কালার ইনসাইড

তাদের কিসের এত ভয়?

প্রকাশ: ১১:৪৬ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail তাদের কিসের এত ভয়?

গেল দুই দিন ধরে বেশ আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে নিয়ে। মন্ত্রীত্ব গ্রহণের পর থেকেই নানা সময় নানা অনুষ্ঠানে  বিভিন্ন বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। কখনও বিরোধী দলের নেতাকর্মী নিয়ে আবার কখনওবা চলচ্চিত্র জগতের লোকদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করছেন।

সম্প্রতি নায়িকা মাহির সাথে এক ফোন আলাপ ফাঁস হওয়াতে নেট দুনিয়া থেকে শুরু করে সর্বস্তরে সমালোচনার ঝড় উঠে তাকে নিয়ে। এক ফোন কলের আলাপচারিতাই কাল হলো তার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া  অডিও ক্লিপটিতে যেকথা বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। অপর প্রান্তে ছিলেন চিত্রনায়ক ইমন ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি।

ফাঁস হওয়া ওই কথোপকথনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। পুরো বক্তব্যে ‘অশ্রাব্য’ কিছু শব্দ উচ্চারিত হয়েছে। বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’। তবে এ নিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী কিংবা মাহিয়া মাহির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

অডিও ক্লিপটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে সর্বস্তরে প্রতিবাদ লক্ষ করা যায়। তবে বিষয়টি নিয়ে তেমন সরব ছিলেন না শোবিজের অনেক তারকাই

চুপ ছিলেন। এমনকি চলচ্চিত্রের বিভিন্ন সংগঠনও। শুধু তাই নয় যেই দুই জন শিল্পীকে নিয়ে ঘটনা তাদের নিয়েও কোন বিবৃতি পাওয়া যায়নি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি থেকে।

এদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খবরটি পৌঁছালে তিনি প্রতিমন্ত্রীকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। আর এরপর থেকেই সবাই প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। সেই কাতারে আছেন শোবিজ তারকারাও। এবার প্রশ্ন উঠেছে শোবিজ তারাকাদের নিয়ে শুরুতে কেনো তারা চুপ ছিলেন? কেন তারা কোন প্রতিবাদ করেননি?

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটু চোখ দিলেই দেখা যাচ্ছে সাধারণ জনগণ অনেকেই আঙুল তুলছেন শোবিজ তারাকাদের দিকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ দেয়া অনেক শোবিজ তারকাদের পোস্টে মানুষ কমেন্ট করছেন শুরুতে কেন তারা চুপ ছিলেন?

শুরু এই ঘটনাই নয় প্রায়ই দেখা যায় কোন মন্ত্রী আকলাকে নিয়ে কিছু হলে শুরুতে সবাই চুপ থাকেন কিন্তু পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত আসার পর সবাই ধন্যবাদ জানান। তাহলে শুরুতে কেনো তারা প্রতিবাদ না করে চুপ থাকেন? কিসের এত ভয় তাদের?



মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

কিংবদন্তি অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি'র জন্মবার্ষিকী

প্রকাশ: ১২:০১ পিএম, ২৯ মে, ২০২২


Thumbnail কিংবদন্তি অভিনেতা হুমায়ুন ফরীদি'র জন্মবার্ষিকী

মঞ্চনাটকে অভিনয়ের মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু। এরপর ছোটপর্দা কিংবা বড়পর্দা সব জায়গায় ছড়িয়েছেন আলো। অভিনয়গুণে যিনি কোটি মানুষের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি হুমায়ুন ফরীদি। আমাদের অভিনয় জগতের জাদুকর কিংবা হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালা। কিংবদন্তি এই অভিনেতার জন্মদিন আজ। 

দেখতে দেখতে আট'টি বছর পেরিয়ে গেল। তাকে হারাবার যন্ত্রণা আজও অটুট, আজও সতেজ।

জীবনের রঙ্গমঞ্চ থেকে ৬০ বছর বয়সে গুণী এই মানুষের না ফেরার দেশে চলে যাওয়া কাঁদিয়েছে সবাইকেই। শুধু অভিনয় দিয়েই মানুষকে বিমোহিত করেছিলেন ডাকসাইটে এই অভিনেতা। তাকে বলা হয় অভিনেতাদের অভিনেতা, একজন আদর্শ শিল্পী। তার অভিব্যক্তি, অট্টহাসি, ব্যক্তিত্বের ভক্ত কে না ছিলেন!

তিনি মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন, সনদের প্রয়োজন অনুভব করেননি। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কোন উচ্চবাচ্য ছিলোনা জীবনভর। তার কাছে এ যেন ছিলো, দায়িত্ব পালন শেষে নিজের ঘরে ফেরার মতো বিষয়।

পুরো নাম হুমায়ুন কামরুল ইসলাম ফরীদি (হুমায়ুন ফরীদি)। বাংলাদেশের অভিনয় জগতের সবচে বর্নাঢ্য মানুষ৷ বাংলাদেশের অবিসংবাদিত অভিনেতা তিনি। মঞ্চ, টিভি আর চলচ্চিত্রে এরকম ভার্সেটাইল অভিনেতা একটিও নেই।

সেলিম আল দীনের ‘সংবাদ কার্টুন’-এ একটি ছোট্ট চরিত্রে অভিনয় করে ফরিদী মঞ্চে উঠে আসেন। অবশ্য এর আগে ১৯৬৪ সালে মাত্র ১২ বছর বয়সে কিশোরগঞ্জে মহল্লার নাটক ‘এক কন্যার জনক’-এ অভিনয় করেন। মঞ্চে তার সু-অভিনীত নাটকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘শকুন্তলা’, ‘ফনিমনসা’, ‘কীত্তনখোলা’, ‘মুন্তাসির ফ্যান্টাসি’, ‘কেরামত মঙ্গল’ প্রভৃতি। ১৯৯০ সালে স্ব-নির্দেশিত ‘ভূত’ দিয়ে শেষ হয় ফরীদির ঢাকা থিয়েটারের জীবন।

টিভি নাটকের মধ্যে রয়েছে, নিখোঁজ সংবাদ, হঠাৎ একদিন, পাথর সময়, সংশপ্তক, সমুদ্রে গাংচিল, কাছের মানুষ, মোহনা, নীল নকশাল সন্ধানে, দুরবীন দিয়ে দেখুন, ভাঙ্গনের শব্দ শুনি, কোথাও কেউ নেই, সাত আসমানের সিঁড়ি, সেতু কাহিনী, ভবের হাট, শৃঙ্খল, জহুরা, আবহাওয়ার পূর্বাভাস, প্রতিধ্বনি, গুপ্তধন, সেই চোখ, অক্টোপাস, বকুলপুর কত দূর, মানিক চোর, আমাদের নুরুল হুদা প্রভৃতি।

হুমায়ুন ফরীদি বাণিজ্যিক ধারার চলচ্চিত্রে যেমন অভিনয় করেছেন, তেমনি বিকল্পধারার চলচ্চিত্রেও রেখেছেন কৃতিত্বের স্বাক্ষর। নব্বইয়ের গোড়া থেকেই হুমায়ুন ফরীদির বড় পর্দার জীবন শুরু হয়।

বাণিজ্যিক আর বিকল্প ধারা মিলিয়ে প্রায় ২৫০টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এরমধ্যে প্রথম ছবি তানভীর মোকাম্মেলের ‘হুলিয়া’। এরপর তার অভিনীত সিনেমার মধ্যে ‘সন্ত্রাস’, ‘বীরপুরুষ’, ‘দিনমজুর’, ‘লড়াকু’, ‘দহন,’ ‘বিশ্বপ্রেমিক’, ‘কন্যাদান’ (১৯৯৫), ‘আঞ্জুমান’ (১৯৯৫), ‘দুর্জয়’ (১৯৯৬), ‘বিচার হবে’ (১৯৯৬),‘মায়ের অধিকার’ (১৯৯৬) ‘আনন্দ অশ্র“’ (১৯৯৭), ‘শুধু তুমি’ (১৯৯৭), ‘পালাবি কোথায়’, ‘একাত্তুরের যীশু’, ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’, ‘মিথ্যার মৃত্যু’. ‘বিদ্রোহ চারিদিকে, ‘ব্যাচেলর’ (২০০৪), ‘জয়যাত্রা’, ‘শ্যামল ছায়া’ (২০০৪), ‘রূপকথার গল্প’ (২০০৬), ‘আহা!’ (২০০৭), ‘প্রিয়তমেষু’ (২০০৯) প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

ব্যক্তিগত জীবনে হুমায়ুন ফরিদী দুবার বিয়ে করেন। প্রথম বিয়ে করেন ১৯৮০'র দশকে। 'দেবযানী' নামের তার এক মেয়ে রয়েছে এ সংসারে। পরবর্তীতে বিখ্যাত অভিনেত্রী সুবর্ণা মোস্তফাকে তিনি বিয়ে করলেও তাদের মধ্যেকার বিবাহ-বিচ্ছেদ ঘটে ২০০৮ সালে।

এদিকে, মৃত্যুর ছয় বছরপর ২০১৮ সালে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় সম্মান দেয় এ অভিনেতাকে। মরণোত্তর একুশে পদক দিয়ে সম্মাননা জানানো হয় হুমায়ুন ফরীদিকে।

কিংবদন্তি   অভিনেতা   হুমায়ুন ফরীদি   জন্মবার্ষিকী  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

সেলফি পয়েন্টের উদ্বোধন করলেন নুসরাত

প্রকাশ: ১১:৪২ এএম, ২৯ মে, ২০২২


Thumbnail সেলফি পয়েন্টের উদ্বোধন করলেন নুসরাত

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার টাকি পর্যটন কেন্দ্রে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের ইছামতির তীরে সেলফি পয়েন্টের উদ্বোধন করলেন বসিরহাটের তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ নুসরাত জাহান।

শনিবার (২৮ মে) বিকালে টাকিতে আসেন এই টলিউড অভিনেত্রী ও সাংসদ।

প্রথমে নবনির্মিত টাকি পুরো বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে বসেন নুসরাত জাহান। বৈঠক শেষে এদিন বিকেল সাড়ে চারটা নাগাদ ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের টাকি ইছামতীর পশ্চিম তীরে সেলফি পয়েন্টের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে হাজির হন তিনি।

এসময় সেখানে বসিরহাট দক্ষিণ কেন্দ্রের তৃণমুল বিধায়ক সপ্তর্ষি ব্যানার্জির উপস্থিতিতে বিধায়ক ও সাংসদ পায়রা উড়িয়ে সেলফি পয়েন্টের উদ্বোধন করেন। সেলফি পয়েন্টে দাঁড়িয়ে মোবাইল নিয়ে নিজেই সেলফিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন নুসরাত। তিনি বলেন, সবার কাছেই এখন স্মার্ট ফোন আসে, যারা বিকালে টাকিতে ঘুরতে আসবে সবাই সেলফি তুলবে। যত বেশি সেলফি তুলবে তত বেশি টাকির নাম ছড়িয়ে পড়বে।

সেলফি পয়েন্ট   উদ্বোধন   নুসরাত   ভারত  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

প্রথমবার কান উৎসবে পুরস্কার জিতল পাকিস্তানের সিনেমা

প্রকাশ: ০৫:৫৭ পিএম, ২৮ মে, ২০২২


Thumbnail প্রথমবার কান উৎসবে পুরস্কার জিতল পাকিস্তানের সিনেমা

প্রথমবার কান চলচ্চিত্র উৎসবের মতো বিশ্বমঞ্চে স্থান করে নিয়েছে পাকিস্তানি ছবি। তরুণ নির্মাতা সায়েম সাদিকের ‘জয়ল্যান্ড’ যেন পাকিস্তানিদের আনন্দে ভাসাল।

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাতে পালে দে ফেস্টিভাল ভবনের সাল ডুবুসিতে ‘আঁ সার্তে রিগা’ বিভাগের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এই বিভাগে জুরি প্রাইজ জিতে নেয় পাকিস্তানের ছবি ‘জয়ল্যান্ড’। নাম ঘোষণার পরপরই সায়েম সাদিককে অভিনন্দন জানানোর হিড়িক পড়ে যায়।  

বাংলাদেশি নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীও ফেসবুকে সায়েম সাদিককে মেনশন করে অভিনন্দন জানান। পাকিস্তানের ‘জয়ল্যান্ড’ ছাড়াও ‘আঁ সার্তে রিগা’ বিভাগে সেরা ছবির পুরস্কার জিতেছে ফ্রান্সের ছবি ‘দ্য ওয়ার্স্ট ওয়ান্স’, পরিচালনা করেছেন লিজ আকোকা ও রোমান গ্যুরে। ‘মেট্রোনম’ ছবির জন্য সেরা পরিচালকের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন আলেকসান্দ্রু বেল্ক।  

ফিলিস্তিনের ছবি ‘মাহা হাজ’-এর জন্য সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার জিতেছেন মেডিটেরানিয়ান ফিভার। বেস্ট পারফর্মারের পুরস্কার জিতে নিয়েছেন ভিকি ক্রিপস (করসেজ) এবং অ্যাডাম বেসা (হারকা)। ফেভারিট অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন রোডিও (লোলা কিভোরন)।

‘জয়ল্যান্ড’ সিনেমাটি পাকিস্তানের লিঙ্গবৈষম্য দূর করার গল্পে নির্মিত। কানে ‘জুরি পুরস্কার’জয়ী এই সিনেমার মতোই গত বছর একই বিভাগে বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো অংশ নেয় আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ পরিচালিত বহুল আলোচিত ছবি ‘রেহানা মরিয়ম নূর’।


কান   চলচ্চিত্র  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

একাত্তরে বিমান ছিনতাই নিয়ে সিনেমা ‘জেকে ১৯৭১’র টিজার প্রকাশ

প্রকাশ: ০৫:২৩ পিএম, ২৮ মে, ২০২২


Thumbnail একাত্তরে বিমান ছিনতাই নিয়ে সিনেমা ‘জেকে ১৯৭১’র টিজার প্রকাশ

প্রকাশ হলো বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে প্রথম আন্তর্জাতিক সিনেমা ‘জেকে ১৯৭১’-এর টিজার। শুক্রবার বিকেলে গড়াই ফিল্মসের ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেইজে টিজারটি প্রকাশ করেন নির্মাতা ফাখরুল আরেফিন খান।  

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের মানুষকে সহায়তার জন্য ফরাসি যুবক জ্যঁ কুয়ে ছিনতাই করেছিলেন ‌পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের [পিআইএ] একটি বিমান। তার দাবি ছিল, বাংলাদেশের স্বাধীনতাকামী মানুষের জন্য ২০ টন ওষুধ ও চিকিৎসাসামগ্রী ওই বিমানে তুলে দিতে হবে এবং তাহলেই কেবল মুক্তি পাবে বিমানের সব যাত্রী।

এই ঘটনা নিয়েই নির্মিত হয়েছে ছবিটি।  ছবিটি নির্মাণ করেছেন ‘ভুবন মাঝি’ ও ‘গণ্ডি’র নির্মাতা ফাখরুল আরেফীন খান। সম্প্রতি সিনেমাটির দৃশ্যধারণ, সম্পাদনা, ডাবিং, কালার কারেকশন, ভিএফএক্সের কাজ শেষে গতকাল প্রকাশ হলো টিজার। জানা গেছে, ধীরে ধীরে ছবির অফিশিয়াল ট্রেলার ও পোস্টার প্রকাশ হবে।  

‘জেকে ১৯৭১’ প্রসঙ্গে পরিচালক ফাখরুল আরেফিন খান বলেন, ‘আমরা প্রথম বিশ্বযুদ্ধের, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের, আফগান যুদ্ধ, এমনকি সোমালিয়ার যুদ্ধ নিয়ে নির্মিত সিনেমা দেখি। কিন্তু আন্তর্জাতিক দর্শকদের দেখানোর জন্য ইংরেজিতে আমাদের দেশের মুক্তিযুদ্ধের কোনো সিনেমা নেই। তাই আমরা এই সিনেমাটি বানানোর সিদ্ধান্ত নিলাম। এরই মধ্যে আমরা ছবির সব কাজ শেষ করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা ছবির টিজার প্রকাশ করলাম। আশা করছি খুব শিগগিরই ছবিটির মুক্তির বিষয়েও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারব। ’

গড়াই ফিল্মসের ব্যানারে নির্মিত ‘জেকে ১৯৭১’ ছবির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন পশ্চিমবঙ্গের সৌরভ শুভ্র দাশ। এ ছাড়া বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অভিনেতা ফ্রান্সিসকো রেমন্ড এবং রাশিয়ান অভিনেত্রী ডেরিয়া গভ্রুসেনকো ও অভিনেতা নিকোলাই নভোমিনাস্কি, পশ্চিমবঙ্গের সব্যসাচী চক্রবর্তী, ইন্দ্রনীলসহ আরো প্রায় ৩৬ জন অভিনয়শিল্পী।



একাত্তর   বিমান   ছিনতাই  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

‘কেজিএফ ৩’এ থাকছেন হৃতিক রোশন!

প্রকাশ: ০৪:৫২ পিএম, ২৮ মে, ২০২২


Thumbnail ‘কেজিএফ ৩’এ থাকছেন হৃতিক রোশন!

‘কেজিএফ: চ্যাপ্টার ২’ সিনেমার নামটি শুনেনি কিংবা এখনো ছবিটি দেখেই এমন লোক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। কন্নড় ভাষায় নির্মিত এই সিনেমাটি গোটা বিশ্বে সুনামি ফেলে দিয়েছে। ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে নতুন অধ্যায় রচনা করছে এটি। ‘কেজিএফ–২’ মুক্তির পর ইতোমধ্যে ১ হাজার ২২৭ কোটি রুপির মেগাক্লাবে প্রবেশ করেছে ছবিটি।

বক্স অফিসে দাপট অব্যাহত রেখেছে কন্নড় ছবিটি। ভারতে ছবিটি দুর্দান্ত ব্যবসা করেছে আগেই। তবে সাত সমুদ্র তেরো নদী পেরিয়ে কানাডাতেও এই প্যান ইন্ডিয়া ছবি এখনো দারুণ ব্যবসা করছে। কানাডা তেলেগু মুভিজের সঙ্গে হাত মিলিয়ে মাইশোর স্টুডিও হাউস কানাডা ‘কেজিএফ–চ্যাপ্টার২’ মুক্তি পেয়েছে দেশটিতে। মুক্তির পর একের পর এক রেকর্ড ভেঙেছে ছবিটি। কানাডার প্রেক্ষাগৃহে সবচেয়ে বেশি দিন ধরে চলেছে প্রশান্ত নীলের ছবিটি। ‘কেজিএফ –২’ প্রথম ছবি, যা কানাডাতে একাধিক শো পেয়েছে। দেশটিতে বিভিন্ন ভাষায় মুক্তি পাওয়া প্রথম ছবিও এটি। এখানেই শেষ নয়, উত্তর আমেরিকার দেশটিতে সবচেয়ে বেশি আয় করা কন্নড় ছবির রেকর্ডও গড়েছে ‘কেজিএফ–২’।

‘কেজিএফ–২’ মুক্তির পর শোনা যাচ্ছে আসবে ‘কেজিএফ ৩’। আর এতে থাকবেন বলিউডের সুপারস্টার অভিনেতা হৃতিক রোশন।

ভারতীয় গণমাধ্যম কইমইডটকম বলছে, ‘কেজিএফ’ প্রোডাকশন হাউজ হাম্বলে ফিল্মসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিজয় কিরাগান্দুর ফ্র্যাঞ্চাইজির তৃতীয় কিস্তি নিয়ে আসতে চান। আর সেখানে হৃতিক রোশন রাখার কথা ভাবা হচ্ছে। ছবিটির দর্শককে স্পেশাল উপহার দিতেই প্রিয় এই তারকার কথা ভাবছেন তিনি।

এ প্রযোজকের বরাতে বলা হয়েছে, ‘কেজিএফ ৩’ এ বছর হবে না। কিছু পরিকল্পনা আছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের। তবে পরিচালক প্রশান্ত নীল এই মুহুর্তে ‘সালার’ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় আপাতত কিছু হচ্ছে না। তবে তারা অনেক চমক নিয়ে হাজির হবে।

‘কেজিএফ ২’- তে যশ ছাড়াও বলিউড অভিনেতা সঞ্জয় দত্ত, রাভিনা ট্যান্ডন এবং শ্রীনিধি শেঠি ছিলেন। প্রশান্ত নীল সিনেমাটি লিখেছেন এবং পরিচালনা করেছেন।


কেজিএফ: চ্যাপ্টার ২   রেকর্ড   সঞ্জয়   যশ   হৃতিক রোশন  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন