ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্টে ‘ওমিক্রনে’ উপসর্গ অতি মৃদু

প্রকাশ: ১০:০১ এএম, ২৯ নভেম্বর, ২০২১


Thumbnail করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্টে ‘ওমিক্রনে’ উপসর্গ অতি মৃদু

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) মতে ‘উদ্বেগজনক’ ভ্যারিয়েন্ট বলে স্বীকৃতি পাওয়া করোনার নতুন দক্ষিণ আফ্রিকান ধরনটি নিয়ে বিশ্বজুড়ে শুরু হয়েছে চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা। মারাত্মক এই সংস্করণটি যাতে দ্রুত ছড়িয়ে না পড়ে সে জন্য বিশ্বের অনেক দেশের মত আমাদের দেশেও নেওয়া হয়েছে নানা সতর্কতামূলক ব্যবস্থা। তবে সবচেয়ে চিন্তার বিষয় হল ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত রোগীদের শরীরে তেমন উপসর্গ দেখা যায় না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার ধরনগুলোর মধ্যে ওমিক্রন সবচেয়ে বেশি মিউটেট (রূপান্তর) হয়েছে।

করোনার নতুন এই সংস্করণটি মূলত ছড়িয়ে পড়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা হতে। রোগীর দেহে নতুন এই সংস্করণটি সবার প্রথম সন্দেহ করেন এবং পরীক্ষার মাধ্যমে তা নিশ্চিত হন দক্ষিণ আফ্রিকার মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান ডা. অ্যাঞ্জেলিক কোয়েটজি।

ডা. অ্যাঞ্জেলিক কোয়েটজি রয়টার্সকে বলেন, ‘আমার কাছে চিকিৎসা নেওয়া বেশকিছু ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত রোগীর শরীরে মৃদু উপসর্গ দেখেছি। হাসপাতালে ভর্তি ছাড়াই তারা বাড়িতে থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠছেন।’

তিনি বলেন, ‘গত ১৮ নভেম্বর আমার ক্লিনিকের সাতজন রোগীর মধ্যে অপরিচিত উপসর্গ ছিল। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ধরনের থেকে যার পার্থক্য খুবই কম। ওইদিন একজন রোগী আমাকে অত্যন্ত ক্লান্তি অনুভব করার কথা জানান। তার শরীরে ও মাথায় হালকা ব্যথা অনুভব করছেন বলেও উল্লেখ করেন।’

ডা. কোয়েটজি বলেন, ‘রোগীদের মধ্যে যে উপসর্গ ছিল, তা সাধারণ ভাইরাল সংক্রমণের সঙ্গে সম্পর্কিত। তবে যেহেতু আমরা বিগত ৮-১০ সপ্তাহ করোনার সংক্রমণ সেভাবে পরীক্ষা করে দেখিনি, তাই তাৎক্ষণিক আমরা তাদের নমুনা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। তাতে ওই রোগী এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের পজিটিভ রিপোর্ট আসে।’

তিনি আরও বলেন, ‘একই দিনে আমরা একই উপসর্গের আরও কিছু রোগী পেয়েছিলাম। তখনি আমরা ভেবেছিলাম, ভিন্ন কোনও কিছু দেখতে যাচ্ছি আমরা। সেদিন আমি নতুন এ ধরনে সংক্রমিত দুই থেকে তিনজন রোগী দেখেছিলাম।’

অ্যাঞ্জেলিক কোয়েটজি বলেন, ‘ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগীদের বেশিরভাগই পুরুষ, যাদের বয়স ৪০ বছরের নিচে। আক্রান্ত পুরুষদের মধ্যে অর্ধেকই করোনা টিকার পূর্ণ ডোজ নিয়েছেন। তরুণ রোগীদের ক্ষেত্রে ওমিক্রন খুবই অস্বাভাবিক হয়ে উঠতে পারে। তাদের সতর্ক হওয়া জরুরি।’

তিনি বলেন, ‘করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের সময়ে আমরা অসংখ্য ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমিত রোগী দেখেছিলাম। তবে নতুন এ ধরনটি ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ক্লিনিক্যাল যে চিত্র, তার সঙ্গে তেমন মিল নেই। ওমিক্রন আক্রান্তদের অধিকাংশই অতি মৃদু উপসর্গে ভুগছেন। আক্রান্তদের পেশীতে মৃদু ব্যথা, গলায় খুসখুস ভাব এবং শুকনো কাশি হচ্ছে। অল্প কয়েকজনের শরীরের তাপমাত্রা সামান্য বেশি পাওয়া গেছে।’

দক্ষিণ আফ্রিকার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব কমিউনিক্যাবল ডিজিজ (এনআইসিডি) জানিয়েছে, দেশটির কয়েকটি ল্যাবরেটরিতে গত ১৪ নভেম্বর থেকে ১৬ নভেম্বর সময়ের মধ্যে সংগ্রহ করা নমুনায় ওমিক্রন ধরনটি শনাক্ত হয়। যাচাই শেষে ২৫ নভেম্বর নতুন ধরন হিসেবে নিশ্চিত হওয়া যায়।



মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

নির্বাচনে থাকা নিয়ে প্রথমবারের মতো স্পষ্ট ইঙ্গিত দিলেন বাইডেন

প্রকাশ: ০৪:৪৩ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়টি আবারও বিবেচনা করবেন বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) এক সাক্ষাৎকারে এ তথ্য জানিয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট বাইডেন।  

কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি সহানুভূতিশীল সংবাদমাধ্যম বেট-কে মঙ্গলবার দেয়া সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেন, 'আমার শারীরিক অবস্থার যদি অবনতি ঘটে এবং চিকিৎসকরা বলেন- আপনার এই সমস্যা আছে, ওই সমস্যা আছে….তাহলে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াব।' খবর সিএনবিসির। 

এই প্রথম নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিলেন ৮১ বছর বয়সী যুক্তরাষ্ট্রের এই প্রেসিডেন্ট। আর এই সাক্ষাৎকার দেয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তার প্রেস সেক্রেটারি ক্যারিন জিন পিয়েরে হোয়াইট হাউসে এক ব্রিফিংয়ে জানান, বাইডেন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং এই মুহূর্তে মৃদু উপসর্গে ভুগছেন। চলতি বছরের নভেম্বরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে। সেই নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট পার্টির প্রার্থী জো বাইডেনের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক প্রেসিডেন্ট ৭৮ বছর বয়সী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছেন।

বয়সজনিত কারণে ডেমোক্রটিক পার্টির অনেকেই প্রকাশ্যে-অপ্রকাশ্যে বাইডেনকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে আসছেন। অতি সম্প্রতি ডেমোক্রেটিক পার্টির সিনেটর এবং বাইডেনের বিশেষ আস্থাভাজন অ্যাডাম শ্চিফও তাকে ‘নির্বাচনের মশাল অন্যের হাতে তুলে দেয়ার’ আহ্বান জানিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে সাক্ষাৎকারে এক প্রশ্নের উত্তরে বাইডেন বলেন, 'আমি (প্রার্থিতা) সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এত কিছু ভাবিনি। আমার ধারণাতেও ছিল না যে এই ব্যাপারটি নিয়ে (দলের ভেতর) এই মাত্রার দ্বিধা-বিভক্তির সৃষ্টি হবে।'


নির্বাচন   যুক্তরাষ্ট্র   জো বাইডেন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

যুক্তরাষ্ট্রের বিধিনিষেধ, চিপ কোম্পানিগুলোর শেয়ারের পতন

প্রকাশ: ০৪:১৮ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাষ্ট্রের বিধিনিষেধ চীনের সেমিকন্ডাক্টর সরঞ্জাম রপ্তানির ওপর আরও কঠোর হতে পারে এমন খবরে বিশ্বব্যাপী চিপ কোম্পানিগুলোর শেয়ারের পতন শুরু হয়েছে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মন্তব্যের কারণে তাইওয়ানের সবচেয়ে বড় চিপ কোম্পানি টিএসএমসির শেয়ারের দাম কমতে শুরু করেছে। ট্রাম্প বলেছেন, তাইওয়ানের প্রতিরক্ষার জন্য দেশটির উচিত যুক্তরাষ্ট্রকে অর্থ দেওয়া।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রযুক্তি কোম্পানি নাসডাকের সূচক বুধবার শেষের দিকে ২ দশমিক ৭ শতাংশ কমেছে। ইউরোপ এবং এশিয়াতেও চিপ কোম্পানিগুলোর শেয়ারের দাম কমতে দেখা গেছে। টেকনালাইসিস রিসার্চের প্রধান বিশ্লেষক বব ও’ডোনেল বলেছেন, নির্বাচনের ফলাফল যাই হোক না কেন, আমি মনে করি আমরা যুক্তরাষ্ট্রে কিছু বিধিনিষেধ বাড়াতে দেখব। যদিও তারা এটাকে কতদূর নেবে এটাই বড় প্রশ্ন।

বৃহস্পতিবার এশিয়ায় তাইওয়ানের সবচেয়ে বড় চিপ কোম্পানি টিএসএমসির শেয়ারের প্রায় তিন শতাংশ লেনদেন কমেছে। অপরদিকে সেমিকন্ডাক্টর সরঞ্জাম প্রস্তুতকারক টোকিও ইলেক্ট্রনের লেনদেন কমেছে প্রায় ৯ দশমিক ৫ শতাংশ। বুধবার নিউইয়র্কে এনভিডিয়ার লেনদেন কমেছে ৬ দশমিক ৬ শতাংশ এবং এএমডির শেয়ারের লেনদেন ১০ শতাংশেরও বেশি কমেছে। এছাড়া ইউরোপে এএসএমএল-এর লেনদেন কমেছে প্রায় ১১ শতাংশ।

তাইওয়ানের সবচেয়ে বড় সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড টিএসএমসি। এটি চুক্তিভিত্তিতে বিশ্বের অনেক কোম্পানির জন্য চিপ তৈরি করে। অ্যাপল ও এনভিডিয়ারের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চিপ সরবরাহকারী কোম্পানি টিএসএমসি। বুধবার সকালে তাদের শেয়ারের দাম কমেছে প্রায় ২ শতাংশ।

১৯৮৭ সালে প্রতিষ্ঠিত চিপ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানটি এখন শীর্ষদের তালিকায় থেকে প্রযুক্তি উদ্ভাবনের কাজ করছে। বিশ্বের বৃহত্তম চুক্তিভিত্তিক চিপ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানটি একই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান এবং চীনে তাদের ব্যবসা-বাণিজ্যের সর্বোচ্চ সম্প্রসারণ নীতি চালিয়ে যাচ্ছে।

বুধবার ব্লুমবার্গের একটি প্রতিবেদনের পরই বিভিন্ন দেশে চিপ কোম্পানির শেয়ারের পতন শুরু হয়। ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়, মার্কিন সরকার চীনের সেমিকন্ডাক্টর কোম্পানির ওপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। যদিও এএসএমএল এবং টোকিও ইলেক্ট্রনের মতো সংস্থাগুলো দেশটিকে উন্নত চিপ প্রযুক্তি সরবরাহ করতে থাকে। তবে এ বিষয়ে ওই দুই কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের কাছ থেকে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

বাইডেন প্রশাসন এর আগে উন্নত চিপ প্রযুক্তিতে চীনের হস্তক্ষেপে সীমাবদ্ধতা আনার পদক্ষেপ নেয়। গত অক্টোবরে এটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) প্রযুক্তিতে ব্যবহৃত উন্নত সেমিকন্ডাক্টর রপ্তানিতে সীমাবদ্ধতা আরোপ করে। বিশ্বের বেশিরভাগ উন্নত চিপ উত্পাদন করে থাকে তাইওয়ান।

মেমরি চিপ প্রযুক্তি কোম্পানি নিউমোন্ডার এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্কো মেজগার বলেন, বিনিয়োগকারীরা সব সময়ই যুক্তরাষ্ট্রের যেকোনো মন্তব্যে প্রতিক্রিয়া জানায়। কিন্তু এ ধরনের মন্তব্যের পরেও সেমিকন্ডাক্টর শিল্পের দীর্ঘমেয়াদী ব্যবসায়িক প্রবণতা স্পষ্টতই বেড়েই চলেছে।

ব্লুমবার্গ বিজনেস উইককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, আমি তাইওয়ানের মানুষদের ভালো করে জানি। তাদের প্রতি আমার শ্রদ্ধা আছে। তারা আমাদের চিপ ব্যবসার ১০০ শতাংশই নিয়ে গেছেন। আমি মনে করি, তাইওয়ানের উচিত প্রতিরক্ষার জন্য আমাদের অর্থ দেওয়া। আপনারা জানেন, একটি বিমা কোম্পানির সঙ্গে আমাদের কোনো পার্থক্য নেই। তাইওয়ান আমাদের কিছুই দেয় না।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের গত ২৫ জুনের ওই সাক্ষাৎকার প্রকাশ করা হয়েছে গত মঙ্গলবার। আধুনিক চিপ তৈরিতে টিএসএমসি বেশ এগিয়ে রয়েছে। তাদের তৈরি চিপ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা থেকে শুরু করে স্মার্টফোন ও যুদ্ধবিমানেও ব্যবহার করা হচ্ছে। বিশ্লেষকেরা মনে করেন, তাইওয়ানকে ঘিরে কোনো সংঘাত হলে তা বিশ্ব অর্থনীতিকে বেকায়দায় ফেলবে।

তাইওয়ানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক সমর্থক হলো যুক্তরাষ্ট্র। পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্র দেশটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র সরবরাহকারীও। কিন্তু দুই দেশের মধ্যে আনুষ্ঠানিক কোনো প্রতিরক্ষা চুক্তি নেই। অপরদিকে তাইওয়ানকে নিজেদের ভূখণ্ড বলে দাবি করে আসছে চীন। অন্যদিকে এই দাবি অস্বীকার করে আসছে তাইওয়ান। বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই উত্তেজনা চলছে।


যুক্তরাষ্ট্র   বিধিনিষেধ   চিপ কোম্পানি   শেয়ার পতন  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ হাসপাতালে

প্রকাশ: ০৩:৪৮ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

মালয়েশিয়ার প্রায় শত বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদকে অসুস্থতাজনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ‘অনবরত কাশতে থাকায়’ তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয় বলে আজ বৃহস্পতিবার মাহাথিরের সহযোগী সুফি ইউসুফ বার্তা সংস্থা এএফপিকে জানান। 

সুফি ইউসুফ বলেন, গত সোমবার মাহাথিরকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আগামী কয়েক দিন তাকে চিকিৎসা নিতে হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইতোমধ্যে মালয়েশিয়ার দুবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথিরের বয়স গত সপ্তাহে ৯৯ বছর পূর্ণ হয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোয় মাহাথির হৃদ্যন্ত্রের বিভিন্ন জটিলতায় ভুগছেন। করতে হয়েছে বাইপাস সার্জারি।

এর আগে চলতি বছরের শুরুতে মাহাথির প্রায় তিন মাস হাসপাতালে ছিলেন।

মাহাথির মোহাম্মদের জন্ম ১৯২৫ সালের ১০ জুলাই। তিনি ১৯৮১ সালে প্রথমবারের মতো মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হন। ২০০৩ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এরপর ২০১৮ সালে ৯২ বছর বয়সে দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হন তিনি। ২০২০ সাল পর্যন্ত তিনি এ দায়িত্ব পালন করেছেন।


মালয়েশিয়া   সাবেক প্রধানমন্ত্রী   মাহাথির মোহাম্মদ  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ট্রাম্পের হয়ে এবার নির্বাচনের মাঠে তার নাতনি কাই ট্রাম্প

প্রকাশ: ০৩:২৭ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

বুধবার রাতে ১৭ বছরের এক কিশোরী রিপাবলিকান দলের জাতীয় সম্মেলনে জানান, রিপাবলিকান দলের জাতীয় সম্মেলনে কথা বলতে পেরে আমি দারুণ সম্মানিত বোধ করছি। তখন পুরো সম্মেলনকক্ষ হাততালি দিয়ে ওঠে।

সম্মেলনে কথা বলা ওই কিশোরীর নাম কাই ট্রাম্প। রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় ছেলে ডোনাল্ড ট্রাম্প জুনিয়রের বড় মেয়ে। 

বুধবার (১৭ জুলাই) রাতে সম্মেলনে উপস্থিত প্রতিনিধি এবং দেশজুড়ে টেলিভিশন দর্শকদের সামনে কাই শুরুতেই বলে, ‘আজ আমি আমার দাদার কথা আপনাদের জানাব, যে দিকটা মানুষ খুব একটা দেখতে পায় না।’ 

কাই বলেন, ‘আমার জন্য তিনি আর সব দাদার মতোই। বাবা-মায়ের চোখ এড়িয়ে তিনি আমাকে ক্যান্ডি ও সোডা খেতে দেন। তিনি সব সময় আমরা স্কুলে কেমন করছি, সেটা জানতে চান। আমি যখন স্কুলে খুব ভালো ফলাফল করি, তিনি তাঁর বন্ধুদের কাছে সেই গল্প করেন। তিনি আমার জন্য কতটা গর্বিত, সেটাও বলেন।’

ট্রাম্প মানসিকভাবে কতটা শক্ত, তার বর্ণনা দিতে কাই বলে, অনেক মানুষ তার দাদাকে অনেক বেদনা ও যন্ত্রণা দিয়েছেন এবং তার দাদা এরপরও মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছেন।

কাই বলে, ‘দাদা, আপনি একজন অনুপ্রেরণাদায়ী মানুষ এবং আমি আপনাকে ভালোবাসি। গণমাধ্যম আমার দাদাকে অন্য মানুষ হিসেবে উপস্থাপন করে। কিন্তু আমি জানি, তিনি কেমন। তিনি খুবই ভালো মানুষ। তিনি সত্যিই এই দেশের ভালো চান এবং আমেরিকাকে আবারও মহান করার জন্য প্রতিটি দিন যুদ্ধ করে যাবেন।’

ট্রাম্পের ১০ নাতি-নাতনির মধ্যে সবার বড় কাই। সে ট্রাম্প জুনিয়র ও তার সাবেক স্ত্রী ভেনেসা ট্রাম্পের মেয়ে।

কাই গলফ খেলতে খুবই পছন্দ করে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও সে সক্রিয়। ইউটিউবে তার পেজ আছে। যেখানে গলফের প্রতি তার আগ্রহ ও ভালোবাসার প্রকাশ দেখা যায়।


রিপাবলিকান দল   ডোনাল্ড ট্রাম্প   কাই ট্রাম্প  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

আজ নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন

প্রকাশ: ০২:৩৯ পিএম, ১৮ জুলাই, ২০২৪


Thumbnail

বর্ণবাদের বিরুদ্ধে মানুষের মুক্তির জন্য আজীবন লড়াই করে যাওয়ার এক কিংবদন্তীর নাম নেলসন ম্যান্ডেলা। আজ ১৮ জুলাই আশা ও ঐক্যের আরেক নাম নেলসন ম্যান্ডেলার জন্মদিন। তিনি সর্বকালের শ্রেষ্ঠ নেতাদের মধ্যে একজন বলে বিশ্বের মানুষের কাছে পরিচিত। নেলসন ম্যান্ডেলা তার জীবনের দীর্ঘ ২৭ বছর কাটিয়েছেন কারাগারে। পাড়ি দিয়েছেন হাজারো ঝড়-ঝঞ্ঝা। 

১৯৬২ সালে ম্যান্ডেলাকে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদী সরকার গ্রেপ্তার করে। তিনি ২৭ বছর কারাজীবনের ১৮ বছরই ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কুখ্যাত রোবেন দ্বীপের কারাগারে বন্দি। 

প্রায় তিন দশক পর ১৯৯০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারিতে কারাগার থেকে মুক্ত পান তিনি। পরে ১৯৯৪ সালের এই দিনে দক্ষিণ আফ্রিকার গণতান্ত্রিক নির্বাচনে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হন এই অবিসংবাদিত নেতা। ন্যায়ের প্রতি অসামান্য অবদান রাখা এই নেতার আজ জন্মদিন। 

বর্ণবাদবিরোধী অবিসংবাদিত এই নেতা ১৯১৮ সালের ১৮ জুলাই দক্ষিণ আফ্রিকায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। ২০০৯ সালে এই বিশেষ দিনকে ‘আন্তর্জাতিক নেলসন ম্যান্ডেলা দিবস’ হিসেবেও ঘোষণা করে জাতিসংঘ।

এছাড়া একই দিনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন ইংরেজ দার্শনিক ও স্থপতি রবার্ট হুক। ১৬৬০ সালে বিজ্ঞানী হুক পদার্থের স্থিতিস্থাপকতার সূত্র আবিষ্কার করেন। এটি হুকের সূত্র নামে পরিচিত। 

২০১৩ সালের ৫ ডিসেম্বর গোটা দুনিয়ার কোটি কোটি ভক্তকে ছেড়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান এ কিংবদন্তী। এ সময় তার বয়স ছিল ৯৫।


নেলসন ম্যান্ডেলা   জন্মদিন   দক্ষিণ আফ্রিকা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন