ইনসাইড গ্রাউন্ড

আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মেডেন ওভার কোন বোলারের?

প্রকাশ: ০৯:০৪ এএম, ০৪ মে, ২০২৩


Thumbnail

ডট বল প্রেসার। যত দক্ষ কিংবা ডাকাবুকো ব্য়াটারই হোক না কেন, ডট বলের চাপ থেকে বেরোতে অনেক সময়ই উইকেট উপহার দিয়ে আসেন। অনেক ক্ষেত্রেই হয়, এক প্রান্ত থেকে কোনও বোলার চাপ তৈরি করেন, তবে তাঁর ঝুলিতে উইকেট আসে না। তবে দলের জন্য তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায়। তিনি উইকেট না পেলেও উল্টো প্রান্তের বোলারের জন্য় মঞ্চ তৈরি করে রাখেন। 

টেস্ট ক্রিকেটে মেডেন ওভার জল-ভাত। ওডিআই ফরম্য়াটেও নতুন বলে মেডেন ওভার হামেশাই দেখা যায়। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে! খুবই কঠিন কাজ। আর আইপিএলের মঞ্চে এর গুরুত্ব অনেক বেশি। বিশ্বের সেরা ব্য়াটাররা অংশ নিয়ে থাকেন। তাদের বিরুদ্ধে মেডেন ওভার সহজ কথা নয়। আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মেডেন ওভার কে করেছেন! আর কারা রয়েছেন, মেডেন ওভারের তালিকায়?

আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি মেডেন ওভার যে বোলার করেছেন, তিনি অবশ্য এখন আর আইপিএল খেলেন না। উদ্বোধনী আইপিএল থেকে ২০১৭ সাল অবধি খেলেছেন তিনি। প্রবীণ কুমার। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে সব মিলিয়ে ১১৯ ম্য়াচ খেলেছেন প্রবীণ কুমার। বোলিং করেছেন মোট ৪২০ ওভার। উইকেট রয়েছে ৯০টি। কিন্তু তাঁর নিখুঁত লাইন লেন্থ, স্লোয়ারের বিরুদ্ধে জোরালো শট খেলার সহজ ছিল না। প্রবীণ কুমার তেমনই একজন বোলার। ১১৯ ম্যাচে ৪২০ ওভারের মধ্যে ১৪টি মেডেন ওভার। আইপিএলের ইতিহাসে প্রবীণ কুমারই সবচেয়ে বেশি মেডেন ওভার দিয়েছেন।

দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন ভুবনেশ্বর কুমার। তিনি অবশ্য এখনও খেলেন। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ভরসা যোগ্য এই মিডিয়াম পেসার আইপিএলে খেলেছেন ১৫৪টি ম্য়াচ। আজও কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে নামতে চলেছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। ভুবির কাছে সুযোগ রয়েছে সংখ্যা বাড়িয়ে নেওয়ার। যদিও খুবই কঠিন কাজ। ২০১১ সাল থেকে আইপিএলে ১৫৪ ম্যাচে ৫৭০ ওভারের মতো। এর মধ্যে এক ডজন মেডেন ওভার রয়েছে ভুবির। তাঁর পরেই রয়েছেন রাজস্থান রয়্য়ালসের বাঁ হাতি পেসার ট্রেন্ট বোল্ট। ২০১৫ সাল থেকে খেলছেন। মাত্র ৮৫ ম্য়াচে ৩২৬ ওভারের মতো বোলিং করেছেন। এর মধ্য়ে ১১টি মেডেন ওভার করেছেন ট্রেন্ট বোল্ট।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

অজিদের হারিয়ে ভারত সেমিতে, টিকে রইল বাংলাদেশের স্বপ্ন

প্রকাশ: ১২:২৯ এএম, ২৫ জুন, ২০২৪


Thumbnail

জিতলেই সেমির দৌঁড়ে এগিয়ে, হারলে কঠিন সমীকরণের সামনে- এমন বাঁচা-মরার ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে আজ সর্বোচ্চটা দিয়েই লড়েছে অজিরা। যদিও শেষ পর্যন্ত ভারতের কাছে হেরেছে তারা। আর ক্যাঙ্গারুদের হারে অবশ্য বেঁচে আছে বাংলাদেশের সেমিফাইনালের স্বপ্ন।

সোমবার সেন্ট লুসিয়ার গ্রস আইলেটে ড্যারেন স্যামি স্টেডিয়ামে পাঁচ উইকেটে ২০৫ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে নির্ধারিত ২০ ওভারে সাত উইকেটে ১৮১ রানের বেশি করতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। ভারতের জয় ২৪ রানে।

রান তাড়া করতে নেমে আজ প্রথম ওভারেই সাজঘরে ফেরেন ডেভিড ওয়ার্নার। তবে সেই ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে সময় নেয়নি অস্ট্রেলিয়া। ট্রেভিস হেড ও মিচেল মার্শের ব্যাটে পাল্টা আক্রমণে অজিরা। দুজনের ব্যাটে দ্রুত লক্ষ্যের কাছে যেতে থাকে দলটি।

নবম ওভারে ৩৭ রানে মার্শ আউট হওয়ার পর আর কেউই বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। একপ্রান্ত আগলে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন হেড। ভারতের হয়ে আর্শদীপ তিনটি, কুলদীপ দুটি এবং বুমরাহ ও আক্সার একটি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মিচেল মার্শ। ভারতের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নেমে আজও ব্যর্থ বিরাট কোহলি। শূন্য রানে আউট হন এ ওপেনার। তবে রোহিত শর্মা ছিলেন চেনা ছন্দে। শুরু থেকেই অজিদের ওপর ছড়ি ঘোরাতে থাকেন তিনি।

চার-ছক্কার ফুলঝুরিতে মাত্র ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন রোহিত। যা চলতি আসরে দ্রুততম। দ্য হিটম্যান ছিলেন সেঞ্চুরির পথেও। তবে ৯২ রানে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন এ ওপেনার। সূর্যকুমার যাদবের ৩১ ও শিভম দুবের ২৮ রানের ইনিংস ভারতকে এগিয়ে দেয়।

শেষদিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন হার্দিক পান্ডিয়া। তার ২৭ রানের ক্যামিওতে ভারতের বড় সংগ্রহ নিশ্চিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মিচেল স্টার্ক ও মার্কাস স্টয়নিস দুটি ও জশ হ্যাজেলউড একটি করে উইকেট শিকার করেন।


অস্ট্রেলিয়া   বাংলাদেশ   টি-২০ বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

রোহিত ঝড়ে ভারতের বিশাল সংগ্রহ

প্রকাশ: ১০:৩০ পিএম, ২৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

অস্ট্রেলিয়ার জন্য বাঁচা-মরার লড়াই। হারলেই বিদায়ের শঙ্কা। তবে ভারতের সেমিফাইনাল প্রায় নিশ্চিত। তাই নিশ্চিন্ত তারা। আর এমন চিন্তাহীন ভারত কতটা ভয়ংকর হতে পারে, সেটাই হারে হারে টের পেল চাপে থাকা অজিরা।

সেন্ট লুসিয়ার গ্রস আইলেটে ড্যারেন স্যামি স্টেডিয়ামে সুপার এইটে নিজেদের শেষ ম্যাচে ২০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ২০৫ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। এ ম্যাচে অজিরা বড় ব্যবধানে হারলে আর আফগানিস্তানকে বড় ব্যবধানে হারাতে পারলে সেমিতে খেলতে পারবে বাংলাদেশ।

আজ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মিচেল মার্শ। ভারতের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নেমে আজও ব্যর্থ বিরাট কোহলি। শূন্য রানে আউট হন এ ওপেনার। তবে রোহিত শর্মা ছিলেন চেনা ছন্দে। শুরু থেকেই অজিদের ওপর ছড়ি ঘোরাতে থাকেন তিনি।

চার-ছক্কার ফুলঝুরিতে মাত্র ১৯ বলে হাফসেঞ্চুরি পূরণ করেন রোহিত। যা চলতি আসরে দ্রুততম। দ্য হিটম্যান ছিলেন সেঞ্চুরির পথেও। তবে ৯২ রানে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন এ ওপেনার। সূর্যকুমার যাদবের ৩১ ও শিভম দুবের ২৮ রানের ইনিংস ভারতকে এগিয়ে দেয়।

শেষদিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন হার্দিক পান্ডিয়া। তার ২৭ রানের ক্যামিওতে ভারতের বড় সংগ্রহ নিশ্চিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে মিচেল স্টার্ক ও মার্কাস স্টয়নিস দুটি ও জশ হ্যাজেলউড একটি করে উইকেট শিকার করেন।

রোহিত শর্মা   ভারত   টি-২০ বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

দ্রুততম ফিফটি রোহিতের

প্রকাশ: ০৯:৩২ পিএম, ২৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্রুততম ফিফটি করেছেন রোহিত শর্মা। আজ সুপার এইটের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে রোহিত ১৯ বলে ফিফটি পূরণ করেন।

সেন্ট লুসিয়ার গ্রস আইলেটে ড্যারেন স্যামি স্টেডিয়ামে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৮ ওভারে দুই উইকেটে ৯৩ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। রোহিত ৭৬ রানে ব্যাট করছেন।

আজ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মিচেল মার্শ। ভারতের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নেমে আজও ব্যর্থ বিরাট কোহলি। তিনি শূন্য রানে আউট হন। তবে অন্যপ্রান্তে রোহিত শর্মা আজ আছেন চেনা ছন্দে।

মাত্র ১৯ বলে অর্ধশতকে পৌঁছান রোহিত। যা বিশ্বকাপের চলতি আসরে দ্রুততম ফিফটি। তিনি পেছনে ফেলেছেন কুইন্টন ডি কককে। যিনি ২২ বলে ফিফটি করেছেন। রোহিত ঝড়ে বর সংগ্রহের পথে আছে টিম ইন্ডিয়া।

সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে দু’দলের কাছেই এই ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া এই ম্যাচের ওপর নির্ভর করছে আসরে বাংলাদেশের টিকে থাকা। তাই টাইগাররাও তাকিয়ে থাকবে এ ম্যাচের দিকে।

টি-টোয়েন্টি   বিশ্বকাপ   রোহিত শর্মা   সুপার এইট   অস্ট্রেলিয়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

জিম্বাবুয়ে সিরিজের দল ঘোষণা, নতুন অধিনায়ক পেল ভারত

প্রকাশ: ০৯:১৯ পিএম, ২৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বিশ্বকাপ চলাকালেই আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করেছে ভারত। সোমবার (২৪ জুন) নতুন পাঁচ মুখকে নিয়ে ১৫ সদস্যের এই দল ঘোষণা করে বিসিসিআই। ঘোষিত দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন শুভমান গিল। 

এই সিরিজে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে ভারত।

এই সিরিজ দিয়ে প্রথমবার টি-টোয়েন্টি দলে ডাক পেলেন অভিষেক শর্মা, রিয়ান পরাগ, নীতীশ রেড্ডি, ধ্রুব জুরেল এবং তুষার দেশপান্ডে।

তাদের মধ্যে জুরেল এর আগে টেস্ট ক্রিকেট খেলেছেন। বাকিরা জাতীয় দলের স্কোয়াডে সুযোগ পেয়েছেন প্রথমবারের মতো। দলের বেশির ভাগ নিয়মিত ক্রিকেটারদের বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। বিশ্বকাপ স্কোয়াডের মাত্র দুইজন আছেন এই দলে।

আগামী ৬ জুলাই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে মাঠে নামবে ভারত। পরের দিনই দ্বিতীয় ম্যাচ খেলবে ভারত। বাকি তিনটি ম্যাচ ১০, ১৩ ও ১৪ জুলাই। সবগুলো ম্যাচই হবে জিম্বাবুয়ের হারারেতে।

ভারত স্কোয়াড: শুভমান গিল (অধিনায়ক), যশস্বী জয়সওয়াল, রুতুরাজ গায়কোয়াড়, অভিষেক শর্মা, রিংকু সিং, সাঞ্জু স্যামসন (উইকেটরক্ষক), ধ্রুব জুরেল (উইকেটরক্ষক), নিতিশ রেড্ডি, রিয়ান পরাগ, ওয়াশিংটন সুন্দর, রবি বিষ্ণই, আভেশ খান, খলিল আহমেদ, মুকেশ কুমার এবং তুষার দেশপাণ্ডে।

জিম্বাবুয়ে সিরিজ   নতুন অধিনায়ক   ভারত   শুভমান গিল  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

বাংলাদেশের ভাগ্য নির্ধারণের ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে ভারত

প্রকাশ: ০৮:৩৫ পিএম, ২৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

জিতলেই সেমিফাইনাল নিশ্চিত, হারলে তাকিয়ে থাকতে হবে বাকিদের দিকে- এমন সমীকরণের ম্যাচে সুপার এইটে নিজেদের শেষ ম্যাচে আজ মুখোমুখি হচ্ছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়া। যেখানে টসে জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া অধিনায়ক মিচেল মার্শ।

সেন্ট লুসিয়ার গ্রস আইলেটে ড্যারেন স্যামি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায় ম্যাচটি শুরু হবে।

চলমান টি-২০ বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত নিজেদের সব ম্যাচেই জয় পেয়েছে ভারত। অন্যদিকে আফগানিস্তানের কাছে হেরে বেশ বড় ধাক্কা খেয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

আর সেমিফাইনাল নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে দু’দলের কাছেই এই ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া এই ম্যাচের ওপর নির্ভর করছে আসরে বাংলাদেশের টিকে থাকা। তাই টাইগাররাও তাকিয়ে থাকবে এ ম্যাচের দিকে।

আজকের ম্যাচে আছে বৃষ্টির শঙ্কা। অস্ট্রেলিয়া ও ভারত ম্যাচ যদি বৃষ্টিতে ভেস্তে যায় তাহলে দুই দলই পাবে সমান ১ পয়েন্ট করে। সে ক্ষেত্রে ৩ ম্যাচ থেকে ৫ পয়েন্ট নিয়ে সেমিফাইনালে উঠে যাবে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট হবে ৩।

অজিরা সেমিফাইনালে উঠবে কিনা সেটি তখন নির্ভর করবে বাংলাদেশ-আফগানিস্তান ম্যাচে। সে ম্যাচে আফগানিস্তান জিতলে সুপার এইট থেকে ছিটকে যাবে অস্ট্রেলিয়া।

আর বাংলাদেশ জিতলে ঝুলে থাকবে অজিদের ভাগ্য। যদিও তখন বাংলাদেশকে অন্তত ৮৫ রানের ব্যবধানে জিততে হবে। আর বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান ম্যাচও যদি বৃষ্টিতে ভেস্তে যায় তখন নেট রানরেটে এগিয়ে থাকায় সেমিফাইনালে পা রাখবে অস্ট্রেলিয়া।


অস্ট্রেলিয়া   ভারত   টি-২০ বিশ্বকাপ   ক্রিকেট  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন