ছাত্র বুয়েট শহীদ মিনারের সামনে সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান তানভীর মাহমুদ। তিনি দাবি করেন, তারা পাঁচজন কোনো ছাত্রসংগঠনের পদধারী নন। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ‘২০২৩ সালের জুলাইয়ে সুনামগঞ্জের হাওরে রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র ও নাশকতার অভিযোগে বুয়েটের প্রাক্তন এবং বর্তমান ৩৪ জন শিক্ষার্থী গ্রেপ্তার হন। তাদের নামে এখনো আদালতে মামলা চলমান এবং সবাই জামিনে আছেন৷ এরই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা কয়েকজন সাধারণ শিক্ষার্থী মৌলবাদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন করি৷ এই মানববন্ধন করার পর আমাদের চিহ্নিত করে ব্যক্তিগত আক্রমণ এবং জবাবদিহি চাওয়া হয়। বিভিন্ন হলের কক্ষে কক্ষে রাত ১১টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ডেকে জবাবদিহি চাওয়া হয়। এমনকি মানববন্ধনকে একটি অপরাধের সঙ্গে তুলনা করে আমাদের হল থেকে বের করে দেওয়ারও হুমকি দেওয়া হয়।’

তানভীর মাহমুদ বলেন, ‘বুয়েটের অভ্যন্তরীণ ফেসবুক গ্রুপগুলোতে আমাদের পক্ষে কেউ নিজের কোনো মতামত রাখতে গেলে তাঁকে বুলিং এবং নানা ধরনের হুমকির শিকার হতে হয়৷ আমাদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক কিংবা পরিচয় থাকায় অনেককেই কটাক্ষের স্বীকার হতে হয়৷ যে কারোরই পারিবারিকভাবে বা ব্যক্তিগতভাবে কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তির সঙ্গে, বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের শক্তি বা আওয়ামী লীগের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলেই বা পরিচয় থাকলে তাঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করা হয়; পরিবার নিয়েও অশালীন মন্তব্য করা হয় অনলাইন ও অফলাইনে।’  তিনি আরও বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী আমাদের মতো গুটিকয়েক ছেলের বিরুদ্ধে কারা এবং কাদের ইন্ধনে এসব হচ্ছে, তা একটু ভেবে দেখার সময় হয়েছে৷ মিথ্যাচার করে আমাদের দোষী করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করার চেষ্টা করছে একটি মৌলবাদী গোষ্ঠী।’

সংবাদ সম্মেলনে ক্যাম্পাসে নিষিদ্ধ সংগঠনের কার্যক্রমের বিষয়ে কয়েকটি ঘটনা তুলে ধরেন আরেক বুয়েট ছাত্র আশিক আলম৷ তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাসের কিছু ঘটনা এবং আমাদের ওপর একের পর এক আক্রমণ প্রমাণ করে দেয় যে ছাত্ররাজনীতিবিহীন বুয়েট ক্যাম্পাসে এখন প্রকাশ্যেই হিযবুত তাহরীর তাদের কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে৷ এই নিষিদ্ধ সংগঠন তাদের স্বার্থ হাসিল করে সাধারণ শিক্ষার্থীদের একটি আবেগ নিয়ে৷ বুয়েটে আবরার ফাহাদ ভাইয়ের সঙ্গে খুব খারাপ একটি ঘটনা ঘটেছে৷ আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই৷ কিন্তু হিযবুত তাহরীর ও শিবির সাধারণ শিক্ষার্থীদের এই আবেগকে পুঁজি করে প্রকাশ্যেই নিজেদের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছে৷’ তিনি আরও বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির হয়ে যিনিই কথা বলবেন, তাঁকেই ছাত্রলীগ ট্যাগ দিয়ে বারবার অত্যাচার করা হচ্ছে৷ আমাদের সঙ্গে উপস্থিত হওয়ার জন্য অনেক শিক্ষার্থী থাকলেও ভয়ে ও হুমকিতে আসতে পারছেন না৷ আরও ২০-২৫ জন এখানে আসতে চাইলেও তাঁদের ভয় দেখানো হচ্ছে, হুমকি দেওয়া হচ্ছে৷’

ছাত্ররাজনীতিমুক্ত বুয়েট ক্যাম্পাসে প্রগতিশীল রাজনীতিতে বিশ্বাসীদের দমিয়ে রেখে অন্ধকার রাজনীতি শিক্ষার্থীদের মাথায় ঢুকিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আশিক৷ তিনি বলেন, ‘আমরা সুষ্ঠুভাবে ক্যাম্পাসে পড়াশোনা করতে চাই, পরীক্ষা দিতে চাই৷ সবাই নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী মতাদর্শে বিশ্বাস করুক। তবে স্বাধীনতাবিরোধী কোনো চেতনাকে আমরা কখনোই বুয়েটে ঠাঁই পেতে দেব না।’

বুধবার মধ্যরাতে বুয়েটে ছাত্রলীগের প্রবেশের বিষয়ে আশিক আলমের ভাষ্য, ‘আমরা শুনেছি, সেখানে একটি ছাত্রসংগঠনের সভাপতি এসেছিলেন। তিনি আসতেই পারেন। তিনি তো কোনো রাজনৈতিক কার্যক্রম চালাননি৷’


বুয়েট   শিবির   হিযবুত তাহরীর  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজকে পিছনে ফেলল ঢাবি

প্রকাশ: ১২:২৬ পিএম, ১২ জুন, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাজ্যভিত্তিক শিক্ষা গবেষণা-প্রতিষ্ঠান কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস (কিউএস) ‘কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ্যাঙ্কিংপ্রকাশ করেছে চলতি মাসে। এই ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৫৫৪তম অবস্থানে রয়েছে। গত বছর প্রকাশিত ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান ছিল ৬৯১ থেকে ৭০০-এর মধ্যে। এক বছরের ব্যবধানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে গেছে প্রায় ১৪০ ধাপ।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ‘এমপ্লয়মেন্ট আউটকামক্যাটাগরিতে ভূতুড়ে স্কোরের কারণে ্যাঙ্কিংয়ে উল্লম্ফন ঘটেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। কারণ, গত বছরের  প্রকাশিত ্যাঙ্কিংয়ে এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর ছিল ৩০ দশমিক ৩। অথচ চলতি বছরে ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কোর হয়েছে ৯৩ দশমিক শতাংশ। এক বছরের ব্যবধানে অস্বাভাবিক এমন স্কোর বৃদ্ধির কারণেই এগিয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ্যাঙ্কিংও।

তথ্যমতে, কয়েকটি সূচকের ভিত্তিতে ্যাঙ্কিং করে থাকে কোয়াককোয়ারেলি সায়মন্ডস। এই সূচকগুলো হলো- একাডেমিক খ্যাতি (একাডেমিক রেপুটেশন), চাকরির বাজারে সুনাম (এমপ্লয়ার রেপুটেশন), শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাত (ফ্যাকাল্টি-স্টুডেন্ট রেশিও), শিক্ষকপ্রতি গবেষণা-উদ্ধৃতি (সাইটেশনস পার ফ্যাকাল্টি), আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাত (ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাকাল্টি রেশিও), আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাত (ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট রেশিও), আন্তর্জাতিক গবেষণা নেটওয়ার্ক (ইন্টারন্যাশনাল রিসার্চ নেটওয়ার্ক), কর্মসংস্থান (এমপ্লয়মেন্ট আউটকামস), স্থায়িত্ব (সাসটেইনেবিলিটি)

্যাঙ্কিং তথ্যমতে, চলতি বছরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গড় স্কোর ২২ দশমিক ৪। বিশ্ববিদ্যালয়টির একাডেমিক রেপুটেশনে স্কোর ২৩, এমপ্লয়ার রেপুটেশনে ৪৫ দশমিক , শিক্ষক-শিক্ষার্থী অনুপাতে ১১ দশমিক , শিক্ষকপ্রতি গবেষণা-উদ্ধৃতিতে দশমিক , আন্তর্জাতিক শিক্ষক অনুপাতে দশমিক , আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থী অনুপাতে , আন্তর্জাতিক গবেষণা নেটওয়ার্কে ৫২, স্থায়িত্বে স্কোর ১১ দশমিক ৮। আর কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে পেয়েছে ৯৩ দশমিক স্কোর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৩ দশমিক শতাংশ এমপ্লয়মেন্ট আউটকামস স্কোরকে অস্বাভাবিক অবিশ্বাস্য বলে মনে করেন শিক্ষাবিদরা। কারণ, গত বছর প্রকাশিত কিউএস ্যাঙ্কিংয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে পেয়েছিল মাত্র ৩০ দশমিক স্কোর। মাত্র এক বছরের ব্যবধানে এই ক্যাটাগরিতে ৬৩ স্কোরের বেশি এগিয়ে যাওয়াকে অসম্ভব বলে মনে করছেন শিক্ষা-সংশ্লিষ্টরা। কারণ চলতি বছরের র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাটাগরিতে পেয়েছে মাত্র ২২ দশমিক স্কোর।

ছাড়া চলতি বছরের কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি ্যাঙ্কিংয়ে দেখা গেছে, দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে পেয়েছে ৯৩ দশমিক স্কোর, নবম স্থানে থাকা যুক্তরাজ্যের ইউসিএল ইউনিভার্সিটি ক্যাটাগরিতে পেয়েছে ৭০ দশমিক স্কোর। অর্থাৎ, এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে শীর্ষে থাকা এসব বিশ্ববিদ্যালয়কেও ছাড়িয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 

কিউএস ্যাঙ্কিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন উল্লম্ফন সম্পর্কে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক . এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, কিউএস ্যাঙ্কিং তৈরির ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোনো তথ্য চাওয়া হয় না। তারা নিজেরাই বিভিন্ন সোর্স থেকে তথ্য সংগ্রহ করে প্রতিবেদন তৈরি করে থাকে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে উল্লেখ করা ৯৩ দশমিক স্কোরের সত্যতা রয়েছে বলে দাবি করেন উপাচার্য।

তবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ছিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, এমপ্লয়মেন্ট আউটকাম ক্যাটাগরিতে এক বছরে ৬৩ স্কোর বৃদ্ধি পাওয়ার কথা নয়। এটি অস্বাভাবিক অবিশ্বাস্য বলে মনে হয়। এখানে তথ্যগত গরমিল থাকতে পারে।


লন্ডন   ইম্পেরিয়াল   ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

১৭ দিনের ছুটিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

প্রকাশ: ০৭:০৪ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ঈদুল আজহা ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি উপলক্ষ্যে সারা দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) থেকে এ ছুটি শুরু হবে, যা শেষ হবে আগামী ২৯ জুন। 

রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইতোমধ্যে ছুটির নোটিশ টানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালীন ছুটি ও পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে আগামী ১৩ জুন থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত ১৭ দিন ছুটি থাকবে। ৩০ জুন অর্ধদিবস ক্লাস হবে। ১ জুলাই থেকে পূর্ণদিবস ক্লাস শুরু হবে।

সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি সাধারণত জুন মাসে হয়ে থাকে। এবার ঈদুল আজহার ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে দেওয়া হয়েছে। এ বছর শীত ও গরমের কারণে স্কুল অনেক দিন বন্ধ থাকায় গ্রীষ্মকালীন ছুটি কিছুটা কমিয়ে আনা হয়েছে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ চাইলে ঈদের ছুটি এবং গ্রীষ্মকালীন ছুটি আলাদা করে দিতে পারেন।

রাজধানীর আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ এমান হোসাইন বলেন, শিক্ষাপঞ্জি অনুযায়ী ঈদ ও গ্রীষ্মকালীন ছুটি দেওয়া হয়েছে। তবে সরকারিভাবে যদি ছুটির কোনো পরিবর্তন হয় সেটি সংশোধন করা হবে।

ছুটি   শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান   ঈদুল আজহা   গ্রীষ্মকালীন ছুটি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

১৩ থেকে ২৯ জুন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি

প্রকাশ: ০৫:১০ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

আসন্ন ঈদুল আজহা গ্রীষ্মকালীন ছুটি উপলক্ষ্যে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১৭ দিনের ছুটিতে যাচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) থেকে ছুটি শুরু হয়ে শেষ হবে ২৯ জুন। রাজধানী বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইতোমধ্যে ছুটির নোটিশ টানানো হয়েছে।

 এতে বলা হয়, গ্রীষ্মকালীন ছুটি পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে আগামী ১৩ জুন থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত ১৭ দিন ক্লাস ছুটি থাকবে। ৩০ জুন থেকে যথারীতি অর্ধদিবস ক্লাস চলবে। তবে জুলাই থেকে পূর্ণ দিবস ক্লাস চলবে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানরা বলছেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি সাধারণত জুন মাসে হয়ে থাকে। যেহেতু ঈদুল আজহার ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে দেওয়া হয়েছে। এই ছুটি এক মাস হওয়া কথা থাকলেও চলতি বছর শীত তীব্র গরমের কারণে বেশ কিছুদিন স্কুল বন্ধ ছিল। তাই গ্রীষ্মকালীন ছুটি কিছুটা কমিয়ে আনা হয়েছে। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ চাইলে ঈদের ছুটি এবং গ্রীষ্মকালীন ছুটি আলাদা করেও দিতে পারেন।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (মাধ্যমিক) প্রফেসর সৈয়দ জাফর আলী গণমাধ্যমকে বলেন, গ্রীষ্মকালীন ছুটি নিয়ে আমাদের ভিন্ন ভাবনা রয়েছে। তবে যেহেতু ঈদের ছুটি আগামী বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে যাবে তাই আপাতত ঈদের ছুটির সঙ্গে সমন্বয় করে কোনো প্রতিষ্ঠান গ্রীষ্মকালীন ছুটি দিতে পারে।  গ্রীষ্মকালীন ছুটি নিয়ে কোনো পরিবর্তন হলে তা পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।


স্কুল   ছুটি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

বেসরকারি ডেন্টালে ভর্তির আবেদন শুরু

প্রকাশ: ০৩:৪১ পিএম, ১১ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে আজ মঙ্গলবার (১১ জুন) বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীরা আজ থেকে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আগ্রহী প্রার্থীদের আগামী জুলাইয়ের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয়েছে।

স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. মো. মহিউদ্দিন মাতুব্বর স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বেসরকারি ডেন্টাল কলেজ বা মেডিকেল কলেজ ডেন্টাল ইউনিটগুলোর শূন্য আসনে ভর্তিচ্ছু দেশি শিক্ষার্থী হতে টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেডের মাধ্যমে অনলাইনে দরখাস্ত আহ্বান করা হচ্ছে। ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় কৃতকার্য প্রার্থীরা অনলাইন আবেদন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন।


বেসরকারি   ডেন্টাল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি চালুর সিদ্ধান্ত

প্রকাশ: ০৭:২৮ পিএম, ০৮ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি দেওয়ার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোক্তা শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সে লক্ষ্যে সংক্রান্ত একটি নীতিমালা করতে ছয় সদস্যের একটি কমিটি করেছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) কমিটিকে দ্রুত সময়ের মধ্যে সংক্রান্ত নীতিমালা জমা দিতে বলা হয়েছে। সম্প্রতি বেসরকারি উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালুর প্রস্তাবনায় অনুমোদন দিয়েছে কমিশনের সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার ( জুন) ছয় সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করে কমিশন। ইউজিসির কমিটি, দেশের বেসরকারি উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত উচ্চশিক্ষালয়গুলোতে পিএইচডি ডিগ্রি চালু করতে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করে তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে-কমিশনের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইউজিসির সদস্য . অধ্যাপক বিশ্বজিৎ চন্দকে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে কমিশনের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক মো. শরিফুল ইসলামকে। এছাড়াও কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন- ইউজিসির পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ম্যানেজমেন্ট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য অধ্যাপক . হাসিনা খান, উত্তরা ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক . গৌর গোবিন্দ গোস্বামী, গ্রিন ইউনিভার্সিটির কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক . মো. শহীদুল্লাহ এবং ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার পরিচালক মো. ওমর ফারুখ।

কমিটির কার্যপরিধিতে বলা হয়েছে, কমিটি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি প্রোগ্রাম চালু করতে একটি খসড়া নীতিমালা প্রণয়ন করবে; কমিটি প্রয়োজনে এক বা একাধিক সদস্য কো-অপ্ট করতে পারবে এবং কমিটি প্রয়োজনীয় সংখ্যক বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠনের মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাকাডেমিক ডিসিপ্লিন ক্লাস্টারের উপযোগী পিএইচডি কোর্সওয়ার্ক বা রিসার্চ মেথডোলজি-সংক্রান্ত কারিকুলাম বা মডিউলগুলো প্রণয়ন করতে পারবে।


পিএইচডি   বেসরকারি   বিশ্ববিদ্যালয়  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন