ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

চরম অর্থ সংকটে পড়তে যাচ্ছে মার্কিন সরকার

প্রকাশ: ১২:০৫ পিএম, ২৩ মে, ২০২৩


Thumbnail

চরম অর্থ সংকটে পড়তে যাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন নেতৃত্বাধীন সরকার। বর্তমানে মার্কিন সরকারের ঋণ সীমা হল ৩১ দশমিক ৪ ট্রিলিয়ন ডলার। যে সীমায় গত জানুয়ারিতেই পৌঁছে গেছে বাইডেন সরকার।  

দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয় সোমবার আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, ঋণ সীমা বাড়ানো না হলো আগামী ১ জুন থেকেই এই অর্থ সংকটের ভয়াবহ পরিণতির মুখোমুখি হবে মার্কিন সরকার।

পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলোর মতো যুক্তরাষ্ট্রেও ঋণ সীমা নির্ধারণ করা আছে। এর বাইরে দেশটির সরকার ঋণ নিতে পারে না। স্বাস্থ্য খাত, সামরিক খাতসহ সবকিছু স্বাভাবিকভাবে চালানোর জন্য মার্কিন সরকার ঋণ নিয়ে থাকে। ঋণ সীমা না বাড়লে দেশটির অর্থ মন্ত্রণালয় জুনের শুরু থেকেই সরকারি বেতন, বিলসহ অন্যান্য অর্থ দিতে পারবে না বলে জানিয়েছেন।  

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ঋণ সীমা বাড়ানোর জন্য কয়েকদিন ধরেই দৌড়ঝাঁপ করছে। কিন্তু এটি আটকে রেখেছে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টির আইন প্রণেতারা। বর্তমানে দেশটির সংসদের নিম্নকক্ষ কংগ্রেসের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে রিপাবলিকান পার্টির হাতে। ঋণ সীমা বাড়াতে মার্কিন কংগ্রেসের অনুমোদন লাগবে। ফলে বিষয়টি নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে।   

এ নিয়ে গত তিন সপ্তাহের মধ্যে তৃতীয়বারের মতো কংগ্রেসের কাছে চিঠি লিখেছেন অর্থমন্ত্রী জানেত ইয়েলেন। তৃতীয় চিঠিতে তিনি বলেছেন, জুনের শুরু থেকে সরকারি বেতনসহ অন্যান্য বিল দিতে হয়তবা সক্ষম হবেন না তারা। যদি ১ জুনের মধ্যে ঋণ সীমা বাড়ানো না যায় তাহলে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনও সরকার খেলাপি হবে।

এদিকে এ বিষয়টির ওপর বেশি সময় দিতে গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার অস্ট্রেলিয়া সফর স্থগিত করেন। অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে কোয়াড নেতাদের সঙ্গে বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দেওয়ার কথা ছিল তার।

সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, সোমবার ঋণ সীমা নিয়ে কংগ্রেসের স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থির সঙ্গে আলোচনা করবেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইরান সফরের আমন্ত্রণ গ্রহণ করলেন সৌদি যুবরাজ

প্রকাশ: ১০:১১ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ইরানের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মোখবারের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। শুক্রবার রাতে মোহাম্মদ বিন সালমান ও মোখবারের মধ্যে ফোনালাপ হয়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট ইরানি হজযাত্রীদের স্বাগত জানানোর জন্য বিন সালমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। তিনি বিন সালমানকে তেহরান সফরেরও আমন্ত্রণ জানান। প্রয়াত প্রেসিডেন্টও আগে তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

বিন সালমান সেই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন এবং ইরানের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টকেও রিয়াদ সফরের আমন্ত্রণ জানান। এর মধ্য দিয়ে দুই দশকের বেশি সময়ের মধ্যে তেহরানে সৌদি রাজপরিবারের প্রথম সম্ভাব্য সফর হতে যাচ্ছে। তবে এই সফরের কোনো তারিখ এখনো ঘোষণা করা হয়নি। এর আগে, গত বছরও ইরান বলেছিল সৌদি যুবরাজ সফরে আসবেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দুই দেশ তাদের দূতাবাস পুনরায় চালু করেছে। চীনের মধ্যস্থতায় প্রায় সাত বছর স্থবির থাকার পর দেশ দুটি নিজেদের মধ্যে কূটনৈতিক মিশন পুনরায় শুরু করতে সম্মত হয়। এই ধরনের পদক্ষেপ সত্ত্বেও, রিয়াদ ও তেহরানের মধ্যে সম্পর্ক খুব একটা সুবিধাজনক অবস্থায় পৌঁছায়নি।

সৌদি আরব ২০১৬ সালে ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে। সেসময় তেহরান দূতাবাসে রিয়াদের একজন শিয়া মুসলিম ধর্মগুরুর মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

পারস্য উপসাগরে সৌদি তেল স্থাপনা এবং ট্যাঙ্কারগুলোতে হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার কারণে দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনা বেড়ে যাচ্ছে। এর ফলে প্রায় এক দশক ধরে চলা সংঘাত আরও বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

সঞ্জিভা গার্ডেন্সের বাথরুমে টুকরো করা হয় লাশ

প্রকাশ: ১০:০০ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি মো. আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যার পর লাশ টুকরো করার বর্ণনা দিয়েছেন জড়িতরা। 

কলকাতায় গ্রেপ্তারকৃত জিহাদ হাওলাদার ওরফে 'কসাই জিহাদ' জানান, নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেন্সের বাথরুমে টুকরো টুকরো করা হয় এমপি আজীমের লাশ। এর আগে প্রায় এক ঘণ্টা মরদেহটি মেঝেতে পড়ে ছিল। পরে চারজন মিলে টেনে সেটি বাথরুমে নিয়ে যান। 

সোমবার (২৭ মে) তদন্ত-সংশ্লিষ্ট একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এই তথ্য পাওয়া গেছে। 

এদিকে এমপি আনার হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী আখতারুজ্জামান শাহীন ও কিলিং মিশনের সদস্য সিয়ামকে গ্রেপ্তারে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থার (ইন্টারপোল) সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের পর ২০ মে শাহীন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে দিল্লি যান। তারপর দিল্লি থেকে যান নেপালে। এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাত হয়ে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। 

বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র দুই দেশেরই নাগরিকত্ব রয়েছে শাহীনের। তাই তার ব্যাপারে ইন্টারপোলের যুক্তরাষ্ট্র ডেস্কে সোমবার চিঠি পাঠানো হয়। আর সিয়াম ঘটনার পর ভারত থেকে নেপালে গেছেন বলে জানা যায়। তাকে আইনের আওতায় আনতে ইন্টারপোলের নেপাল শাখায় চিঠি পাঠানো হয়েছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে, এমপি আনার হত্যায় অন্যতম অভিযুক্ত জিহাদ হাওলাদার জেরায় জানিয়েছেন- হত্যার পর মাথা কেটে শরীর থেকে আলাদা করার দায়িত্ব ছিল তার। এরপর তা টুকরো টুকরো করা হয়। শরীর থেকে চামড়া ছাড়িয়ে আলাদা করা হয় মাংস ও হাড়। লাশ টুকরো করার কাজ জিহাদ করলেও তা গায়েব করার দায়িত্ব ছিল ফয়সালের ওপর। 

বাংলাদেশ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) প্রধান হারুন অর রশিদ বলেন, একজন সংসদ সদস্যকে কলকাতায় হত্যা করা হয়েছে। তদন্তে নেমে এ ঘটনায় বাংলাদেশে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছি। তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি। কলকাতা পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। যে কায়দায় হত্যা করা হয়েছে, এটা মেনে নেয়া কঠিন। ঠান্ডা মাথায় লাশের টুকরো গুম করা হয়েছে। 


সঞ্জিভা গার্ডেন্স   লাশ   ঝিনাইদহ-৪   মো. আনোয়ারুল আজীম আনার   হত্যা  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

যুক্তরাষ্ট্রে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ের তান্ডবে নিহত ২১

প্রকাশ: ০৯:৪৫ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলের ৪ টি অঙ্গরাজ্যে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ে ৪ শিশুসহ নিহত হয়েছে অন্তত ২১ জন। শনিবার (২৫ মে) এবং রোববার (২৬ মে) সারাদিনে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ের তান্ডবে এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলের টেক্সাস ও ওকলাহোমা অঙ্গরাজ্যে আবহাওয়াজনিত কারণে সেখানে প্রতিবছরেই মে মাসে শক্তিশালী টর্নেডো দেখা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টর্ম প্রেডিকশন সেন্টার এক সতর্ক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, এসব অঞ্চলে অতি শক্তিশালী টর্নেডো, ব্যাপক শিলাবৃষ্টি এবং প্রবল ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। এছাড়া বিশাল অঞ্চলের ১০ কোটি ৯০ লাখ বাসিন্দা এসব পরিস্থিতির হুমকির মুখে আছে।

সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, শনিবার (২৫ মে) রাতে টেক্সাসের কুক কাউন্টিতে প্রবল ঝড়ে অন্তত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ২ জন শিশু রয়েছে।

রোববার (২৬ মে) টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট জানিয়েছেন, ‘এখানে ঝড়ে প্রায় ১০০ জন আহত হয়েছেন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ঝড়ে আরক্যানসতে অন্তত আটজন নিহত হয়েছেন।’

ওকলাহোমার স্থানীয় কর্মকর্তারা সিএনএনকে জানিয়েছেন, ‘শনিবার রাতে প্রবল ঝড়ে অঙ্গরাজ্যের উত্তরপূর্বাঞ্চলে দুই জন নিহত অন্তত ২৩ জন আহত হয়েছেন।’


যুক্তরাষ্ট্র   টর্নেডো   বজ্রঝড়  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

দিল্লিতে ইন্ডিয়া জোটের বৈঠকে থাকছেন না মমতা

প্রকাশ: ০৯:২৬ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ভারতে চলছে লোকসভা নির্বাচন। আর এই নির্বাচনে ৫৪৩টি লোকসভা আসনের মধ্যে ছয় দফায় ৪৮৬ আসনে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সপ্তম/ শেষ দফায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১ জুন। এদিন ৫৭টি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে রয়েছে ৯টি আসন। আর ভোট গণনা করা হবে আগামী ৪ জুন।  

আর শেষ দফায় ভোটের দিনই সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছে বিরোধী দলের জোট ইন্ডিয়া। বৈঠক হবে । ১ জুন দিল্লিতে। ইতোমধ্যেই বিরোধীদলের সমস্ত শরিক দলগুলিকে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে। চলমান নির্বাচনে ইন্ডিয়া জোট ভালো ফল করলে সেক্ষেত্রে জোটের ভূমিকা কি হবে, রণনীতি কি হবে- মূলত সে সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে।  

কংগ্রেসের দাবি ষষ্ঠ দফার ভোট শেষে ইন্ডিয়া জোট ম্যাজিক ফিগার ২৭২ এর লক্ষ্যমাত্রা ছুঁয়েছে, সবমিলিয়ে তারা ৩৫০ আসনে জয় পেতে পারে। কংগ্রেসের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক জয় রাম রমেশও দাবি করেছেন ক্ষমতাসীন দলের 'জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট' (এনডিএ)কে সরিয়ে এবার সরকার গঠন করতে চলেছে ইন্ডিয়া জোট।  

কিন্তু আমন্ত্রণ পেলেও ইন্ডিয়া জোটের বৈঠকে হাজির থাকছেন না জোটের অন্যতম শরিক দল তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা ব্যানার্জি। 

সোমবার কলকাতা উত্তর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় সমর্থনে বড় বাজারে একটি নির্বাচনের সভায় উপস্থিত ছিলেন মমতা। সেই সভা থেকেই জোটের বৈঠকে যোগ না দেওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন।  

মমতা বলেন, ১ জুন ইন্ডিয়া জোট বৈঠক ডেকেছে। আমি বলেছি যে ১ তারিখ আমার পক্ষে যাওয়া সম্ভব নয়, কারণ এখানে ৯টা আসনে ভোট রয়েছে। ওইদিন পাঞ্জাব, উত্তর প্রদেশ, বিহারসহ অনেক রাজ্যেও ভোট রয়েছে। আর ভোটের দিন ৬ টার সময় ভোট শেষ হলেও লাইনে অনেক লোক থাকার কারণে কোথাও কোথাও ভোট শেষ হতে রাত ১০টা বেজে যায়। সেক্ষেত্রে আমি কীভাবে যাব? একদিকে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, ত্রাণ শিবির, অন্যদিকে নির্বাচন- সব কিছুই করতে হবে। কিন্তু আমার প্রথম অগ্রাধিকার ত্রাণ শিবির। ওদের দেখা, ওদেরকে ঘর বানিয়ে দেওয়া, ওদের পাশে দাঁড়ানো, সহায়তা করা। আমি এখন হয়তো নির্বাচনী প্রচারণা করছি, কিন্তু আমার মন পড়ে রয়েছে ত্রাণ শিবিরের দিকে। 

উল্লেখ্য, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি সরকারকে রাজনৈতিকভাবে ক্ষমতাচ্যুত করতে বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে এক ছাতার তলায় আনতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিলেন মমতা। বিরোধীদলের জোট 'ইন্ডিয়া'র নামকরণ মমতারই মস্তিষ্ক প্রস্তুত। প্রায় ২৮টি দলের অন্তর্ভুক্তি রয়েছে এই জোটে। 


দিল্লি   ইন্ডিয়া জোট   বৈঠক   মমতা  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

উত্তর কোরিয়াকে থামাতে চায় চীন-জাপান-দ. কোরিয়া

প্রকাশ: ০৮:৪৯ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

৫ বছরে প্রথমবারের মতো ত্রিপক্ষীয় শীর্ষ সম্মেলনে বসেছে চীন, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে মিলিত হন ৩ রাষ্ট্রপ্রধান। উত্তর কোরিয়া মহাকাশে আরেকটি স্যাটেলাইট স্থাপনের ঘোষণা দেওয়ার পর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো। 

সোমবার (২৭ মে)সম্মেলনের পর প্রকাশিত একটি যৌথ বিবৃতি বলা হয়, সম্মেলনে নিরাপত্তার বিষয়ে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এসময় তিনটি দেশই আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা, কোরীয় উপদ্বীপের পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে নিজেদের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেছে।

তিন রাষ্ট্রপ্রধানের বক্তব্য, উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ ও কোরীয় উপদ্বীপে স্থিতিশীলতা বজায় রাখা তাদের সাধারণ স্বার্থ ও দায়িত্বের অংংশ।

নাম উল্লেখ না করে সব পক্ষকে উত্তেজনা কমানোর আহ্বান জানিয়েছেন চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াং। উত্তর কোরিয়াকে দ্বিতীয় স্পাই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পরিকল্পনা বাতিলের আহ্বান জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইউন সুক-ইওল ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট তার উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি ব্যবহার করে যে কোনো উৎক্ষেপণ সরাসরি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের রেজুলেশন লঙ্ঘন। এমন কর্মকাণ্ড আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক শান্তি, স্থিতিশীলতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

এদিকে, কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের পরিকল্পনায় একমত হওয়া দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও চীনের নিন্দা করেছে উত্তর কোরিয়া। তিন দেশের যৌথ এই ঘোষণাকে ভয়াবহ রাজনৈতিক উসকানি ও সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন বলে দাবি করেছে কিম জং উন প্রশাসন।


উত্তর কোরিয়া   চীন   জাপান   দ. কোরিয়া  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন