ইনসাইড পলিটিক্স

গাজীপুর নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্তদের তলব করবেন প্রধানমন্ত্রী


Thumbnail

সম্প্রতি শেষ হয়েছে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন। এই নির্বাচনে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবং আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেতা জাহাঙ্গীর আলমের মা জায়েদা খাতুন জয়ী হয়েছেন। গাজীপুরে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ছিলেন দলের ত্যাগী, পরীক্ষিত নেতা এবং গাজীপুর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লা খান। কিন্তু তিনি পরাজিত হয়েছেন। আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতারাও দলীয় প্রার্থী আজমত উল্লা’র পক্ষে নিবাচনী প্রচারণা, নির্বাচন পরিচালনা, এমনকি সমন্বয়কের দায়িত্বও পালন করেছেন। কিন্তু গাজীপুর সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর নাটকীয় পরাজয় ঘটে। কিন্তু এই পরাজয়ের কারণ কি?- এই নিয়ে সম্প্রতি আওয়ামী লীগের বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন ওঠেছে।

দলের শীর্ষ পর্যায় অর্থাৎ দলীয় সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে আলোচনা করতে গাজীপুর সিটি নির্বাচনের দায়িত্বে থাকা নেতাদের তলব করবেন বলে জানিয়েছে একাধিক সংশ্লিষ্ট সূত্র। সূত্র বলছে, ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক দায়িত্বে রয়েছেন আওয়ামী লীগের একজন জনপ্রিয় নেতা। দলের একজন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদককে ঢাকা বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। গাজীপুর নির্বাচনের ব্যাপারেও দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাকে। এমনকি একজন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্যকেও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের সার্বিক তদারকির সমন্বয়কের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।

সূত্রমতে, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের দায়িত্বে ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেনসহ যারা যারা ছিলেন- তাদেরকে প্রধানমন্ত্রী ডাকবেন। কি হয়েছিল গাজীপুর নির্বাচনে?- এ ব্যাপারে তিনি সবার বক্তব্য শুনবেন। তারপর তিনি সিদ্ধান্ত নেবেন। এছাড়াও গাজীপুর-১ আসন থেকে নির্বাচিত জেষ্ঠ্য মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, গাজীপুর-৫ আসনের সংসদ সদস্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ হাসান রাসেলকেও এ নির্বাচনের ব্যাপারে পর্যবেক্ষণ দিতে ডাকা হতে পারে।

এছাড়াও, গাজীপুর সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গাজীপুর আওয়ামী লীগে একটি শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা হতে পারে বলেও জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের একাধিক সংশ্লিষ্ট সূত্র। আবার অনেকে মনে করছেন, নির্বাচনের আগে শুদ্ধি অভিযান না করে, গাজীপুর আওয়ামী লীগের বিভক্তিকে যেন প্রশমিত করা হয়। সূত্রটি বলছে, দলীয় কোন্দল, বিভক্তির কারণেই গাজীপুরে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয় হয়েছে বলে ইতিমধ্যেই জেনে গেছেন আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী মহল। গতকাল রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আজমত উল্লা খান সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। সাক্ষাতে তিনি গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক দুর্বলতা এবং নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ সবিস্তরে তুলে ধরেছেন।   
  
উল্লেখ্য যে, গাজীপুর আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আজমত উল্লা খান ১৬ হাজারেরও বেশি ভোটে প্রতীকী প্রার্থী জায়েদা খাতুনের কাছে পরাজিত হয়েছেন। জায়েদা খাতুন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এবং আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেতা জাহাঙ্গীর আলমের মা। প্রথমবার বহিস্কৃত হওয়ার আগে জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পদকের দায়িত্বে ছিলেন। সে সময়ে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করে বক্তব্য দেওয়ার কারণে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন। পরে সিটি করপোরেশনের মেয়র পদ থেকেও বহিষ্কৃত হন। সেই থেকেই গাজীপুর আওয়ামী লীগ দ্বিধা-বিভক্ত হয়ে পড়ে। 

সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পরাজয়ে গাজীপুর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দ্বিধা-বিভক্তিকেই মূল কারণ হিসেবে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তবে আওয়ামী লীগের অনেক নেতাই বলছেন,গাজীপুরের পাঁচটি সংসদীয় আসনই আওয়ামী লীগের দখলে। গাজীপুর থেকে আওয়ামী লীগের দুজন মন্ত্রীও রয়েছেন। এইসব আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্য, মন্ত্রীরা আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে বিজয়ী করতে কি করেছেন? - এটাই প্রশ্ন। গাজীপুর সিটি নির্বাচন বিষয়ে এইসব আসনের সংসদ সদস্য, মন্ত্রীদেরকেও দলীয় সভাপতির দপ্তরে তলব করা প্রয়োজন।

গাজীপুর নির্বাচন   প্রধানমন্ত্রী  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করলেন ওবায়দুল কাদের

প্রকাশ: ০৩:৪৭ পিএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

দেশের চলমান নানা পরিস্থিতি নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেছেন আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। বৈঠকে দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সভাপতিত্ব করেন। এছাড়া ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ সহযোগী সংগঠনের শীর্ষ নেতারাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের কনফারেন্স কক্ষে এই বৈঠক হয়। 

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কামরুল ইসলাম, মির্জা আজম, বাহাউদ্দিন নাছিম, মাহবুবুল হক হানিফসহ শীর্ষ নেতারা। এছাড়া ছাত্রলীগ-যুবলীগসহ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সভাপতি-সম্পাদক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, সাড়ে ১০টার দিকে এই কার্যালয়ে আসেন ওবায়দুল কাদের। সাধারণত কার্যালয়ের নিচের কক্ষে বৈঠক হলেও আজকের বৈঠকটি কনফারেন্স কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রুদ্ধদ্বার বৈঠক   ওবায়দুল কাদের   আওয়ামী লীগ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

অপশক্তিকে ছাড় দেওয়া হবে না, আন্দোলনের কুশীলব বিএনপি-জামায়াত: কাদের

প্রকাশ: ০৩:৪৭ পিএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার ইস্যুতে চলমান আন্দোলনে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা রয়েছে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, আন্দোলনকারীদের জবাব দিতে ছাত্রলীগসহ স্বাধীনতার পক্ষের সবাই প্রস্তুত আছেন। সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের উল্লেখ করেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে সরকারবিরোধী আন্দোলনের প্রচেষ্টা চলছে এবং এতে বিএনপির সমর্থন ও সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। গতকাল রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশের অস্তিত্বকে আঘাত করে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী স্লোগান দিয়ে এ আশঙ্কা প্রমাণিত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, “এ দেশের মাটিতে রাজাকারের জায়গা নেই, প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্য যথার্থ। পরাজিত শক্তির আস্ফালন মেনে নেওয়া হবে না। যারা দেশের গৌরবকে অস্বীকার করে রাজাকার পরিচয় দেয়, তারা কিভাবে নিজেদের মেধাবী পরিচয় দেয়?”

কাদের সতর্ক করে বলেন, রাজাকারের চেতনা ধারণকারীরাও রাজাকার। আত্মস্বীকৃত রাজাকারদের জবাব ছাত্রলীগই দেবে।

 তিনি আরও বলেন, অপশক্তিকে ছাড় দেওয়া হবে না। আন্দোলনের কুশীলব বিএনপি-জামায়াত। সরকারের বিরুদ্ধে আল্টিমেটাম দেওয়া দৃষ্টতা। কোটা সংস্কার নিয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। জনদুর্ভোগ মেনে নেওয়া হবে না। কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের জবাব দিতে ছাত্রলীগসহ স্বাধীনতার সপক্ষের সবাই প্রস্তুত।



ওবায়দুল কাদের   কোটা আন্দোলন   বিএনপি-জামায়াত  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ভেসে যাবে সরকার: রিজভী

প্রকাশ: ১২:৫১ পিএম, ১৫ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

কোটা সংস্কারের দাবিতে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের স্রোতে সরকার ভেসে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। সোমবার (১৫ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর মগবাজারে কারাবন্দি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের আহ্বায়ক খন্দকার এনামুক হক এনামের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি।

এসময় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনের বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অহেতুক মন্তব্য করেছেন। ঢালাওভাবে আন্দোলকারী শিক্ষার্থীদের ‘রাজাকারের নাতি’ বলে নিন্দা করেছেন।

‘রাগ করে ২০১৮ কোটা বাতিল করেছি- প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্য প্রমাণ করে তিনি সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন, শপথ ভঙ্গ করেছেন। দেশের আদালত আজ প্রধানমন্ত্রীর শাড়ির আঁচলে বন্দি’ বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

শিক্ষার্থীদের ওপর ছাত্রলীগকে সরকার লেলিয়ে দিয়েছে অভিযোগ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘এ আন্দোলনে ক্ষমতাসীনরা ভেসে যাবে, তাদের সিংহাসন উড়ে যাবে।’

গণতন্ত্র ফিরে না আসা পর্যন্ত বিএনপি রাজপথে থাকবে বলেও জানান রুহুল কবির রিজভী। 


বিএনপি   রাজনীতি   রুহুল কবির রিজভী   আন্দোলন  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

হাসপাতালে খালেদা জিয়া, দেখতে আসেনি পরিবারের কেউ

প্রকাশ: ১২:৫৬ পিএম, ১৪ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

সাত দিন ধরে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তার শারীরিক অবস্থার তেমন কোনও উন্নতি হয়নি বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বিএনপির নেতারা বলছেন, বারবার অসুস্থ হয়ে পড়ার কারণে দলীয় প্রধান খালেদা জিয়াকে গত কয়েক মাসে একাধিকবার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। টানা ১০ দিনের বেশি সময় হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে গত ২ জুলাই বাসায় নিয়ে আসা হয় তাকে। কিন্তু ৫ দিনের ব্যবধানে আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে ৮ জুলাই ভোর রাতে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে আবারও হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। এখন পর্যন্ত তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে তাকে দেখতে দুই সন্তানের পরিবারের কেউ দেশে আসেনি। তবে নিয়মিত পরিবারের সদস্যরা ভার্চুয়ালি তার চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যের খোঁজ-খবর নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

খালেদা জিয়ার দুই সন্তান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরিবার ও ছোট ছেলে প্রয়াত আরাফত রহমান কোকোর পরিবার লন্ডনে থাকেন। খালেদা জিয়া কারাগারে থাকাকালে এবং বিভিন্ন সময় অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে থাকলে তাকে দেখতে দেশে আসতেন কোকোর স্ত্রী ও দুই মেয়ে। এবার এখন পর্যন্ত তাদের কেউ দেশে আসেনি।


হাসপাতাল   খালেদা জিয়া   দেশে   পরিবার  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড পলিটিক্স

‘কোটা নিয়ে সংসদে বিল আনা হলে জাতীয় পার্টি ভূমিকা রাখবে’

প্রকাশ: ১১:২৪ এএম, ১৪ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু বলেছেন, শিক্ষার্থীদের কোটা বাতিল আন্দোলনের যৌক্তিকতা আছে। কোটা যেভাবে আছে তা চলতে পারে না। সংসদে বিল আনা হলে জাতীয় পার্টি ভূমিকা রাখবে। রোববার (১৪ জুলাই) রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

সময় সরকারের সমালোচনা করে চুন্নু বলেন, বর্তমান সরকারের ব্যর্থতায় দুর্নীতির বিস্তার হয়েছে দেশে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের কোটা বাতিল আন্দোলনের যৌক্তিকতা আছে। কোটা যেভাবে আছে তা চলতে পারে না। সংসদে বিল আনা হলে জাতীয় পার্টি ভূমিকা রাখবে।

এদিকে সরকারি চাকরিতে সব গ্রেডে সর্বোচ্চ শতাংশ কোটা রেখে, বাকি কোটা বাতিল করে সংসদে আইন পাসের এক দফা দাবিতেবৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ব্যানারেশিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন।

গত জুলাই প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ছয় বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সরকারি চাকরির প্রথম দ্বিতীয় শ্রেণিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা পদ্ধতি বাতিলের সিদ্ধান্ত অবৈধ ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেয়া রায় আপাতত বহাল রাখার নির্দেশ দেন। পরে ১০ জুলাই হাইকোর্টের দেয়া রায়ে চার সপ্তাহের জন্য স্থিতাবস্থা দেন আপিল বিভাগ।

এর আগে ২০১৮ সালের অক্টোবর সরকারি চাকরিতে প্রথম দ্বিতীয় শ্রেণির পদে সরাসরি নিয়োগে বিদ্যমান কোটা পদ্ধতি তুলে দিয়ে পরিপত্র জারি করেছিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।


কোটা   সংসদ   বিল   জাতীয়   পার্টি   ভূমিকা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন