ইনসাইড গ্রাউন্ড

প্রথম কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর ম্যাচ উপহার দিল ৯০ হাজার গাছ!

প্রকাশ: ০৯:২২ এএম, ২৬ মে, ২০২৩


Thumbnail

আইপিএলের প্লে অফে এক একটি ডট বলে ফলছে ৫০০টি গাছ। সবুজ হবে দেশ। অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে আইপিএল কর্তৃপক্ষ ও বিসিসিআই। প্লে অফের ম্যাচে ডট ব প্রতি ৫০০টি করে গাছ লাগানো হবে। মোট ৪টি ম্যাচ। 

এরই মধ্যে প্রথম কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেটর ম্যাচ খেলা হয়ে গিয়েছে। কোয়ালিফায়ার ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস ও গুজরাট টাইটান্স। এলিমিনেটর ম্যাচ খেলেছে লখনউ সুপার জায়ান্টস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। ধোনি-হার্দিকদের ম্যাচে ৮৪টি ডট বল ধরলে ৪২ হাজার বৃক্ষের রোপণ করা হবে। এলিমিনেটর ম্যাচের ডট বলের সংখ্যা আরও বেশি। রোহিত-ক্রুণালদের ম্যাচ উপহার দিয়েছে ৪৮ হাজার গাছ। সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত আইপিএলে প্লে অফ থেকে মোট ৯০ হাজার গাছ উপহার পেয়েছে দেশ।

প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচ চলাকালীন টিভির পর্দায় ডট বলের জায়গায় গাছের চিহ্ন দেখে অনেকে অবাক হয়ে যান। হঠাৎ গাছ কেন? ধারাভাষ্যকার রবি শাস্ত্রী অবশ্য ম্যাচ শুরুর আগেই বলে দিয়েছিলেন, যত ডট বল হবে তত গাছ লাগানো হবে। পরে জানা যায়, ডট বল প্রতি ৫০০টি গাছ লাগানো হবে। পরিবেশ সবুজ করতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের এই অভিনব উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন সকলে। 

তবে পরিবেশ বা সমাজ সচেতনতায় আইপিএলের উদ্যোগ এটাই প্রথম নয়। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের তরফে প্রতি মরসুমে একটি ম্যাচ সবুজ জার্সি পরে খেলা হয়। পরিবেশ সচেতনায় এই উদ্যোগ। এছাড়া গুজরাট টাইটান্স ল্যাভেন্ডার রঙের জার্সি পরে একটি ম্যাচ খেলেছে। ক্যান্সারের মতো মারণ রোগের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের প্রেরণা দিতেই এমন উদ্যোগ।

আজ, শুক্রবার আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। এই ম্যাচ নির্ধারণ করে দেবে, কোন দল এ বারের আইপিএলের ফাইনালে উঠবে। চেন্নাই সুপার কিংস আগেই ফাইনালে চলে গিয়েছে। আজ ফাইনালের লড়াই গুজরাট টাইটান্স ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যে। কোনও এক দলের ফাইনাল খেলার স্বপ্ন পূরণ হবে। অন্য দলের স্বপ্ন ভঙ্গ। ম্যাচের ফলাফল যাই হোক, হার্দিক-রোহিতদের লড়াই আরও কয়েক হাজার গাছ উপহার দেবে এতেই খুশি পরিবেশপ্রেমীরা।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

মাত্র ১৯ বলেই খেলা শেষ, সুপার এইটের আশা রইলো ইংল্যান্ডের

প্রকাশ: ০৯:১৭ এএম, ১৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চলতি আসরে বেশ চাপের মুখে আছে ইংল্যান্ড। স্কটল্যান্ডের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগির পর অস্ট্রেলিয়ার কাছে দ্বিতীয় ম্যাচ হেরে যায় রশিদ-মঈনরা। এ অবস্থায় বাঁচা-মরার ম্যাচে ওমানের মুখোমুখি হয়ে ১৯ বলে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে ইংলিশরা। এতে সুপার এইটে যাওয়ার আশা বেঁচে থাকলো তাদের।

আজ ওমানকে হারিয়েছে তারা ৮ উইকেটে, ১০১ বল বাকি থাকতে। ১৯ বলেই ওমানের দেয়া লক্ষ্যটা পেরিয়ে যায় ইংল্যান্ড। শুরুতে ব্যাট করা ওমান অলআউট হয় মাত্র ৪৭ রানে। এটা তাদের টি-টোয়েন্টিতে সর্বনিম্ন রানের স্কোর।

বাঁচা-মরার ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক জস বাটলার। অ্যান্টিগার স্যার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরু থেকেই আগুন ঝরায় ইংলিশরা। যার রেশে ১৩.২ ওভারে মাত্র ৪৭ রানে গুটিয়ে গেছে ওমান। মিডল অর্ডার ব্যাটার শোয়াইব খান ছাড়া কেউই দুই অঙ্কের ঘরে যেতে পারেননি। শোয়াইব করেন ১১ রান।

ইংল্যান্ডের হয়ে আদিল রশিদ একাই শিকার করেছেন ৪ উইকেট। এছাড়া মার্ক উড ও জোফরা আর্চার দুজনই তিনটি করে উইকেট তুলে নেন।

৪৮ রানের টার্গেটে শুরু থেকেই মারমার কাটকাট ব্যাটিং ইংলিশদের। ওপেনার ফিল সল্ট ৩ বলে ২ ছক্কায় আউট হন ১২ রান করে। অপর ওপেনার জস বাটলার অপরাজিত ছিলেন ৮ বলে ২৪ রানে। রানরেট বেশ বাড়িয়ে নিয়ে ৮ উইকেটের সহজ জয় পায় ইংল্যান্ড।

গ্রুপ ‘বি’তে সমান ৩ ম্যাচ শেষে অস্ট্রেলিয়ার পয়েন্ট ৬, স্কটল্যান্ডের ৫, ইংল্যান্ডের ৩, নামিবিয়ার ২। ৪ ম্যাচে ওমানের কোনো পয়েন্ট নেই। স্কটল্যান্ডের রান রেট +২.১৬৪ আর ইংল্যান্ডের +৩.০৮১। শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ড যদি নামিবিয়াকে হারায় আর স্কটল্যান্ড হারে অস্ট্রেলিয়ার কাছে, তাহলে সুপার এইটে চলে যাবেন বাটলাররা।


ইংল্যান্ড   টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সময় এখন ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের

প্রকাশ: ০৯:০০ এএম, ১৪ জুন, ২০২৪


Thumbnail

ক্রীড়াপ্রেমী মানুষের জন্য দারুণ একটা বছর ২০২৪। ক্রিকেট থেকে ফুটবল, অলিম্পিক থেকে এশিয়ান কাপ- সব আসরই যেন একসাথে বসছে এই বছরে। আর এই বছরের জুন মাসটা যেন একটু বেশিই স্পেশাল। কারণ এই এক মাসের মধ্যেই বিশ্বের ক্রীড়াঙ্গনের তিন গুরুত্বপূর্ণ মহাযুদ্ধ মাঠে গড়াবে। যার মধ্যে ক্রিকেট-ফুটবল দুটোই রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে ইতোমধ্যেই চলছে টি-২০ বিশ্বকাপের নবম আসর। গত ২ জুন থেকে শুরু হয়ে প্রায় মাসব্যাপী চলা এই টুর্নামেন্টের পর্দা নামবে আগামী ২৯ জুন। আর বিশ্ব ক্রিকেটের এই মেগা ইভেন্ট চলতে চলতেই আবার মার্কিন মুল্লুকেই কিছুদিন পরই শুরু হবে কোপা আমেরিকার ৪৮তম আসর। ফুটবলের সবচেয়ে পুরনো এই টুর্নামেন্ট শুরু হবে আগামী ২১ জুন।

তবে এরও কয়েকদিন আগে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই খ্যাত- ‘ইউরো কাপ ২০২৪’। এই মেগা ইভেন্টের পর্দা উঠতে যাচ্ছে ১৫ জুন। ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের এই মহাযুদ্ধের এবারের আসরের আয়োজক জার্মানি। মাসব্যাপী চলা এই টুর্নামেন্টের পর্দা নামবে আগামী ১৫ জুলাই ফাইনালের মধ্য দিয়ে।

২০০৬ সালে বিশ্বকাপ আয়োজনের পর এটিই জার্মানিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সবচেয়ে বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। ইউরো কাপের এবারের আসরে ১০ ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে ৫১টি ম্যাচ। যার মধ্যে রয়েছে, বার্লিনের অলিম্পিয়া স্টেডিয়াম (আসনসংখ্যা ৭১ হাজার), মিউনিখ (৬৬ হাজার) ও ডর্টমুন্ড (৬২ হাজার)। তবে এর মধ্যে ডর্টমুন্ডে হবে সর্বোচ্চ ছয়টি ম্যাচ। 

স্বাগতিক জার্মানি ও স্কটল্যান্ডের লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে মিউনিখে পর্দা উঠবে এবারের ইউরোপিয়ান শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের। আর ফাইনাল হবে বার্লিনে।

এছাড়া, পাঁচটি করে ম্যাচ হবে স্টুটগার্ট (আসনসংখ্যা ৫১ হাজার), হামবুর্গ (৪৯ হাজার), ড্যুসেলডর্ফ (৪৭ হাজার), ফ্রাঙ্কফুর্ট (৪৭ হাজার) ও কোলনে (৪৩ হাজার)। লাইপজিগ (৪০ হাজার) ও গেলসেনকিরশেনে (৫০ হাজার) হবে চারটি করে ম্যাচ। ২০০৬ সালের বিশ্বকাপের সময় ড্যুসেলডর্ফে কোনো ম্যাচ হয়নি।

এবারের আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড়ে ইংল্যান্ডকে সবচেয়ে এগিয়ে রেখেছেন বুকমেকাররা। গতবার রানার্সআপ হয়েছিল তারা। ইংলিশদের পর ফেবারিট বিশ্বকাপে রানার্সআপ ফ্রান্স ও আয়োজক দেশ জার্মানি।

ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ইউরোতে অংশ নেয়া দেশগুলোর মধ্যে সবার উপরে আছে ফ্রান্স (২)। এরপর আছে বেলজিয়াম (৩), ইংল্যান্ড (৪) ও পর্তুগাল (৬)। জার্মানির র‍্যাঙ্কিং ১৬। সে হিসেবে ইউরোপের নবম সেরা দল তারা। র‍্যাঙ্কিংয়ে সবার নিচে থাকা দেশ জর্জিয়া (৭৫)।

এই আসরের অংশগ্রহণকারী ২৪টি দলের মধ্যে ১৯টি দল গত আসরে অংশগ্রহণ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে চ্যাম্পিয়ন ইতালি ও রানারআপ ইংল্যান্ড, ২০২২ বিশ্বকাপের রানারআপ ফ্রান্স ও তৃতীয় স্থান অধিকারী ক্রোয়েশিয়া। পর্তুগাল একমাত্র দল, যারা পুরো বাছাইপর্বে সব ম্যাচ জিতেছে। অপরাজিত ছিল ফ্রান্স, ইংল্যান্ড, বেলজিয়াম, হাঙ্গেরি ও রোমানিয়া।

শুধু তাই নয়, আসন্ন এই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়া ২৪ দলকে ভাগ করা হয়েছে ৬ গ্রুপে। আর চার দেশের একেকটি গ্রুপ থেকে প্রথম দুটি দল শেষ ষোলোতে যাবে। এ ছাড়া প্রতিটি গ্রুপে তৃতীয় স্থান পাওয়া দেশগুলোর মধ্যে পয়েন্ট বিবেচনায় সেরা চার দেশও শেষ ষোলোতে যাবে। কোনো গ্রুপে প্রথম দুটো দলের পয়েন্ট সমান হলে নিজেদের মধ্যে খেলার ফল বিবেচনায় প্রথম, দ্বিতীয় ঠিক করা হবে।

এই টুর্নামেন্টের সময়সীমান্ত নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এছাড়া সন্ত্রাসী ও হুলিগানেরা যেন জার্মানিতে ঢুকতে না পারেন সেই ব্যবস্থা নিচ্ছে নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ। গত টুর্নামেন্টের আয়োজক ব্রিটেন নিরাপত্তার জন্য হুমকি বিবেচনায় ১ হাজার ৬০০ দর্শককে সেই দেশে ঢুকতে দেয়নি।

জার্মান পুলিশ ছাড়াও কয়েকশ বিদেশি পুলিশও নিরাপত্তায় থাকবেন। এর মধ্যে ফ্রান্স থেকে অনেক পুলিশ থাকবেন। কারণ, ইউরোর পরপর ফ্রান্সে অলিম্পিক (২৬ জুলাই থেকে ১১ আগস্ট) ও প্যারালিম্পিক (২৮ আগস্ট থেকে ৮ সেপ্টেম্বর) অনুষ্ঠিত হবে।

উল্লেখ্য, ১৫ জুন রাত ১ টায় (১৪ জুন দিবাগত রাতে) মিউনিখে দিনের উদ্বোধনী ম্যাচে স্কটল্যান্ডের মুখোমুখি হবে স্বাগতিক জার্মানি। এছাড়া একই দিন সন্ধ্যা ৭টায় হাঙ্গেরির সাথে লড়বে সুইজারল্যান্ড। আর সর্বশেষ ২০১২ আসরের চ্যাম্পিয়ন স্পেন মাঠে নামবে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে। ম্যাচটি শুরু হবে রাত ১০টায়।

একনজরে ইউরো ২০২৪-এর গ্রুপবিন্যাস- 

গ্রুপ এ – জার্মানি, স্কটল্যান্ড, হাঙ্গেরি, সুইজারল্যান্ড

গ্রুপ বি – স্পেন, ক্রোয়েশিয়া, ইটালি, আলবেনিয়া

গ্রুপ সি – স্লোভেনিয়া, ডেনমার্ক, সার্বিয়া, ইংল্যান্ড

গ্রুপ ডি – পোল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, অস্ট্রিয়া, ফ্রান্স

গ্রুপ ই – বেলজিয়াম, স্লোভাকিয়া, রোমানিয়া, ইউক্রেন

গ্রুপ এফ – তুরস্ক, জর্জিয়া, পর্তুগাল, চেক প্রজাতন্ত্র


ইউরোপিয়ান   যুক্তরাষ্ট্র   ওয়েস্ট ইন্ডিজ   ক্রিকেট   ফুটবল   অলিম্পিক   এশিয়ান কাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে সুপার এইটে এক পা বাংলাদেশের

প্রকাশ: ১২:০৭ এএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

টি-২০ বিশ্বকাপের নবম আসরে সুপার এইটের পথ সুগম করার মহা গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস। জিতলে সুপার এইটে এক পা রাখবে, হারলে ছিটকে যাবে- এমন সমীকরণের এই ম্যাচে ডাচদের ২৪ রানে হারিয়েছে টাইগাররা। আর এই মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে জয়ের মধ্য দিয়ে কোয়ার্টারের দিকে এক ধাপ এগিয়ে গেল সাকিব-শান্তরা।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সেন্ট ভিনসেন্টের আর্নস ভ্যালে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে হেরে আগে ব্যাট করে ২০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ১৫৯ রান সংগ্রহ করেছিল বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে দাপট দেখালেও পরবর্তীতে টাইগারদের বোলিং তোপে একের পর এক উইকেট হারাতে শুরু করে ডাচরা। পরে শেষ পর্যন্ত লড়েও নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৪ রান সংগ্রহ করে তারা। আর এতে করে বাংলাদেশ ২৫ রানের জয় পায়।

এদিন নেদারল্যান্ডসের হয়ে রান তাড়া করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ২২ রান যোগ করেন মাইকেল লেভিট ও ম্যাক্স ও'দাউদ। নিজের দ্বিতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে ১৮ রান করা লেভিটকে আউত করেন তাসকিন। ম্যাক্সকে ফেরান তানজিম সাকিব।

তবে পাল্টা আক্রমণে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন বিক্রমজিৎ সিং ও সিব্র্যান্ড এঙ্গেলব্রেখট। দুজনে গড়েন ৩৭ রানের জুটি। রিয়াদের বলে বিক্রমজিৎ ২৬ রানে আউট হলেও স্বস্তিতে ছিল না বাংলাদেশ। তবে শেষের ১০ ওভারে রিশাদ-মুস্তাফিজ-তাসকিনদের বোলিং তোপে নির্ধারিত লক্ষ্য ছুঁতে পারেনি ডাচরা।

এর আগে আজ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক স্কট অ্যাডওয়ার্ডস। বাংলাদেশের হয়ে তানজিদ তামিমের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই আরিয়ান দত্তের বলে শান্ত ১ রান করে আউট হন।

তিনে নেমে সুবিধা করতে পারেননি লিটন দাস। এঙ্গেলব্রেখটের অবিশ্বাস্য ক্যাচে পরিণত হয়ে তিনিও ১ রান করে আউট হন। শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ কিছুটা চাপে পড়লেও সেটা দূর করেন তামিম ও সাকিব।

এ দুজনের ৪৮ রানের জুটিতে ম্যাচে ফেরে টাইগাররা। মাঝে ৩৫ রানে তামিম ফিরলে এ জুটি ভাঙে। তাওহীদ হৃদয় আজ ব্যাট হাতে ব্যর্থ ছিলেন। তিনি ৯ রানে বোল্ড হন। তবে একপ্রান্ত আগলে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন সাকিব।

দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে অর্ধশতক পূরণ করেন সাকিব। পল মিকিরিনের বলে সিঙ্গেল নিয়ে মাইলফলকে পৌঁছান এ অলরাউন্ডার। পরের বলে ২৫ রানে বাউন্ডারির কাছে ধরা পড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ইনিংস শেষে ৪৬ বলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব। অন্যপ্রান্তে ৭ বলে ১৪ রানের ক্যামিও খেলেন জাকের আলী। নেদারল্যান্ডসের হয়ে আরিয়ান দত্ত ও পল ভ্যান মিকিরিন দুটি এবং টিম প্রিঙ্গল একটি করে উইকেট নেন।

বাংলাদেশ   নেদারল্যান্ডস   ক্রিকেট   টি-২০ বিশ্বকাপ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সাকিবরা এভাবেই ফিরে আসে স্বমহিমায়

প্রকাশ: ১১:০০ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

বাংলার ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় নাম সাকিব আল হাসান। অবধারিতভাবেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের সর্বকালের সেরাও বটে। নিজের সম্ভাব্য সব উজাড় করে দিয়েছেন টাইগারদের জার্সিতে। দেড় যুগের লম্বা ক্যারিয়ারে টিম টাগার্সদের যা কিছু অর্জন তার অনেকটা জুড়েই একটি নাম, সাকিব আল হাসান।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছিলেন না বাংলাদেশের এই পোস্টার বয়। চলমান টি-২০ বিশ্বকাপে প্রথম দুই ম্যাচেও ছিলেন ছন্দহীন। বল কিংবা কিংবা ব্যাট, কোনো কিছুতেই যেন নিজেকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না সাকিব।

সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাটিংয়ে ধুঁকতে থাকা সাকিব আল হসানের লাস্ট দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ব্যাটিং পারফরম্যান্সও ছিল খুবই বাজে। ২০২১ বিশ্বকাপে সাকিব আল হসান ৬ ম্যাচ খেলে রান করেছিলেন মোটে ১৩১। অপরদিকে বল হাতে সমান সংখ্যক ম্যাচে উইকেট ৬ টি, কিন্তু সে বছর বড় দুটি দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে কোনো উইকেট পাননি সাকিব। আর সবশেষ টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স তো আরও বাজে। ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৫ ইনিংসে করেছেন মাত্র ৪৪ রান। সমান সংখ্যক ম্যাচে বল হাতে উইকেট নিয়েছেন মাত্র ৬টি।  

ব্যাটে-বলে যে ছেলেটা বাংলাদেশের জার্সিতে নিয়মিত পারফর্ম করতেন সেই সাকিব আল হাসান সম্প্রতি ছিলেন অনেকটাই বিবর্ণ। অভিষেকের পর একমাত্র মিস্টার সেভেনটি ফাইভের দলে জায়গা নিয়ে কখনো প্রশ্ন ওঠেনি। কিন্তু চলমান বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সে ব্যাপক সমালোচনার স্বীকার হয়েছিলেন পোস্টার বয় সাকিব।

তবে সাকিব তো সাকিবই, তিনি ফিরতে জানেন, ফিরে আসতে জানেন স্বমহিমায়। সব সমালোচনা ভেদ করে আবারও একবার নিজের মতো করেই ফিরে আসলেন তিনি।

এবারের বিশ্বকাপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ। যেখানে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়েছিল টাইগাররা। কিন্তু এমন সময় সাকিব আসলেন ক্রিজে, হাল ধরলেন বাংলাদেশের। খেললেন নিজের চেনা ছন্দের মতোই। আর তার ৪৬ বলে ৬৪ রানের উপর ভর করেই আজ বাংলাদেশ পায় ১৫৯ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ।

আর এই সেরা ইনিংসের মধ্য দিয়ে সাকিব আরও একবার প্রমাণ করলেন যে, সাকিবরা ফুরিয়ে যায় না। খেলায় ওঠা-নামা, চড়াই-উৎরায় থাকবেই। কিন্তু বিশ্বসেরাদের প্রত্যাবর্তন কখন, কীভাবে হবে তা কেউই বলতে পারবে না। আর সাকিব তার আজকের ইনিংসের মধ্য দিয়ে সেটিই যেন আরও একবার প্রমাণ করলেন।


সাকিব আল হাসান   বাংলাদেশ ক্রিকেট   বিসিবি  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড গ্রাউন্ড

সাকিবের ফিফটিতে বাংলাদেশের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ

প্রকাশ: ১০:৩৩ পিএম, ১৩ জুন, ২০২৪


Thumbnail

টি-২০ বিশ্বকাপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি বাংলাদেশ। সুপার এইটের পথ সুগম করার ম্যাচে ব্যাট হাতে ফর্মে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান। তার দারুণ ফিফটিতে ডাচদের বিপক্ষে লড়াকু পুঁজি পেয়েছে টাইগাররা।

সেন্ট ভিনসেন্টের আর্নস ভ্যালে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ২০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ১৫৯ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ।

আজ টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক স্কট অ্যাডওয়ার্ডস। বাংলাদেশের হয়ে তানজিদ তামিমের সঙ্গে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই আরিয়ান দত্তের বলে শান্ত ১ রান করে আউট হন।

তিনে নেমে সুবিধা করতে পারেননি লিটন দাস। সিব্র্যান্ড এঙ্গেলব্রেখটের অবিশ্বাস্য ক্যাচে পরিণত হয়ে তিনিও ১ রান করে আউট হন। শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ কিছুটা চাপে পড়লেও সেটা দূর করেন তামিম ও সাকিব।

এ দুজনের ৪৮ রানের জুটিতে ম্যাচে ফেরে টাইগাররা। মাঝে ৩৫ রানে তামিম ফিরলে এ জুটি ভাঙে। তাওহীদ হৃদয় আজ ব্যাট হাতে ব্যর্থ ছিলেন। তিনি ৯ রানে বোল্ড হন। তবে একপ্রান্ত আগলে দলকে এগিয়ে নিতে থাকেন সাকিব।

দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে অর্ধশতক পূরণ করেন সাকিব। পল মিকিরিনের বলে সিঙ্গেল নিয়ে মাইলফলকে পৌঁছান এ অলরাউন্ডার। পরের বলে ২৫ রানে বাউন্ডারির কাছে ধরা পড়েন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

ইনিংস শেষে ৪৬ বলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব। অন্যপ্রান্তে ৭ বলে ১৪ রানের ক্যামিও খেলেন জাকের আলী। নেদারল্যান্ডসের হয়ে আরিয়ান দত্ত ও পল ভ্যান মিকিরিন দুটি এবং টিম প্রিঙ্গল একটি করে উইকেট নেন।


সাকিব আল হাসান   বাংলাদেশ ক্রিকেট   বিসিবি  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন