ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

ইমরান খানের মূত্রের রিপোর্টে বিষাক্ত কেমিক্যালের উপস্থিতি পাওয়া গেছে, দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

প্রকাশ: ০৭:৫২ পিএম, ২৬ মে, ২০২৩


Thumbnail

পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কাদির প্যাটেল দাবি করেছেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মূত্রের রিপোর্টে বিষাক্ত কেমিক্যালের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। ওই কেমিক্যাল অ্যালকোহল এবং কোকেনের মতো।

এক সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের বর্তমান স্বাস্থ্যমন্ত্রী আব্দুল কাদির এমন দাবি করেছেন। গত ৯ মে ইমরান খানকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর তার মূত্রের নমুনা নেওয়া হয় পরীক্ষার জন্য। এটার রিপোর্ট নিয়ে শুক্রবার এক সম্মেলন করেন পাক স্বাস্থ্যমন্ত্রী। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আব্দুল কাদির প্যাটেল বলেন, পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান খানের মেডিকেল রিপোর্ট জাতির কাছে প্রকাশ করা হবে।  জোর প্রয়োগ করে তিনি বলেন, এটি একটি ‘পাবলিক ডকুমেন্ট’। 

সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ইমরান খানের পায়ে কোনো ফ্র্যাকচার নেই। তার পায়ে পাঁচ থেকে ছয় মাস আগে প্ল্যাস্টার করা হয়েছিল।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আব্দুল কাদির প্যাটেল দাবি করেন, ইমরান খানের মানসিক স্থিতিশীলতা প্রশ্নযোগ্য। তিনি বলেন, ‘এটা হলো তোমাদের প্রধানমন্ত্রী যার সম্পর্কে পাঁচ সদস্যের জ্যেষ্ঠ মেডিকেল চিকিৎসকদের প্যানেল বলছে, তার মানসিক স্থিতিশীলতা প্রশ্নযোগ্য।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেডিকেল রিপোর্ট বলছে, যখন আমরা দীর্ঘ সময় ধরে ইমরান খানের সঙ্গে কথা বলেছি। তার কর্মকাণ্ড মানানসই (ফিট) মনে হয়নি।’ 

ইমরান খান  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

যুক্তরাষ্ট্রে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ের তান্ডবে নিহত ২১

প্রকাশ: ০৯:৪৫ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলের ৪ টি অঙ্গরাজ্যে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ে ৪ শিশুসহ নিহত হয়েছে অন্তত ২১ জন। শনিবার (২৫ মে) এবং রোববার (২৬ মে) সারাদিনে টর্নেডো ও বজ্রঝড়ের তান্ডবে এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলের টেক্সাস ও ওকলাহোমা অঙ্গরাজ্যে আবহাওয়াজনিত কারণে সেখানে প্রতিবছরেই মে মাসে শক্তিশালী টর্নেডো দেখা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের স্টর্ম প্রেডিকশন সেন্টার এক সতর্ক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, এসব অঞ্চলে অতি শক্তিশালী টর্নেডো, ব্যাপক শিলাবৃষ্টি এবং প্রবল ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। এছাড়া বিশাল অঞ্চলের ১০ কোটি ৯০ লাখ বাসিন্দা এসব পরিস্থিতির হুমকির মুখে আছে।

সিএনএন এর এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, শনিবার (২৫ মে) রাতে টেক্সাসের কুক কাউন্টিতে প্রবল ঝড়ে অন্তত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ২ জন শিশু রয়েছে।

রোববার (২৬ মে) টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট জানিয়েছেন, ‘এখানে ঝড়ে প্রায় ১০০ জন আহত হয়েছেন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ঝড়ে আরক্যানসতে অন্তত আটজন নিহত হয়েছেন।’

ওকলাহোমার স্থানীয় কর্মকর্তারা সিএনএনকে জানিয়েছেন, ‘শনিবার রাতে প্রবল ঝড়ে অঙ্গরাজ্যের উত্তরপূর্বাঞ্চলে দুই জন নিহত অন্তত ২৩ জন আহত হয়েছেন।’


যুক্তরাষ্ট্র   টর্নেডো   বজ্রঝড়  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

দিল্লিতে ইন্ডিয়া জোটের বৈঠকে থাকছেন না মমতা

প্রকাশ: ০৯:২৬ এএম, ২৮ মে, ২০২৪


Thumbnail

ভারতে চলছে লোকসভা নির্বাচন। আর এই নির্বাচনে ৫৪৩টি লোকসভা আসনের মধ্যে ছয় দফায় ৪৮৬ আসনে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সপ্তম/ শেষ দফায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১ জুন। এদিন ৫৭টি লোকসভা আসনে ভোটগ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে রয়েছে ৯টি আসন। আর ভোট গণনা করা হবে আগামী ৪ জুন।  

আর শেষ দফায় ভোটের দিনই সর্বদলীয় বৈঠক ডেকেছে বিরোধী দলের জোট ইন্ডিয়া। বৈঠক হবে । ১ জুন দিল্লিতে। ইতোমধ্যেই বিরোধীদলের সমস্ত শরিক দলগুলিকে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়েছে। চলমান নির্বাচনে ইন্ডিয়া জোট ভালো ফল করলে সেক্ষেত্রে জোটের ভূমিকা কি হবে, রণনীতি কি হবে- মূলত সে সমস্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে।  

কংগ্রেসের দাবি ষষ্ঠ দফার ভোট শেষে ইন্ডিয়া জোট ম্যাজিক ফিগার ২৭২ এর লক্ষ্যমাত্রা ছুঁয়েছে, সবমিলিয়ে তারা ৩৫০ আসনে জয় পেতে পারে। কংগ্রেসের অন্যতম সাধারণ সম্পাদক জয় রাম রমেশও দাবি করেছেন ক্ষমতাসীন দলের 'জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট' (এনডিএ)কে সরিয়ে এবার সরকার গঠন করতে চলেছে ইন্ডিয়া জোট।  

কিন্তু আমন্ত্রণ পেলেও ইন্ডিয়া জোটের বৈঠকে হাজির থাকছেন না জোটের অন্যতম শরিক দল তৃণমূল কংগ্রেস প্রধান মমতা ব্যানার্জি। 

সোমবার কলকাতা উত্তর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় সমর্থনে বড় বাজারে একটি নির্বাচনের সভায় উপস্থিত ছিলেন মমতা। সেই সভা থেকেই জোটের বৈঠকে যোগ না দেওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন।  

মমতা বলেন, ১ জুন ইন্ডিয়া জোট বৈঠক ডেকেছে। আমি বলেছি যে ১ তারিখ আমার পক্ষে যাওয়া সম্ভব নয়, কারণ এখানে ৯টা আসনে ভোট রয়েছে। ওইদিন পাঞ্জাব, উত্তর প্রদেশ, বিহারসহ অনেক রাজ্যেও ভোট রয়েছে। আর ভোটের দিন ৬ টার সময় ভোট শেষ হলেও লাইনে অনেক লোক থাকার কারণে কোথাও কোথাও ভোট শেষ হতে রাত ১০টা বেজে যায়। সেক্ষেত্রে আমি কীভাবে যাব? একদিকে ঘূর্ণিঝড় রেমাল, ত্রাণ শিবির, অন্যদিকে নির্বাচন- সব কিছুই করতে হবে। কিন্তু আমার প্রথম অগ্রাধিকার ত্রাণ শিবির। ওদের দেখা, ওদেরকে ঘর বানিয়ে দেওয়া, ওদের পাশে দাঁড়ানো, সহায়তা করা। আমি এখন হয়তো নির্বাচনী প্রচারণা করছি, কিন্তু আমার মন পড়ে রয়েছে ত্রাণ শিবিরের দিকে। 

উল্লেখ্য, ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি সরকারকে রাজনৈতিকভাবে ক্ষমতাচ্যুত করতে বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে এক ছাতার তলায় আনতে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিলেন মমতা। বিরোধীদলের জোট 'ইন্ডিয়া'র নামকরণ মমতারই মস্তিষ্ক প্রস্তুত। প্রায় ২৮টি দলের অন্তর্ভুক্তি রয়েছে এই জোটে। 


দিল্লি   ইন্ডিয়া জোট   বৈঠক   মমতা  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

উত্তর কোরিয়াকে থামাতে চায় চীন-জাপান-দ. কোরিয়া

প্রকাশ: ০৮:৪৯ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

৫ বছরে প্রথমবারের মতো ত্রিপক্ষীয় শীর্ষ সম্মেলনে বসেছে চীন, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া। দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে মিলিত হন ৩ রাষ্ট্রপ্রধান। উত্তর কোরিয়া মহাকাশে আরেকটি স্যাটেলাইট স্থাপনের ঘোষণা দেওয়ার পর এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো। 

সোমবার (২৭ মে)সম্মেলনের পর প্রকাশিত একটি যৌথ বিবৃতি বলা হয়, সম্মেলনে নিরাপত্তার বিষয়ে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এসময় তিনটি দেশই আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা, কোরীয় উপদ্বীপের পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে নিজেদের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেছে।

তিন রাষ্ট্রপ্রধানের বক্তব্য, উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ ও কোরীয় উপদ্বীপে স্থিতিশীলতা বজায় রাখা তাদের সাধারণ স্বার্থ ও দায়িত্বের অংংশ।

নাম উল্লেখ না করে সব পক্ষকে উত্তেজনা কমানোর আহ্বান জানিয়েছেন চীনা প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াং। উত্তর কোরিয়াকে দ্বিতীয় স্পাই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের পরিকল্পনা বাতিলের আহ্বান জানিয়েছেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইউন সুক-ইওল ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট তার উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তি ব্যবহার করে যে কোনো উৎক্ষেপণ সরাসরি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের রেজুলেশন লঙ্ঘন। এমন কর্মকাণ্ড আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক শান্তি, স্থিতিশীলতাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।

এদিকে, কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের পরিকল্পনায় একমত হওয়া দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও চীনের নিন্দা করেছে উত্তর কোরিয়া। তিন দেশের যৌথ এই ঘোষণাকে ভয়াবহ রাজনৈতিক উসকানি ও সার্বভৌমত্বের লঙ্ঘন বলে দাবি করেছে কিম জং উন প্রশাসন।


উত্তর কোরিয়া   চীন   জাপান   দ. কোরিয়া  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

রেমালের আঘাতে পশ্চিমবঙ্গে নিহত ২

প্রকাশ: ০৮:৪১ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

ঘূর্ণিঝড় রেমালের আঘাতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে এ পর্যন্ত ২ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া ঝড়ের জেরে রাজ্যের উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেও জানা গেছে। 

নিহতদের মধ্যে একজন ব্যাপক ঝড়-বৃষ্টিতে সোমবার ভোরের দিকে বাড়ির দেওয়াল ধসে নিহত হয়েছেন। অপরজন পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার নামখানা উপজেলাভুক্ত মৌসুনি নামের একটি দ্বীপগ্রামের বাসিন্দা বয়স্ক নারী। পশ্চিমবঙ্গের সুন্দরবন এলাকার দিকে পড়েছে এই দ্বীপটি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, গাছ উপড়ে কুঁড়েঘরের ওপর পড়ায় নিহত হয়েছেন তিনি।

রোববার সন্ধ্যার দিকে ঘণ্টায় ১৩৫ কিলোমিটার গতি নিয়ে বাংলাদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গের উপকূলে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। সোমবার বাতাসের গতিবেগ কমে এলেও পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ভারী বর্ষণ হচ্ছে।

ঝড় ও ভারী বর্ষণে উপকূলীয় এলাকাগুলোতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির খবরও পাওয়া গেছে। উপকূলীয় বিভিন্ন এলাকা এবং কলকাতার শহরের দরিদ্র লোকজনের অনেকেরই ঘরের ছাদ উড়ে গেছে, দেয়াল ধসে গেছে। বড় বড় গাজ উপড়ে কিংবা ডালপালা ভেঙে কলকাতার অনেক সড়ক বন্ধ হয়েছে। কলকাতা এবং কলকাতা সংলগ্ন অধিকাং এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহও বন্ধ রয়েছে দীর্ঘ সময় ধরে।

বঙ্গোপসাগরের মধ্যাঞ্চলের নিম্নচাপ থেকে শনিবার উদ্ভুত হওয়ার পর রোববার বাংলাদেশের খেপুপাড়া এবং পশ্চিমবঙ্গের সাগর দ্বীপে রোববার আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় রেমাল। এই আছড়ে পড়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল রোববার রাত ৮ টা ৩০ থেকে এবং অন্তত চার ঘণ্টা স্থায়ী ছিল এই প্রক্রিয়া।

ভারতের কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দপ্তর আইএমডি জানিয়েছে, টানা কয়েক ঘণ্টা তাণ্ডব চালানোর পর সোমবার ভোর ৫ টা ৩০ মিনিটের পর থেকে শক্তি হারাতে শুরু করে রেমাল। বর্তমানে এটি পরিণত হয়েছে সাধারণ মৌসুমী ঝড়ে।


রেমাল   পশ্চিমবঙ্গ   নিহত  


মন্তব্য করুন


ওয়ার্ল্ড ইনসাইড

গাজায় নিহতের সংখ্যা ৩৬ হাজার ছাড়ালো

প্রকাশ: ০৮:৩০ পিএম, ২৭ মে, ২০২৪


Thumbnail

সাত মাসেরও বেশি সময় ধরে ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের সামরিক অভিযানে নিহতের সংখ্যা ৩৬ হাজার ছাড়িয়েছে। 

রোববার (২৬ মে) গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২৪ ঘণ্টায় ৬৬টি সংঘর্ষ হয়েছ ও মোট নিহতের সংখ্যা ৩৬ হাজার ৫০ জনে পৌঁছেছে। তাছা যুদ্ধ শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ৮১ হাজার ২৬ জন গাজাবাসী আহত হয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে হামাসের কর্মকর্তা ওসমান হামদান বলেছেন, ইসরায়েলের সঙ্গে আলোচনার কোনো প্রয়োজন নেই। কারণ এ ধরনের আলোচানার কারণে দখলদার বাহিনী আগ্রাসন চালানোর জন্য আরও বেশি সময় পাচ্ছে।

এদিকে বিশ্বজুড়েই ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ছড়িয়ে পড়েছে ক্ষোভ। কারণ আন্তর্জাতিক আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে অব্যাহতভাবে নিরীহ ফিলিস্তিনিদের ওপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েলি বাহিনী।

এর আগে, আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের আদেশকে নৈতিকভাবে অগ্রহণযোগ্য, জঘন্য ও বিরক্তিকর বলে অভিহিত করেছে ইসরায়েল। তাছাড়া দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যে গণহত্যা চালানোর অভিযোগ করা হয়েছে তাও মিথ্যা বলে জানানো হয়েছে।


গাজা   নিহত  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন