ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

চীনের উপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় বিপাকে ভিয়েতনামের পোশাক ও জুতাশিল্প

প্রকাশ: ১১:৪০ এএম, ২৫ মে, ২০২৩


Thumbnail

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে উৎপাদিত পণ্য, বিশেষ করে তুলা আমদানিতে যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিষেধাজ্ঞার প্রভাব পড়েছে ভিয়েতনামে। দেশটির তৈরি পোশাক ও জুতাশিল্পে যুক্তরাষ্ট্রের ক্রয়াদেশ কমে গেছে। যে কারণে গত অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত ৯০ হাজার শ্রমিক কাজ হারিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র দীর্ঘদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছে, জিনজিয়াং প্রদেশে শ্রমিকদের দিয়ে জোরপূর্বক কাজ করানো হয়। প্রদেশটি মূলত উইঘুর সম্প্রদায়ের মুসলমান–অধ্যুষিত। অভিযোগের ধারাবাহিকতায় জোরপূর্বক শ্রম প্রতিরোধ আইন (ইউএফএলপিএ) পাস করে যুক্তরাষ্ট্র। সেই আইন কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করে দেশটি। এতে বিপাকে পড়েছে ভিয়েতনাম। এদিকে চীন অবশ্য বরাবরই দাবি করেছে যে তারা উইঘুর মুসলমানদের জিনজিয়াং প্রদেশে জোর করে আটকে রাখেনি।

ইউএফএলপিএ অনুযায়ী যেসব কোম্পানি চীনের ওই অঞ্চল থেকে পণ্য আমদানি করবে, তাদের এই মর্মে প্রত্যয়ন করতে হবে যে এসব পণ্য জোরপূর্বক শ্রমে তৈরি হয়নি। মার্কিন শুল্ক বিভাগ ইতিমধ্যে সেই দেশে আমদানি হওয়া পণ্যের চালানও পরীক্ষা করতে শুরু করেছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমদানি হওয়া পণ্যের মধ্যে চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে জোরপূর্বক শ্রমে উৎপাদিত পণ্য রয়েছে কি না, তা নিশ্চিত হতে যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক বিভাগ এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৬০০টি চালান পরীক্ষা করেছে। এসব চালানে যেসব পণ্যের নাম রয়েছে, সেগুলোর আর্থিক মূল্য ১০০ কোটি মার্কিন ডলার। ৩ এপ্রিল পর্যন্ত পরীক্ষার জন্য ১ কোটি ৫০ লাখ ডলারের তৈরি পোশাক ও জুতার চালান ইউএস কাস্টমসে অপেক্ষমাণ ছিল। এর মধ্যে ৮০ শতাংশ পণ্যই ভিয়েতনাম থেকে আনা। ভিয়েতনাম থেকে আমদানি করা পণ্যের মাত্র ১৩ শতাংশ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ছাড়পত্র পেয়েছে।

ইউএফএলপি আইনের কারণে মার্কিন শুল্ক বিভাগ যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ছাড়পত্র দেয়নি, ভিয়েতনামের রপ্তানি করা এমন পণ্যের মূল্য ২০ লাখ ডলার ছাড়িয়েছে। সংখ্যাটি চীনের প্রায় তিন গুণ। ইউএফএলপি আইনের কারণে চলতি বছরের প্রথম মাস থেকে ছাড়পত্র না দেওয়ার হার বেড়েই চলেছে।

আইনটি বাস্তবায়নে কড়াকড়ির কারণে বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ড গ্যাপ, নাইকি ও অ্যাডিডাস দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশে ক্রয়াদেশ কমিয়েছে। নাইকি ও অ্যাডিডাসের প্রতি তিন জোড়া জুতার এক জোড়া ভিয়েতনামে তৈরি হয়। এ ছাড়া নাইকি তাদের পোশাকের ২৬ শতাংশ এবং অ্যাডিডাস প্রায় ১৭ শতাংশ পোশাক দেশটি থেকে নেয়। তবে এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক আমদানিকারকই এখন পর্যন্ত নির্বিকার।

ভিয়েতনামে কৃষির পরই সবচেয়ে বেশি কর্মসংস্থান শিল্প খাতে। কিন্তু ইউএফএলপিএর প্রভাবে গত অক্টোবর থেকে ৩৪ লাখ শ্রমিকের মধ্যে ৩ শতাংশ চাকরি হারিয়েছেন। রপ্তানি কমেছে ১১ দশমিক ৯ শতাংশ। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ২ দশমিক ৩ শতাংশ রপ্তানি কমেছে।

ইউনিভার্সিটি অব ডেলওয়্যারের ফ্যাশন অ্যান্ড অ্যাপারেল স্টাডিজ বিভাগের পরিচালক শেং লু রয়টার্সকে বলেন, ভিয়েতনামের তৈরি পোশাক ও বস্ত্র খাত চীনা তুলা আমদানির ওপর অতি মাত্রায় নির্ভরশীল। আর চীনের ৯০ শতাংশ তুলাই হয় জিনজিয়াং প্রদেশে। তিনি আরও বলেন, ভিয়েতনামের পক্ষে চীনের তুলার ওপর নির্ভরশীলতা কমানো খুবই কঠিন। কারণ, ভিয়েতনামে বিনিয়োগকারীদের একটি বড় অংশ চীনা।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভিয়েতনাম গত বছর যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ২ হাজার ৭০০ কোটি ডলারের তৈরি পোশাক ও জুতা রপ্তানি করেছে। দ্রুত বিকল্প উৎস থেকে কাঁচামাল সংগ্রহ করতে না পারলে দেশটির সংকট আরও খারাপের দিকে যাওয়ার শঙ্কা রয়েছে।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

মিসরীয় সেনাদের সঙ্গে ইসরায়েলি বাহিনীর গোলাগুলি

প্রকাশ: ১০:৫৭ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ফিলিস্তিনের রাফা সীমান্তে মিসর ও ইসরায়েলের সেনাদের মধ্যে গোলাগুলি হয়েছে। এতে এক মিসরীয় সেনানিহত এবং আরও কয়েকজন আহত হয়েছেন। তবে এই ঘটনায় কোনো ইসরায়েলি সেনা হতাহত হয়নি। 

সোমবার(২৭ মে) দক্ষিণ গাজার রাফা সীমান্ত ক্রসিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। খবর টাইমস অব ইসরায়েলের। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি ইসরায়েলি সামরিক সূত্রের বরাতে সংবাদমাধ্যম ওয়াইনেট বলেছে, গাজা-মিসর সীমান্তে ভয়াবহ গোলাগুলির জন্য মিসরকে দায়ী করছে ইসরায়েল। ইসরায়লি গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, রাফা সীমান্ত ক্রসিংয়ে ইসরায়েলি সেনাদের দিকে লক্ষ্য প্রথমে গুলি করে মিসরীয় সেনারা। এরপর পাল্টা গুলি চালিয়ে জবাব দেয় ইসরায়েলি সেনারা। এতে একজন মিসরীয় সেনা নিহত এবং আরও কয়েকজন আহত হয়েছেন। 

গাজা সীমান্তে গোলাগুলির বিষয়টি ইতিমধ্যে নিশ্চিত করেছে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ)। তারা বলছে, এই ঘটনার পর তারা মিসরের সঙ্গে যোগাযোগ করছে।

ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী বলেছে, কয়েক ঘণ্টা আগে মিসরীয় সীমান্তে একটি গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার ওপর তদন্ত চলছে। মিসরীয় পক্ষের সঙ্গে আলাপও অব্যাহত রয়েছে। এদিকে, ইসরায়েলের পর রাফা সীমান্তে গোলাগুলির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মিসরও। এই ঘটনায় তাদের এক সেনা নিহত হয়েছে বলেও জানিয়েছে কায়রো।


মিসরীয় সেনা   ইসরায়েলি বাহিনী   গোলাগুলি   ফিলিস্তিন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

রাফায় ভয়াবহ হামলাকে 'দুর্ঘটনা' বললেন নেতানিয়াহু!

প্রকাশ: ১১:০০ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ফিলিস্তিনের রাফায় আশ্রয়শিবিরে ইসরায়েলি বাহিনীর ভয়াবহ হামলাকে 'মর্মান্তিক দুর্ঘটনা' বলে উল্লেখ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি এ ঘটনার তদন্ত করা হবে বলেও জানান। খবর এএফপির। 

রোববার (২৬ মে)গাজা উপত্যকার রাফায় 'নিরাপদ অঞ্চল' হিসেবে ঘোষিত একটি শরণার্থীশিবিরে বিমান হামলা চালায় ইসরাইলি সেনাবাহিনী। তাঁবু দিয়ে গড়ে তোলা ওই শরণার্থীশিবিরে দখলদার সেনাদের হামলায় নারী ও শিশুসহ অন্তত ৪৫ জন ফিলিস্তিনি নিহত ও প্রায় আড়াইশ জন আহত হয়েছেন। 

রাফায় এ হামলার ঘটনায় বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় ওঠেছে। এটিকে হত্যাযজ্ঞ আখ্যা দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। ইসরাইলকে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে  'সামর্থ্যের মধ্যে সবকিছু' করার অঙ্গীকার করেছেন তিনি। হামলার ঘটনায় ক্ষোভ জানিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। রাফায় ফিলিস্তিনিদের জন্য কোনো নিরাপদ জায়গা নেই উল্লেখ করে অবিলম্বে সেখানে ইসরাইলি অভিযান বন্ধের আহ্বান জানান তিনি। 

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান জোসেপ বোরেল বলেছেন, 'রাফায় অভিযান বন্ধে ইসরাইলকে অবশ্যই আইসিজের আদেশ মেনে চলতে হবে।'

রাফার শরণার্থীশিবিরে হামলায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে দায়সারা জবাব দিয়েছেন নেতানিয়াহু। সোমবার (২৭ মে) ইসরাইলি পার্লামেন্টে দেয়া ভাষণে তিনি এ হামলাকে 'মর্মান্তিক দুর্ঘটনা' বলে উল্লেখ করেন। এর তদন্ত করা হবে বলেও জানান তিনি।

নেতানিয়াহু আরও বলেন, 'গাজায় বেসামরিক লোকজনের সুরক্ষার জন্য সম্ভাব্য প্রত্যেকটি বিষয়ে সতর্ক থাকা ইসরাইলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবে গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাবেন জানিয়ে তিনি বলেন, 'লক্ষ্য পূরণের আগে এই যুদ্ধ বন্ধের কোনো ইচ্ছা তার নেই।'


রাফা   হামলা   বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু   ফিলিস্তিন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

লেবাননে হাসপাতালের বাইরে ইসরায়েলি হামলা, আহত ১০

প্রকাশ: ১০:৪১ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

দক্ষিণ লেবাননের একটি হাসপাতালের বাইরে ইসরায়েলি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নিহত হয়েছে একজন এবং আহত হয়েছে আরও ১০ জন।

লেবানিজ সরকারি গণমাধ্যম এবং হাসপাতাল প্রশাসনের বরাত দিয়ে এএফপি এক প্রতিবেদনে তথ্য জানিয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে সোমবার (২৭ মে) এ হামলার ঘটনা ঘটে।

লেবাননের রাষ্ট্রীয় ন্যাশনাল নিউজ এজেন্সি (এনএনএ) বলেছে, ‘শত্রুদের একটি ড্রোন বিনতে জবেইল শহরের সালাহ ঘান্দুর হাসপাতালের কাছে একটি মোটরসাইকেলকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে। এতে একজন নিহত এবং অন্যরা আহত হয়েছে।’  

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ঘটনায় আহত ১০ জনের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা গুরুতর।

প্রসঙ্গত, হাসপাতলটি পরিচালানা করে লেবাননের শক্তিশালী হিজবুল্লাহ গ্রুপের সঙ্গে সম্পৃক্ত ইসলামিক হেলথ কমিটি।


হামলা   ইসরাইল   লেবানন   হাসপাতাল  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইরান সফরের আমন্ত্রণ গ্রহণ করলেন সৌদি যুবরাজ

প্রকাশ: ১০:১১ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

সৌদি আরবের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ইরানের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মোখবারের আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন। শুক্রবার রাতে মোহাম্মদ বিন সালমান ও মোখবারের মধ্যে ফোনালাপ হয়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট ইরানি হজযাত্রীদের স্বাগত জানানোর জন্য বিন সালমানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। তিনি বিন সালমানকে তেহরান সফরেরও আমন্ত্রণ জানান। প্রয়াত প্রেসিডেন্টও আগে তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

বিন সালমান সেই আমন্ত্রণ গ্রহণ করেন এবং ইরানের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্টকেও রিয়াদ সফরের আমন্ত্রণ জানান। এর মধ্য দিয়ে দুই দশকের বেশি সময়ের মধ্যে তেহরানে সৌদি রাজপরিবারের প্রথম সম্ভাব্য সফর হতে যাচ্ছে। তবে এই সফরের কোনো তারিখ এখনো ঘোষণা করা হয়নি। এর আগে, গত বছরও ইরান বলেছিল সৌদি যুবরাজ সফরে আসবেন।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দুই দেশ তাদের দূতাবাস পুনরায় চালু করেছে। চীনের মধ্যস্থতায় প্রায় সাত বছর স্থবির থাকার পর দেশ দুটি নিজেদের মধ্যে কূটনৈতিক মিশন পুনরায় শুরু করতে সম্মত হয়। এই ধরনের পদক্ষেপ সত্ত্বেও, রিয়াদ ও তেহরানের মধ্যে সম্পর্ক খুব একটা সুবিধাজনক অবস্থায় পৌঁছায়নি।

সৌদি আরব ২০১৬ সালে ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে। সেসময় তেহরান দূতাবাসে রিয়াদের একজন শিয়া মুসলিম ধর্মগুরুর মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়।

পারস্য উপসাগরে সৌদি তেল স্থাপনা এবং ট্যাঙ্কারগুলোতে হুথিদের ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার কারণে দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনা বেড়ে যাচ্ছে। এর ফলে প্রায় এক দশক ধরে চলা সংঘাত আরও বৃদ্ধির আশঙ্কা করা হচ্ছে।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

সঞ্জিভা গার্ডেন্সের বাথরুমে টুকরো করা হয় লাশ

প্রকাশ: ১০:০০ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ঝিনাইদহ-৪ আসনের এমপি মো. আনোয়ারুল আজীম আনারকে হত্যার পর লাশ টুকরো করার বর্ণনা দিয়েছেন জড়িতরা। 

কলকাতায় গ্রেপ্তারকৃত জিহাদ হাওলাদার ওরফে 'কসাই জিহাদ' জানান, নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেন্সের বাথরুমে টুকরো টুকরো করা হয় এমপি আজীমের লাশ। এর আগে প্রায় এক ঘণ্টা মরদেহটি মেঝেতে পড়ে ছিল। পরে চারজন মিলে টেনে সেটি বাথরুমে নিয়ে যান। 

সোমবার (২৭ মে) তদন্ত-সংশ্লিষ্ট একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রে এই তথ্য পাওয়া গেছে। 

এদিকে এমপি আনার হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী আখতারুজ্জামান শাহীন ও কিলিং মিশনের সদস্য সিয়ামকে গ্রেপ্তারে আন্তর্জাতিক পুলিশ সংস্থার (ইন্টারপোল) সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের পর ২০ মে শাহীন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়ে দিল্লি যান। তারপর দিল্লি থেকে যান নেপালে। এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাত হয়ে পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। 

বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র দুই দেশেরই নাগরিকত্ব রয়েছে শাহীনের। তাই তার ব্যাপারে ইন্টারপোলের যুক্তরাষ্ট্র ডেস্কে সোমবার চিঠি পাঠানো হয়। আর সিয়াম ঘটনার পর ভারত থেকে নেপালে গেছেন বলে জানা যায়। তাকে আইনের আওতায় আনতে ইন্টারপোলের নেপাল শাখায় চিঠি পাঠানো হয়েছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানিয়েছে, এমপি আনার হত্যায় অন্যতম অভিযুক্ত জিহাদ হাওলাদার জেরায় জানিয়েছেন- হত্যার পর মাথা কেটে শরীর থেকে আলাদা করার দায়িত্ব ছিল তার। এরপর তা টুকরো টুকরো করা হয়। শরীর থেকে চামড়া ছাড়িয়ে আলাদা করা হয় মাংস ও হাড়। লাশ টুকরো করার কাজ জিহাদ করলেও তা গায়েব করার দায়িত্ব ছিল ফয়সালের ওপর। 

বাংলাদেশ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) প্রধান হারুন অর রশিদ বলেন, একজন সংসদ সদস্যকে কলকাতায় হত্যা করা হয়েছে। তদন্তে নেমে এ ঘটনায় বাংলাদেশে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছি। তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি। কলকাতা পুলিশ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। যে কায়দায় হত্যা করা হয়েছে, এটা মেনে নেয়া কঠিন। ঠান্ডা মাথায় লাশের টুকরো গুম করা হয়েছে। 


সঞ্জিভা গার্ডেন্স   লাশ   ঝিনাইদহ-৪   মো. আনোয়ারুল আজীম আনার   হত্যা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন